স্বামীর সম্পদ থেকে স্ত্রির সদকা করা

স্বামীর সম্পদ থেকে স্ত্রির সদকা করা

স্বামীর সম্পদ থেকে স্ত্রির সদকা করা >> মিশকাতুল মাসাবীহ এর মুল সুচিপত্র দেখুন

পর্বঃ ৬, অধ্যায়ঃ ৮

  • অধ্যায়ঃ ৮. প্রথম অনুচ্ছেদ
  • অধ্যায়ঃ ৮. দ্বিতীয় অনুচ্ছেদ
  • অধ্যায়ঃ ৮. তৃতীয় অনুচ্ছেদ

অধ্যায়ঃ ৮. প্রথম অনুচ্ছেদ

১৯৪৭. আয়িশাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যখন স্ত্রী তার ঘরের কোন খাবার সদাক্বাহ্ বা খরচ করে এবং তা যদি বাহুল্য না হয় এ সদাক্বাহ্ করার জন্য সে সাওয়াব পাবে। আর তা কামাই করে আনার জন্য তার স্বামীও সাওয়াব পাবে। রক্ষণাবেক্ষণকারীরও ঠিক সম পরিমাণ সাওয়াব পাবে, কারো সাওয়াব কারো সাওয়াবকে কিছুমাত্র কম করিবে না।

[বোখারী, মুসলিম] {১}, {১} সহীহ : বোখারী ১৪২৫, মুসলিম ১০২৪, সিলসিলাহ্ আস্ সহীহাহ্ ৭৩০, সহীহ আল জামে আস্ সগীর ৪০৪। স্ত্রির সদকা -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিস

১৯৪৮. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, স্ত্রী তার স্বামীর অর্জিত-ধন সম্পদ হইতে তার অনুমতি ছাড়া দান খয়রাত করলে এর সাওয়াব [স্ত্রী] অর্ধেক পাবে।

[বোখারী, মুসলিম] {১}, {১} সহীহ : বোখারী ২০৬৬, মুসলিম ১০২৬, আবু দাউদ ১৬৮৭, মুসান্নাফ আবদুর রায্যাক্ব ৭২৭২, সিলসিলাহ্ আস্ সহীহাহ্ ৭৩১। স্ত্রির সদকা -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিস

১৯৪৯. আবু মূসা আল আশ্আরী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে মুসলিম খাদিম বা পাহারাদার, মালিক-এর নির্দেশ অনুসারে কোন পূর্ণ হৃষ্টচিত্তে আমানাতদারীর সাথে ঐ ব্যক্তিকে সদাক্বাহ্ দেয়, যাকে সদাক্বাহ্ দেবার জন্য মালিক বলে দিয়েছে, সে সদাক্বাকারীদের একজন।

[বোখারী, মুসলিম] {১}, {১} সহীহ : বোখারী ১৪৩৮, মুসলিম ১০২৩, আহমাদ ৩৩৫৯, সহীহ আত তারগীব ৭৭৫, সহীহ আল জামি আস্ সগীর ৩৩৩৬। স্ত্রির সদকা -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিস

১৯৫০. আয়িশাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, এক ব্যক্তি রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ]-কে এসে বলিল, আমার মা আকস্মিকভাবে মৃত্যুবরণ করিয়াছেন। আমার মনে হয় তিনি কথা বলিতে পারলে সদাক্বাহ্ করিতেন। এখন আমি যদি তার পক্ষ থেকে সদাক্বাহ্ করি তার সাওয়াব কি তিনি পাবেন? রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বললেনঃ হ্যাঁ, পাবে।

[বোখারী, মুসলিম] {১}, {১} সহীহ : বোখারী ১৩৮৮, মুসলিম ১০০৪, আবু দাউদ ২৮৮১, নাসায়ী ৩৬৪৯, ইবনি মাজাহ ২৭১৭, মুয়াত্ত্বা মালিক ২৮১৩, ইবনি আবী শায়বাহ্ ১২০৭৭, আহমাদ ২৪২৫১, ইবনি খুযায়মাহ্ ২৪৯৯, ইবনি হিব্বান ৩৩৫৩। স্ত্রির সদকা -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিস

অধ্যায়ঃ ৮. দ্বিতীয় অনুচ্ছেদ

১৯৫১. আবু উমামাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ]-কে বিদায় হাজ্জের ভাষণে বলিতে শুনিয়াছি, কোন রমণী যেন তার স্বামীর ঘরের কোন কিছু স্বামীর হুকুম ব্যতীত খরচ না করে। তাঁকে জিজ্ঞেস করা হলো, হে আল্লাহর রাসূল! খাদ্য সামগ্রী খরচ করিতে পারবে না? রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বললেনঃ খাদ্যদ্রব্য আমাদের উত্তম ধন-সম্পদ।

[তিরমিজি] {১}.{১} সহীহ : আত তিরমিজি ২১২০, মুসান্নাফ আবদুর রায্যাক্ব ১৬৬২১, ইবনি আবী শায়বাহ্ ২২০৮৫, সহীহ আত তারগীব ৯৪৩। স্ত্রির সদকা -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিস

১৯৫২. সাদ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] মহিলাদের কাছ থেকে বায়আত গ্রহণ করার সময় একজন মর্যাদাবতী মহিলা উঠে দাঁড়াল। তাকে মুযার গোত্রের মহিলা মনে হচ্ছিল। সে বলিল, হে আল্লাহর নবী! আমাদের সকলে পিতা, সন্তান ও স্বামীর উপর নির্ভরশীল। তাদের ধন-সম্পদ হইতে খরচ করা কী আমাদের জন্য হালাল? তিনি বললেন, পচনশীল মাল খাও এবং তুহফা দাও।

[আবু দাউদ] {১}, {১} জইফ : আবু দাউদ ১৬৮৬, ইবনি আবী শায়বাহ্ ৭৮৫১, শারহুস্ সুন্নাহ্ ১৬৯৭। কারণ এর সানাদটি মুনক্বতি, যিয়াদ ইবনি যুবায়র সাদ ইবনি আবী ওয়াক্কাস [রাযিঃ]-এর সাক্ষাত পাননি। এই হাদিসটির তাহকীকঃ দুর্বল হাদিস

অধ্যায়ঃ ৮. তৃতীয় অনুচ্ছেদ

১৯৫৩. আবুল লাহম [রাদি.] এর আযাদ করা গোলাম উমায়র [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

আমার মুনিব আমাকে গোশত টুকরা করার হুকুম দিলেন। এমন সময় একজন মিসকীন এলো। আমি তাকে ওখান থেকে কিছু গোশত খেতে দিলাম। আমার মুনিব এ কথা জানতে পারলেন। তিনি আমাকে মারলেন। আমি রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এর কাছে এলাম। এ ঘটনা তাহাঁর কাছে বললাম। তিনি আমার মুনিবকে ডেকে পাঠালেন।

তাকে জিজ্ঞেস করিলেন, তুমি উমায়রকে মেরেছ কেন? তিনি বললেন, সে আমার অনুমতি ছাড়া [মিসকীনকে] খাবার দিয়ে দেয়। রসূল [সাঃআঃ] বললেন, এর সাওয়াব তোমাদের দুজনেরই হত। অন্য বর্ণনায় আছে, উমায়র বলেছেন, আমি গোলাম। তাই রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] কে জিজ্ঞেস করেছিলাম আমার মুনিবের ধন সম্পদ থেকে সাদাকাহ করিতে পারব কিনা? তিনি বললেন, হ্যাঁ, পারবে। এর সাওয়াব তোমরা দুজন অর্ধেক অর্ধেক করে পাবে।

[মুসলিম]{১}, {১} সহীহ : মুসলিম ১০২৫।m স্ত্রির সদকা -এই হাদিসটির তাহকীকঃ সহীহ হাদিসস্বামীর সম্পদ থেকে

By মিশকাত মুহিউস সুন্নাহ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply