ধীর-স্থীর ও বিশ্বস্ততার সাথে হাদীস বর্ননা করা …

ধীর-স্থীর ও বিশ্বস্ততার সাথে হাদীস বর্ননা করা

ধীর-স্থীর ও বিশ্বস্ততার সাথে হাদীস বর্ননা করা >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১৬. অধ্যায়ঃ ধীর-স্থীর ও বিশ্বস্ততার সাথে হাদীস বর্ননা করা এবং ইল্‌মে হাদীস লিপিবদ্ধ করা

৭৩৯৯ উরওয়াহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, একদিন আবু হুরায়রা্ [রাদি.] হাদীস বর্ণনা করিতে গিয়ে বলছিলেন, হে হুজ্রাহ্ বাসিনী, হে হুজ্রাহ্ বাসিনী! শুনো। তখন আয়িশা [রাদি.] নামাজ আদায় করছিলেন। নামাজ আদায়ন্তে তিনি উরওয়াহ্ [রাদি.]-কে বলিলেন, এ-কি বলছে, তুমি তা শুনতে পেয়েছ কি? অথচ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এমনভাবে কথা বলিতেন, যদি কোন গণনাকারী গণনা করিতে ইচ্ছা করত তবে সে গুণতে পারত।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭২৩৭, ইসলামিক সেন্টার- ৭২৯১]

৭৪০০ আবু সাঈদ আল খুদ্রী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেন, আমার মুখনিঃসৃত বাণী [হাদীস] তোমরা লিপিবদ্ধ করো না। কুরআন ছাড়া কেউ যদি আমার কথা লিপিবদ্ধ করে থাকে তবে যেন সেটা যেন মিটিয়ে ফেলে। আমার হাদীস বর্ণনা করো, এতে কোন অসুবিধা নেই। যে লোক আমার উপর মিথ্যারোপ করে- হাম্মাম [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, আমার ধারণা হয় তিনি বলেছেন, ইচ্ছাকৃতভাবে; তবে সে যেন জাহান্নামে তার বাসস্থান নির্ধারণ করে নেয়

।[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭২৩৮, ইসলামিক সেন্টার- ৭২৯২]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply