হজের ধারাবাহিক কাজ আগে পিছে করার বৈধতা

হজের ধারাবাহিক কাজ আগে পিছে করার বৈধতা

হজের ধারাবাহিক কাজ আগে পিছে করার বৈধতা >> মিশকাতুল মাসাবীহ এর মুল সুচিপত্র দেখুন

পর্বঃ ১১, অধ্যায়ঃ ৯

  • অধ্যায়ঃ ৯. প্রথম অনুচ্ছেদ
  • অধ্যায়ঃ ৯. দ্বিতীয় অনুচ্ছেদ
  • অধ্যায়ঃ ৯. তৃতীয় অনুচ্ছেদ

অধ্যায়ঃ ৯. প্রথম অনুচ্ছেদ

২৬৫৫

আব্দুল্লাহ ইবনি আমর ইবনুল আস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাঃআঃ বিদায় হজে মিনায় এসে জনসম্মুখে দাঁড়ালেন, যাতে লোকেরা তাহাঁর থেকে [হজের বিধি-বিধান সম্বলিত মাস্আলাহ্-মাসায়িল] জিজ্ঞেস করিতে পারে। এ সময় জনৈক ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ সাঃআঃ-এর কাছে আসলেন, অতঃপর বললেন, আমি না জেনে কুরবানীর আগে মাথা মুণ্ডন করে ফেলেছি। উত্তরে তিনি [সাঃআঃ] বললেন, এতে দোষণীয় নয়, এখন কুরবানী করো। আরেক ব্যক্তি এসে জিজ্ঞেস করলো, আমি না জেনে পাথর মারার আগে কুরবানী করে ফেলেছি। তিনি [সাঃআঃ] বললেন, তাতে গুনাহের কিছু নেই, এখন কংকর মারো। অতঃপর আগে পিছে করার যে কোন আমালের বিষয়ে নবী সাঃআঃ-কে জিজ্ঞেস করা হলেই তিনি [সাঃআঃ] বলিতেন, তাতে কোন গুনাহ হবে না, এখন করো।

{বোখারী, মুসলিম; কিন্তু মুসলিমের এক বর্ণনায় আছে, জনৈক লোক তাহাঁর কাছে এসে বললো, আমি কংকর মারার পূর্বে মাথার চুল কেটে ফেলেছি। উত্তরে তিনি [সাঃআঃ] বললেন, এতে কোন গুনাহ হবে না, এখন কংকর মারো। এরপর আরেক লোক এসে বললো, আমি কংকর মারার পূর্বে তাওয়াফে ইফাযাহ্ করেছি। তিনি [সাঃআঃ] বললেন, তাতে কোন গুনাহ হবে না, এখন কংকর মারো।]{১}

{১} সহীহ : বোখারী ৮৩, মুসলিম ১৩০৬, তিরমিজি ৯১৬, মুয়াত্ত্বা মালিক ১৫৯৪, আহমাদ ৬৪৮৪, দারিমী ১৯৪৮, ইবনি খুযায়মাহ্ ২৯৪৯, দারাকুত্বনী ২৫৭০, সহীহ ইবনি হিব্বান ৩৮৭৭।

হজের ধারাবাহিক কাজ -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিস

২৬৫৬

ইবনি আব্বাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, নবী সাঃআঃ কুরবানীর দিন মিনায় কোন ব্যতিক্রম আমালের কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি [সাঃআঃ] বলিতেন, এতে কোন গুনাহের কিছু হবে না। এমন সময় জনৈক ব্যক্তি জিজ্ঞেস করলে তিনি [সাঃআঃ] বললেন, এতে কোন গুনাহের কিছু হবে না। এ সময় আরেক ব্যক্তি জিজ্ঞেস করলো, আমি সন্ধ্যার পর পাথর মেরেছি। উত্তরে তিনি [সাঃআঃ] বললেন, এতে কোন গুনাহের কিছু হবে না। [বোখারী]{১}

{১} সহীহ : বোখারী ১৭৩৫, ইবনি খুযায়মাহ্ ২৯৫০, নাসায়ী ৩০৬৭, ইবনি মাজাহ ৩০৫০।

হজের ধারাবাহিক কাজ -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিস

অধ্যায়ঃ ৯. দ্বিতীয় অনুচ্ছেদ

২৬৫৭

আলী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, জনৈক ব্যক্তি এসে বললো, হে আল্লাহর রসূল! আমি মাথা মুন্ডনের আগে তাওয়াফে ইফাযাহ্ করেছি। তিনি [সাঃআঃ] বললেন, এতে কোন গুনাহ হবে না, এখন মাথার চুল কাটো বা ছাঁটো। তারপর আরেক ব্যক্তি এসে বললো, আমি পাথর মারার আগে কুরবানী করে ফেলেছি। তিনি [সাঃআঃ] বললেন, এতে কোন গুনাহ হবে না, এখন পাথর মারো। [বোখারী]{১}

{১} হাসান : তিরমিজি ৮৮৫, ইবনি আবী শায়বাহ্ ৩৬১৪৪, আহমাদ ৫৬২।

এই হাদিসটির তাহকীকঃ হাসান হাদিস

অধ্যায়ঃ ৯. তৃতীয় অনুচ্ছেদ

২৬৫৮

উসামাহ্ ইবনি শারীক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ সাঃআঃ-এর সাথে হজ্জের উদ্দেশে রওয়ানা হলাম। উপস্থিত লোকদের মধ্যে কেউ তাহাঁর নিকট এসে বলতো, হে আল্লাহর রসূল! আমি তাওয়াফের আগে সাঈ করেছি বা অন্য কোন কাজ আগে বা দেরিতে করেছি। আর তিনি [সাঃআঃ] বলেছেনঃ এতে গুনাহের কিছু নেই। তবে যে লোক অন্যায়ভাবে কোন মুসলিমের সম্মানহানি করিবে, সে বড় গুনাহের কাজ করেছে এবং ধ্বংসের পথে এগিয়ে গেছে। [আবু দাউদ]{১}

{১} সহীহ : আবু দাউদ ২০১৫, সহীহ ইবনি হিব্বান ২৭৭৪, মুজামুল কাবীর লিত্ব ত্ববারানী ৪৭২।

হজের ধারাবাহিক কাজ -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিস

By মিশকাত মুহিউস সুন্নাহ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply