সুরা ফাতাহ বাংলা Sura Al Fath in Words & Audio

সুরা ফাতাহ বাংলা Sura Al Fath in Words & Audio

সুরা ফাতাহ >> ১১৪ টি সূরার সূচীপত্র লিস্ট >> ২০ টির অধিক তাফসীর কিতাব পড়ুন

৪৮, সুরা ফাতাহ, আয়াত-২৯, মাদানী, রুকু-৪

সুরা ফাতাহ mp3 Download

সুরা ফাতাহ ع রুকু [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামেبِسۡمِ ٱللَّهِ ٱلرَّحۡمَٰنِ ٱلرَّحِيمِ
(1) নিশ্চয় আমি তোমাকে সুস্পষ্ট বিজয় দিয়েছি;إِنَّا فَتَحۡنَا لَكَ فَتۡحٗا مُّبِينٗا ١
(2) যেন আল্লাহ তোমার পূর্বের ও পরের পাপ ক্ষমা করেন, তোমার উপর তাঁর নিআমত পূর্ণ করেন আর তোমাকে সরল পথের হিদায়াত দেন।لِّيَغۡفِرَ لَكَ ٱللَّهُ مَا تَقَدَّمَ مِن ذَنۢبِكَ وَمَا تَأَخَّرَ وَيُتِمَّ نِعۡمَتَهُۥ عَلَيۡكَ وَيَهۡدِيَكَ صِرَٰطٗا مُّسۡتَقِيمٗا ٢
(3) এবং তোমাকে প্রবল সাহার্য্য দান করেন।وَيَنصُرَكَ ٱللَّهُ نَصۡرًا عَزِيزًا ٣
(4) তিনিই মুমিনদের অন্তরে প্রশান্তি নাযিল করেছিলেন যেন তাদের ঈমানের সাথে ঈমান বৃদ্ধি পায়; এবং আসমানসমূহ ও যমীনের বাহিনীগুলো আল্লাহরই; আর আল্লাহ হলেন সর্বজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়।هُوَ ٱلَّذِيٓ أَنزَلَ ٱلسَّكِينَةَ فِي قُلُوبِ ٱلۡمُؤۡمِنِينَ لِيَزۡدَادُوٓاْ إِيمَٰنٗا مَّعَ إِيمَٰنِهِمۡۗ وَلِلَّهِ جُنُودُ ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَٱلۡأَرۡضِۚ وَكَانَ ٱللَّهُ عَلِيمًا حَكِيمٗا ٤
(5) যেন তিনি মুমিন নারী ও পুরুষকে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন যার নিচ দিয়ে নহরসমূহ প্রবাহিত; সেখানে তারা স্থায়ী হবে; আর তিনি তাদের পাপসমূহ ক্ষমা করবেন; আর এটি ছিল আল্লাহর নিকট এক মহাসাফল্য।لِّيُدۡخِلَ ٱلۡمُؤۡمِنِينَ وَٱلۡمُؤۡمِنَٰتِ جَنَّٰتٖ تَجۡرِي مِن تَحۡتِهَا ٱلۡأَنۡهَٰرُ خَٰلِدِينَ فِيهَا وَيُكَفِّرَ عَنۡهُمۡ سَيِّ‍َٔاتِهِمۡۚ وَكَانَ ذَٰلِكَ عِندَ ٱللَّهِ فَوۡزًا عَظِيمٗا ٥
(6) আর যেন তিনি শাস্তি দিতে পারেন মুনাফিক নারী-পুরুষ ও মুশরিক নারী-পুরুষকে যারা আল্লাহ সম্পর্কে মন্দ ধারণা পোষণ করে; তাদের উপরই অনিষ্টতা আপতিত হয়। আর আল্লাহ তাদের উপর রাগ করেছেন এবং তাদেরকে লা‘নত করেছেন, আর তাদের জন্য প্রস্তুত করেছেন জাহান্নাম; এবং গন্তব্য হিসেবে তা কতইনা নিকৃষ্ট!وَيُعَذِّبَ ٱلۡمُنَٰفِقِينَ وَٱلۡمُنَٰفِقَٰتِ وَٱلۡمُشۡرِكِينَ وَٱلۡمُشۡرِكَٰتِ ٱلظَّآنِّينَ بِٱللَّهِ ظَنَّ ٱلسَّوۡءِۚ عَلَيۡهِمۡ دَآئِرَةُ ٱلسَّوۡءِۖ وَغَضِبَ ٱللَّهُ عَلَيۡهِمۡ وَلَعَنَهُمۡ وَأَعَدَّ لَهُمۡ جَهَنَّمَۖ وَسَآءَتۡ مَصِيرٗا ٦
(7) আর আল্লাহরই জন্য আসমানসমূহ ও যমীনের যাবতীয় সৈন্যবাহিনী; এবং আল্লাহ মহাপরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়।وَلِلَّهِ جُنُودُ ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَٱلۡأَرۡضِۚ وَكَانَ ٱللَّهُ عَزِيزًا حَكِيمًا ٧
(8) নিশ্চয় আমি তোমাকে পাঠিয়েছি সাক্ষ্যদাতা, সুসংবাদদাতা ও সতর্ককারী রূপে।إِنَّآ أَرۡسَلۡنَٰكَ شَٰهِدٗا وَمُبَشِّرٗا وَنَذِيرٗا ٨
(9) যাতে তোমরা আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের ওপর ঈমান আন, তাকে সাহায্য ও সম্মান কর এবং সকাল-সন্ধ্যায় আল্লাহর তাসবীহ পাঠ কর।لِّتُؤۡمِنُواْ بِٱللَّهِ وَرَسُولِهِۦ وَتُعَزِّرُوهُ وَتُوَقِّرُوهُۚ وَتُسَبِّحُوهُ بُكۡرَةٗ وَأَصِيلًا ٩
(10) আর যারা তোমার কাছে বাই‘য়াত গ্রহণ করে, তারা শুধু আল্লাহরই কাছে বাই‘য়াত গ্রহণ করে; আল্লাহর হাত তাদের হাতের উপর; অতঃপর যে কেউ ওয়াদা ভঙ্গ করলে তার ওয়াদা ভঙ্গের পরিণাম বর্তাবে তারই উপর। আর যে আল্লাহকে দেয়া ওয়াদা পূরণ করবে অচিরেই আল্লাহ তাকে মহা পুরস্কার দেবেন।إِنَّ ٱلَّذِينَ يُبَايِعُونَكَ إِنَّمَا يُبَايِعُونَ ٱللَّهَ يَدُ ٱللَّهِ فَوۡقَ أَيۡدِيهِمۡۚ فَمَن نَّكَثَ فَإِنَّمَا يَنكُثُ عَلَىٰ نَفۡسِهِۦۖ وَمَنۡ أَوۡفَىٰ بِمَا عَٰهَدَ عَلَيۡهُ ٱللَّهَ فَسَيُؤۡتِيهِ أَجۡرًا عَظِيمٗا ١٠

সুরা ফাতাহ ع রুকু [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

.

