সুরা হাশর বাংলা অনুবাদ Sura Al Hasar in Words & Audio

সুরা হাশর বাংলা অনুবাদ Sura Al Hasar in Words & Audio

সুরা হাশর >> ১১৪ টি সূরার সূচীপত্র লিস্ট >> ২০ টির অধিক তাফসীর কিতাব পড়ুন

৫৯ – সুরা হাশর – আয়াত : ২৪, মাদানী, রুকু ৩

সুরা হাশর mp3 Download

পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামেبِسۡمِ ٱللَّهِ ٱلرَّحۡمَٰنِ ٱلرَّحِيمِ
(1) আসমানসমূহে ও যমীনে যা কিছু আছে সবই আল্লাহর তাসবীহ পাঠ করছে এবং তিনি মহা পরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়।سَبَّحَ لِلَّهِ مَا فِي ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَمَا فِي ٱلۡأَرۡضِۖ وَهُوَ ٱلۡعَزِيزُ ٱلۡحَكِيمُ١
(2) আহলে কিতাবদের মধ্যে যারা কুফরী করেছিল তিনিই তাদেরকে তাদের ঘর-বাড়ী থেকে বের করে দিয়েছিলেন প্রথমবারের মত। তোমরা ধারণাও করনি যে, তারা বেরিয়ে যাবে। আর তারা ধারণা করেছিল যে, তাদের দুর্গগুলো তাদেরকে আল্লাহর আযাব থেকে রক্ষা করবে। কিন্তু আল্লাহর আযাব এমন এক দিক থেকে আসল যা তারা কল্পনাও করতে পারেনি এবং তিনি তাদের অন্তরসমূহে ত্রাসের সঞ্চার করলেন, ফলে তারা তাদের বাড়ী-ঘর আপন হাতে ও মুমিনদের হাতে ধ্বংস করতে শুরু করল। অতএব হে দৃষ্টিমান লোকেরা তোমরা উপদেশ গ্রহণ কর।’هُوَ ٱلَّذِيٓ أَخۡرَجَ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ مِنۡ أَهۡلِ ٱلۡكِتَٰبِ مِن دِيَٰرِهِمۡ لِأَوَّلِ ٱلۡحَشۡرِۚ مَا ظَنَنتُمۡ أَن يَخۡرُجُواْۖ وَظَنُّوٓاْ أَنَّهُم مَّانِعَتُهُمۡ حُصُونُهُم مِّنَ ٱللَّهِ فَأَتَىٰهُمُ ٱللَّهُ مِنۡ حَيۡثُ لَمۡ يَحۡتَسِبُواْۖ وَقَذَفَ فِي قُلُوبِهِمُ ٱلرُّعۡبَۚ يُخۡرِبُونَ بُيُوتَهُم بِأَيۡدِيهِمۡ وَأَيۡدِي ٱلۡمُؤۡمِنِينَ فَٱعۡتَبِرُواْ يَٰٓأُوْلِي ٱلۡأَبۡصَٰرِ ٢
(3) আর আল্লাহ যদি তাদের জন্য নির্বাসন লিপিবদ্ধ না করতেন, তবে তিনি তাদেরকে দুনিয়াতে শাস্তি দিতেন এবং তাদের জন্য আখিরাতে রয়েছে আগুনের শাস্তি।وَلَوۡلَآ أَن كَتَبَ ٱللَّهُ عَلَيۡهِمُ ٱلۡجَلَآءَ لَعَذَّبَهُمۡ فِي ٱلدُّنۡيَاۖ وَلَهُمۡ فِي ٱلۡأٓخِرَةِ عَذَابُ ٱلنَّارِ ٣
(4) এটি এ জন্য যে, তারা সত্যিই আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের বিরুদ্ধাচরণ করেছিল। আর যে আল্লাহর বিরুদ্ধাচরণ করে, তবে নিশ্চয় আল্লাহ আযাব প্রদানে কঠোর।ذَٰلِكَ بِأَنَّهُمۡ شَآقُّواْ ٱللَّهَ وَرَسُولَهُۥۖ وَمَن يُشَآقِّ ٱللَّهَ فَإِنَّ ٱللَّهَ شَدِيدُ ٱلۡعِقَابِ ٤
(5) তোমরা যে সব নতুন খেজুর গাছ কেটে ফেলছ অথবা সেগুলোকে তাদের মূলের ওপর দাঁড়িয়ে থাকতে দিয়েছ। তা তো ছিল আল্লাহর অনুমতিক্রমে এবং যাতে তিনি ফাসিকদের লাঞ্ছিত করতে পারেন।مَا قَطَعۡتُم مِّن لِّينَةٍ أَوۡ تَرَكۡتُمُوهَا قَآئِمَةً عَلَىٰٓ أُصُولِهَا فَبِإِذۡنِ ٱللَّهِ وَلِيُخۡزِيَ ٱلۡفَٰسِقِينَ ٥
(6) আল্লাহ ইয়াহুদীদের নিকট থেকে তাঁর রাসূলকে ফায়[1] হিসেবে যা দিয়েছেন তোমরা তার জন্য কোন ঘোড়া বা উটে আরোহণ করে অভিযান পরিচালনা করনি। বরং আল্লাহ তাঁর রাসূলগণকে যাদের ওপর ইচ্ছা কতৃত্ব প্রদান করেন। আল্লাহ সকল কিছুর ওপর সর্বশক্তিমান।وَمَآ أَفَآءَ ٱللَّهُ عَلَىٰ رَسُولِهِۦ مِنۡهُمۡ فَمَآ أَوۡجَفۡتُمۡ عَلَيۡهِ مِنۡ خَيۡلٖ وَلَا رِكَابٖ وَلَٰكِنَّ ٱللَّهَ يُسَلِّطُ رُسُلَهُۥ عَلَىٰ مَن يَشَآءُۚ وَٱللَّهُ عَلَىٰ كُلِّ شَيۡءٖ قَدِيرٞ ٦
(7) আল্লাহ জনপদবাসীদের নিকট থেকে তাঁর রাসূলকে ফায় হিসেবে যা দিয়েছেন তা আল্লাহর, রাসূলের, আত্মীয়-স্বজনদের, ইয়াতীমদের, মিসকীন ও মুসাফিরদের এটি এ জন্য যে, যাতে ধন-সম্পদ তোমাদের মধ্যকার বিত্তশালীদের মাঝেই কেবল আবর্তিত না থাকে। রাসূল তোমাদের যা দেয় তা গ্রহণ কর, আর যা থেকে সে তোমাদের নিষেধ করে তা থেকে বিরত হও এবং আল্লাহকেই ভয় কর, নিশ্চয় আল্লাহ শাস্তি প্রদানে কঠোর।مَّآ أَفَآءَ ٱللَّهُ عَلَىٰ رَسُولِهِۦ مِنۡ أَهۡلِ ٱلۡقُرَىٰ فَلِلَّهِ وَلِلرَّسُولِ وَلِذِي ٱلۡقُرۡبَىٰ وَٱلۡيَتَٰمَىٰ وَٱلۡمَسَٰكِينِ وَٱبۡنِ ٱلسَّبِيلِ كَيۡ لَا يَكُونَ دُولَةَۢ بَيۡنَ ٱلۡأَغۡنِيَآءِ مِنكُمۡۚ وَمَآ ءَاتَىٰكُمُ ٱلرَّسُولُ فَخُذُوهُ وَمَا نَهَىٰكُمۡ عَنۡهُ فَٱنتَهُواْۚ وَٱتَّقُواْ ٱللَّهَۖ إِنَّ ٱللَّهَ شَدِيدُ ٱلۡعِقَابِ٧
(8) এই সম্পদ নিঃস্ব মুহাজিরগণের জন্য ও যাদেরকে নিজেদের ঘর-বাড়ী ও ধন-সম্পত্তি থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল। অথচ এরা আল্লাহর অনুগ্রহ ও সন্তুষ্টির অন্বেষণ করে এবং আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে সাহায্য করেন। এরাই তো সত্যবাদী।لِلۡفُقَرَآءِ ٱلۡمُهَٰجِرِينَ ٱلَّذِينَ أُخۡرِجُواْ مِن دِيَٰرِهِمۡ وَأَمۡوَٰلِهِمۡ يَبۡتَغُونَ فَضۡلٗا مِّنَ ٱللَّهِ وَرِضۡوَٰنٗا وَيَنصُرُونَ ٱللَّهَ وَرَسُولَهُۥٓۚ أُوْلَٰٓئِكَ هُمُ ٱلصَّٰدِقُونَ ٨
(9) আর মুহাজিরদের আগমনের পূর্বে যারা মদীনাকে নিবাস হিসেবে গ্রহণ করেছিল এবং ঈমান এনেছিল (তাদের জন্যও এ সম্পদে অংশ রয়েছে), আর যারা তাদের কাছে হিজরত করে এসেছে তাদেরকে ভালবাসে। আর মুহাজরিদেরকে যা প্রদান করা হয়েছে তার জন্য এরা তাদের অন্তরে কোন ঈর্ষা অনুভব করে না। এবং নিজেদের অভাব থাকা সত্ত্বেও নিজেদের ওপর তাদেরকে অগ্রাধিকার দেয়। যাদের মনের কার্পণ্য থেকে রক্ষা করা হয়েছে, তারাই সফলকাম।وَٱلَّذِينَ تَبَوَّءُو ٱلدَّارَ وَٱلۡإِيمَٰنَ مِن قَبۡلِهِمۡ يُحِبُّونَ مَنۡ هَاجَرَ إِلَيۡهِمۡ وَلَا يَجِدُونَ فِي صُدُورِهِمۡ حَاجَةٗ مِّمَّآ أُوتُواْ وَيُؤۡثِرُونَ عَلَىٰٓ أَنفُسِهِمۡ وَلَوۡ كَانَ بِهِمۡ خَصَاصَةٞۚ وَمَن يُوقَ شُحَّ نَفۡسِهِۦ فَأُوْلَٰٓئِكَ هُمُ ٱلۡمُفۡلِحُونَ ٩
(10) যারা তাদের পরে এসেছে তারা বলে: ‘হে আমাদের রব, আমাদেরকে ও আমাদের ভাই যারা ঈমান নিয়ে আমাদের পূর্বে অতিক্রান্ত হয়েছে তাদেরকে ক্ষমা করুন; এবং যারা ঈমান এনেছিল তাদের জন্য আমাদের অন্তরে কোন বিদ্বেষ  রাখবেন না; হে আমাদের রব, নিশ্চয় আপনি দয়াবান, পরম দয়ালু।وَٱلَّذِينَ جَآءُو مِنۢ بَعۡدِهِمۡ يَقُولُونَ رَبَّنَا ٱغۡفِرۡ لَنَا وَلِإِخۡوَٰنِنَا ٱلَّذِينَ سَبَقُونَا بِٱلۡإِيمَٰنِ وَلَا تَجۡعَلۡ فِي قُلُوبِنَا غِلّٗا لِّلَّذِينَ ءَامَنُواْ رَبَّنَآ إِنَّكَ رَءُوفٞ رَّحِيمٌ ١٠
সুরা হাশরع রুকু
(11) তুমি কি মুনাফিকদেরকে দেখনি যারা আহলে কিতাবের মধ্য হতে তাদের কাফির ভাইদেরকে বলে, ‘তোমাদেরকে বের করে দেয়া হলে আমরাও তোমাদের সাথে অবশ্য বেরিয়ে যাব এবং তোমাদের ব্যাপারে আমরা কখনোই কারো আনুগত্য করব না। আর তোমাদের সাথে যুদ্ধ করা হলে আমরা অবশ্যই তোমাদেরকে সাহায্য করব।’ আর আল্ল­াহ সাক্ষ্য দিচ্ছেন যে, তারা মিথ্যাবাদী।۞أَلَمۡ تَرَ إِلَى ٱلَّذِينَ نَافَقُواْ يَقُولُونَ لِإِخۡوَٰنِهِمُ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ مِنۡ أَهۡلِ ٱلۡكِتَٰبِ لَئِنۡ أُخۡرِجۡتُمۡ لَنَخۡرُجَنَّ مَعَكُمۡ وَلَا نُطِيعُ فِيكُمۡ أَحَدًا أَبَدٗا وَإِن قُوتِلۡتُمۡ لَنَنصُرَنَّكُمۡ وَٱللَّهُ يَشۡهَدُ إِنَّهُمۡ لَكَٰذِبُونَ ١١
(12) তারা (ইহুদিরা) যদি বহিষ্কৃত হয় তবে এরা (মুনাফিকরা) কখনো তাদের সাথে বেরিয়ে যাবে না আর তাদের  (ইয়াহুদীদের) সাথে যদি যুদ্ধ করা হয় এরা (মুনাফিকরা) কখনো তাদেরকে সাহায্য করবে না। আর যদি তাদেরকে সাহায্য করে তবে তারা অবশ্যই পিঠ দেখিয়ে পালাবে; এরপর তারা কোন সাহায্যই পাবে না।لَئِنۡ أُخۡرِجُواْ لَا يَخۡرُجُونَ مَعَهُمۡ وَلَئِن قُوتِلُواْ لَا يَنصُرُونَهُمۡ وَلَئِن نَّصَرُوهُمۡ لَيُوَلُّنَّ ٱلۡأَدۡبَٰرَ ثُمَّ لَا يُنصَرُونَ ١٢
(13) প্রকৃতপক্ষে তাদের অন্তরে আল্লাহর চাইতে তোমাদের ভয় বেশী; এটা এ কারণে যে, তারা অবুঝ সম্প্রদায়।لَأَنتُمۡ أَشَدُّ رَهۡبَةٗ فِي صُدُورِهِم مِّنَ ٱللَّهِۚ ذَٰلِكَ بِأَنَّهُمۡ قَوۡمٞ لَّا يَفۡقَهُونَ ١٣
(14) তারা সম্মিলিতিভাবে তোমাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে না তবে সুরক্ষিত জনপদের মধ্যে অবস্থান করে বা দেয়ালের পেছন হতে; তারা নিজেরা নিজেদেরকে প্রবল শক্তিধর মনে করে; তুমি তাদেরকে ঐক্যবদ্ধ মনে করছ অথচ তাদের অন্তরসমূহ বিচ্ছিন্ন। এটি এজন্য যে, তারা নির্বোধ সম্প্রদায়।لَا يُقَٰتِلُونَكُمۡ جَمِيعًا إِلَّا فِي قُرٗى مُّحَصَّنَةٍ أَوۡ مِن وَرَآءِ جُدُرِۢۚ بَأۡسُهُم بَيۡنَهُمۡ شَدِيدٞۚ تَحۡسَبُهُمۡ جَمِيعٗا وَقُلُوبُهُمۡ شَتَّىٰۚ ذَٰلِكَ بِأَنَّهُمۡ قَوۡمٞ لَّا يَعۡقِلُونَ ١٤
(15) তাদের অব্যবহিত পূর্বসূরিদের ন্যায়, যারা নিজেদের কৃতকর্মের কুফল আস্বাদন করেছে; আর তাদের জন্য রয়েছে যন্ত্রণাদায়ক আযাব।كَمَثَلِ ٱلَّذِينَ مِن قَبۡلِهِمۡ قَرِيبٗاۖ ذَاقُواْ وَبَالَ أَمۡرِهِمۡ وَلَهُمۡ عَذَابٌ أَلِيمٞ ١٥
(16) (এরা) শয়তান-এর ন্যায়, সে মানুষকে বলেছিল, ‘কুফরি কর’, অতঃপর যখন সে কুফরি করল তখন সে বলল, আমি তোমার থেকে মুক্ত; নিশ্চয় আমি সকল সৃষ্টির রব আল্লাহকে ভয় করি।كَمَثَلِ ٱلشَّيۡطَٰنِ إِذۡ قَالَ لِلۡإِنسَٰنِ ٱكۡفُرۡ فَلَمَّا كَفَرَ قَالَ إِنِّي بَرِيٓءٞ مِّنكَ إِنِّيٓ أَخَافُ ٱللَّهَ رَبَّ ٱلۡعَٰلَمِينَ ١٦
(17) তাদের দু’জনের পরিণতি ছিল এই যে, তারা দু’জনেই জাহান্নামী হবে, সেখানে তারা স্থায়ী হবে; আর এটাই যালিমদের প্রতিদান।فَكَانَ عَٰقِبَتَهُمَآ أَنَّهُمَا فِي ٱلنَّارِ خَٰلِدَيۡنِ فِيهَاۚ وَذَٰلِكَ جَزَٰٓؤُاْ ٱلظَّٰلِمِينَ ١٧
সুরা হাশরع রুকু
(18) হে ঈমানদারগণ, তোমরা আল্লাহকে ভয় কর; আর প্রত্যেকের উচিত চিন্তা করে দেখা সে আগামীকালের জন্য কি প্রেরণ করেছে; তোমরা আল্লাহকে ভয় কর। তোমরা যা কর নিশ্চয় আল্লাহ সে বিষয়ে সম্যক অবহিত।يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ ٱتَّقُواْ ٱللَّهَ وَلۡتَنظُرۡ نَفۡسٞ مَّا قَدَّمَتۡ لِغَدٖۖ وَٱتَّقُواْ ٱللَّهَۚ إِنَّ ٱللَّهَ خَبِيرُۢ بِمَا تَعۡمَلُونَ ١٨
(19) তোমরা তাদের মত হইও না, যারা আল্ল­াহকে ভুলে গিয়েছিল ফলে আল্লাহও তাদেরকে আত্মবিস্মৃত করে দিয়েছিলেন; আর তারাই হল ফাসিক।وَلَا تَكُونُواْ كَٱلَّذِينَ نَسُواْ ٱللَّهَ فَأَنسَىٰهُمۡ أَنفُسَهُمۡۚ أُوْلَٰٓئِكَ هُمُ ٱلۡفَٰسِقُونَ ١٩
(20) জাহান্নামবাসী ও জান্নাতবাসীরা সমান নয়; জান্নাতবাসীরাই সফলকাম।لَا يَسۡتَوِيٓ أَصۡحَٰبُ ٱلنَّارِ وَأَصۡحَٰبُ ٱلۡجَنَّةِۚ أَصۡحَٰبُ ٱلۡجَنَّةِ هُمُ ٱلۡفَآئِزُونَ ٢٠
(21) এ কুরআনকে যদি আমি পাহাড়ের ওপর নাযিল করতাম তবে তুমি অবশ্যই তাকে দেখতে, আল্লাহর ভয়ে বিনীত ও  বিদীর্ণ। মানুষের জন্য আমি এ উদাহরণগুলি পেশ করি; হয়ত তারা চিন্তাভাবনা করবে।لَوۡ أَنزَلۡنَا هَٰذَا ٱلۡقُرۡءَانَ عَلَىٰ جَبَلٖ لَّرَأَيۡتَهُۥ خَٰشِعٗا مُّتَصَدِّعٗا مِّنۡ خَشۡيَةِ ٱللَّهِۚ وَتِلۡكَ ٱلۡأَمۡثَٰلُ نَضۡرِبُهَا لِلنَّاسِ لَعَلَّهُمۡ يَتَفَكَّرُونَ٢١
(22) তিনিই আল্লাহ, যিনি ছাড়া কোন ইলাহ নেই; দৃশ্য-অদৃশ্যের জ্ঞাতা; তিনিই পরম করুণাময়, দয়ালু।هُوَ ٱللَّهُ ٱلَّذِي لَآ إِلَٰهَ إِلَّا هُوَۖ عَٰلِمُ ٱلۡغَيۡبِ وَٱلشَّهَٰدَةِۖ هُوَ ٱلرَّحۡمَٰنُ ٱلرَّحِيمُ ٢٢
(23) তিনিই আল্লাহ; যিনি ছাড়া কোন ইলাহ নেই, তিনিই বাদশাহ, মহাপবিত্র, ত্রুটিমুক্ত, নিরাপত্তাদানকারী, রক্ষক, মহাপরাক্রমশালী, মহাপ্রতাপশালী, অতীব মহিমান্বিত, তারা যা শরীক করে তা হতে পবিত্র মহান।هُوَ ٱللَّهُ ٱلَّذِي لَآ إِلَٰهَ إِلَّا هُوَ ٱلۡمَلِكُ ٱلۡقُدُّوسُ ٱلسَّلَٰمُ ٱلۡمُؤۡمِنُ ٱلۡمُهَيۡمِنُ ٱلۡعَزِيزُ ٱلۡجَبَّارُ ٱلۡمُتَكَبِّرُۚ سُبۡحَٰنَ ٱللَّهِ عَمَّا يُشۡرِكُونَ ٢٣
(24) তিনিই আল্লাহ, স্রষ্টা, উদ্ভাবনকর্তা, আকৃতিদানকারী; তাঁর রয়েছে সুন্দর নামসমূহ; আসমান ও যমীনে যা আছে সবই তার মহিমা ঘোষণা করে। তিনি মহাপরাক্রমশারী, প্রজ্ঞাময়।هُوَ ٱللَّهُ ٱلۡخَٰلِقُ ٱلۡبَارِئُ ٱلۡمُصَوِّرُۖ لَهُ ٱلۡأَسۡمَآءُ ٱلۡحُسۡنَىٰۚ يُسَبِّحُ لَهُۥ مَا فِي ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَٱلۡأَرۡضِۖ وَهُوَ ٱلۡعَزِيزُ ٱلۡحَكِيمُ ٢٤
সুরা হাশরع রুকু

Sura Al Hasar in Words

(1)

سَبَّحَ

তাসবিহ করে

Glorifies

لِلَّهِ

আল্লাহর জন্য

[to] Allah

مَا

যা কিছু

whatever

فِى

মধ্যে

(is) in

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশসমূহের

the heavens

وَمَا

ও যা কিছু

and whatever

فِى

মধ্যে

(is) in

ٱلْأَرْضِ

পৃথিবীর

the earth

وَهُوَ

এবং তিনিই

And He

ٱلْعَزِيزُ

পরাক্রমশালী

(is) the All-Mighty

ٱلْحَكِيمُ

মহাবিজ্ঞ

the All-Wise

(2)

هُوَ

তিনিই

He

ٱلَّذِىٓ

যিনি

(is) the One Who

أَخْرَجَ

বের করেছেন

expelled

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

كَفَرُوا۟

কুফুরি করেছিল

disbelieved

مِنْ

মধ্যে

from

أَهْلِ

আহলে

(the) People

ٱلْكِتَٰبِ

কিতাবদের

(of) the Scripture

مِن

হতে

from

دِيَٰرِهِمْ

ঘরবাড়ি গুলো তাদের

their homes

لِأَوَّلِ

প্রথম

at (the) first

ٱلْحَشْرِ

সমাবেশেই

gathering

مَا

নাই

Not

ظَنَنتُمْ

তোমরা ধারণা কর

you think

أَن

যে

that

يَخْرُجُوا۟

তারা বের হবে

they would leave

وَظَنُّوٓا۟

ও তারা ধারণা করেছিল

and they thought

أَنَّهُم

তারা যে

that [they]

مَّانِعَتُهُمْ

তাদের রক্ষাকারী

would defend them

حُصُونُهُم

তাদের দুর্গগুলো

their fortresses

مِّنَ

হতে

against

ٱللَّهِ

আল্লাহ

Allah

فَأَتَىٰهُمُ

তাদের (কাছে) আসলেন কিন্তু

But came to them

ٱللَّهُ

আল্লাহ

Allah

مِنْ

(এমনদিক) হতে

from

حَيْثُ

যেখানে

where

لَمْ

নাই

not

يَحْتَسِبُوا۟

তারা ভাবেও

they expected

وَقَذَفَ

ও সঞ্চার করলেন

and He cast

فِى

মধ্যে

into

قُلُوبِهِمُ

তাদের অন্তর সমূহের

their hearts

ٱلرُّعْبَ

ক্রাস

[the] terror

يُخْرِبُونَ

তারা ধ্বংস করল

they destroyed

بُيُوتَهُم

তাদের ঘরগুলো

their houses

بِأَيْدِيهِمْ

তাদের হাত দিয়ে

with their hands

وَأَيْدِى

ও হাতগুলো

and the hands

ٱلْمُؤْمِنِينَ

মুমিনদের

(of) the believers

فَٱعْتَبِرُوا۟

তোমরা শিক্ষা অতএব গ্রহণ কর

So take a lesson

يَٰٓأُو۟لِى

হে

O those endowed

ٱلْأَبْصَٰرِ

দৃষ্টিবানরা

(with) insight

(3)

وَلَوْلَآ

এবং যদি না

And if not

أَن

যে

that

كَتَبَ

লিখতেন

(had) decreed

ٱللَّهُ

আল্লাহ

Allah

عَلَيْهِمُ

তাদের উপর

for them

ٱلْجَلَآءَ

নির্বাসন

the exile

لَعَذَّبَهُمْ

তাদের শাস্তি অবশ্যই দিতেন

certainly He (would) have punished them

فِى

মধ্যে

in

ٱلدُّنْيَا

দুনিয়ার

the world

وَلَهُمْ

এবং তাদের জন্য

and for them

فِى

(আছে)

in

ٱلْءَاخِرَةِ

আখেরাতে

the Hereafter

عَذَابُ

শাস্তি

(is) a punishment

ٱلنَّارِ

আগুনের

(of) the Fire

(4)

ذَٰلِكَ

এটা

That

بِأَنَّهُمْ

তারা যে এজন্যে

(is) because [they]

شَآقُّوا۟

বিরুদ্ধচারণ করেছিল

they opposed

ٱللَّهَ

আল্লাহর

Allah

وَرَسُولَهُۥ

ও তার রসুলের

and His Messenger

وَمَن

এবং যে

And whoever

يُشَآقِّ

বিরুদ্ধচারণ করে

opposes

ٱللَّهَ

আল্লাহর

Allah

فَإِنَّ

নিশ্চয় অতঃপর

then indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

شَدِيدُ

কঠোর

(is) severe

ٱلْعِقَابِ

শাস্তিদানে

(in) penalty

(5)

مَا

যা

Whatever

قَطَعْتُم

তোমরা কেটেছ

you cut down

مِّن

মধ্য হতে

of

لِّينَةٍ

খেজুর গাছের

(the) palm-trees

أَوْ

বা

or

تَرَكْتُمُوهَا

তা তোমরা ছেড়ে দিয়েছ

you left them

قَآئِمَةً

দাঁড়ান অবস্থায়

standing

عَلَىٰٓ

উপর

on

أُصُولِهَا

তারা শিকড়গুলোর

their roots

فَبِإِذْنِ

অনুমতিক্রমে তা’তো

it (was) by the permission

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(of) Allah

وَلِيُخْزِىَ

এবং লাঞ্ছিত করার জন্যে

and that He may disgrace

ٱلْفَٰسِقِينَ

ফাসেকদের

the defiantly disobedient

(6)

وَمَآ

এবং যা

And what

أَفَآءَ

ফায় দিয়েছে

(was) restored

ٱللَّهُ

আল্লাহ

(by) Allah

عَلَىٰ

নিকট

to

رَسُولِهِۦ

তার রসূলের

His Messenger

مِنْهُمْ

তাদের থেকে

from them

فَمَآ

নাই এ জন্য

then not

أَوْجَفْتُمْ

তোমরা দৌড়াও

you made expedition

عَلَيْهِ

তার উপর

for it

مِنْ

কোন

of

خَيْلٍ

ঘোড়া

horses

وَلَا

এবং না

and not

رِكَابٍ

উট

camels

وَلَٰكِنَّ

কিন্তু

but

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

يُسَلِّطُ

আধিপত্য দেন

gives power

رُسُلَهُۥ

তার রসূলদেরকে

(to) His Messengers

عَلَىٰ

উপর

over

مَن

যার

whom

يَشَآءُ

তিনি ইচ্ছে করেন

He wills

وَٱللَّهُ

এবং আল্লাহ

And Allah

عَلَىٰ

উপর

(is) on

كُلِّ

সব

every

شَىْءٍ

কিছুুর

thing

قَدِيرٌ

ক্ষমতাবান

All-Powerful

(7)

مَّآ

যা

What

أَفَآءَ

ফায় দিয়েছেন

(was) restored

ٱللَّهُ

আল্লাহ

(by) Allah

عَلَىٰ

(উপর)

to

رَسُولِهِۦ

তার রাসূলকে

His Messenger

مِنْ

হতে

from

أَهْلِ

বাসীদের

(the) people

ٱلْقُرَىٰ

জনপদ

(of) the towns

فَلِلَّهِ

আল্লাহর জন্যে তা

(it is) for Allah

وَلِلرَّسُولِ

ও রসূলের জন্যে

and His Messenger

وَلِذِى

এবং জন্যে

and for those

ٱلْقُرْبَىٰ

নিকট আত্মীয় স্বজনদের

(of) the kindred

وَٱلْيَتَٰمَىٰ

ও য়াতীমদের

and the orphans

وَٱلْمَسَٰكِينِ

ও অভাবগ্রস্তদের

and the needy

وَٱبْنِ

and

ٱلسَّبِيلِ

পথিকদের

the wayfarer

كَىْ

যাতে

that

لَا

না

not

يَكُونَ

হয়

it becomes

دُولَةًۢ

আবর্তিত

a (perpetual) circulation

بَيْنَ

মাঝে

between

ٱلْأَغْنِيَآءِ

ধনীদের

the rich

مِنكُمْ

তোমাদের মধ্যে

among you

وَمَآ

এবং যা

And whatever

ءَاتَىٰكُمُ

তোমাদের দান করেন

gives you

ٱلرَّسُولُ

রসূল

the Messenger

فَخُذُوهُ

তা তোমরা গ্রহণ অতঃপর কর

take it

وَمَا

এবং যা

and whatever

نَهَىٰكُمْ

তোমাদের নিষেধ করেন

he forbids you

عَنْهُ

তা থেকে

from it

فَٱنتَهُوا۟

তোমরা বিরত অতঃপর হও

refrain

وَٱتَّقُوا۟

এবং তোমরা ভয়কর

And fear

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

Allah

إِنَّ

নিশ্চয়

Indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

شَدِيدُ

কঠোর

(is) severe

ٱلْعِقَابِ

শাস্তিদানে

(in) penalty

(8)

لِلْفُقَرَآءِ

অভাবগ্রস্তদের জন্যে

For the poor

ٱلْمُهَٰجِرِينَ

মাোহাজিরদের

emigrants

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

أُخْرِجُوا۟

বহিষ্কৃত হয়েছে

were expelled

مِن

হতে

from

دِيَٰرِهِمْ

তাদের ঘোড়বাড়ী গুলো

their homes

وَأَمْوَٰلِهِمْ

ও তাদের সম্পদগুলো

and their properties

يَبْتَغُونَ

তারা পেতে চা্য়

seeking

فَضْلًا

অনুগ্রহ

bounty

مِّنَ

থেকে

from

ٱللَّهِ

আল্লাহ

Allah

وَرِضْوَٰنًا

ও সন্তুষ্টি

and pleasure

وَيَنصُرُونَ

এবং তারা সাহায্য করে

and helping

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

Allah

وَرَسُولَهُۥٓ

ও তার রসূলকে

and His Messenger

أُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসবলোক

Those

هُمُ

তারাই

they

ٱلصَّٰدِقُونَ

সত্যবাদী

(are) the truthful

(9)

وَٱلَّذِينَ

এবং যারা

And those who

تَبَوَّءُو

বসবাস করেছে

settled

ٱلدَّارَ

(এই) নগরীতে

(in) the home

وَٱلْإِيمَٰنَ

এবং ঈমান (এনেছে)

and (accepted) faith

مِن

মধ্য হতে

from

قَبْلِهِمْ

তাদের পূর্বে

before them

يُحِبُّونَ

তারা ভালোবাসে

love

مَنْ

(তাদেরকে) যারা

(those) who

هَاجَرَ

হিজরত করেছে

emigrated

إِلَيْهِمْ

তাদের দিকে

to them

وَلَا

এবং না

and not

يَجِدُونَ

তারাপায়

they find

فِى

মধ্যে

in

صُدُورِهِمْ

তাদের অন্তরগুলোর

their breasts

حَاجَةً

প্রয়োজনের (অনুভূতি)

any want

مِّمَّآ

(যা) তা থেকে

of what

أُوتُوا۟

তাদের দেয়া হয়

they were given

وَيُؤْثِرُونَ

এবং তারা প্রাধান্য দেয়

but prefer

عَلَىٰٓ

উপর

over

أَنفُسِهِمْ

তাদের নিজেদের

themselves

وَلَوْ

এবং যদিও

even though

كَانَ

আছে

was

بِهِمْ

তাদের সাথে

with them

خَصَاصَةٌ

অঅভাব অনটন

poverty

وَمَن

এবং যে

And whoever

يُوقَ

রক্ষা করবে

is saved

شُحَّ

কৃপণতা (থেকে)

(from) stinginess

نَفْسِهِۦ

তার নিজেকে

(of) his soul

فَأُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসব অতঃপর লোক

then those

هُمُ

তারাই

[they]

ٱلْمُفْلِحُونَ

সফলকাম

(are) the successful ones

(10)

وَٱلَّذِينَ

এবং যারা

And those who

جَآءُو

এসেছে

came

مِنۢ

মধ্য হতে

from

بَعْدِهِمْ

তাদের পরে

after them

يَقُولُونَ

তারা বলে

they say

رَبَّنَا

“হে আমাদের রব

“Our Lord

ٱغْفِرْ

ক্ষমা কর

forgive

لَنَا

আমাদের

us

وَلِإِخْوَٰنِنَا

ও আমাদের ভাই দেরকে

and our brothers

ٱلَّذِينَ

যারা

who

سَبَقُونَا

আমাদের অগ্রণী হয়েছে

preceded us

بِٱلْإِيمَٰنِ

ইমানের ক্ষেত্রে

in faith

وَلَا

এবং না

and (do) not

تَجْعَلْ

রেখো

put

فِى

মধ্যে

in

قُلُوبِنَا

আমদের অন্তর গুলোর

our hearts

غِلًّا

হিংসা বিদ্বেষ

any rancor

لِّلَّذِينَ

যারাা (তাদের) জন্য

towards those who

ءَامَنُوا۟

ইমান এনেছে

believed

رَبَّنَآ

হে আমাাদের রব

Our Lord

إِنَّكَ

তুমি নিশ্চয়

indeed You

رَءُوفٌ

দয়ালু

(are) Full of Kindness

رَّحِيمٌ

মেহেরবান”

Most Merciful”

Sura Al Hasar in Words Ruku1

(11)

أَلَمْ

নাইকি

Do not

تَرَ

তুমি দেখ

you see

إِلَى

প্রতি

[to]

ٱلَّذِينَ

(তাদের) যারা

those who

نَافَقُوا۟

মুনাফেকী করেছে

(were) hypocrites

يَقُولُونَ

তারা বলেে

saying

لِإِخْوَٰنِهِمُ

তাদের ভাই দের

to their brothers

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

كَفَرُوا۟

কুফুরি করেছে

disbelieved

مِنْ

মধ্যে

among

أَهْلِ

আহলে

the People

ٱلْكِتَٰبِ

কিতাবদের

(of) the Scripture

لَئِنْ

“যদি নিশ্চয়

“If

أُخْرِجْتُمْ

তোমরা বহিষ্কৃত হও

you are expelled

لَنَخْرُجَنَّ

আমরা বের হব অবশ্যই

surely we will leave

مَعَكُمْ

তোমাদের সাথে

with you

وَلَا

এবং না

and not

نُطِيعُ

আনুগত্য করব আমরা

we will obey

فِيكُمْ

তোমাদের ব্যাপারে

concerning you

أَحَدًا

কারও

anyone

أَبَدًا

কখনও

ever

وَإِن

এবং যদি

and if

قُوتِلْتُمْ

তোমাদের (বিরুদ্ধে) যুদ্ধ করা হয়

you are fought

لَنَنصُرَنَّكُمْ

তোমাদের সাহায্য আমরা অবশ্যই করব”

certainly we will help you”

وَٱللَّهُ

এবং আল্লাহ

And Allah

يَشْهَدُ

সাক্ষ্য দিচ্ছেন

bears witness

إِنَّهُمْ

তারা নিশ্চয়

that they

لَكَٰذِبُونَ

অবশ্যই মিথ্যাবাদী

(are) surely liars

(12)

لَئِنْ

যদি বস্তুত

If

أُخْرِجُوا۟

তারা বহিষ্কৃত হয়

they are expelled

لَا

না

not

يَخْرُجُونَ

তারা বের হবে

they will leave

مَعَهُمْ

তাদের সাথে

with them

وَلَئِن

এবং যদি নিশ্চয়

and if

قُوتِلُوا۟

তাদের (বিরুদ্ধে) যুদ্ধ করা হয়

they are fought

لَا

না

not

يَنصُرُونَهُمْ

তাদের সাহায্য তারা করবে

they will help them

وَلَئِن

এবং যদি নিশ্চয়

And if

نَّصَرُوهُمْ

তাদের তারা সাহায্য করেও

they help them

لَيُوَلُّنَّ

অবশ্যই

certainly they will turn

ٱلْأَدْبَٰرَ

পৃষ্ঠ প্রদর্শন করবে

(their) backs;

ثُمَّ

এরপর

then

لَا

না

not

يُنصَرُونَ

তাদের সাহায্য করা হবে

they will be helped

(13)

لَأَنتُمْ

তোমরা প্রকৃত পক্ষে

Certainly you(r)

أَشَدُّ

অধিকতর

(are) more intense

رَهْبَةً

ভয়ংকর

(in) fear

فِى

মধ্যে

in

صُدُورِهِم

তাদের বুকের

their breasts

مِّنَ

চেয়েও

than

ٱللَّهِ

আল্লাহর

Allah

ذَٰلِكَ

এটা

That

بِأَنَّهُمْ

তারা যে একারণে

(is) because they

قَوْمٌ

(এমন) একজাতি

(are) a people

لَّا

না

(who do) not

يَفْقَهُونَ

তারা বুঝে

understand

(14)

لَا

না

Not

يُقَٰتِلُونَكُمْ

তোমাদের সাথে লড়বে তারা

will they fight you

جَمِيعًا

একত্রে

all

إِلَّا

কিন্তু

except

فِى

মধ্যে

in

قُرًى

জনপদের

towns

مُّحَصَّنَةٍ

দুর্গ পরিবেষ্টিত

fortified

أَوْ

অথবা

or

مِن

থেকে

from

وَرَآءِ

পিছনে

behind

جُدُرٍۭ

প্রাচীরসমূহের

walls

بَأْسُهُم

তাদের বিরুদ্ধতা

Their violence

بَيْنَهُمْ

তাদের মধ্য

among themselves

شَدِيدٌ

প্রবল

(is) severe

تَحْسَبُهُمْ

তাদের মনে কর তুমি

You think they

جَمِيعًا

ঐক্যবদ্ধ

(are) united

وَقُلُوبُهُمْ

তাদের অন্তরগুলো কিন্তু

but their hearts

شَتَّىٰ

দ্বিধাবিভক্ত

(are) divided

ذَٰلِكَ

এটা

That

بِأَنَّهُمْ

তারা যে কারণে

(is) because they

قَوْمٌ

একজাতি

(are) a people

لَّا

না

not

يَعْقِلُونَ

তারা জানে

they reason

(15)

كَمَثَلِ

দৃষ্ঠান্ত যেমন

Like (the) example

ٱلَّذِينَ

যারা

(of) those

مِن

মধ্য হতে

from

قَبْلِهِمْ

তাদের পূর্বে ছিল

before them

قَرِيبًا

কিছুকাল

shortly

ذَاقُوا۟

তারা স্বাদ নিয়েছে

they tasted

وَبَالَ

কুফলের

(the) evil result

أَمْرِهِمْ

তাদের কাজের

(of) their affair

وَلَهُمْ

ও তাদের জন্যে

and for them

عَذَابٌ

আজাব

(is) a punishment

أَلِيمٌ

কষ্টদায়ক

painful

(16)

كَمَثَلِ

দৃষ্ঠান্ত যেমন

Like (the) example

ٱلشَّيْطَٰنِ

শয়তানের

(of) the Shaitaan

إِذْ

যখন

when

قَالَ

সে বলেছিল

he says

لِلْإِنسَٰنِ

মানুুষকে

to man

ٱكْفُرْ

“তুমি কুফরিকর”

“Disbelieve”

فَلَمَّا

যখন অতঃপর

But when

كَفَرَ

কুফুরি করল

he disbelieves

قَالَ

সে বলেল

he says

إِنِّى

“আমি নিশ্চয়

“Indeed I am

بَرِىٓءٌ

দ্বায়িত্বমুক্ত

disassociated

مِّنكَ

তোমার হতে

from you

إِنِّىٓ

আমি নিশ্চয়

Indeed [I]

أَخَافُ

ভয়করি

I fear

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

Allah

رَبَّ

রব

(the) Lord

ٱلْعَٰلَمِينَ

সারা বিশ্বের”

(of) the worlds”

(17)

فَكَانَ

হল অতঃপর

So will be

عَٰقِبَتَهُمَآ

তাদের দুজনের পরিনতি

(the) end of both of them

أَنَّهُمَا

দুজনই যে হবে

that they will

فِى

মধ্যে

(be) in

ٱلنَّارِ

জাহান্নামের

the Fire

خَٰلِدَيْنِ

দুজনে চিরকাল থাকবে

abiding forever

فِيهَا

তার মধ্যে

therein

وَذَٰلِكَ

এবং এটা

And that

جَزَٰٓؤُا۟

প্রতিদান

(is the) recompense

ٱلظَّٰلِمِينَ

যালিমদের

(of) the wrongdoers

Sura Al Hasar in Words Ruku2

(18)

يَٰٓأَيُّهَا

ওহে

O!

ٱلَّذِينَ

যারা

you (who)!

ءَامَنُوا۟

ইমান এনেছ

believe!

ٱتَّقُوا۟

তোমরা ভয়কর

Fear

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

Allah

وَلْتَنظُرْ

এবং যেন লক্ষ্য করে

and let look

نَفْسٌ

প্রত্যেক ব্যক্তি

every soul

مَّا

যা

what

قَدَّمَتْ

আগে পাঠিয়েছে

it has sent forth

لِغَدٍ

আগামীকালে জন্যে

for tomorrow

وَٱتَّقُوا۟

ও তোমরা ভয়কর

and fear

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

Allah

إِنَّ

নিশ্চয়

Indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

خَبِيرٌۢ

খুব অবহিত

(is) All-Aware

بِمَا

যা

of what

تَعْمَلُونَ

তোমরা কাজ কর

you do

(19)

وَلَا

এবং না

And (do) not

تَكُونُوا۟

তোমরা হয়ো

be

كَٱلَّذِينَ

(তাদের) মত যারা

like those who

نَسُوا۟

ভূলে গিয়েছিল

forgot

ٱللَّهَ

আল্লাহকে

Allah

فَأَنسَىٰهُمْ

তাদের ভুলালেন অতঃপর তিনি

so He made them forget

أَنفُسَهُمْ

তারা নিজেদেরকে

themselves

أُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসব লোক

Those

هُمُ

তারাই

they

ٱلْفَٰسِقُونَ

ফাসেক

(are) the defiantly disobedient

(20)

لَا

না

Not

يَسْتَوِىٓ

সমান হয়

are equal

أَصْحَٰبُ

অধিবাসীরা

(the) companions

ٱلنَّارِ

দোজখের

(of) the Fire

وَأَصْحَٰبُ

ও অধিবাসীরা

and (the) companions

ٱلْجَنَّةِ

জান্নাতের

(of) Paradise

أَصْحَٰبُ

অধধিবাসীরা

(The) companions

ٱلْجَنَّةِ

জান্নাতের

(of) Paradise

هُمُ

তারাই

they

ٱلْفَآئِزُونَ

সফলকাম

(are) achievers

(21)

لَوْ

যদি

If

أَنزَلْنَا

আমরা অবতীর্ণ করতাম

We (had) sent down

هَٰذَا

এই

this

ٱلْقُرْءَانَ

কুরআন

Quran

عَلَىٰ

উপর

on

جَبَلٍ

একটি পর্বতের

a mountain

لَّرَأَيْتَهُۥ

নিশ্চয় আপনি তা দেখতেন

surely you (would) have seen it

خَٰشِعًا

বিনীত ,

humbled

مُّتَصَدِّعًا

দুভাগে বিভক্ত ভঙ্গ

breaking asunder

مِّنْ

থেকে

from

خَشْيَةِ

ভয়

(the) fear

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(of) Allah

وَتِلْكَ

আর এই

And these

ٱلْأَمْثَٰلُ

উদাহরণ ( সম্পূর্ণ ) ,

(are) the examples

نَضْرِبُهَا

আমরা তাদের উপস্থাপন করি

We present them

لِلنَّاسِ

মানুষের কাছে

to the people

لَعَلَّهُمْ

যেন তারা

so that they may

يَتَفَكَّرُونَ

চিন্তা-ভাবনা করে

give thought

(22)

هُوَ

তিনিই

He

ٱللَّهُ

আল্লাহ

(is) Allah

ٱلَّذِى

যে

the One Who

لَآ

নাই

(there is) no

إِلَٰهَ

কোনো ইলাহ

god

إِلَّا

ব্যতীত

but

هُوَ

তাঁর,

He

عَٰلِمُ

জানেন

(the) All-Knower

ٱلْغَيْبِ

গোপন

(of) the unseen

وَٱلشَّهَٰدَةِ

ও প্রকাশ্য

and the witnessed

هُوَ

তিনি

He

ٱلرَّحْمَٰنُ

পরম করুণাময়

(is) the Most Gracious

ٱلرَّحِيمُ

অসীম দয়ালু

the Most Merciful

(23)

هُوَ

তিনিই

He

ٱللَّهُ

আল্লাহ

(is) Allah

ٱلَّذِى

যে

the One Who

لَآ

নাই

(there is) no

إِلَٰهَ

কোনো ইলাহ

god

إِلَّا

ব্যতীত

but

هُوَ

তাঁর,

He

ٱلْمَلِكُ

বাদশাহ,

the Sovereign

ٱلْقُدُّوسُ

অতীব প্রবিত্র,

the Holy One

ٱلسَّلَٰمُ

শান্তিদাতা,

the Giver of Peace

ٱلْمُؤْمِنُ

নিরাপত্তাদাতা,

the Giver of Security

ٱلْمُهَيْمِنُ

সংরক্ষক,

the Guardian

ٱلْعَزِيزُ

পরাক্রমশালী,

the All-Mighty

ٱلْجَبَّارُ

প্রবল,

the Irresistible

ٱلْمُتَكَبِّرُ

মহিমান্বিত,

the Supreme

سُبْحَٰنَ

পবিত্র

Glory (be to)

ٱللَّهِ

আল্লাহ (র)

Allah

عَمَّا

যা হতে

from what

يُشْرِكُونَ

তারা শরীক করে

they associate (with Him)

(24)

هُوَ

তিনিই

He

ٱللَّهُ

আল্লাহ

(is) Allah

ٱلْخَٰلِقُ

সৃষ্টিকর্তা,

the Creator

ٱلْبَارِئُ

উদ্ভাবনকর্তা,

the Inventor

ٱلْمُصَوِّرُ

আকৃতিদাতা,

the Fashioner

لَهُ

তাঁর জন্যই

For Him

ٱلْأَسْمَآءُ

নামসমুহ

(are) the names

ٱلْحُسْنَىٰ

উত্তম

the beautiful

يُسَبِّحُ

গৌরব বর্ণনা করে

Glorifies

لَهُۥ

তারই

Him

مَا

যা কিছু

whatever

فِى

আছে

(is) in

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আসমানে

the heavens

وَٱلْأَرْضِ

এবং পৃথিবীতে

and the earth

وَهُوَ

এবং তিনি

And He

ٱلْعَزِيزُ

পরাক্রমশালী,

(is) the All-Mighty

ٱلْحَكِيمُ

মহাবিজ্ঞ

the All-Wise

Sura Al Hasar in Words Ruku3

[1] যুদ্ধ ছাড়াই যে ধন-সম্পদ অর্জিত হয় তাকে في বলে। এটি সাধারণত বায়তুল মালে জমা রাখা হয় এবং রাসূল স্বীয় তত্ত্বাবধানে রাষ্ট্রীয় প্রয়োজনে তা ব্যবহার করতেন। আর যুদ্ধের মাধ্যমে যা অর্জিত হয় তাকে গনিমত غنيمت বলা হয়।

৫৮সুরা মুজাদালাহ<< সুরা হাশর >> ৬০ সুরা মুমতাহিনা

By Quran Sharif

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply