কাসামাহ খুনের ব্যাপারে হলফ করা

কাসামাহ খুনের ব্যাপারে হলফ করা

কাসামাহ খুনের ব্যাপারে হলফ করা >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১. অধ্যায়ঃ কাসামাহ খুনের ব্যাপারে হলফ করা

৪২৩৪

ইয়াহইয়া এবং রাফি ইবনি খাদীজ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তাঁরা উভয়েই বলেছেন, আবদুল্লাহ ইবনি সাহল ইবনি যায়দ [রাদি.] ও মুহাইয়্যিসাহ ইবনি মাসঊদ বাড়ি থেকে বের হয়ে খাইবার পর্যন্ত এলেন। এরপর সেখান থেকে উভয়েই আলাদা হয়ে গেলেন। তারপর মুহাইয়্যিসাহ্ [রাদি.] আবদুল্লাহ্ ইবনি সাহলকে একস্থানে খুন হওয়া অবস্থায় পেলেন। তখন তিনি তাঁকে দাফন করিলেন। এরপর তিনি এবং হুওয়াইয়িসাহ ইবনি মাসঊদ [রাদি.] ও আবদুর রহমান ইবনি সাহল [রাদি.] রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর নিকট আগমন করিলেন। আর তিনি ছিলেন দলের সর্বকনিষ্ঠ ব্যক্তি। আবদুর রহমান [রাদি.] তাহাঁর উভয় সাথীর আগে কথা বলার জন্য এগিয়ে এলেন। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাকে বলিলেন, তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি বয়সে বড় সে কথা বলার জন্য সামনে এসো। সুতরাং তিনি চুপ করে গেলেন এবং তার সাথী দুজন কথা বলিলেন। আর তিনি তাদের দুজনের সাথে কথা বলিলেন। তারা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আবদুল্লাহ বিন সাহলের [হত্যা ও] হত্যাস্থান বিষয়ে কথা বলিলেন তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাদেরকে বললেনঃতোমরা কি এ ব্যাপারে পঞ্চাশবার হলফ [শপথ] করিতে পারবে [যে হত্যাকারী পার্শ্ববর্তী ইয়াহূদী সম্প্রদায়] তাহলে নিহত ব্যাক্তির কিসাস বা দিয়াত প্রাপ্তির ব্যাপারে হকদার হইবে। প্রতি উত্তরে তারা বলিল, আমরা কিভাবে এ ব্যাপারে হলফ [শপথ] করবো? আমরা তো সেখানে উপস্থিত ছিলাম না। নবী [সাঃআঃ] বললেনঃতাহলে ইয়াহূদীরা পঞ্চাশবার হলফ করে তোমাদের দাবী নাকচ করে দিবে। তারা তখন বলিল, আমরা কিভাবে কাফির সম্প্রদায়ের হলফ গ্রহণ করে নেব? রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] যখন ঐ অবস্থা অবলোকন করিলেন, তখন তার দিয়্যাত দিয়ে দিলেন [নিজের থেকে]।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪১৯৫, ইসলামিক সেন্টার- ৪১৯৫]

৪২৩৫

সাহল ইবনি আবু হাসমাহ এবং রাফি ইবনি খাদীজ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

একদা মুহাইয়িসাহ ইবনি মাসঊদ ও আবদুল্লাহ ইবনি সাহল [রাদি.] উভয়েই খাইবারের দিকে গমন করিলেন। তারা সেখানের এক খেজুরের বাগানের নিকট থেকে পৃথক হয়ে গেলেন। এরপর আবদুল্লাহ ইবনি সাহল [রাদি.] তথায় নিহত হলেন। [এই খুনের জন্য] তারা ইয়াহূদী সম্প্রদায়কে অভিযুক্ত করিলেন। এরপর তাহাঁর ভাই আবদুর রহমান এবং চাচাত ভাই হুওয়াইয়্যিসাহ ও মুহাইয়্যিসাহ্ [রাদি.], নবী [সাঃআঃ]- এর কাছে আগমন করিলেন। আবদুর রহমান [রাদি.] তাহাঁর ভাই এর ব্যাপারে কথোপকথন করিলেন। আর তিনি ছিলেন তাঁদের মধ্যে সবচেয়ে ছোট। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃবয়োজ্যেষ্ঠকে সম্মান দাও। অথবা বলিলেন, বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তিরই কথা আরম্ভ করা উচিত। তখন তাঁরা দুজন সাথীদের ব্যাপারে কথাবার্তা বলিলেন। এরপর রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃতাদের কোন ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করে তোমাদের মধ্য থেকে কাউকে পঞ্চাশবার হলফ করে বলিতে হইবে, তাহলে তার দিয়্যাত প্রদান করা হইবে। তখন তারা বলিল, ব্যাপারটি এমন যে, আমরা তথায় তখন উপস্থিত ছিলাম না। এমতাবস্থায় আমরা কিভাবে হলফ করে বলবো? তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃতবে ইয়াহূদীদের মধ্য থেকে কেউ পঞ্চাশবার হলফ করে তোমাদের খুনের দাবী নাকচ করে দেবে। তাঁরা বলিল, হে আল্লাহর রসূল! তারা তো কাফির সম্প্রদায়। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিজের পক্ষ হইতে তাহাঁর “দিয়্যাত” আদায় করে দিলেন।

সাহল [রাদি.] বরেন, এরপর একদা আমি তাদের উট রাখার স্থানে প্রবেশ করলাম। তখন ঐ উটের মধ্য হইতে একটি উটনী আমাকে তার পা দ্বারা লাথি মারল। হাম্মাদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এই হাদীসটি বর্ণনা করিয়াছেন- অথবা এর অনুরূপ বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪১৯৬, ইসলামিক সেন্টার- ৪১৯৬]

৪২৩৬

সাহল ইবনি আবু হাসমা [রাদি.] সূত্রে নবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণীতঃ

অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। আর তিনি আরবী [তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিজের পক্ষ হইতে তাহাঁর “দিয়্যাত” আদায় করে দেন] এ কথা বলেছেন। কিন্তু তাহাঁর বর্ণিত হাদীসে আরবী [উটনী আমাকে লাথি মারল] এ কথা বলেননি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪১৯৭, ইসলামিক সেন্টার- ৪১৯৭]

৪২৩৭

সাহল ইবনি আবু হাসমাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

সাহল ইবনি আবু হাসমাহ্ [রাদি.] থেকে তাঁদের অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪১৯৮ ,ইসলামিক সেন্টার- ৪১৯৮]

৪২৩৮

বুশায়র ইবনি ইয়াসার [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

বানূ হারিসাহ্‌ গোত্রের আবদুল্লাহ ইবনি সাহল ইবনি যায়দ আনসারী ও মুহাইয়্যিসাহ্‌ ইবনি মাসঊদ ইবনি যায়দ আনসারী [রাদি.] রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সময়ে খাইবার গমন করেন। সেখানকার অধিবাসী ছিল ইয়াহূদী সম্প্রদায়। তখন ইয়াহূদী ও মুসলিমদের মধ্যে চুক্তি বলবৎ ছিল। কোন প্রয়োজনের তাগিদে তখন সেখান থেকে উভয়েই পৃথক হয়ে গেলেন। এরপর আবদুল্লাহ ইবনি সাহল [রাদি.] নিহত হলেন। তাঁকে এক হাউজের মধ্যে নিহত অবস্থায় পাওয়া গেল। তখন তাহাঁর সাথী তাঁকে দাফন করিলেন। এরপর তিনি মাদীনায় ফিরে এলেন। নিহত ব্যক্তির ভাই আবদুর রহমান ইবনি সাহল, মুহাইয়্যিসাহ্‌ ও হুওয়াইয়্যিসাহ্‌ [রাদি.] এসে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কাছে আবদুল্লাহ [রাদি.]-এর মৃত্যুর ঘটনা এবং যে স্থানে নিহত হলেন সবই বর্ণনা করিলেন। বুশায়র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] ধারণা করিয়াছেন যে, তিনি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সাহাবী থেকে হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন, রসূল [সাঃআঃ] তাদেরকে বললেনঃ তোমরা এ ব্যাপারে পঞ্চাশবার হলফ করে বলবে, তাহলে তোমরা তোমাদের নিহত ব্যক্তির অথবা তোমাদের সাথীর দিয়্যাতের [খুনের জরিমানা] হকদার হইবে। তারা বললো, হে আল্লাহর রসূল! আমরা তো তখন সেখানে প্রত্যক্ষ দেখিনি এবং উপস্থিতও ছিলাম না। তিনি ধারণা করছেন যে, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ইয়াহূদীরা পঞ্চাশবার এ ব্যাপারে হলফ করে তোমাদের খুনের দাবী নাকচ করে দেবে। তখন তাঁরা বলিলেন, হে আল্লাহর রসূল! আমরা কিভাবে একটি কাফির সম্প্রদায়ের হলফ গ্রহণ করিতে পারি? বুশায়র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাহাঁর নিজের পক্ষ হইতে তার দিয়্যাত আদায় করে দিয়েছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪১৯৯ , ইসলামিক সেন্টার- ৪১৯৯]

৪২৩৯

বুশায়র ইবনি ইয়াসার [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

বানূ হারিসাহ্ গোত্রের এক আনসারী ব্যক্তি যাকে আবদুল্লাহ ইবনি সাহল ইবনি যায়দ নামে ডাকা হতো, সে এবং তার এক চাচাতো ভাই, যাকে মুহাইয়্যিসাহ্ ইবনি মাসঊদ ইবনি যায়দ নামে ডাকা হতো….. এর পরবর্তী হাদীসের অংশটুকু লায়স [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]- এর বর্ণিত হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করেন এবং তার হাদীসের শেষ কথা—– [তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিজের পক্ষ হইতে তার দিয়্যাত আদায় করিয়াছেন] পর্যন্ত বর্ণনা করেন। ইয়াহ্ইয়া [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, আমার নিকট বুশায়র ইবনি ইয়াসার [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বর্ণনা করিয়াছেন, তিনি বলেন, সাহল ইবনি আবু হাসমাহ্ [রাদি.] আমাকে জানিয়েছেন যে, “নিশ্চয় ফার্য হিসেবে আদায়কৃত ঐ সমস্ত দিয়্যাতের উট রাখার স্থানে একটি উটনী আমাকে লাথি মেরেছিল।” [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২০০ , ইসলামিক সেন্টার- ৪২০০]

৪২৪০

সাহল ইবনি আবু হাসমাহ্‌ আনসারী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, তাদের মধ্য হইতে একদল লোক খাইবারের দিকে গমন করিল। এরপর তারা সেখান হইতে পৃথক হয়ে গেল। তারপর তারা তাদের একজনকে নিহত অবস্থায় পেল। এভাবে হাদীসের শেষ পর্যন্ত বর্ণনা করেন।

বর্ণনাকারী বলেন যে, এতে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] খুনের বদলা [দিয়্যাত] বাতিল হয়ে যাওয়াকে অপছন্দ মনে করিলেন। অতএব, তিনি সদাকাহ্‌র উট থেকে একশ উট দিয়্যাত হিসেবে প্রদান করিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২০১ , ইসলামিক সেন্টার- ৪২০১]

৪২৪১

সাহ্‌ল ইবনি আবু হাসমাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তাহাঁর সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের মধ্যে গণ্য আবদুল্লাহ ইবনি সাহল এবং মুহাইয়্যিসাহ্‌ [রাদি.] উভয়েই খাইবারের দিকে গমন করিলেন দূর্গম পথ দিয়ে। এরপর এক ব্যক্তি মুহাইয়্যিসাহ্‌ [রাদি.]-এর নিকট এসে খবর দিল যে, আবদুল্লাহ ইবনি সাহল [রাদি.] নিহত হয়েছেন এবং তাঁকে একটি নর্দমা বা কূপের মধ্যে ফেলে রাখা হয়েছে। সুতরাং তিনি তথাকার ইয়াহূদীদের কাছে এসে বলিলেন, আল্লাহর শপথ তোমরাই তাঁকে হত্যা করেছ। তারা আল্লাহর শপথ করে বললো, আমরা তাঁকে হত্যা করিনি! এরপর তিনি স্বীয় সম্প্রদায়ের নিকট ফিরে এলেন এবং তাঁদের কাছে ঐ ঘটনা বর্ণনা করিলেন। পরিশেষে তিনি ও তাহাঁর বড় ভাই হুওয়াইয়িসাহ্‌ এবং আবদূর রহমান ইবনি সাহল [রাদি.] [নবী [সাঃআঃ]-এর কাছে] আগমন করিলেন। এরপর মুহাইয়্যিসাহ্‌ [রাদি.] কথা বলার জন্য অগ্রসর হলেন, যিনি [নিহত ব্যক্তির সঙ্গে] খাইবারে ছিলেন। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মুহাইয়্যিসাহ্‌ [রাদি.] কে লক্ষ্য করে বলিলেন, বড় জন! বড় জন! অর্থাৎ বয়ষ্ক ব্যক্তিকে কথা বলিতে দাও। তখন হুওয়াইয়িসাহ্‌ [রাদি.] কথাবার্তা বলিলেন, এরপর মুহাইয়্যিসাহ্‌ [রাদি.]-ও কথা বলিলেন। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ হয়ত তারা তোমাদের সাথীর খুনের বদলা [দিয়্যাত] আদায় করে দিবে, নতুবা যুদ্ধের জন্য তৈরি হইবে। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাদের কাছে ঐ ব্যাপারে পত্র লিখলেন। প্রতি উত্তরে তারা লিখল যে, আল্লাহর শপথ নিশ্চয়ই আমরা তাকে হত্যা করিনি। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হুওয়াইয়িসাহ্‌, মুহাইয়্যিসাহ্‌ ও আবদূর রহমানকে বলিলেন, তোমরা কি শপথের মাধ্যমে তোমাদের সাথীর রক্তপণ আদায়ের হকদার হইতে সক্ষম হইবে? তাঁরা বলিল, না। তখন তিনি বললেনঃ তাহলে ইয়াহুদীরা তোমাদের কাছে হলফ করে বলুক। তাঁরা তখন বলিল, তারাতো [ইয়াহূদী] মুসলিম নয়। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিজের পক্ষ হইতে তাহাঁর দিয়্যাত [খুনের বদলা] আদায় করে দিলেন। এবং রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাদের একশ উটনী প্রদান করিলেন এবং ঐগুলো তাদের বাড়িতে পৌঁছিয়ে দেয়া হলো। সাহল [রাদি.] বলেন, ঐগুলির মধ্য হইতে একটি লাল রঙের উটনী আমাকে লাথি মেরেছিল। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২০২ , ইসলামিক সেন্টার- ৪২০২]

৪২৪২

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর একজন আনসারী সাহাবার হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] খুনের ব্যাপারে হলফ করে বলা —– যা জাহিলী যুগে চলত তা পূর্বের ন্যায় বলবৎ রেখেছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২০৩ , ইসলামিক সেন্টার- ৪২০৩]

৪২৪৩

মুহাম্মাদ ইবনি রাফি [রহমাতুল্লাহি আলাইহি], ইবনি শিহাব থেকে একই সূত্রে হইতে বর্ণীতঃ

অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন এবং এ কথা অতিরিক্ত করিয়াছেন যে, —– রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] সে [দিয়্যাতের] ব্যাপারে নিষ্পত্তি করেছিলেন, যা তারা ইয়াহূদীদের উপর [হত্যার] দাবী উত্থাপন করছিল। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২০৪, ইসলামিক সেন্টার- ৪২০৪]

৪২৪৪

হাসান ইবনি আলী হুলওয়ানী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

আনসারী লোকদের সূত্রে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে ইবনি জুরাইজ [রাদি.] এর হাদীসের অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন ৪২০৫, ইসলামিক সেন্টার ৪২০৫]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply