সূরা আশ শামস এর তাফসীর

সূরা আশ শামস এর তাফসীর

সূরা আশ শামস এর তাফসীর >> বুখারী শরীফ এর মুল সুচিপত্র পড়ুন >> সুরা শামস আরবি তে পড়ুন বাংলা অনুবাদ সহ

সূরা আশ শামস এর তাফসীর

(91) سُوْرَةُ وَالشَّمْسِ وَضُحَاهَا

সুরা (৯১) : ওয়াশশামসি ওয়াযুহা-হা ( সূরা আশ শামস এর তাফসীর )

وَقَالَ مُجَاهِدٌ : {ضُحَاهَا} ضَوْءَها {إذَاتَلَاهَا} تَبِعَها. وَ{طَحَاهَا} دَحَاها {دَسَّاهَا} أغْوَاها. {فَألْهَمَهَا} : عَرَّفَها الشقَّاءَ وَالسَّعادَةَ. وَقَالَ مُجَاهِدٌ : {بِطَغْوَاهَا}بِمعاصيها{وَلَايَخَافُعُقْبَاهَا} عُقْبَى أحَدٍ

মুহাজিদ (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) বলেন, ضُحَاهَا তার (সূর্যের) রশ্নি। إذَا تَلاَهَا যখন (চন্দ্র) তার অনুসরণ করে। طَحَاهَا যিনি তাকে (যমীনকে) বিস্তৃত করিয়াছেন। دَسَّاهَا যে তাকে (আত্মাকে) ভ্রষ্টতায় নিক্ষেপ করেছে। فَألْهَمَهَا অতঃপর তার (আত্মার) সৌভাগ্য ও দুর্ভাগ্যের পরিচয় দান করিয়াছেন। بِطَغْوَاهَا অবাধ্যতা বা নাফরমানীর কারণে। وَلَايَخَافُعُقْبَاهَا কারো পরিণামের জন্য আল্লাহ আশংকা করেন না।

৪৯৪২

আবদুল্লাহ ইবনু যামআহ (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি নাবী (সাঃআঃ)-কে খুতবাহ দিতে শুনেছেন, খুতবায় তিনি কওমে সামূদের প্রতি প্রেরিত উষ্ট্রী ও তার পা কাটার কথা উল্লেখ করিলেন। তারপর রাসুল إِذْ انْبَعَثَ أَشْقَاهَا-এর ব্যাখ্যায় বলিলেন, ঐ উষ্ট্রীটিকে হত্যা করার জন্য এক হতভাগ্য শক্তিশালী ব্যক্তি তৎপর হয়ে উঠ যে সে সমাজের মধ্যে আবু যামআর মত প্রভাবশালী ও অত্যন্ত শক্তিধর ছিল। এ খুতবায় তিনি মেয়েদের সম্পর্কে আলোচনা করেছিলেন। তিনি বলেছেন, তোমাদের মধ্যে এমন লোকও আছে যে তার স্ত্রীকে ক্রীতদাসের মত মারপিট করে; কিন্তু ঐ দিনের শেষেই সে আবার তার সঙ্গে এক বিছানায় মিলিত হয়। তারপর তিনি বায়ু নিঃসরণের পর হাসি দেয়া সম্পর্কে বলিলেন, তোমাদের কেউ কেউ হাসে সে কাজটির জন্য যে কাজটি সে নিজেও করে। (অন্য সনদে) আবু মুআবীয়াহ (রহমাতুল্লাহি আলাইহি)….আবদুল্লাহ ইবনু আবু যামআ (রাদি.) হইতে বর্ণিত। তিনি বলেন, নাবী (সাঃআঃ) বলেছেন, যুবায়র ইবনু আওআমের চাচা আবু যামআর মত। [৩৩৭৭; মুসলিম ৫১/১৩, হাদীস ২৮৫৫, আহমাদ ১৬২২২] (আ.প্র. ৪৫৭৩, ই.ফা. ৪৫৭৮)

By ইমাম বুখারী

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply