সুরা হুজুরাত বাংলা Sura Al Hujurat in Words & Audio

সুরা হুজুরাত বাংলা Sura Al Hujurat in Words & Audio

৪৯, সুরা হুজুরাত, আয়াত-১৮, মাদানী, রুকু-২

১১৪ টি সুরা >> তাফসীরঃ বুখারী >> তিরমিজি

Arabicতাফসীর

সুরা হুজুরাত mp3 Download

সুরা হুজুরাত ع রুকু [১][1] >> [২][2]

পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামেبِسۡمِ ٱللَّهِ ٱلرَّحۡمَٰنِ ٱلرَّحِيمِ
(1) হে ঈমানদারগণ, তোমরা আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের সামনে অগ্রবর্তী হয়ো না এবং তোমরা আল্লাহর তাকওয়া অবলম্বন কর, নিশ্চয় আল্লাহ সর্বশ্রোতা, সর্বজ্ঞ।يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ لَا تُقَدِّمُواْ بَيۡنَ يَدَيِ ٱللَّهِ وَرَسُولِهِۦۖ وَٱتَّقُواْ ٱللَّهَۚ إِنَّ ٱللَّهَ سَمِيعٌ عَلِيمٞ ١
(2) হে ঈমানদারগণ, তোমরা নবীর আওয়াজের উপর তোমাদের আওয়াজ উঁচু করো না এবং তোমরা নিজেরা পরস্পর যেমন উচ্চস্বরে কথা বল, তাঁর সাথে সেরকম উচ্চস্বরে কথা বলো না। এ আশঙ্কায় যে তোমাদের সকল আমল-নিষ্ফল হয়ে যাবে অথচ তোমরা উপলব্ধিও করতে পারবে না।يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ لَا تَرۡفَعُوٓاْ أَصۡوَٰتَكُمۡ فَوۡقَ صَوۡتِ ٱلنَّبِيِّ وَلَا تَجۡهَرُواْ لَهُۥ بِٱلۡقَوۡلِ كَجَهۡرِ بَعۡضِكُمۡ لِبَعۡضٍ أَن تَحۡبَطَ أَعۡمَٰلُكُمۡ وَأَنتُمۡ لَا تَشۡعُرُونَ ٢
(3) নিশ্চয় যারা আল্লাহর রাসূলের নিকট নিজদের আওয়াজ অবনমিত করে, আল্লাহ তাদেরই অন্তরগুলোকে তাকওয়ার জন্য বাছাই করেছেন, তাদের জন্য রয়েছে ক্ষমা ও মহাপ্রতিদান।إِنَّ ٱلَّذِينَ يَغُضُّونَ أَصۡوَٰتَهُمۡ عِندَ رَسُولِ ٱللَّهِ أُوْلَٰٓئِكَ ٱلَّذِينَ ٱمۡتَحَنَ ٱللَّهُ قُلُوبَهُمۡ لِلتَّقۡوَىٰۚ لَهُم مَّغۡفِرَةٞ وَأَجۡرٌ عَظِيمٌ ٣
(4) নিশ্চয় যারা তোমাকে হুজরাসমূহের পিছন থেকে ডাকাডাকি করে তাদের অধিকাংশই বুঝে না।إِنَّ ٱلَّذِينَ يُنَادُونَكَ مِن وَرَآءِ ٱلۡحُجُرَٰتِ أَكۡثَرُهُمۡ لَا يَعۡقِلُونَ ٤
(5) তুমি তাদের কাছে বের হয়ে আসা পর্যন্ত যদি তারা ধৈর্যধারণ করত, তাহলে সেটাই তাদের জন্য উত্তম হত। আর আল্লাহ অত্যন্ত ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু।وَلَوۡ أَنَّهُمۡ صَبَرُواْ حَتَّىٰ تَخۡرُجَ إِلَيۡهِمۡ لَكَانَ خَيۡرٗا لَّهُمۡۚ وَٱللَّهُ غَفُورٞ رَّحِيمٞ ٥
(6) হে ঈমানদারগণ, যদি কোন ফাসিক তোমাদের কাছে কোন সংবাদ নিয়ে আসে, তাহলে তোমরা তা যাচাই করে নাও। এ আশঙ্কায় যে, আমরা অজ্ঞতাবশত কোন কওমকে আক্রমণ করে বসবে, ফলে তোমরা তোমাদের কৃতকর্মের জন্য লজ্জিত হবে।يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُوٓاْ إِن جَآءَكُمۡ فَاسِقُۢ بِنَبَإٖ فَتَبَيَّنُوٓاْ أَن تُصِيبُواْ قَوۡمَۢا بِجَهَٰلَةٖ فَتُصۡبِحُواْ عَلَىٰ مَا فَعَلۡتُمۡ نَٰدِمِينَ ٦
(7) আর তোমরা জেনে রাখ যে, তোমাদের মধ্যে আল্লাহর রাসূল রয়েছেন। সে যদি অধিকাংশ বিষয়ে তোমাদের কথা মেনে নিত, তাহলে তোমরা অবশ্যই কষ্টে পতিত হতে। কিন্তু আল্লাহ তোমাদের কাছে ঈমানকে প্রিয় করে দিয়েছেন এবং তা তোমাদের অন্তরে সুশোভিত করেছেন। আর তোমাদের কাছে কুফরী, পাপাচার ও অবাধ্যতাকে অপছন্দনীয় করে দিয়েছেন। তারাই তো সত্য পথপ্রাপ্ত।وَٱعۡلَمُوٓاْ أَنَّ فِيكُمۡ رَسُولَ ٱللَّهِۚ لَوۡ يُطِيعُكُمۡ فِي كَثِيرٖ مِّنَ ٱلۡأَمۡرِ لَعَنِتُّمۡ وَلَٰكِنَّ ٱللَّهَ حَبَّبَ إِلَيۡكُمُ ٱلۡإِيمَٰنَ وَزَيَّنَهُۥ فِي قُلُوبِكُمۡ وَكَرَّهَ إِلَيۡكُمُ ٱلۡكُفۡرَ وَٱلۡفُسُوقَ وَٱلۡعِصۡيَانَۚ أُوْلَٰٓئِكَ هُمُ ٱلرَّٰشِدُونَ ٧
(8) আল্লাহর পক্ষ থেকে করুণা ও নিআমত স্বরূপ। আর আল্লাহ সর্বজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়।فَضۡلٗا مِّنَ ٱللَّهِ وَنِعۡمَةٗۚ وَٱللَّهُ عَلِيمٌ حَكِيمٞ ٨
(9) আর যদি মুমিনদের দু’দল যুদ্ধে লিপ্ত হয়, তাহলে তোমরা তাদের মধ্যে মীমাংসা করে দাও। অতঃপর যদি তাদের একদল অপর দলের উপর বাড়াবাড়ি করে, তাহলে যে দলটি বাড়াবাড়ি করবে, তার বিরুদ্ধে তোমরা যুদ্ধ কর, যতক্ষণ না সে দলটি আল্লাহর নির্দেশের দিকে ফিরে আসে। তারপর যদি দলটি ফিরে আসে তাহলে তাদের মধ্যে ইনসাফের সাথে মীমাংসা কর এবং ন্যায়বিচার কর। নিশ্চয় আল্লাহ ন্যায়বিচারকারীদের ভালবাসেন।وَإِن طَآئِفَتَانِ مِنَ ٱلۡمُؤۡمِنِينَ ٱقۡتَتَلُواْ فَأَصۡلِحُواْ بَيۡنَهُمَاۖ فَإِنۢ بَغَتۡ إِحۡدَىٰهُمَا عَلَى ٱلۡأُخۡرَىٰ فَقَٰتِلُواْ ٱلَّتِي تَبۡغِي حَتَّىٰ تَفِيٓءَ إِلَىٰٓ أَمۡرِ ٱللَّهِۚ فَإِن فَآءَتۡ فَأَصۡلِحُواْ بَيۡنَهُمَا بِٱلۡعَدۡلِ وَأَقۡسِطُوٓاْۖ إِنَّ ٱللَّهَ يُحِبُّ ٱلۡمُقۡسِطِينَ ٩
(10) নিশ্চয় মুমিনরা পরস্পর ভাই ভাই। কাজেই তোমরা তোমাদের ভাইদের মধ্যে আপোষ- মীমাংসা করে দাও। আর তোমরা আল্লাহকে ভয় কর, আশা করা যায় তোমরা অনুগ্রহপ্রাপ্ত হবে।إِنَّمَا ٱلۡمُؤۡمِنُونَ إِخۡوَةٞ فَأَصۡلِحُواْ بَيۡنَ أَخَوَيۡكُمۡۚ وَٱتَّقُواْ ٱللَّهَ لَعَلَّكُمۡ تُرۡحَمُونَ ١٠

সুরা হুজুরাত ع রুকু [১][1] >> [২][2

.

(11) হে ঈমানদারগণ, কোন সম্প্রদায় যেন অপর কোন সম্প্রদায়কে বিদ্রূপ না করে, হতে পারে তারা বিদ্রূপকারীদের চেয়ে উত্তম। আর কোন নারীও যেন অন্য নারীকে বিদ্রূপ না করে, হতে পারে তারা বিদ্রূপকারীদের চেয়ে উত্তম। আর তোমরা একে অপরের নিন্দা করো না এবং তোমরা একে অপরকে মন্দ উপনামে ডেকো না। ঈমানের পর মন্দ নাম কতইনা নিকৃষ্ট! আর যারা তাওবা করে না, তারাই তো যালিম।يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ لَا يَسۡخَرۡ قَوۡمٞ مِّن قَوۡمٍ عَسَىٰٓ أَن يَكُونُواْ خَيۡرٗا مِّنۡهُمۡ وَلَا نِسَآءٞ مِّن نِّسَآءٍ عَسَىٰٓ أَن يَكُنَّ خَيۡرٗا مِّنۡهُنَّۖ وَلَا تَلۡمِزُوٓاْ أَنفُسَكُمۡ وَلَا تَنَابَزُواْ بِٱلۡأَلۡقَٰبِۖ بِئۡسَ ٱلِٱسۡمُ ٱلۡفُسُوقُ بَعۡدَ ٱلۡإِيمَٰنِۚ وَمَن لَّمۡ يَتُبۡ فَأُوْلَٰٓئِكَ هُمُ ٱلظَّٰلِمُونَ ١١
(12) হে মুমিনগণ, তোমরা অধিক অনুমান থেকে দূরে থাক। নিশ্চয় কোন কোন অনুমান তো পাপ। আর তোমরা গোপন বিষয় অনুসন্ধান করো না এবং একে অপরের গীবত করো না। তোমাদের মধ্যে কি কেউ তার মৃত ভাইয়ের গোশ্ত খেতে পছন্দ করবে? তোমরা তো তা অপছন্দই করে থাক। আর তোমরা আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয় আল্লাহ অধিক তাওবা কবূলকারী, অসীম দয়ালু।يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ ٱجۡتَنِبُواْ كَثِيرٗا مِّنَ ٱلظَّنِّ إِنَّ بَعۡضَ ٱلظَّنِّ إِثۡمٞۖ وَ لَا تَجَسَّسُواْ وَلَا يَغۡتَب بَّعۡضُكُم بَعۡضًاۚ أَيُحِبُّ أَحَدُكُمۡ أَن يَأۡكُلَ لَحۡمَ أَخِيهِ مَيۡتٗا فَكَرِهۡتُمُوهُۚ وَٱتَّقُواْ ٱللَّهَۚ إِنَّ ٱللَّهَ تَوَّابٞ رَّحِيمٞ ١٢
(13) হে মানুষ, আমি তোমাদেরকে এক নারী ও এক পুরুষ থেকে সৃষ্টি করেছি আর তোমাদেরকে বিভিন্ন জাতি ও গোত্রে বিভক্ত করেছি। যাতে তোমরা পরস্পর পরিচিত হতে পার। তোমাদের মধ্যে আল্লাহর কাছে সেই অধিক মর্যাদাসম্পন্ন যে তোমাদের মধ্যে অধিক তাকওয়া সম্পন্ন। নিশ্চয় আল্লাহ তো সর্বজ্ঞ, সম্যক অবহিত।يَٰٓأَيُّهَا ٱلنَّاسُ إِنَّا خَلَقۡنَٰكُم مِّن ذَكَرٖ وَأُنثَىٰ وَجَعَلۡنَٰكُمۡ شُعُوبٗا وَقَبَآئِلَ لِتَعَارَفُوٓاْۚ إِنَّ أَكۡرَمَكُمۡ عِندَ ٱللَّهِ أَتۡقَىٰكُمۡۚ إِنَّ ٱللَّهَ عَلِيمٌ خَبِيرٞ ١٣
(14) বেদুঈনরা বলল, ‘আমরা ঈমান আনলাম’। বল, ‘তোমরা ঈমান আননি’। বরং তোমরা বল, ‘আমরা আত্মসমর্পণ করলাম’। আর এখন পর্যন্ত তোমাদের অন্তরে ঈমান প্রবেশ করেনি। আর যদি তোমরা আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য কর, তাহলে তিনি তোমাদের আমলসমূহের কোন কিছুই হ্রাস করবেন না। নিশ্চয় আল্লাহ অধিক ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু।۞قَالَتِ ٱلۡأَعۡرَابُ ءَامَنَّاۖ قُل لَّمۡ تُؤۡمِنُواْ وَلَٰكِن قُولُوٓاْ أَسۡلَمۡنَا وَلَمَّا يَدۡخُلِ ٱلۡإِيمَٰنُ فِي قُلُوبِكُمۡۖ وَإِن تُطِيعُواْ ٱللَّهَ وَرَسُولَهُۥ لَا يَلِتۡكُم مِّنۡ أَعۡمَٰلِكُمۡ شَيۡ‍ًٔاۚ إِنَّ ٱللَّهَ غَفُورٞ رَّحِيمٌ ١٤
(15) মুমিন কেবল তারাই যারা আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের প্রতি ঈমান এনেছে, তারপর সন্দেহ পোষণ করেনি। আর নিজদের সম্পদ ও নিজদের জীবন দিয়ে আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করেছে। এরাই সত্যনিষ্ঠ।إِنَّمَا ٱلۡمُؤۡمِنُونَ ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ بِٱللَّهِ وَرَسُولِهِۦ ثُمَّ لَمۡ يَرۡتَابُواْ وَجَٰهَدُواْ بِأَمۡوَٰلِهِمۡ وَأَنفُسِهِمۡ فِي سَبِيلِ ٱللَّهِۚ أُوْلَٰٓئِكَ هُمُ ٱلصَّٰدِقُونَ ١٥
(16) বল, ‘তোমরা কি তোমাদের দীন সম্পর্কে আল্লাহকে শিক্ষা দিচ্ছ? অথচ আল্লাহ জানেন যা কিছু আছে আসমানসমূহে এবং যা কিছু আছে যমীনে। আর আল্লাহ সকল কিছু সম্পর্কে সম্যক অবগত’।قُلۡ أَتُعَلِّمُونَ ٱللَّهَ بِدِينِكُمۡ وَٱللَّهُ يَعۡلَمُ مَا فِي ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَمَا فِي ٱلۡأَرۡضِۚ وَٱللَّهُ بِكُلِّ شَيۡءٍ عَلِيمٞ ١٦
(17)  (তারা মনে করে) ‘তারা ইসলাম গ্রহণ করে তোমাকে ধন্য করেছে’। বল, ‘তোমরা ইসলাম গ্রহণ করে আমাকে ধন্য করেছ মনে করো না’। বরং আল্লাহই তোমাদেরকে ঈমানের দিকে পরিচালিত করে তোমাদেরকে ধন্য করেছেন, তোমরা যদি সত্যবাদী হয়ে থাক’।يَمُنُّونَ عَلَيۡكَ أَنۡ أَسۡلَمُواْۖ قُل لَّا تَمُنُّواْ عَلَيَّ إِسۡلَٰمَكُمۖ بَلِ ٱللَّهُ يَمُنُّ عَلَيۡكُمۡ أَنۡ هَدَىٰكُمۡ لِلۡإِيمَٰنِ إِن كُنتُمۡ صَٰدِقِينَ ١٧
(18) নিশ্চয় আল্লাহ আসমানসমূহ ও যমীনের গায়েব সম্পর্কে অবগত আছেন। আর তোমরা যা কর আল্লাহ তার সম্যক দ্রষ্টা।إِنَّ ٱللَّهَ يَعۡلَمُ غَيۡبَ ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَٱلۡأَرۡضِۚ وَٱللَّهُ بَصِيرُۢ بِمَا تَعۡمَلُونَ ١٨
 

সুরা হুজুরাত ع রুকু [১][1] >> [১][1]

শব্দে শব্দে সুরা হুজুরাত Sura Al Hujurat in Words ع রুকু [১][1] >> [২][2]

Sura Al Hujurat in Words ع রুকু [১][1] >> [২][2]

(1)

يَٰٓأَيُّهَا

হে

O you who believe!

ٱلَّذِينَ

যারা

O you who believe!

ءَامَنُوا۟

ঈমান এনেছ

O you who believe!

لَا

না

(Do) not

تُقَدِّمُوا۟

তোমরা অগ্রসর হয়ো (কোন বিষয়ে)

put (yourselves) forward

بَيْنَ

আগে

before Allah

يَدَىِ

আগে

before Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহর

before Allah

وَرَسُولِهِۦ

ও তাঁর রাসুলের

and His Messenger

وَٱتَّقُوا۟

এবং ভয় করো

and fear Allah

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

and fear Allah

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

سَمِيعٌ

সবকিছু শুনেন

(is) All-Hearer

عَلِيمٌ

সবকিছু জানেন

All-Knower

(2)

يَٰٓأَيُّهَا

হে

O you who believe!

ٱلَّذِينَ

যারা

O you who believe!

ءَامَنُوا۟

ঈমান এনেছ

O you who believe!

لَا

না

(Do) not

تَرْفَعُوٓا۟

তোমরা উঁচু করো

raise

أَصْوَٰتَكُمْ

তোমাদের কন্ঠস্বরকে

your voices

فَوْقَ

উপর

above

صَوْتِ

কন্ঠস্বরের

(the) voice

ٱلنَّبِىِّ

নবীর

(of) the Prophet

وَلَا

এবং না

and (do) not

تَجْهَرُوا۟

তোমরা উচ্চ করো (আওয়াজ)

be loud

لَهُۥ

তাঁর সাথে

to him

بِٱلْقَوْلِ

কথা বলার ক্ষেত্রে

in speech

كَجَهْرِ

যেমন উচ্চ হয় (আওয়াজ)

like (the) loudness

بَعْضِكُمْ

তোমাদের একে

(of) some of you

لِبَعْضٍ

অপরের (সাথে)

to others

أَن

(এমন না হয়) যে

lest

تَحْبَطَ

নষ্ট হয়ে যায়

become worthless

أَعْمَٰلُكُمْ

তোমাদের আমলগুলো

your deeds

وَأَنتُمْ

এবং তোমরা

while you

لَا

না

(do) not

تَشْعُرُونَ

টেরও পাবে

perceive

(3)

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

يَغُضُّونَ

নিচু রাখে

lower

أَصْوَٰتَهُمْ

তাদের আওয়াজ

their voices

عِندَ

নিকট

(in) presence

رَسُولِ

রাসুলের

(of the) Messenger of Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(of the) Messenger of Allah

أُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসব লোক

those

ٱلَّذِينَ

(তারাই) যাদের

(are) the ones

ٱمْتَحَنَ

যাচাই করে নিয়েছেন

Allah has tested

ٱللَّهُ

আল্লাহ্

Allah has tested

قُلُوبَهُمْ

তাদের অন্তরসমূহকে

their hearts

لِلتَّقْوَىٰ

তাকওয়ার জন্য

for righteousness

لَهُم

তাদের জন্যে রয়েছে

For them

مَّغْفِرَةٌ

ক্ষমা

(is) forgiveness

وَأَجْرٌ

ও পুরস্কার

and a reward

عَظِيمٌ

মহা

great

(4)

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

يُنَادُونَكَ

তোমাকে ডাকাডাকি করে

call you

مِن

হতে

from

وَرَآءِ

পেছন

behind

ٱلْحُجُرَٰتِ

কক্ষের

the private chambers

أَكْثَرُهُمْ

তাদের অধিকাংশই

most of them

لَا

না

(do) not

يَعْقِلُونَ

জ্ঞানবুদ্ধি রাখে

understand

(5)

وَلَوْ

এবং যদি (এমন হতো)

And if

أَنَّهُمْ

যে তারা

they

صَبَرُوا۟

ধৈর্য ধরত

had been patient

حَتَّىٰ

যতক্ষণ না

until

تَخْرُجَ

তুমি বের হতে

you came out

إِلَيْهِمْ

তাদের দিকে

to them

لَكَانَ

হতো অবশ্যই

certainly it would be

خَيْرًا

উত্তম

better

لَّهُمْ

তাদের জন্যে

for them

وَٱللَّهُ

এবং আল্লাহ্

And Allah

غَفُورٌ

ক্ষমাশীল

(is) Oft-Forgiving

رَّحِيمٌ

পরম দয়ালু

Most Merciful

(6)

يَٰٓأَيُّهَا

হে

O you who believe!

ٱلَّذِينَ

যারা

O you who believe!

ءَامَنُوٓا۟

ঈমান এনেছ

O you who believe!

إِن

যদি

If

جَآءَكُمْ

তোমাদের কাছে আসে

comes to you

فَاسِقٌۢ

কোনো সত্যত্যাগী

a wicked person

بِنَبَإٍ

কোনো খবর নিয়ে

with information

فَتَبَيَّنُوٓا۟

তোমরা তখন পরীক্ষা করো

investigate

أَن

(এমন না হয়) যে

lest

تُصِيبُوا۟

তোমরা ক্ষতি করে বস

you harm

قَوْمًۢا

সম্প্রদায়কে

a people

بِجَهَٰلَةٍ

অজ্ঞতার কারণে

in ignorance

فَتُصْبِحُوا۟

তাহলে

then you become

عَلَىٰ

জন্য

over

مَا

যা

what

فَعَلْتُمْ

তোমরা করেছ

you have done

نَٰدِمِينَ

অনুতাপকারী/ লজ্জিত

regretful

(7)

وَٱعْلَمُوٓا۟

এবং তোমরা জেনে রাখ

And know

أَنَّ

যে

that

فِيكُمْ

তোমাদের মধ্যে (আছে)

among you

رَسُولَ

রাসুল

(is the) Messenger of Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(is the) Messenger of Allah

لَوْ

যদি

If

يُطِيعُكُمْ

তোমাদের মেনে নেয় সে

he were to obey you

فِى

ভাগ

in

كَثِيرٍ

বেশির

much

مِّنَ

থেকে

of

ٱلْأَمْرِ

ব্যাপারে

the matter

لَعَنِتُّمْ

তোমরা অবশ্যই কষ্ট পাবে

surely you would be in difficulty

وَلَٰكِنَّ

কিন্তু

but

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

حَبَّبَ

প্রিয় করেছেন

has endeared

إِلَيْكُمُ

তোমাদের কাছে

to you

ٱلْإِيمَٰنَ

ঈমানকে

the Faith

وَزَيَّنَهُۥ

এবং তা শোভন করে দিয়েছেন

and has made it pleasing

فِى

মধ্যে

in

قُلُوبِكُمْ

তোমাদের অন্তরের

your hearts

وَكَرَّهَ

এবং অপ্রিয় করে দিয়েছেন

and has made hateful

إِلَيْكُمُ

তোমাদের কাছে

to you

ٱلْكُفْرَ

কুফরী/ অবিশ্বাস

disbelief

وَٱلْفُسُوقَ

ও সত্যত্যাগ

and defiance

وَٱلْعِصْيَانَ

এবং অবাধ্যতা (প্রতি)

and disobedience

أُو۟لَٰٓئِكَ

এসব লোক

Those

هُمُ

তারাই

(are) they

ٱلرَّٰشِدُونَ

সঠিক পথগামী

the guided ones

(8)

فَضْلًا

অনুগ্রহে

A Bounty

مِّنَ

পক্ষ হতে

from Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহর

from Allah

وَنِعْمَةً

ও (তাঁর) অনুগ্রহ

and favor

وَٱللَّهُ

এবং আল্লাহ

And Allah

عَلِيمٌ

সবকিছু জানেন

(is) All-Knower

حَكِيمٌ

প্রজ্ঞাময়

All-Wise

(9)

وَإِن

এবং যদি

And if

طَآئِفَتَانِ

দুটি দল

two parties

مِنَ

মধ্য হতে

among

ٱلْمُؤْمِنِينَ

মু’মিনদের

the believers

ٱقْتَتَلُوا۟

পরস্পরে যুদ্ধে লিপ্ত হয়

fight

فَأَصْلِحُوا۟

তবে তোমরা মীমাংসা করে দাও

then make peace

بَيْنَهُمَا

তাদের উভয়ের মাঝে

between both of them

فَإِنۢ

যদি অতঃপর

But if

بَغَتْ

সীমালংঘন করে

oppresses

إِحْدَىٰهُمَا

তাদের একদল

one of them

عَلَى

বিরুদ্ধে

on

ٱلْأُخْرَىٰ

অন্যের

the other

فَقَٰتِلُوا۟

তবে তোমরা যুদ্ধ করো

then fight

ٱلَّتِى

(তার বিরুদ্ধে) যে

one which

تَبْغِى

সীমালংঘন করে

oppresses

حَتَّىٰ

যতক্ষণ না

until

تَفِىٓءَ

ফিরে আসে

it returns

إِلَىٰٓ

দিকে

to

أَمْرِ

নির্দেশের

(the) command

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(of) Allah

فَإِن

যদি অতঃপর

Then if

فَآءَتْ

ফিরে আসে

it returns

فَأَصْلِحُوا۟

তবে তোমরা মীমাংসা করে দাও

then make peace

بَيْنَهُمَا

তাদের উভয়ের মাঝে

between them

بِٱلْعَدْلِ

ন্যায়ানুগভাবে

with justice

وَأَقْسِطُوٓا۟

এবং তোমরা সুবিচার করো

and act justly

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

يُحِبُّ

পছন্দ করেন

loves

ٱلْمُقْسِطِينَ

সুবিচারকারীদেরকে

those who act justly

(10)

إِنَّمَا

প্রকৃতপক্ষে

Only

ٱلْمُؤْمِنُونَ

মু’মিনরা

the believers

إِخْوَةٌ

(পরস্পরে) ভাই ভাই

(are) brothers

فَأَصْلِحُوا۟

অতএব তোমরা মীমাংসা করে দাও

so make peace

بَيْنَ

মাঝে

between

أَخَوَيْكُمْ

তোমাদের দুই ভাইয়ের

your brothers

وَٱتَّقُوا۟

এবং তোমরা ভয় করো

and fear Allah

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

and fear Allah

لَعَلَّكُمْ

তোমাদের উপর সম্ভবতঃ

so that you may

تُرْحَمُونَ

অনুগ্রহ করা হবে

receive mercy

(11)

يَٰٓأَيُّهَا

হে

O you who believe!

ٱلَّذِينَ

যারা

O you who believe!

ءَامَنُوا۟

ঈমান এনেছ

O you who believe!

لَا

না

(Let) not

يَسْخَرْ

উপহাস করে (যেন)

ridicule

قَوْمٌ

কোনো পুরুষ

a people

مِّن

মধ্য থেকে

of

قَوْمٍ

(অন্য) কোনো পুরুষের

(another) people

عَسَىٰٓ

হয়তো (যাদের বিদ্রুপ করা হচ্ছে)

perhaps

أَن

যে

that

يَكُونُوا۟

তারা হবে

they may be

خَيْرًا

উত্তম

better

مِّنْهُمْ

তাদের চেয়ে

than them

وَلَا

আর না

and (let) not

نِسَآءٌ

মহিলারা

women

مِّن

মধ্য থেকে

of

نِّسَآءٍ

(অন্য) মহিলাদের

(other) women

عَسَىٰٓ

হয়তো

perhaps

أَن

যে

that

يَكُنَّ

তারা হবে

they may be

خَيْرًا

উত্তম

better

مِّنْهُنَّ

তাদের চেয়ে

than them

وَلَا

এবং না

And (do) not

تَلْمِزُوٓا۟

তোমরা দোষারোপ করো

insult

أَنفُسَكُمْ

তোমাদের নিজেদেরকে

yourselves

وَلَا

এবং না

and (do) not

تَنَابَزُوا۟

তোমরা ডেকো পরস্পরে

call each other

بِٱلْأَلْقَٰبِ

(মন্দ) উপনামে

by nicknames

بِئْسَ

অত্যন্ত খারাপ ব্যাপার

Wretched is

ٱلِٱسْمُ

নামযুক্ত হওয়া

the name

ٱلْفُسُوقُ

অন্যায় (কাজে)

(of) disobedience

بَعْدَ

পরে

after

ٱلْإِيمَٰنِ

ঈমান (গ্রহণের)

the faith

وَمَن

এবং যে

And whoever

لَّمْ

না

(does) not

يَتُبْ

বিরত থাকে

repent

فَأُو۟لَٰٓئِكَ

তবে ঐসব লোক

then those

هُمُ

তারাই

they

ٱلظَّٰلِمُونَ

সীমালঙ্ঘঙ্কারী

(are) the wrongdoers

(12)

يَٰٓأَيُّهَا

হে

O you who believe!

ٱلَّذِينَ

যারা

O you who believe!

ءَامَنُوا۟

ঈমান এনেছ

O you who believe!

ٱجْتَنِبُوا۟

দূরে থাক

Avoid

كَثِيرًا

অত্যাধিক

much

مِّنَ

হতে

of

ٱلظَّنِّ

অনুমান করা

the assumption

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

بَعْضَ

কিছু

some

ٱلظَّنِّ

অনুমান

assumption

إِثْمٌ

পাপ

(is) sin

وَلَا

এবং না

And (do) not

تَجَسَّسُوا۟

তোমরা দোষ খোঁজ করো

spy

وَلَا

এবং না

and (do) not

يَغْتَب

নিন্দা করো

backbite

بَّعْضُكُم

তোমাদের কেউ

some of you

بَعْضًا

কাউকে

(to) others

أَيُحِبُّ

পছন্দ করে কি

Would like

أَحَدُكُمْ

তোমাদের কেউ

one of you

أَن

যে

to

يَأْكُلَ

সে খাবে

eat

لَحْمَ

গোশত

(the) flesh

أَخِيهِ

তার ভাইয়ের

(of) his brother

مَيْتًا

(যে) মৃত

dead?

فَكَرِهْتُمُوهُ

বস্তুতঃ তা তোমরা ঘৃণাই কর

Nay, you would hate it

وَٱتَّقُوا۟

এবং তোমরা ভয় করো

And fear Allah

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

And fear Allah

إِنَّ

নিশ্চয়ই

indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

تَوَّابٌ

তওবা কবুলকারী

(is) Oft-Returning

رَّحِيمٌ

পরম দয়ালু

Most Merciful

(13)

يَٰٓأَيُّهَا

হে

O mankind!

ٱلنَّاسُ

মানুষ

O mankind!

إِنَّا

নিশ্চয়ই

Indeed, We

خَلَقْنَٰكُم

আমরা তোমাদেরকে সৃষ্টি করেছি

created you

مِّن

হতে

from

ذَكَرٍ

এক পুরুষ

a male

وَأُنثَىٰ

ও এক মহিলা

and a female

وَجَعَلْنَٰكُمْ

এবং আমরা তোমাদেরকে বিভক্ত করেছি

and We made you

شُعُوبًا

বিভিন্ন সম্প্রদায়

nations

وَقَبَآئِلَ

ও (বিভিন্ন) গোত্রে

and tribes

لِتَعَارَفُوٓا۟

যাতে তোমরা একে অপরের সাথে পরিচিত হতে পার

that you may know one another

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

أَكْرَمَكُمْ

তোমাদের মধ্যে বেশি মর্যাদাসম্পন্ন

(the) most noble of you

عِندَ

নিকট

near

ٱللَّهِ

আল্লাহর

Allah

أَتْقَىٰكُمْ

তোমাদের মধ্যে যে সর্বাধিক মুত্তাকি

(is the) most righteous of you

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

عَلِيمٌ

সবকিছু জানেন

(is) All-Knower

خَبِيرٌ

খুব অবহিত

All-Aware

(14)

قَالَتِ

বলে

Say

ٱلْأَعْرَابُ

মরুবাসীরা

the Bedouins

ءَامَنَّا

“আমরা ঈমান এনেছি”

“We believe”

قُل

বলো

Say

لَّمْ

“নি

“Not

تُؤْمِنُوا۟

তোমরা ঈমান আনো

you believe;

وَلَٰكِن

বরং

but

قُولُوٓا۟

তোমরা বলো

say

أَسْلَمْنَا

“আমরা বশ্যতা স্বীকার করেছি”

“We have submitted”

وَلَمَّا

এবং এখনও না

and has not yet

يَدْخُلِ

প্রবেশ করেছে

entered

ٱلْإِيمَٰنُ

ঈমান

the faith

فِى

মধ্যে

in

قُلُوبِكُمْ

তোমাদের অন্তরসমূহের

your hearts

وَإِن

এবং যদি

But if

تُطِيعُوا۟

তোমরা আনুগত্য করো

you obey

ٱللَّهَ

আল্লাহর

Allah

وَرَسُولَهُۥ

ও তাঁর রাসুলের

and His Messenger

لَا

না

not

يَلِتْكُم

তোমাদের কম করবেন (প্রতিফল দানে)

He will deprive you

مِّنْ

থেকে

of

أَعْمَٰلِكُمْ

তোমাদের কর্মসমূহের

your deeds

شَيْـًٔا

কিছুমাত্র

anything

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

غَفُورٌ

ক্ষমাশীল

(is) Oft-Forgiving

رَّحِيمٌ

পরম দয়ালু

Most Merciful

(15)

إِنَّمَا

প্রকৃতপক্ষে

Only

ٱلْمُؤْمِنُونَ

(তারাই) মু’মিন

the believers

ٱلَّذِينَ

যারা

(are) those who

ءَامَنُوا۟

ঈমান এনেছে

believe

بِٱللَّهِ

আল্লাহর উপর

in Allah

وَرَسُولِهِۦ

ও তাঁর রাসুলের (উপর)

and His Messenger

ثُمَّ

পরে

then

لَمْ

নি

(do) not

يَرْتَابُوا۟

তারা সন্দেহ করে

doubt

وَجَٰهَدُوا۟

এবং তারা জিহাদ করেছে

but strive

بِأَمْوَٰلِهِمْ

তাদের ধনসম্পদ দিয়ে

with their wealth

وَأَنفُسِهِمْ

এবং তাদের জানজীবন (দিয়ে)

and their lives

فِى

মধ্যে

in

سَبِيلِ

পথের

(the) way

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(of) Allah

أُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসব লোক

Those

هُمُ

তারাই

they

ٱلصَّٰدِقُونَ

সত্যবাদী”

(are) the truthful”

(16)

قُلْ

(হে নবী) বলো

Say

أَتُعَلِّمُونَ

“তোমরা কি জানাচ্ছ

“Will you acquaint

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

Allah

بِدِينِكُمْ

তোমাদের দীন (পালন) সম্পর্কে

with your religion

وَٱللَّهُ

অথচ আল্লাহ

while Allah

يَعْلَمُ

জানেন

knows

مَا

যা কিছু

what

فِى

মধ্যে (আছে)

(is) in

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশসমূহের

the heavens

وَمَا

ও যা কিছু

and what

فِى

মধ্যে (আছে)

(is) in

ٱلْأَرْضِ

পৃথিবীর

the earth

وَٱللَّهُ

এবং আল্লাহ

And Allah

بِكُلِّ

সম্পর্কে

of every

شَىْءٍ

সব জিনিসের

thing

عَلِيمٌ

খুব জানেন”

(is) All-Knower”

(17)

يَمُنُّونَ

তারা অনুগ্রহ প্রকাশ করে

They consider (it) a favor

عَلَيْكَ

তোমার প্রতি

to you

أَنْ

যে

that

أَسْلَمُوا۟

তারা ইসলাম গ্রহণ করেছে

they have accepted Islam

قُل

বলো

Say

لَّا

“না

“(Do) not

تَمُنُّوا۟

তোমরা অনুগ্রহ বলে মনে করো

consider a favor

عَلَىَّ

আমার প্রতি

to me –

إِسْلَٰمَكُم

তোমাদের ইসলাম গ্রহণের

your Islam

بَلِ

বরং

Nay

ٱللَّهُ

আল্লাহ

Allah

يَمُنُّ

অনুগ্রহ করেছেন

has conferred a favor

عَلَيْكُمْ

তোমাদের উপর

upon you

أَنْ

যে

that

هَدَىٰكُمْ

তিনি তোমাদেরকে পথ দেখিয়েছেন

He has guided you

لِلْإِيمَٰنِ

ঈমানের দিকে

to the faith

إِن

যদি

if

كُنتُمْ

তোমরা হও

you are

صَٰدِقِينَ

সত্যবাদী (ঈমানের দাবিতে)

truthful

(18)

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

يَعْلَمُ

জানেন

knows

غَيْبَ

অদৃশ্য (সম্পর্কে)

(the) unseen

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশসমূহের

(of) the heavens

وَٱلْأَرْضِ

ও পৃথিবীর

and the earth

وَٱللَّهُ

এবং আল্লাহ

And Allah

بَصِيرٌۢ

সবকিছু দেখেন

(is) All-Seer

بِمَا

ঐ বিষয়েও যা

of what

تَعْمَلُونَ

তোমরা করছ”

you do”

Sura Al Hujurat in Words ع রুকু [২][2] >> [১][1]

৪৮ সুরা ফাতাহ<< সুরা হুজুরাত >> ৫০ সুরা ক্বাফ

By Quran Sharif

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply