মুখতাছার কিতাবুত তাওহীদ Ibn Khuzaymah

মুখতাছার কিতাবুত তাওহীদ

হাদীস: মুখতাসার কিতাবুত তাওহীদ ও মহামহীন রবের গুণাবলীর সাব্যস্ত করণ
লেখক: আবু বকর মোহাম্মদ ইবনে ইসহাক ইবনে খুযাইমা
সংক্ষেপ: আবু মালেক আহমদ ইবনে আলী ইবনুল মুসান্নাফ আর ইয়াসিন অনুবাদ আব্দুল্লাহ আল মামুন
সম্পাদনা: শায়খ আব্দুল্লাহ শাহেদ আল মাদানী
সম্পূর্ণ নামঃ আবু বকর মুহাম্মাদ ইবনে ইসহাক ইবনে খুজাইমাহ
জন্মস্থানঃ নিসাপুর
জন্মঃ ২২৩ হিজরি
মৃত্যুঃ ৩১১ হিজরি
প্রকাসনিঃ মাকতাবাতুস সুন্নাহ

ⓕ ফেসবুক পেজ/ 🛒/ ফোন করে বই অর্ডার করুন নিম্নের টেবিলে এবং ফ্রিতে পড়ুন

Bangla: সহীহ ইবনে খুজাইমাহ বাংলায় পড়ুন এবং Google Drive: Download করুন

মুখতাছার কিতাবুত তাওহীদ সুচিপত্র

এক আল্লাহর নাফসের আলোচনা তিনি মাখলুকের নাফসের ন্যায় নফ থাকা থেকে উর্ধ্বে এবং তার কোনো নফস না থাকা থেকেও তিনি পবিত্র

দুই নবী সাঃ এর হাদিস থেকে আল্লাহ তালার সিফাত নফস সাব্যস্ত করণ

তিন আল্লাহতালার সিফাত সাব্যস্ত করণ

চায় আল্লাহ তায়ালার চেহারা সিফাত সাব্যস্ত করণ

পাঁচ নবী মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের হাদিস থেকে

ছয় আমাদের রব আল্লাহ তায়ালার আকৃতি এবং তাঁর চেহারা আলো সিফাতে বর্ণনা

সাত নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে বর্ণিত এমন হাদীসসমূহের বর্ণনা যেখানে আল্লাহ চেহারা এবং আকার সিফাত সাব্যস্ত হয়েছে আর সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ তা’আলা তাঁর সুস্পষ্ট কিতাব এবং তার নবী মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর ভাষাতে যেভাবে বর্ণনা করেছেন তার ভিত্তিতে আল্লাহ তায়ালা চোখ সাব্যস্ত কর

নয়  আল্লাহ তাআলার কিতাব ও তার নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সুন্নাহ হতে আল্লাহ শ্রবণ দর্শন ও প্রত্যক্ষ করান সিফাতের বর্ণনা

১০ ইতিপূর্বে আমাদের মাঝে তার সমর্থ্য সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ও দর্শন সাব্যস্ত হওয়ার দলিলের বর্ণনা আমাদের রব ও সৃষ্টিকর্তার সিফাত সাব্যস্ত হওয়ার দলিলের বর্ণনা তিনি আমাদেরকে জানিয়েছেন তার সুস্পষ্ট কিতাবে যে তিনি আদমকে সৃষ্টি করেছেন তার দুই হাতে বারবার  আল্লাহ তাআলার কিতাব ও তার নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সুন্নাহ হতে আল্লাহ শ্রবণ দর্শন ও প্রত্যক্ষ করান সিফাতের বর্ণনা

১০ ইতিপূর্বে আমাদের মাঝে তার সমর্থ্য সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ও দর্শন সাব্যস্ত হওয়ার দলিলের বর্ণনা আমাদের রব ও সৃষ্টিকর্তার সিফাত সাব্যস্ত হওয়ার দলিলের বর্ণনা তিনি আমাদেরকে জানিয়েছেন তার সুস্পষ্ট কিতাবে যে তিনি আদমকে সৃষ্টি করেছেন তার দুই হাতে বারবার এবার ইতিপূর্বে আমাদের রবের কিতাব হতে যা পাঠ করেছি তার সমর্থনের নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সুন্নত হতে আল্লাহর সিফাত ও হাত সাব্যস্ত হওয়া

১৩ আদম আলাইহিস সাল্লাম সৃষ্টির সিফাতে বর্ণনা এ মর্মে যে আল্লাহ তাকে দুই হাত দিয়ে তৈরি করেছেন তার নিয়ামত দাঁড়ান নয় যে কথার উপর জামাকিয়া বিশ্বাস করে

১৪ আল্লাহর হাত সূর্য আল্লাহ তাআলার কিতাব ও তার নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সুন্নাহ হতে আল্লাহ শ্রবণ দর্শন ও প্রত্যক্ষ করান সিফাতের বর্ণনা ১০ ইতিপূর্বে আমাদের মাঝে তার সমর্থ্য সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ও দর্শন সাব্যস্ত হওয়ার দলিলের বর্ণনা আমাদের রব ও সৃষ্টিকর্তার সিফাত সাব্যস্ত হওয়ার দলিলের বর্ণনা তিনি আমাদেরকে জানিয়েছেন তার সুস্পষ্ট কিতাবে যে তিনি আদমকে সৃষ্টি করেছেন তার দুই হাতে বারবার এবার ইতিপূর্বে আমাদের রবের কিতাব হতে যা পাঠ ১৫ আমারে সৃষ্টিকর্তার দুটি হাত রয়েছে তার উপায় হাত ডান হাত

১৬ আল্লাহ তায়ালার মর্যাদা প্রকাশ যখন তিনি তার দুই হাত এক হাতে জমিন মুষ্টিবদ্ধ ও অপর হাতে আসমানকে ভাগ করে রাখবেন

১৭ আল্লাহতালা কিয়ামতের দিন জমিনকে পরিবর্তন করে হাতের মধ্যে মুষ্টিবদ্ধ করবেন

18 আল্লাহ তায়ালার দুই হাত প্রশস্ত করেন রাতে অপরাধীদের জন্য যেন রাতের অপরাধী দিনে তওবা করে নেয় এবং দ্বীনের অপরাধের জন্য যেন সে রাতে তওবা করে যা কিছু আছে

19 আসমান জমিন এবং এর উপরে যা আছে আল্লাহতালা কর্তিক তার আঙ্গুলের উপর ধারণা করা সংক্রান্ত আলোচনা

২০ মহাপশালী ও সম্মানিত আল্লাহর আঙ্গুল সিফাতের বর্ণনা

২১ মহা প্রতাপশালী ও সম্মানিত আল্লাহতালা বাই আমাদের সৃষ্টিকর্তা সর্বোচ্চ মর্যাদাবান যিনি যা ইচ্ছা করেন তাই করেন

২২ আমাদের সৃষ্টিকর্তা সর্বোচ্চ মর্যাদাবান যিনি যা ইচ্ছা করেন তাই করেন তার আসরের উপরে ওঠার বর্ণনা ২৩ আল্লাহ তায়ালা আসমানে রয়েছেন ২৪ আল্লাহ তায়ালা সকল সৃষ্টির উপরে এবং তিনি আসমানী রয়েছেন ২৫ এ ব্যাপারে স্বীকৃতি দেওয়ার ইমানের অংশ

২৩ আল্লাহ তায়ালা আসমানে রয়েছেন

২৪ আল্লাহ তায়ালার সকল সৃষ্টির উপরে এবং তিনি আসমান রয়েছেন

25 আল্লাহতালা সুন্দর হয়েছেন এ ব্যাপারে স্বীকৃতি দেওয়া ঈমানের অঙ্গ

২৬ আল্লাহতালা প্রত্যেক রাতে দুনিয়ার আসমানের নেমে আসার সংক্রান্ত হাদিসের বর্ণনা

২৭ আল্লাহর কালীমূষা আলাই সাল্লাম এর সাথে তার কথা বলার বর্ণনা

28 আল্লাহ তায়ালা সাথে কথা বলেছেন

২৯ সম্মানিত ও প্রতাপশালী আল্লাহ কর্তৃক কথা বলার সিফাত এবং এক কথা বলো না যে আমাদের রবের কালাম মখলুকের কালাম এর সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ নয়

ত্রিশ নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর উপরে ওহি নাজিল হওয়ার সিফাত এবং তিনি কখনো কখনো শব্দ হিসেবে শুনতে পেতেন

৩১ অচিরেই কেয়ামতের দিন তোমাদের প্রত্যেক ব্যক্তির সাথে আল্লাহ কথা বলবেন আর সেদিন আল্লাহ ও বান্দাদের মাঝে কোন ভাষ্যকার থাকবে না

৩২ আল্লাহতালা তার বাংলাদেশ এর সাথে যে কথা বলবেন তার কতিপয় বর্ণনা

৩৩ নিশ্চয়ই আল্লাহতালা কাফের ও মুনাফিকদের সাথে স্বীকৃতি আদর জন্য এবং তাদেরকে তিরস্কার করার জন্য কথা বলবেন এ কথা সন্তোষজনক ব্যাখ্যা

৩৪ বরকতময় নামসহ ও সমন্বিত মর্যাদার অধিকারী আল্লাহ তায়ালার কথা বলা এমন মুমিনের সাথে যার পাপ সম্পর্কে আল্লাহতালা দুনিয়াতে গোপন রেখেছেন আর আখিরাত ও তাকে ক্ষমা করে দিতে চান

৩৫ আল্লাহতালা তার নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের উপর কিতাব ও নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সুন্নত হতে আল্লাহর এমন বাণী যা দ্বারা সৃষ্টি অস্তিত্বশীল হয় এবং তার ওই সৃষ্টি দান করেন

৩৬ আল্লাহর নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সুন্নত হতে আল্লাহর কালাম ও তার সৃষ্টির মধ্যকার বিদ্যবান পার্থক্য সম্পর্কে

37 কেয়ামতের দিন সকল মুমিনদের মধ্য হতে পাপী ও সৎকর্মশীল সকলকে আল্লাহতালার দিকে বৃষ্টিপাত করবে

৩৮ কিয়ামতের দিন সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সকল কর্মশীল মুমিন মুনাফিক সকলে এবং আল্লাহকে দেখবে

৩৯ কিয়ামতের দিনে আল্লাহকে দেখা যায় যার দ্বারা তিনি তার আউলিয়াদেরকে বিশ্বাসিত করবেন

চল্লিশ নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম কর ঠিক তার মহাজ্ঞানী প্রোগ্রামশালে সৃষ্টিকর্তা দুনিয়াতে যখন থাকতে দেখে সংক্রান্ত ৫৩ গনিত হাদিস সমূহ বর্ণনা

৪১ নবি সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর মৃত্যু এসে যাওয়ার আগে আল্লাহকে তিনি দেখেছেন এ সংক্রান্ত বিষয়ে আল্লাহতালা আনহা তার হতে অশিক্ষিত মুলক বর্ণিত হাদিস সময়ে বর্ণনা অনুরূপ ধরন নির্ধারণ করার ব্যতীত কে আল্লাহতালার হাসি সিফাতের বর্ণনা

৪২ কোনরূপ ধরার নির্ধারণ করা ব্যতীত কে আল্লাহ তায়ালার হাসি ও সিফাতে বর্ণনা

৪৩ আল্লাহকে দেখার ব্যাপারে আরো যা বর্ণিত হয়েছে চুয়াল্লিস সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম

৪৪ নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কর্তৃক তার উম্মতের শাফায়াতের পর্যায়ের সঙ্গে বর্ণনা

৪৫ নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম কর্তৃক তার উম্মতের জন্য কৃত সাফাইতে বর্ণনা যার মাধ্যমে সমস্ত নবী আলাইহিস সাল্লাম এবং অন্যান্য সকল মুমিনদের মধ্যে তাকে বিশেষায়িত

৪৬ আমরা যে সাফাতে বর্ণনা দিয়েছি সে শাফায়াতটি হচ্ছে নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর যে সাফাতটি সকল সৃষ্টির মধ্যে ফয়সালা শুরু করার জন্য করবেন এ কথা দলিল

৪৭ আমরা যে সাফায়েদের বর্ণনা দিয়েছি এটা হচ্ছে শাফায়াত সমূহের মধ্যে প্রথম শাফায়াত আর নিশ্চয়ই এটা সংঘটিত হবে ওই সময়ে যখন জান্নাত থেকে নিকটবর্তী করে দেওয়া হবে এবং লোকেরা অতিক্রম করার আগেই

আটচল্লিশ নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর জন্য কিয়ামতের দিন একই অবস্থান থেকে একাধিক শাফায়াতের অধিকার থাকবে আর তাদের একটি আরেকটির পর হবে

49 নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর কিয়ামতের দিন সর্বপ্রথম শাফায়াতকারী হবেন এবং তার সাফায়েতের সর্বপ্রথম দিতে হবে

৫০ উম্মতের জন্য নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর অত্যাধিক কোমলতা দয়া ও অনুগ্রহ থাকা এবং অন্যান্য নবী আলাইহিস সাল্লামদের তাদের ক্ষমতা বেশি হওয়ার প্রসঙ্গে

`একান্ন প্রত্যেক নবীর জন্য একটি করে দোয়া থাকে আর সবাই সে দোয়া করে ফেলেছে

৫২ আল্লাহতালা কর্তৃক মোহাম্মদ সাঃ কে তার অর্ধেক উম্মতকে জান্নাতে প্রবেশ করানো অথবা শাফায়াতের মাধ্যমে ইস্তিয়ার প্রদান করা প্রসঙ্গে

53 ঠিকভাবে সাঃ হতে একটি বিশেষ বর্ণনা

54 কবিরা গুনা বলতে নবী সাঃ এখানে শিরক ছাড়া অন্যান্য গুনাহকে উদ্দেশ্য করেছেন এ কথা দলিলের বর্ণনা

৫৪ কবিতা গুলো বলতে নবী সাঃ এখানে শিরক ছাড়া অন্যান্য গুনাহ কে উদ্দেশ্য করেছেন এ কথার দলিলের বর্ণনা

৫৫ নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর শাফায়াত হবে এমন তৌহিদ পন্থীদের ব্যাপারে যারা গুনাহ ও ত্রুটি বিচ্যুতিতে লিপ্ত থাকায় তাদেরকে জাহান্নামে প্রবেশ করানো হবে

৫৬ শাফায়াতের এর মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালা যাদেরকে জাহান্নাম হতে বের করার ফয়সালা করবেন

৫৭ উক্ত হাদিস সময়ে যাদের জার্নাল হতে বের করে জান্নাতে প্রবেশ করার কথা আলোচিত হয়েছে তারা মূলত শাফায়াতের কারণে জান্নাতে প্রবেশ করবে

৫৮ আল্লাহ তায়ালা জাহান্নামের উপর তাওহীদপন্থীদের সিজদার স্থানসমূহ এবং তাদের আকৃতিতে কাজ করা হারাম করে দিয়েছেন এ কথা দলিল

59 পন্থীদের মধ্যে আল্লাহ তায়ালা যাদেরকে জাহান্নাম হতে বের করার ফয়সাল করবেন তারা চিরস্থায়ী জাহান্নামে নয়

60 আল্লাহ তায়ালা সারা সত্য কোন ইলাহ নেই এ কথার সাক্ষ্যদানকারীকে আল্লাহ তায়ালা জাহান্নাম থেকে বের করবেন

৬১ নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম তখন পন্থীদের ব্যাপারে মৌখিকভাবে সাক্ষ্যদানকারী প্রত্যেক ব্যক্তির জন্য শাফায়েত করবেন যখন সে ইখলাস সহকারে এবং অন্তরের বিশেষত্ব পাঠ করবে এ সংক্রান্ত বর্ণনা

৬২ আল্লাহ ছাড়া সত্য কোন ইলাহনে এ কথাকে অন্তরে বিশ্বাসের সাথে সাক্ষ্যদানকারীকে জাহান্নাম থেকে বের করে নেয়া হবে

৬৩ নিশ্চয়ই জাহান্নাম থেকে বের হবে যার অন্তরে দুনিয়ার থাকতে ঈমান ছিল তারা ব্যতীত যাদের অন্তরে দুনিয়া থাকা অবস্থায় ঈমান ছিল না তাদের মধ্য হতে যারা তাদের কথা স্বীকার করত তাদের অন্তরে ঈমান শূন্য থাকা অবস্থায় ও তার অন্তর্ভুক্ত এর সংক্রান্ত বর্ননা

৬৪ জেলার দাঁড়িয়ে নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সালাম তার উম্মতের জন্য সাফাৎ করবেন উক্ত স্থান হচ্ছে মাকামে মাহমুদ বা প্রশংসিত স্থান

৬৫ যার নাম হতে নবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম প্রত্যেকন্তিদেরকে বের করার শাফায়াত ভাষণকে

66 সরস্বতী কেয়ামতের দিনে শাফায়াতের ক্ষেত্রে সিদ্দিকীগণ নবী সাঃ এর অনুগামী হবেন এরপর সকল নবীগণ ও সালাতু ওয়া সাল্লাম সিদ্দিকগণ হবেন তারপর সকল নবী গণের সংখণ্ড বর্ণনা

৬৭ এই উম্মতের জন্য একজন ব্যক্তির শাফায়াতকৃত ব্যক্তিদের অদৃক্ষ ও ইতিপূর্বে আমি যা বর্ণনা করেছি তথা নবীগঞ্জ সাল্লাম ছাড়া অনেকে কেয়ামতের দিন শাফায়েত করবেন এ কথা বিশুদ্ধতা দলিলে বর্ণনা

৬৮ সবশেষে জাহান্নাম থেকে বের হয়ে জান্নাতে প্রবেশকারী ব্যক্তিকে রাজ ত্ব ও নেয়ামতের মর্যাদা প্রদান করবেন তার বর্ণনা

69 ছাড়া জাহান্নাম থেকে সর্বশেষ ব্যক্তি যে বুকের উপর ভর করে তার বর্ণনা

৭০ যার নামের আগুন পানিতে শরীর কেউ গ্রাস করবে এবং তারা যে সমস্ত গুনাহ ত্রুটি ও বিচ্যুতি দুনিয়াতে থাকতে করেছিল তার পরিমাণ এর উপর ভিত্তি করে সেখানে নিক্ষিপ্তভাবে এ সংক্রান্ত বর্ণনা

71 এমন হাদিসি মজার অর্থের ব্যাপারে মুতাজিলা ও খারেজিরা অজ্ঞাত হওয়ায় তারা এগুলো তারা দলিল পেশ করে থাকে এবং দাবি করে যে কবিরা গুনাহে লিপ্ত থাকা চিরস্থায়ী জাহান্নামে থাকবে যারা আর মর্জা ফেরকা হচ্ছে যারা এ হাদিসগুলোকে অস্বীকার ও অপেক্ষা করে থাকে আর এ অর্থসুমকে এড়িয়ে যায় এ সংখ্যাকে বর্ণনা

৭২এম১ হাদিস সময় বর্ণনা যে ব্যাপারে অনেক অজ্ঞ মানুষ ধারণা করে থাকে যে তারা মূলত ইতিপূর্বে যে হাদিসগুলো পেশ করেছে তার বিপরীত

৭৩ তাদের উপরে জান্নাত হারাম হবে যারা কতিপয় এমন গুনাহে লিপ্ত যেগুলো ঈমান হতে খারিজ করে দেয় না

৭৪ আর তিনি তোমাদেরকে জীবিত করেছেন এরপর তোমাদেরকে মৃত্যু দান করবেন তারপর আবার তোমাদেরকে জীবিত করবেন

৭৫ আসমান সৃষ্টির আগে আল্লাহ তায়ালার আরশেষ্ঠ সম্পর্কে আলোচনা

76 এই কেতাবে আমরা ইতিপূর্বে যা উল্লেখ করেছি তার সাথে বৈশিষ্ট্য শীর্ষক সংযুক্ত (শেষ)

মুখতাছার কিতাবুত তাওহীদ ক্রয় বিক্রয়

প্রকাশনীমুল্য
মাকতাবাতুস সুন্নাহ ৩৩৫
এখানে অর্ডার করুনঃ ⓕ পেমেন্টঃ বিকাশ-01817043086/ রকেট-017702698265.

মাকতাবাতুস সুন্নাহঃ Title মুখতাছার কিতাবুত তাওহীদ, Author ইমাম ইবনে খুযাইমা, Edition 1st Published, 2022, Number of Pages 400, Country বাংলাদেশ, Language বাংলা

বইটির PDF/ মুল কপি পেতে হলে নিচে Comment/ কমেন্ট এর মাধ্যমে আমাদেরকে জানান, তাহলে আমরা আপনাদেরকে পাঠিয়ে দিতে পারব। ইনশাআল্লাহ।

2 comments

Leave a Reply