(11) পিছনে পড়ে থাকা বেদুঈনরা তোমাকে অচিরেই বলবে, ‘আমাদের ধন-সম্পদ ও পরিবার-পরিজন আমাদেরকে ব্যস্ত রেখেছিল; অতএব আমাদের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করুন।’ তারা মুখে তা বলে যা তাদের অন্তরে নেই। বল, ‘আল্লাহ যদি তোমাদের কোন ক্ষতি করতে চান কিংবা কোন উপকার করতে চান, তবে কে আল্লাহর মোকাবিলায় তোমাদের জন্য কোন কিছুর মালিক হবে’? বরং তোমরা যে আমল কর আল্লাহ সে বিষয়ে সম্যক অবহিত।’سَيَقُولُ لَكَ ٱلۡمُخَلَّفُونَ مِنَ ٱلۡأَعۡرَابِ شَغَلَتۡنَآ أَمۡوَٰلُنَا وَأَهۡلُونَا فَٱسۡتَغۡفِرۡ لَنَاۚ يَقُولُونَ بِأَلۡسِنَتِهِم مَّا لَيۡسَ فِي قُلُوبِهِمۡۚ قُلۡ فَمَن يَمۡلِكُ لَكُم مِّنَ ٱللَّهِ شَيۡ‍ًٔا إِنۡ أَرَادَ بِكُمۡ ضَرًّا أَوۡ أَرَادَ بِكُمۡ نَفۡعَۢاۚ بَلۡ كَانَ ٱللَّهُ بِمَا تَعۡمَلُونَ خَبِيرَۢا ١١
(12) বরং তোমরা মনে করেছিলে রাসূল ও মুমিনরা তাদের পরিবারের কাছে কখনো ফিরে আসবে না; আর এটি তোমাদের অন্তরে শোভিত করে দেয়া হয়েছিল; আর তোমরা মন্দ ধারণা করেছিলে এবং তোমরা ছিলে ধংসোম্মুখ কওম ।بَلۡ ظَنَنتُمۡ أَن لَّن يَنقَلِبَ ٱلرَّسُولُ وَٱلۡمُؤۡمِنُونَ إِلَىٰٓ أَهۡلِيهِمۡ أَبَدٗا وَزُيِّنَ ذَٰلِكَ فِي قُلُوبِكُمۡ وَظَنَنتُمۡ ظَنَّ ٱلسَّوۡءِ وَكُنتُمۡ قَوۡمَۢا بُورٗا ١٢
(13) আর যে কেউ আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের উপর ঈমান আনে না তবে নিশ্চয় আমি কাফিরদের জন্য প্রস্তুত করেছি জ্বলন্ত আগুন।وَمَن لَّمۡ يُؤۡمِنۢ بِٱللَّهِ وَرَسُولِهِۦ فَإِنَّآ أَعۡتَدۡنَا لِلۡكَٰفِرِينَ سَعِيرٗا ١٣
(14) আসমানসমূহ ও যমীনের সার্বভৌমত্ব আল্লাহর; তিনি যাকে ইচ্ছা ক্ষমা করেন, আর যাকে ইচ্ছা শাস্তি দেন। আর আল্লাহ অতি ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু।وَلِلَّهِ مُلۡكُ ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَٱلۡأَرۡضِۚ يَغۡفِرُ لِمَن يَشَآءُ وَيُعَذِّبُ مَن يَشَآءُۚ وَكَانَ ٱللَّهُ غَفُورٗا رَّحِيمٗا ١٤
(15) তোমরা যখন যুদ্ধলব্ধ সম্পদ সংগ্রহে উদ্যোগী হবে তখন পিছনে যারা পড়েছিল অচিরেই তারা বলবে, ‘আমাদেরকে তোমাদের অনুসরণ করতে দাও।’ তারা আল্লাহর বাণী পরিবর্তন করতে চায়। বল, ‘তোমরা কখনো আমাদের অনুসরণ করবে না; আল্লাহ আগেই এমনটি বলেছেন।’ অতঃপর অচিরেই তারা বলবে, ‘বরং তোমরা হিংসা করছ।’ বরং তারা খুব কমই বুঝে।سَيَقُولُ ٱلۡمُخَلَّفُونَ إِذَا ٱنطَلَقۡتُمۡ إِلَىٰ مَغَانِمَ لِتَأۡخُذُوهَا ذَرُونَا نَتَّبِعۡكُمۡۖ يُرِيدُونَ أَن يُبَدِّلُواْ كَلَٰمَ ٱللَّهِۚ قُل لَّن تَتَّبِعُونَا كَذَٰلِكُمۡ قَالَ ٱللَّهُ مِن قَبۡلُۖ فَسَيَقُولُونَ بَلۡ تَحۡسُدُونَنَاۚ بَلۡ كَانُواْ لَا يَفۡقَهُونَ إِلَّا قَلِيلٗا ١٥
(16) পেছনে পড়ে থাকা বেদুঈনদেরকে বল, ‘এক কঠোর যোদ্ধা জাতির বিরুদ্ধে শীঘ্রই তোমাদেরকে ডাকা হবে; তোমরা তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে অথবা তারা আত্মসমর্পণ করবে। অতঃপর তোমরা যদি আনুগত্য কর তবে আল্লাহ তোমাদেরকে উত্তম প্রতিদান দেবেন। আর পূর্বে তোমরা যেমন ফিরে গিয়েছিলে তেমনি যদি ফিরে যাও তবে তিনি তোমাদেরকে যন্ত্রণাদায়ক আযাব দেবেন।قُل لِّلۡمُخَلَّفِينَ مِنَ ٱلۡأَعۡرَابِ سَتُدۡعَوۡنَ إِلَىٰ قَوۡمٍ أُوْلِي بَأۡسٖ شَدِيدٖ تُقَٰتِلُونَهُمۡ أَوۡ يُسۡلِمُونَۖ فَإِن تُطِيعُواْ يُؤۡتِكُمُ ٱللَّهُ أَجۡرًا حَسَنٗاۖ وَإِن تَتَوَلَّوۡاْ كَمَا تَوَلَّيۡتُم مِّن قَبۡلُ يُعَذِّبۡكُمۡ عَذَابًا أَلِيمٗا ١٦
(17) অন্ধের কোন অপরাধ নেই, লেংড়ার কোন অপরাধ নেই, অসুস্থের কোন অপরাধ নেই। যে ব্যক্তি আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করবে তিনি তাকে এমন জান্নাতে দাখিল করাবেন যার পাদদেশে নহরসমূহ প্রবাহিত। আর যে ব্যক্তি পিছনে ফিরে যাবে তিনি তাকে যন্ত্রণাদায়ক আযাব দেবেন।لَّيۡسَ عَلَى ٱلۡأَعۡمَىٰ حَرَجٞ وَلَا عَلَى ٱلۡأَعۡرَجِ حَرَجٞ وَلَا عَلَى ٱلۡمَرِيضِ حَرَجٞۗ وَمَن يُطِعِ ٱللَّهَ وَرَسُولَهُۥ يُدۡخِلۡهُ جَنَّٰتٖ تَجۡرِي مِن تَحۡتِهَا ٱلۡأَنۡهَٰرُۖ وَمَن يَتَوَلَّ يُعَذِّبۡهُ عَذَابًا أَلِيمٗا ١٧

সুরা ফাতাহ ع রুকু [২][2] >> [১][1] >> [৩][3] >> [৪][4]

.

(18) অবশ্যই আল্লাহ মুমিনদের উপর সন্তুষ্ট হয়েছেন, যখন তারা গাছের নিচে আপনার হাতে বাই‘আত গ্রহণ করেছিল; অতঃপর তিনি তাদের অন্তরে কি ছিল তা জেনে নিয়েছেন, ফলে তাদের উপর প্রশান্তি নাযিল করলেন এবং তাদেরকে পুরস্কৃত করলেন নিকটবর্তী বিজয় দিয়ে।۞لَّقَدۡ رَضِيَ ٱللَّهُ عَنِ ٱلۡمُؤۡمِنِينَ إِذۡ يُبَايِعُونَكَ تَحۡتَ ٱلشَّجَرَةِ فَعَلِمَ مَا فِي قُلُوبِهِمۡ فَأَنزَلَ ٱلسَّكِينَةَ عَلَيۡهِمۡ وَأَثَٰبَهُمۡ فَتۡحٗا قَرِيبٗا ١٨
(19) আর বিপুল পরিমাণ যুদ্ধলব্ধ সম্পদ দিয়ে যা তারা গ্রহণ করবে; আর আল্লাহ হলেন মহাপরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়।وَمَغَانِمَ كَثِيرَةٗ يَأۡخُذُونَهَاۗ وَكَانَ ٱللَّهُ عَزِيزًا حَكِيمٗا ١٩
(20) আল্লাহ তোমাদেরকে প্রভূত গনীমতের ওয়াদা দিয়েছেন যা তোমরা গ্রহণ করবে; অতঃপর এগুলি আগে দিয়েছেন; আর মানুষের হাত তোমাদের থেকে ফিরিয়ে রেখেছেন এবং যাতে এটি মুমিনদের জন্য একটি নিদর্শন হয়, আর তিনি তোমাদেরকে সরল পথ দেখান।وَعَدَكُمُ ٱللَّهُ مَغَانِمَ كَثِيرَةٗ تَأۡخُذُونَهَا فَعَجَّلَ لَكُمۡ هَٰذِهِۦ وَكَفَّ أَيۡدِيَ ٱلنَّاسِ عَنكُمۡ وَلِتَكُونَ ءَايَةٗ لِّلۡمُؤۡمِنِينَ وَيَهۡدِيَكُمۡ صِرَٰطٗا مُّسۡتَقِيمٗا ٢٠
(21) আর আরেকটি এখনো তোমরা যা অর্জন করতে সক্ষম হওনি। কিন্তু আল্লাহ তা বেষ্টন করে রেখেছেন। আর আল্লাহ সব কিছুর উপর ক্ষমতাবান।وَأُخۡرَىٰ لَمۡ تَقۡدِرُواْ عَلَيۡهَا قَدۡ أَحَاطَ ٱللَّهُ بِهَاۚ وَكَانَ ٱللَّهُ عَلَىٰ كُلِّ شَيۡءٖ قَدِيرٗا ٢١
(22) আর যারা কুফরী করেছে তারা যদি তোমাদের সাথে যুদ্ধ করে তবে অবশ্যই তারা পিঠ দেখিয়ে পালাবে। তারপর তারা কোন অভিভাবক ও সাহায্যকারী পাবে না।وَلَوۡ قَٰتَلَكُمُ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ لَوَلَّوُاْ ٱلۡأَدۡبَٰرَ ثُمَّ لَا يَجِدُونَ وَلِيّٗا وَلَا نَصِيرٗا ٢٢
(23) তোমাদের পূর্বে যারা গত হয়েছে তাদের ব্যাপারে এটি আল্লাহর নিয়ম; আর তুমি আল্লাহর নিয়মে কোন পরিবর্তন পাবে না।سُنَّةَ ٱللَّهِ ٱلَّتِي قَدۡ خَلَتۡ مِن قَبۡلُۖ وَلَن تَجِدَ لِسُنَّةِ ٱللَّهِ تَبۡدِيلٗا ٢٣
(24) আর তিনিই মক্কা উপত্যকায় তোমাদেরকে তাদের উপর বিজয়ী করার পর তাদের হাত তোমাদের থেকে এবং তোমাদের হাত তাদের থেকে ফিরায়ে রেখেছেন। আর তোমরা যা আমল কর, আল্লাহ হলেন তার সম্যক দ্রষ্টা।وَهُوَ ٱلَّذِي كَفَّ أَيۡدِيَهُمۡ عَنكُمۡ وَأَيۡدِيَكُمۡ عَنۡهُم بِبَطۡنِ مَكَّةَ مِنۢ بَعۡدِ أَنۡ أَظۡفَرَكُمۡ عَلَيۡهِمۡۚ وَكَانَ ٱللَّهُ بِمَا تَعۡمَلُونَ بَصِيرًا ٢٤
(25) তারাইতো কুফরী করেছিল এবং তোমাদেরকে আল-মাসজিদুল হারাম থেকে বাধা দিয়েছিল আর কুরবানীর পশুগুলোকে কুরবানীর স্থানে পৌঁছতে বাধা দিয়েছিল। যদি মুমিন পুরুষরা ও মুমিন নারীরা না থাকত, যাদের সম্পর্কে তোমরা জান না যে, তোমরা অজ্ঞাতসারে তাদেরকে পদদলিত করবে, ফলে তাদের কারণে তোমরা দোষী হতে কিন্তু আমি তাদের উপর কর্তৃত্ব দিয়েছি যাতে আল্লাহ যাকে ইচ্ছা স্বীয় রহমতে প্রবেশ করাবেন। যদি তারা পৃথক থাকত, তাহলে তাদের মধ্যে যারা কুফরী করেছে তাদেরকে আমি অবশ্যই যন্ত্রণাদায়ক আযাব দিতাম।هُمُ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ وَصَدُّوكُمۡ عَنِ ٱلۡمَسۡجِدِ ٱلۡحَرَامِ وَٱلۡهَدۡيَ مَعۡكُوفًا أَن يَبۡلُغَ مَحِلَّهُۥۚ وَلَوۡلَا رِجَالٞ مُّؤۡمِنُونَ وَنِسَآءٞ مُّؤۡمِنَٰتٞ لَّمۡ تَعۡلَمُوهُمۡ أَن تَطَ‍ُٔوهُمۡ فَتُصِيبَكُم مِّنۡهُم مَّعَرَّةُۢ بِغَيۡرِ عِلۡمٖۖ لِّيُدۡخِلَ ٱللَّهُ فِي رَحۡمَتِهِۦ مَن يَشَآءُۚ لَوۡ تَزَيَّلُواْ لَعَذَّبۡنَا ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ مِنۡهُمۡ عَذَابًا أَلِيمًا ٢٥
(26) যখন কাফিররা তাদের অন্তরে আত্ম-অহমিকা পোষণ করেছিল, জাহিলী যুগের আহমিকা। তখন আল্লাহ তাঁর রাসূলের উপর ও মুমিনদের উপর স্বীয় প্রশান্তি নাযিল করলেন এবং তাকওয়ার বাণী তাদের জন্য অপরিহার্য করলেন, আর তারাই ছিল এর সর্বাধিক উপযুক্ত ও এর অধিকারী। আর  আল্লাহ হলেন প্রত্যেক বিষয়ে সর্বজ্ঞ।إِذۡ جَعَلَ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ فِي قُلُوبِهِمُ ٱلۡحَمِيَّةَ حَمِيَّةَ ٱلۡجَٰهِلِيَّةِ فَأَنزَلَ ٱللَّهُ سَكِينَتَهُۥ عَلَىٰ رَسُولِهِۦ وَعَلَى ٱلۡمُؤۡمِنِينَ وَأَلۡزَمَهُمۡ كَلِمَةَ ٱلتَّقۡوَىٰ وَكَانُوٓاْ أَحَقَّ بِهَا وَأَهۡلَهَاۚ وَكَانَ ٱللَّهُ بِكُلِّ شَيۡءٍ عَلِيمٗا ٢٦

সুরা ফাতাহ ع রুকু [৩][3] >> [১][1] >> [২][2] >> [৪][4]

.

(27) অবশ্যই আল্লাহ তাঁর রাসূলকে স্বপ্নটি যথাযথভাবে সত্যে পরিণত করে দিয়েছেন। তোমরা ইনশাআল্লাহ নিরাপদে তোমাদের মাথা মুন্ডন করে এবং চুল ছেঁটে নির্ভয়ে আল-মাসজিদুল হারামে অবশ্যই প্রবেশ করবে। অতঃপর আল্লাহ জেনেছেন যা তোমরা জানতে না। সুতরাং এ ছাড়াও তিনি দিলেন এক  নিকটবর্তী বিজয়।لَّقَدۡ صَدَقَ ٱللَّهُ رَسُولَهُ ٱلرُّءۡيَا بِٱلۡحَقِّۖ لَتَدۡخُلُنَّ ٱلۡمَسۡجِدَ ٱلۡحَرَامَ إِن شَآءَ ٱللَّهُ ءَامِنِينَ مُحَلِّقِينَ رُءُوسَكُمۡ وَمُقَصِّرِينَ لَا تَخَافُونَۖ فَعَلِمَ مَا لَمۡ تَعۡلَمُواْ فَجَعَلَ مِن دُونِ ذَٰلِكَ فَتۡحٗا قَرِيبًا ٢٧
(28) তিনিই তাঁর রাসূলকে হিদায়াত ও সত্য দীনসহ প্রেরণ করেছেন, যাতে তিনি এটাকে সকল দীনের উপর বিজয়ী করতে পারেন। আর সাক্ষী হিসেবে আল্লাহই যথেষ্ট।هُوَ ٱلَّذِيٓ أَرۡسَلَ رَسُولَهُۥ بِٱلۡهُدَىٰ وَدِينِ ٱلۡحَقِّ لِيُظۡهِرَهُۥ عَلَى ٱلدِّينِ كُلِّهِۦۚ وَكَفَىٰ بِٱللَّهِ شَهِيدٗا ٢٨
(29) মুহাম্মদ আল্লাহর রাসূল এবং তার সাথে যারা আছে তারা কাফিরদের প্রতি অত্যন্ত কঠোর; পরস্পরের প্রতি সদয়, তুমি তাদেরকে রুকূকারী, সিজদাকারী অবস্থায় দেখতে পাবে। তারা আল্লাহর করুণা ও সন্তুষ্টি অনুসন্ধান করছে। তাদের আলামত হচ্ছে, তাদের চেহারায় সিজদার চি‎হ্ন থাকে। এটাই তাওরাতে তাদের দৃষ্টান্ত। আর ইনজীলে তাদের দৃষ্টান্ত হলো একটি চারাগাছের মত, যে তার কঁচিপাতা উদগত করেছে ও শক্ত করেছে, অতঃপর তা পুষ্ট হয়েছে ও স্বীয় কান্ডের উপর মজবুতভাবে দাঁড়িয়েছে, যা চাষীকে আনন্দ দেয়। যাতে তিনি তাদের দ্বারা কাফিরদেরকে ক্রোধান্বিত করতে পারেন। তাদের মধ্যে যারা ঈমান আনে ও সৎকর্ম করে, আল্লাহ তাদের জন্য ক্ষমা ও মহাপ্রতিদানের ওয়াদা করেছেন।مُّحَمَّدٞ رَّسُولُ ٱللَّهِۚ وَٱلَّذِينَ مَعَهُۥٓ أَشِدَّآءُ عَلَى ٱلۡكُفَّارِ رُحَمَآءُ بَيۡنَهُمۡۖ تَرَىٰهُمۡ رُكَّعٗا سُجَّدٗا يَبۡتَغُونَ فَضۡلٗا مِّنَ ٱللَّهِ وَرِضۡوَٰنٗاۖ سِيمَاهُمۡ فِي وُجُوهِهِم مِّنۡ أَثَرِ ٱلسُّجُودِۚ ذَٰلِكَ مَثَلُهُمۡ فِي ٱلتَّوۡرَىٰةِۚ وَمَثَلُهُمۡ فِي ٱلۡإِنجِيلِ كَزَرۡعٍ أَخۡرَجَ شَطۡ‍َٔهُۥ فَ‍َٔازَرَهُۥ فَٱسۡتَغۡلَظَ فَٱسۡتَوَىٰ عَلَىٰ سُوقِهِۦ يُعۡجِبُ ٱلزُّرَّاعَ لِيَغِيظَ بِهِمُ ٱلۡكُفَّارَۗ وَعَدَ ٱللَّهُ ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ وَعَمِلُواْ ٱلصَّٰلِحَٰتِ مِنۡهُم مَّغۡفِرَةٗ وَأَجۡرًا عَظِيمَۢا ٢٩

সুরা ফাতাহ ع রুকু [৪][4] >> [১][1] >> [২][2] >> [৩][3]

শব্দে শব্দে সুরা ফাতাহ Sura Al Fath in Words ع Ruku [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

Sura Al Fath in Words ع Ruku [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

(1)

إِنَّا

নিশ্চয়ই আমরা

Indeed

فَتَحْنَا

আমরা বিজয় দিয়েছি

We have given victory

لَكَ

তোমাকে (হে নবী)

to you

فَتْحًا

বিজয়

a victory

مُّبِينًا

সুস্পষ্ট

clear

(2)

لِّيَغْفِرَ

তিনি ক্ষমা করেন যেন

That may forgive

لَكَ

তোমাকে

for you

ٱللَّهُ

আল্লাহ

Allah

مَا

যা

what

تَقَدَّمَ

পূর্বে হয়েছে

preceded

مِن

থেকে

of

ذَنۢبِكَ

তোমার পাপ

your fault

وَمَا

ও যা

and what

تَأَخَّرَ

পরে হয়েছে

will follow

وَيُتِمَّ

এবং সম্পূর্ণ করেন (যেন)

and complete

نِعْمَتَهُۥ

তাঁর অনুগ্রহ

His favor

عَلَيْكَ

তোমার প্রতি

upon you

وَيَهْدِيَكَ

ও তোমাকে পরিচালনা করেন

and guide you

صِرَٰطًا

পথে

(to) a Path

مُّسْتَقِيمًا

সরল সঠিক

Straight

(3)

وَيَنصُرَكَ

এবং তোমাকে সাহায্য করেন যেন

And Allah may help you

ٱللَّهُ

আল্লাহ

And Allah may help you

نَصْرًا

সাহায্য

(with) a help

عَزِيزًا

বলিষ্ঠ/ জোর

mighty

(4)

هُوَ

তিনিই (আল্লাহ)

He

ٱلَّذِىٓ

যিনি

(is) the One Who

أَنزَلَ

অবতীর্ণ করেছেন

sent down

ٱلسَّكِينَةَ

প্রশান্তি

[the] tranquility

فِى

মধ্যে

in(to)

قُلُوبِ

অন্তর সমূহের

(the) hearts

ٱلْمُؤْمِنِينَ

মু’মিনদের

(of) the believers

لِيَزْدَادُوٓا۟

তারা বৃদ্ধি করে যেন

that they may increase

إِيمَٰنًا

(আরও) ঈমান

(in) faith

مَّعَ

সাথে

with

إِيمَٰنِهِمْ

তাদের ঈমানের

their faith

وَلِلَّهِ

এবং আল্লাহরই জন্য

And for Allah

جُنُودُ

সৈন্যসমূহ

(are the) hosts

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশের

(of) the heavens

وَٱلْأَرْضِ

ও পৃথিবীর

and the earth

وَكَانَ

এবং হলেন

and Allah

ٱللَّهُ

আল্লাহ

and Allah

عَلِيمًا

সর্বজ্ঞ

(is) All-Knower

حَكِيمًا

প্রজ্ঞাময়

All-Wise

(5)

لِّيُدْخِلَ

প্রবেশ করান যেন

That He may admit

ٱلْمُؤْمِنِينَ

মু’মিন পুরুষদেরকে

the believing men

وَٱلْمُؤْمِنَٰتِ

ও মু’মিন নারীদেরকে

and the believing women

جَنَّٰتٍ

জান্নাতে

(to) Gardens

تَجْرِى

প্রবাহিত হয়

flow

مِن

থেকে

from

تَحْتِهَا

তার (যার) নিচ

underneath them

ٱلْأَنْهَٰرُ

ঝর্ণাধারা সমূহ

the rivers

خَٰلِدِينَ

তারা চিরস্থায়ী হবে

(to) abide forever

فِيهَا

তার মধ্যে

therein

وَيُكَفِّرَ

এবং মিটিয়ে দেবেন

and (to) remove

عَنْهُمْ

তাদের হতে

from them

سَيِّـَٔاتِهِمْ

তাদের দোষত্রুটি সমূহকে

their misdeeds

وَكَانَ

এবং হল

and is

ذَٰلِكَ

এটা

that

عِندَ

নিকট

with

ٱللَّهِ

আল্লাহর

Allah

فَوْزًا

সাফল্য

a success

عَظِيمًا

বিরাট

great

(6)

وَيُعَذِّبَ

এবং তিনি শাস্তি দেবেন

And He (may) punish

ٱلْمُنَٰفِقِينَ

মুনাফেক পুরুষদেরকে

the hypocrite men

وَٱلْمُنَٰفِقَٰتِ

ও মুনাফেক নারীদেরকে

and the hypocrite women

وَٱلْمُشْرِكِينَ

এবং মুশরিক পুরুষদেরকে

and the polytheist men

وَٱلْمُشْرِكَٰتِ

ও মুশরিক নারীদেরকে

and the polytheist women

ٱلظَّآنِّينَ

(যারা) ধারণাকারী

who assume

بِٱللَّهِ

আল্লাহ সম্পর্কে

about Allah

ظَنَّ

ধারণা

an assumption

ٱلسَّوْءِ

খারাপ/ ভ্রান্ত

evil

عَلَيْهِمْ

তাদের উপর (পড়েছে)

Upon them

دَآئِرَةُ

আবর্তন

(is) a turn

ٱلسَّوْءِ

অকল্যাণকর

(of) evil

وَغَضِبَ

এবং রুষ্ট হয়েছেন

and Allah’s wrath (is)

ٱللَّهُ

আল্লাহ

and Allah’s wrath (is)

عَلَيْهِمْ

তাদের উপর

upon them

وَلَعَنَهُمْ

ও তাদেরকে অভিশাপ দিয়েছেন

and He has cursed them

وَأَعَدَّ

এবং প্রস্তুত করে রেখেছেন

and prepared

لَهُمْ

তাদের জন্যে

for them

جَهَنَّمَ

জাহান্নাম

Hell

وَسَآءَتْ

এবং তা অতিনিকৃষ্ট

and evil

مَصِيرًا

গন্তব্য

(is the) destination

(7)

وَلِلَّهِ

এবং আল্লাহরই

And for Allah

جُنُودُ

সৈন্যসমূহ

(are the) hosts

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশের

(of) the heavens

وَٱلْأَرْضِ

ও পৃথিবীর

and the earth

وَكَانَ

এবং হলেন

and Allah

ٱللَّهُ

আল্লাহ

and Allah

عَزِيزًا

মহাপরাক্রমশালী

(is) All-Mighty

حَكِيمًا

মহাজ্ঞানী

All-Wise

(8)

إِنَّآ

নিশ্চয়ই আমরা

Indeed We

أَرْسَلْنَٰكَ

তোমাকে আমরা প্রেরণ করেছি

[We] have sent you

شَٰهِدًا

সাক্ষ্যদাতা

(as) a witness

وَمُبَشِّرًا

ও সুসংবাদদাতা হিসেবে

and (as) a bearer of glad tidings

وَنَذِيرًا

এবং সতর্ককারীরূপে

and (as) a warner

(9)

لِّتُؤْمِنُوا۟

যাতে তোমরা ঈমান আন

That you may believe

بِٱللَّهِ

আল্লাহর উপর

in Allah

وَرَسُولِهِۦ

ও তাঁর রাসূলের উপর

and His Messenger

وَتُعَزِّرُوهُ

এবং তাঁকে তোমরা সাহায্য কর

and (may) honor him

وَتُوَقِّرُوهُ

ও তাঁকে তোমরা সম্মান কর

and respect him

وَتُسَبِّحُوهُ

এবং তাঁর (অর্থাৎ আল্লাহর) পবিত্রতা ঘোষণা কর

and glorify Him

بُكْرَةً

সকালে

morning

وَأَصِيلًا

ও সন্ধ্যায়

and evening

(10)

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

يُبَايِعُونَكَ

তোমার কাছে আনুগত্যের শপথ নেয়

pledge allegiance to you

إِنَّمَا

প্রকৃতপক্ষে

only

يُبَايِعُونَ

তারা আনুগত্যের শপথ নেয়

they pledge allegiance

ٱللَّهَ

আল্লাহর (নিকট)

(to) Allah

يَدُ

(ছিল) হাত

(The) Hand

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(of) Allah

فَوْقَ

উপর

(is) over

أَيْدِيهِمْ

তাদের হাতগুলোর

their hands

فَمَن

সুতরাং যে

Then whoever

نَّكَثَ

ভঙ্গ করবে (তার ওয়াদা)

breaks (his oath)

فَإِنَّمَا

প্রকৃতপক্ষে

then only

يَنكُثُ

সে ভঙ্গ করবে

he breaks

عَلَىٰ

উপর

against

نَفْسِهِۦ

তার নিজের (কৃত ওয়াদা)

himself

وَمَنْ

এবং যে

and whoever

أَوْفَىٰ

পূর্ণ করবে

fulfils

بِمَا

ঐ বিষয়ে যা

what

عَٰهَدَ

সে অঙ্গীকার করেছে

he has covenanted

عَلَيْهُ

তার উপর

(with)

ٱللَّهَ

আল্লাহর সাথে

Allah

فَسَيُؤْتِيهِ

তবে তাকে শীঘ্রই দিবেন তিনি

soon He will give him

أَجْرًا

পুরস্কার

a reward

عَظِيمًا

বিরাট

great

Sura Al Fath in Words ع Ruku [২][2] >> [১][1] >> [৩][3] >> [৪][4]

(11)

سَيَقُولُ

(হে নবী) বলবে শীঘ্রই

Will say

لَكَ

তোমাকে

to you

ٱلْمُخَلَّفُونَ

পিছনে থেকে যাওয়া লোকেরা

those who remained behind

مِنَ

মধ্যহতে

of

ٱلْأَعْرَابِ

মরুবাসীদের

the Bedouins

شَغَلَتْنَآ

“আমাদেরকে ব্যস্ত রেখেছিল

“Kept us busy

أَمْوَٰلُنَا

আমাদের ধনসম্পদ

our properties

وَأَهْلُونَا

ও পরিবার পরিজন

and our families

فَٱسْتَغْفِرْ

তাই ক্ষমাপ্রার্থনা করুন

so ask forgiveness

لَنَا

আমাদের জন্যে”

for us”

يَقُولُونَ

তারা বলে

They say

بِأَلْسِنَتِهِم

তাদের জিহ্বা দিয়ে (এমন কথা)

with their tongues

مَّا

যা

what

لَيْسَ

না

is not

فِى

মধ্যে আছে

in

قُلُوبِهِمْ

তাদের অন্তরে

their hearts

قُلْ

বলো

Say

فَمَن

“কে তবে

“Then who

يَمْلِكُ

ক্ষমতা রাখে

has power

لَكُم

তোমাদের জন্যে

for you

مِّنَ

হতে

against

ٱللَّهِ

আল্লাহর

Allah

شَيْـًٔا

কিছুমাত্র (বাঁচাতে)

(in) anything

إِنْ

যদি

if

أَرَادَ

ইচ্ছে করেন তিনি

He intends

بِكُمْ

তোমাদেরকে

for you

ضَرًّا

ক্ষতি করতে

harm

أَوْ

অথবা

or

أَرَادَ

ইচ্ছে করেন

He intends

بِكُمْ

তোমাদেরকে

for you

نَفْعًۢا

কল্যাণের (কে রুখতে পারে)

a benefit?

بَلْ

বরং

Nay

كَانَ

হলেন

is

ٱللَّهُ

আল্লাহ

Allah

بِمَا

ঐ বিষয়ে যা

of what

تَعْمَلُونَ

তোমরা কাজকর্ম করছ

you do

خَبِيرًۢا

খুব অবহিত

All-Aware

(12)

بَلْ

বরং

Nay

ظَنَنتُمْ

তোমরা ধারণা করেছিলে

you thought

أَن

যে

that

لَّن

কখনও না

(would) never

يَنقَلِبَ

ফিরে আসতে পারবে

return

ٱلرَّسُولُ

রাসূল

the Messenger

وَٱلْمُؤْمِنُونَ

ও মু’মিনরা

and the believers

إِلَىٰٓ

কাছে

to

أَهْلِيهِمْ

তাদের পরিবারের

their families

أَبَدًا

কখনও

ever

وَزُيِّنَ

এবং সুখকর লেগেছিল

that was made fair-seeming

ذَٰلِكَ

এটা

that was made fair-seeming

فِى

মধ্যে

in

قُلُوبِكُمْ

তোমাদের অন্তরের

your hearts

وَظَنَنتُمْ

এবং তোমরা ধারণা করেছিলে

And you assumed

ظَنَّ

একটা ধারণা

an assumption

ٱلسَّوْءِ

খারাপ/ ভুল

evil

وَكُنتُمْ

এবং তোমরা ছিলে

and you became

قَوْمًۢا

সম্প্রদায়

a people

بُورًا

বড় (খারাপ মানসিকতার)”

ruined”

(13)

وَمَن

এবং যে

And whoever

لَّمْ

না

(has) not believed

يُؤْمِنۢ

ঈমান আনে

(has) not believed

بِٱللَّهِ

আল্লাহর উপর

in Allah

وَرَسُولِهِۦ

ও তাঁর রাসূলের উপর

and His Messenger

فَإِنَّآ

নিশ্চয়ই সেক্ষেত্রে আমরা

then indeed, We

أَعْتَدْنَا

আমরা প্রস্তুত করে রেখেছি

[We] have prepared

لِلْكَٰفِرِينَ

কাফেরদের জন্য

for the disbelievers

سَعِيرًا

জ্বলন্ত আগুন

a Blazing Fire

(14)

وَلِلَّهِ

এবং আল্লাহরই জন্য

And for Allah

مُلْكُ

সার্বভৌমত্ব

(is the) kingdom

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশের

(of) the heavens

وَٱلْأَرْضِ

ও পৃথিবীর

and the earth

يَغْفِرُ

তিনি মাফ করেন

He forgives

لِمَن

যাকে

whom

يَشَآءُ

তিনি ইচ্ছে করেন

He wills

وَيُعَذِّبُ

ও তিনি শাস্তি দেন

and punishes

مَن

যাকে

whom

يَشَآءُ

তিনি ইচ্ছে করেন

He wills

وَكَانَ

আর হলেন

And is

ٱللَّهُ

আল্লাহ

Allah

غَفُورًا

ক্ষমাশীল

Oft-Forgiving

رَّحِيمًا

দয়ালু

Most Merciful

(15)

سَيَقُولُ

বলবে শীঘ্রই

Will say

ٱلْمُخَلَّفُونَ

পিছনে থেকে যাওয়া লোকেরা

those who remained behind

إِذَا

যখন

when

ٱنطَلَقْتُمْ

তোমরা চলবে

you set forth

إِلَىٰ

দিকে

towards

مَغَانِمَ

যুদ্ধলব্ধ সম্পদের

(the) spoils of war

لِتَأْخُذُوهَا

তা গ্রহণ করার জন্য

to take it

ذَرُونَا

“আমাদেরও যেতে দাও

“Allow us

نَتَّبِعْكُمْ

তোমাদেরকে অনুসরণ করব আমরা”

(to) follow you”

يُرِيدُونَ

তারা চায়

They wish

أَن

যে

to

يُبَدِّلُوا۟

পরিবর্তন করতে

change

كَلَٰمَ

প্রতিশ্রুতি

(the) Words

ٱللَّهِ

আল্লাহ্‌র

(of) Allah

قُل

বলো (তাদেরকে)

Say

لَّن

“কখনও না

“Never

تَتَّبِعُونَا

আমাদের অনুসরণ করবে তোমরা

will you follow us

كَذَٰلِكُمْ

তোমাদের সম্পর্কে এরূপ

Thus

قَالَ

বলে দিয়েছেন

Allah said

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah said

مِن

“থেকে

before”

قَبْلُ

পূর্বেই (একথা)”

before”

فَسَيَقُولُونَ

অতঃপর তারা বলবে অবশ্যই

Then they will say

بَلْ

“বরং

“Nay

تَحْسُدُونَنَا

আমাদেরকে তোমরা হিংসা করছ”

you envy us”

بَلْ

আসলে

Nay

كَانُوا۟

তারা হলো (এমন লোক যে)

they were

لَا

না

not

يَفْقَهُونَ

তারা বুঝে

understanding

إِلَّا

এছাড়া

except

قَلِيلًا

অতি সামান্য

a little

(16)

قُل

বলো

Say

لِّلْمُخَلَّفِينَ

পিছে থেকে যাওয়া লোকদেরকে

to those who remained behind

مِنَ

মধ্য হতে

of

ٱلْأَعْرَابِ

মরুবাসীদের

the Bedouins

سَتُدْعَوْنَ

“তোমাদের ডাকা হবে শীঘ্রই (যুদ্ধ করতে)

“You will be called

إِلَىٰ

দিকে

to

قَوْمٍ

এক জাতির

a people

أُو۟لِى

সম্পন্ন

possessors of military might

بَأْسٍ

শক্তি

possessors of military might

شَدِيدٍ

প্রবল

great

تُقَٰتِلُونَهُمْ

তাদের সাথে তোমাদের যুদ্ধ করতে হবে

you will fight them

أَوْ

অথবা

or

يُسْلِمُونَ

তারা আত্নসমর্পণ করবে

they will submit

فَإِن

যদি অতঃপর

Then if

تُطِيعُوا۟

তোমরা আনুগত্য কর

you obey

يُؤْتِكُمُ

তোমাদেরকে দিবেন

Allah will give you

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah will give you

أَجْرًا

পুরস্কার

a reward

حَسَنًا

উত্তম

good

وَإِن

আর যদি

but if

تَتَوَلَّوْا۟

তোমরা পিছে ফের

you turn away

كَمَا

যেমন

as

تَوَلَّيْتُم

তোমরা পিছে ফিরেছ

you turned away

مِّن

থেকে

before

قَبْلُ

ইতিপূর্বে

before

يُعَذِّبْكُمْ

তিনি তোমাদের শাস্তি দিবেন

He will punish you

عَذَابًا

শাস্তি

(with) a punishment

أَلِيمًا

যন্ত্রণাদায়ক”

painful”

(17)

لَّيْسَ

নেই

Not is

عَلَى

জন্যে

upon

ٱلْأَعْمَىٰ

অন্ধের

the blind

حَرَجٌ

কোনো অপরাধ (জিহাদে না গেলে)

any blame

وَلَا

আর নেই

and not

عَلَى

জন্যে

on

ٱلْأَعْرَجِ

পঙ্গুর

the lame

حَرَجٌ

কোনো অপরাধ

any blame

وَلَا

এবং না

and not

عَلَى

জন্যে

on

ٱلْمَرِيضِ

রোগীর

the sick

حَرَجٌ

কোনো অপরাধ

any blame

وَمَن

এবং যে

And whoever

يُطِعِ

আনুগত্য করে

obeys

ٱللَّهَ

আল্লাহ্‌র

Allah

وَرَسُولَهُۥ

ও তাঁর রাসুলের

and His Messenger

يُدْخِلْهُ

তাকে প্রবেশ করাবেন তিনি

He will admit him

جَنَّٰتٍ

জান্নাতে

(to) Gardens

تَجْرِى

প্রবাহিত হয়

flow

مِن

থেকে

from

تَحْتِهَا

তার নিচ

underneath them

ٱلْأَنْهَٰرُ

ঝর্ণাধারাসমূহ

the rivers

وَمَن

এবং যে

but whoever

يَتَوَلَّ

পিঠ ফিরাবে

turns away

يُعَذِّبْهُ

তাকে তিনি শাস্তি দিবেন

He will punish him

عَذَابًا

শাস্তি

(with) a punishment

أَلِيمًا

যন্ত্রণাদায়ক

painful

Sura Al Fath in Words ع Ruku [৩][3] >> [১][1] >> [২][2] >> [৪][4]

(18)

لَّقَدْ

নিশ্চয়ই

Certainly

رَضِىَ

সন্তুষ্ট হয়েছেন

Allah was pleased

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah was pleased

عَنِ

প্রতি

with

ٱلْمُؤْمِنِينَ

মু’মিনদের

the believers

إِذْ

যখন

when

يُبَايِعُونَكَ

তোমার কাছে বায়’আত গ্রহণ করে তারা

they pledged allegiance to you

تَحْتَ

নিচে

under

ٱلشَّجَرَةِ

গাছটির

the tree

فَعَلِمَ

তিনি তখন জানতেন

and He knew

مَا

যা

what

فِى

মধ্যে (ছিল)

(was) in

قُلُوبِهِمْ

তাদের অন্তরসমূহের

their hearts

فَأَنزَلَ

অতঃপর অবতীর্ণ করলেন

so He sent down

ٱلسَّكِينَةَ

প্রশান্তি

the tranquility

عَلَيْهِمْ

তাদের উপর

upon them

وَأَثَٰبَهُمْ

এবং তাদের পুরস্কার দিলেন

and rewarded them

فَتْحًا

বিজয়ের

(with) a victory

قَرِيبًا

আসন্ন

near

(19)

وَمَغَانِمَ

এবং যুদ্ধলব্ধ সম্পদসমূহ

And spoils of war

كَثِيرَةً

বিপুল পরিমাণে

much

يَأْخُذُونَهَا

তা তারা গ্রহণ করবে

that they will take;

وَكَانَ

এবং হলেন

and is

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah

عَزِيزًا

পরাক্রমশালী

All-Mighty

حَكِيمًا

মহাবিজ্ঞ

All-Wise

(20)

وَعَدَكُمُ

তোমাদেরকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন

Allah has promised you

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah has promised you

مَغَانِمَ

যুদ্ধলব্ধ সম্পদ সমুহের

spoils of war

كَثِيرَةً

বিপুল পরিমাণ

much

تَأْخُذُونَهَا

তা তোমরা গ্রহণ করবে

that you will take it

فَعَجَّلَ

এখন তিনি ত্বরান্বিত করেছেন

and He has hastened

لَكُمْ

তোমাদের জন্য

for you

هَٰذِهِۦ

এটা

this

وَكَفَّ

এবং বিরত রাখলেন

and has withheld

أَيْدِىَ

হাতগুলোকে

(the) hands

ٱلنَّاسِ

লোকদের

(of) the people

عَنكُمْ

তোমাদের থেকে

from you

وَلِتَكُونَ

এবং এটা হয় যেন

that it may be

ءَايَةً

একটি নিদর্শন

a sign

لِّلْمُؤْمِنِينَ

মু’মিনদের জন্যে

for the believers

وَيَهْدِيَكُمْ

ও তিনি তোমাদের পরিচালনা করেন

and He may guide you

صِرَٰطًا

পথে

(to the) Path

مُّسْتَقِيمًا

সরল সঠিক

Straight

(21)

وَأُخْرَىٰ

এবং অন্যটি

And others

لَمْ

নি

not

تَقْدِرُوا۟

তোমরা সক্ষম হও

you had power

عَلَيْهَا

তার উপর

over them

قَدْ

নিশ্চয়ই

surely

أَحَاطَ

পরিবেষ্টন করে রেখেছেন

Allah encompassed

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah encompassed

بِهَا

তা

them

وَكَانَ

এবং হলেন

and is

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah

عَلَىٰ

উপর

over

كُلِّ

সব

all

شَىْءٍ

কিছুরই

things

قَدِيرًا

সর্বশক্তিমান

All-Powerful

(22)

وَلَوْ

এবং যদি

And if

قَٰتَلَكُمُ

তোমাদের সাথে যুদ্ধ করত

fight you

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছে

disbelieve

لَوَلَّوُا۟

অবশ্যই ফিরত তারা

surely they would turn

ٱلْأَدْبَٰرَ

পিঠ সমূহকে

the backs

ثُمَّ

এরপর

Then

لَا

না

not

يَجِدُونَ

তারা পেত

they would find

وَلِيًّا

কোনো অভিভাবক

any protector

وَلَا

আর না

and not

نَصِيرًا

কোনো সাহায্যকারী

any helper

(23)

سُنَّةَ

বিধান

(The established) way

ٱللَّهِ

আল্লাহ্‌র

(of) Allah

ٱلَّتِى

যা

which

قَدْ

নিশ্চয়ই

passed away

خَلَتْ

অতীত হয়েছে

passed away

مِن

থেকে

before

قَبْلُ

পূর্বেও

before

وَلَن

এবং কখনো না

and never

تَجِدَ

পাবে তুমি

you will find

لِسُنَّةِ

বিধানে

in (the) way of Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহ্‌র

in (the) way of Allah

تَبْدِيلًا

কোনো পরিবর্তন

any change

(24)

وَهُوَ

এবং তিনিই

And He

ٱلَّذِى

যিনি

(is) the One Who

كَفَّ

বিরত রেখেছিলেন

withheld

أَيْدِيَهُمْ

তাদের হাতগুলোকে

their hands

عَنكُمْ

তোমাদের হতে

from you

وَأَيْدِيَكُمْ

ও তোমাদের হাতগুলোকে

and your hands

عَنْهُم

তাদের হতে

from them

بِبَطْنِ

উপকণ্ঠে

within

مَكَّةَ

মক্কার

Makkah

مِنۢ

থেকে

after

بَعْدِ

এরপরেও

after

أَنْ

যে

that

أَظْفَرَكُمْ

তোমাদের বিজয় দিয়েছিলেন

He gave you victory

عَلَيْهِمْ

তাদের বিরুদ্ধে

over them

وَكَانَ

এবং হলেন

And is

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah

بِمَا

ঐ বিষয়ে যা

of what

تَعْمَلُونَ

তোমরা কাজ কর

you do

بَصِيرًا

খুব দেখছেন

All-Seer

(25)

هُمُ

তিনিই

They

ٱلَّذِينَ

যারা

(are) those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছে

disbelieved

وَصَدُّوكُمْ

ও তোমাদের বাধা দিয়েছে

and hindered you

عَنِ

হতে

from

ٱلْمَسْجِدِ

মসজিদে

Al-Masjid Al-Haraam

ٱلْحَرَامِ

হারাম

Al-Masjid Al-Haraam

وَٱلْهَدْىَ

এবং কুরবানির পশুগুলোকে

while the offering

مَعْكُوفًا

(যা ছিল) ‘আবদ্ধ’

(was) prevented

أَن

যে

from

يَبْلُغَ

পৌঁছবে

reaching

مَحِلَّهُۥ

তার কুরবানির জায়গায়

its place (of sacrifice)

وَلَوْلَا

এবং যদি না (আশংকা থাকত)

And if not

رِجَالٌ

(এমন কিছু) পুরুষ

(for) men

مُّؤْمِنُونَ

মু’মিন

believing

وَنِسَآءٌ

ও নারী

and women

مُّؤْمِنَٰتٌ

মু’মিন

believing

لَّمْ

না

not

تَعْلَمُوهُمْ

যাদেরকে তোমরা জানতে

you knew them

أَن

যে

that

تَطَـُٔوهُمْ

তাদেরকে পদদলিত করতে তোমরা

you may trample them

فَتُصِيبَكُم

ফলে তোমাদের পৌছুত

and would befall you

مِّنْهُم

তাদের কারণে

from them

مَّعَرَّةٌۢ

ক্ষতির সম্মুখীন

any harm

بِغَيْرِ

না

without

عِلْمٍ

জেনে

knowledge

لِّيُدْخِلَ

(এটা করেছেন এজন্যে) প্রবেশ করান যেন

That Allah may admit

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

That Allah may admit

فِى

মধ্যে

to

رَحْمَتِهِۦ

তাঁর অনুগ্রহের

His Mercy

مَن

যাকে

whom

يَشَآءُ

তিনি ইচ্ছে করেন

He wills

لَوْ

যদি

If

تَزَيَّلُوا۟

তারা পৃথক হত

they had been apart

لَعَذَّبْنَا

আমরা শাস্তি দিতাম অবশ্যই

surely, We would have punished

ٱلَّذِينَ

(তাদেরকে) যারা

those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছে

disbelieved

مِنْهُمْ

তাদের মধ্য হতে

among them

عَذَابًا

শাস্তি

(with) a punishment

أَلِيمًا

যন্ত্রণাদায়ক

painful

(26)

إِذْ

যখন

When

جَعَلَ

পোষণ করল

had put

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছিল

disbelieved

فِى

মধ্যে

in

قُلُوبِهِمُ

তাদের অন্তরগুলোর

their hearts

ٱلْحَمِيَّةَ

হঠকারিতা

disdain

حَمِيَّةَ

হঠকারিতা

(the) disdain

ٱلْجَٰهِلِيَّةِ

অজ্ঞতার

(of) the time of ignorance

فَأَنزَلَ

তখন অবতীর্ণ করলেন

Then Allah sent down

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Then Allah sent down

سَكِينَتَهُۥ

তাঁর প্রশান্তি

His tranquility

عَلَىٰ

উপর

upon

رَسُولِهِۦ

তাঁর রাসূলের

His Messenger

وَعَلَى

ও উপর

and upon

ٱلْمُؤْمِنِينَ

মু’মিনদের

the believers

وَأَلْزَمَهُمْ

এবং তাদেরকে সংহত করলেন

and made them adhere

كَلِمَةَ

(কথায়) নীতিতে

(to the) word

ٱلتَّقْوَىٰ

তাকওয়ার

(of) righteousness

وَكَانُوٓا۟

এবং তারা ছিল

and they were

أَحَقَّ

অধিক যোগ্য

more deserving

بِهَا

এর

of it

وَأَهْلَهَا

ও তার উপযুক্ত

and worthy of it

وَكَانَ

এবং হলেন

And is

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah

بِكُلِّ

সম্পর্কে

of every

شَىْءٍ

সবকিছু

thing

عَلِيمًا

খুব জ্ঞাত

All-Knower

(27)

لَّقَدْ

নিশ্চয়ই

Certainly

صَدَقَ

সত্য করে দেখিয়েছেন

Allah has fulfilled

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah has fulfilled

رَسُولَهُ

তাঁর রাসুলের

His Messenger’s

ٱلرُّءْيَا

স্বপ্নকে

vision

بِٱلْحَقِّ

সঠিকভাবে

in truth

لَتَدْخُلُنَّ

অবশ্যই তোমরা প্রবেশ করবে

Surely, you will enter

ٱلْمَسْجِدَ

মসজিদে

Al-Masjid Al-Haraam

ٱلْحَرَامَ

হারামে

Al-Masjid Al-Haraam

إِن

যদি

if

شَآءَ

ইচ্ছে করেন

Allah wills

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah wills

ءَامِنِينَ

নিরাপদে

secure

مُحَلِّقِينَ

(কেউ কেউ) মুণ্ডনকারী

having shaved

رُءُوسَكُمْ

তোমাদের মাথা

your heads

وَمُقَصِّرِينَ

ও (কেউ কেউ) চুল ছোটকারী হয়ে

and shortened

لَا

না

not

تَخَافُونَ

তোমরা ভয় পাবে

fearing

فَعَلِمَ

তিনি বস্তুতঃ জানেন

But He knew

مَا

যা

what

لَمْ

না

not

تَعْلَمُوا۟

তোমরা জান

you knew

فَجَعَلَ

তাই তিনি দিয়েছেন

and He made

مِن

থেকে

besides

دُونِ

ছাড়া

besides

ذَٰلِكَ

সেটা

that

فَتْحًا

একটি বিজয়

a victory

قَرِيبًا

আসন্ন

near

(28)

هُوَ

তিনিই

He

ٱلَّذِىٓ

যিনি

(is) the One Who

أَرْسَلَ

প্রেরণ করেছেন

(has) sent

رَسُولَهُۥ

তাঁর রাসুলকে

His Messenger

بِٱلْهُدَىٰ

দিয়ে দিক-নির্দেশনা

with guidance

وَدِينِ

ও দীন

and (the) religion

ٱلْحَقِّ

সত্য (দিয়ে)

the true

لِيُظْهِرَهُۥ

তা বিজয়ী করার জন্যে

that He (may) make it prevail

عَلَى

উপর

over

ٱلدِّينِ

দীনের

the religions

كُلِّهِۦ

অন্যান্য সব

all

وَكَفَىٰ

এবং যথেষ্ট

And sufficient is

بِٱللَّهِ

আল্লাহই এ বিষয়ে

Allah

شَهِيدًا

সাক্ষী হিসেবে

(as) a Witness

(29)

مُّحَمَّدٌ

মুহাম্মাদ

Muhammad

رَّسُولُ

রাসুল

(is the) Messenger of Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহ্‌র

(is the) Messenger of Allah

وَٱلَّذِينَ

এবং যারা

and those who

مَعَهُۥٓ

তাঁর সাথে (আছে)

(are) with him

أَشِدَّآءُ

তারা কঠোর

(are) firm

عَلَى

বিরুদ্ধে

against

ٱلْكُفَّارِ

কাফিরদের

the disbelievers

رُحَمَآءُ

তারা সহানুভূতিশীল

and merciful

بَيْنَهُمْ

তাদের (নিজেদের) মাঝে

among themselves

تَرَىٰهُمْ

তাদের দেখবে তুমি

You see them

رُكَّعًا

রুকুকারী

bowing

سُجَّدًا

সিজদাকারী হিসেবে

and prostrating

يَبْتَغُونَ

তারা সন্ধান করে

seeking

فَضْلًا

অনুগ্রহ

Bounty

مِّنَ

নিকট হতে

from Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহ্‌র

from Allah

وَرِضْوَٰنًا

ও (তাঁর) সন্তুষ্টি

and pleasure

سِيمَاهُمْ

তাদের চিহ্ন (উজ্জ্বল হয়ে আছে)

Their mark

فِى

মধ্যে

(is) on

وُجُوهِهِم

তাদের চেহারার

their faces

مِّنْ

থেকে

from

أَثَرِ

প্রভাবে

(the) trace

ٱلسُّجُودِ

সিজদাসমূহের

(of) the prostration

ذَٰلِكَ

এই

That

مَثَلُهُمْ

তাদের গুণ পরিচয়

(is) their similitude

فِى

মধ্যে (রয়েছে)

in

ٱلتَّوْرَىٰةِ

তাওরাতের

the Taurah

وَمَثَلُهُمْ

এবং তাদের গুণ পরিচয়

And their similitude

فِى

মধ্যে (রয়েছে)

in

ٱلْإِنجِيلِ

ইনজিলেরও

the Injeel

كَزَرْعٍ

(তাদের) উপমা একটি চারাগাছের

(is) like a seed

أَخْرَجَ

(যা) নির্গত করে

(which) sends forth

شَطْـَٔهُۥ

তার অংকুর

its shoot

فَـَٔازَرَهُۥ

এরপর তাকে শক্তিশালী করে

then strengthens it

فَٱسْتَغْلَظَ

অতঃপর মোটা হয়

then it becomes thick

فَٱسْتَوَىٰ

অতঃপর দৃঢ়ভাবে দাঁড়ায়

and it stands

عَلَىٰ

উপর

upon

سُوقِهِۦ

তার কাণ্ডের

its stem

يُعْجِبُ

আনন্দ দেয়

delighting

ٱلزُّرَّاعَ

চাষীদেরকে

the sowers

لِيَغِيظَ

তিনি জ্বালা সৃষ্টি করেন যেন

that He (may) enrage

بِهِمُ

তাদের কারণে

by them

ٱلْكُفَّارَ

কাফিরদের

the disbelievers

وَعَدَ

প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন

Allah has promised

ٱللَّهُ

আল্লাহ্‌

Allah has promised

ٱلَّذِينَ

(তাদেরকে) যারা

those who

ءَامَنُوا۟

ঈমান এনেছে

believe

وَعَمِلُوا۟

ও কাজ করেছে

and do

ٱلصَّٰلِحَٰتِ

সৎকর্ম

righteous deeds

مِنْهُم

তাদের মধ্য হতে

among them

مَّغْفِرَةً

ক্ষমা

forgiveness

وَأَجْرًا

ও পুরস্কার

and a reward

عَظِيمًۢا

মহা

great

Sura Al Fath in Words ع Ruku [৪][4] >> [১][1] >> [২][2] >> [৩][3]

৪৭ সুরা মুহাম্মাদ << সুরা ফাতাহ >> ৪৯ সুরা হুজুরাত

By Quran Sharif

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply