সূরা ইব্রাহীম তাফসীর – তাফসিরুল কোরান

সূরা ইব্রাহীম তাফসীর – তাফসিরুল কোরান

সূরা ইব্রাহীম তাফসীর – তাফসিরুল কোরান >> তিরমিজি শরিফের তাফসিরুল কোরআন অধ্যায়ের অন্যান্য সুরার তাফসীর পড়ুন >> সুরা ইবরাহীম আরবি তে পড়ুন বাংলা অনুবাদ সহ

অধ্যায়ঃ ৪৪, অনুচ্ছেদ-১৫ঃ সূরা ইব্রাহীম তাফসীর

৩১১৯. আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ রসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সামনে টাটকা খেজুরের ছড়া বিতরণ করা হলে তিনি বলেনঃ “সৎ বাক্যের তুলনা তা একটি পবিত্র বৃক্ষের ন্যায় যার শিকড় সুদৃঢ় এবং যার শাখা প্রশাখা উর্দ্ধে উত্থিত। যে বৃক্ষ স্বীয় রবের আদেশে প্রত্যেক মওসুমে তার ফলদান করে। [সূরাঃ ইব্রাহীম- ২৪, ২৫]। রসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ তা হল খেজুর গাছ। “আর নাপাক বাক্যের দৃষ্টান্ত হল একটি মন্দ বৃক্ষ, যার মূল ভূপৃষ্ঠ হইতে আলাদা, যার কোন স্থায়িত্ব নেই” [সূরাঃ ইব্রাহীম- ২৬]। রসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ তা হল [তিক্ত] মাকাল ফলের গাছ। রাবী বলেন, আমি এ প্রসঙ্গে আবুল আলিয়াকে জানালে তিনি বলেন, [তোমার উস্তাদ] সত্য বলেছেন এবং যথার্থ বলেছেন।

মারফু বর্ণনাটি দুর্বল। কুতাইবা-আবু বাকর ইবনি শুআইব হইতে তিনি তার পিতা হইতে তিনি আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে উক্ত মর্মে একই রকম হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। তবে তিনি এটি মারফূরূপে বর্ণনা করেননি এবং তিনি আবুল আলিয়ার বক্তব্যও উল্লেখ করেননি। হাম্মাদ ইবনি সালামার হাদীসের তুলনায় এটি অনেক বেশি সহীহ। একাধিক রাবী একই রকম মাওকূফ [আনাসের কথা] হিসেবে বর্ণনা করিয়াছেন। হাম্মাদ ইবনি সালামা ছাড়া আর কেউ এটি মারফূরূপে বর্ণনা করিয়াছেন বলে আমাদের জানা নেই। মামার, হাম্মাদ ইবনি যাইদ [রঃ]প্রমুখ এটি বর্ণনা করিয়াছেন কিন্তু তাহাদের কেউ রসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] পর্যন্ত এর সনদ পোঁছাননি। মাওকুফ বর্ণনার সনদ সহীহ। আহ্মাদ ইবনি আবদা [রঃ]হাম্মাদ ইবনি যাইদ হইতে তিনি শুআইব ইবনিল হাবহাব হইতে তিনি আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] সূত্রে কুতাইবার হাদীসের মতই বর্ণনা করিয়াছেন এবং তিনিও মারফূরূপে বর্ণনা করেননি। মাওকুফ বর্ণনাটি সহীহ।  সূরা ইব্রাহীম তাফসীর- এই হাদিসটির তাহকিকঃ অন্যান্য

৩১২০। আল-বারাআ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নাবী [সাঃআঃ] আল্লাহ তাআলার বাণী “যারা ইমান আনে আল্লাহ তাআলা তাহাদেরকে পার্থিব জীবনে ও আখিরাতে শাশ্বত বানীতে সুপ্রতিষ্ঠিত রাখবেন -[সূরা ইবরাহীম ২৭] প্রসঙ্গে বলেনঃ কবরে সুপ্রতিষ্ঠিত রাখা হইবে- যখন তাকে বলা হইবে, তোমার প্রভু কে, তোমার দ্বীন কি এবং তোমার নাবী কে।

সহীহ : বোখারি [৪৬৯৯] ,মুসলিম। আবু ঈসা বলেন , হাদীসটি হাসান সহীহ।  সূরা ইব্রাহীম তাফসীর- এই হাদিসটির তাহকিকঃ সহীহ হাদিস

৩১২১। মাসরুক্ব [রঃ]হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আয়িশাহ [রাদি.] এ আয়াতে তিলাওয়াত করিলেন [অনুবাদ] : “যে দিন পৃথিবী পরিবর্তিত হয়ে্ অন্য পৃথিবী হইবে— – [সূরা ইবরাহীম ৪৮]। আয়িশাহ [রাদি.] বলেন, হে আল্লাহর রাসুল! সে সময় মানুষ কোথায় থাকিবে? রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ পুলসিরাতের উপর।

সহীহ : ইবনি মাজাহ [৪২৭৯] , মুসলিম। আবু ঈসা বলেন, এ হাদীসটি হাসান সহীহ। এটি অন্য সুত্রেও আয়িশাহ [রাদি.] হইতে বর্ণিত হয়েছে। সূরা ইব্রাহীম তাফসীর- এই হাদিসটির তাহকিকঃ সহীহ হাদিস

By ইমাম তিরমিজি

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply