সূরা তাগাবুন তাফসীর । তাফসীর উল কুরান

সূরা তাগাবুন তাফসীর । তাফসীর উল কুরান

তাফসীর উল কুরান >> তিরমিজি শরিফের তাফসিরুল কোরআন অধ্যায়ের অন্যান্য সুরার তাফসীর পড়ুন >> সুরা তাগাবুন আরবি তে পড়ুন বাংলা অনুবাদ সহ

অধ্যায়ঃ ৪৪, অনুচ্ছেদ-৬৫ঃ সূরা তাগাবুন তাফসীর

৩৩১৭. ইবনি আব্বাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

এক লোক তাহাঁর নিকট নিম্নোক্ত আয়াত প্রসঙ্গে প্রশ্ন করে [অনুবাদ] : “হে ঈমানদারগণ! তোমাদের সহধর্মিণী ও সন্তান-সন্তুতিদের মাঝে কেউ কেউ তোমাদের দুশমন। অতএব তাহাদের ব্যাপারে তোমরা সাবধান থাকিবে”- [সূরা তাগাবূন-১৪]। ইবনি আব্বাস [রাদি.] বলেন, এরা হল মাক্কাবাসীদের মাঝ হইতে ইসলাম গ্রহণকারী, এরা রসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কাছে [হিজরত করে] চলে আসতে চাচ্ছিল, কিন্তু তাহাদের স্ত্রী ও সন্তানরা তাহাদের বাধা দিচ্ছিল যেন তারা তাহাদেরকে ছেড়ে রসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর নিকট চলে না আসে। পরে তারা [হিজরত করে] যখন রসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর এখানে [মাদীনায়] চলে এসে প্রত্যক্ষ করেন যে, লোকেরা [তাহাদের আগে আগত ব্যক্তিগণ] দ্বীন বিষয়ে প্রচুর জ্ঞান লাভ করেছে, তখন তারা তাহাদের স্ত্রীগণ ও সন্তানদের সাজা দেয়ার প্রতিজ্ঞা করে। আল্লাহ তাআলা তখন এ আয়াতটি অবতীর্ণ করেন [অনুবাদ]ঃ “হে মুমিনগণ! তোমাদের সহধর্মিণী ও সন্তানদের মাঝে কেউ কেউ তোমাদের দুশমন…………” [সূরা তাগাবূন ১৪]।

হাদীসটি হাসান। আবু ঈসা বলেন, হাদীসটি হাসান সহীহ।এই হাদিসটির তাহকিকঃ হাসান হাদিস

By ইমাম তিরমিজি

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply