সুরা কিয়ামাত বাংলা Sura Qiyama in Words & Audio

সুরা কিয়ামাত বাংলা Sura Qiyama in Words & Audio

১১৪ টি সুরা >> তাফসীরঃ বুখারী >> তিরমিজি

Arabicতাফসীর

৭৫ – সুরা কিয়ামাত – আয়াত : ৪০, মাক্কী, রুকু ২

সুরা কিয়ামাত mp3 Download

পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামেبِسۡمِ ٱللَّهِ ٱلرَّحۡمَٰنِ ٱلرَّحِيمِ
(1) আমি কসম করছি কিয়ামতের দিনের!لَآ أُقۡسِمُ بِيَوۡمِ ٱلۡقِيَٰمَةِ ١
(2) আমি আরো কসম করছি আত্ম-ভৎর্সনাকারী আত্মার!وَلَآ أُقۡسِمُ بِٱلنَّفۡسِ ٱللَّوَّامَةِ ٢
(3) মানুষ কি মনে করে যে, আমি কখনই তার অস্থিসমূহ একত্র করব না?أَيَحۡسَبُ ٱلۡإِنسَٰنُ أَلَّن نَّجۡمَعَ عِظَامَهُۥ ٣
(4) হ্যাঁ, আমি তার আংগুলের অগ্রভাগসমূহও পুনর্বিন্যস্ত করতে সক্ষম।بَلَىٰ قَٰدِرِينَ عَلَىٰٓ أَن نُّسَوِّيَ بَنَانَهُۥ ٤
(5) বরং মানুষ চায় ভবিষ্যতেও পাপাচার করতে।بَلۡ يُرِيدُ ٱلۡإِنسَٰنُ لِيَفۡجُرَ أَمَامَهُۥ ٥
(6) সে প্রশ্ন করে, ‘কবে কিয়ামতের দিন’?يَسۡ‍َٔلُ أَيَّانَ يَوۡمُ ٱلۡقِيَٰمَةِ ٦
(7) যখন চক্ষু হতচকিত হবে।فَإِذَا بَرِقَ ٱلۡبَصَرُ ٧
(8) আর চাঁদ কিরণহীন হবে,وَخَسَفَ ٱلۡقَمَرُ ٨
(9) আর চাঁদ ও সূর্যকে একত্র করা হবে।وَجُمِعَ ٱلشَّمۡسُ وَٱلۡقَمَرُ ٩
(10) সেদিন মানুষ বলবে, ‘পালাবার স্থান কোথায়’?يَقُولُ ٱلۡإِنسَٰنُ يَوۡمَئِذٍ أَيۡنَ ٱلۡمَفَرُّ ١٠
(11) না, কোন আশ্রয়স্থল নেই।كَلَّا لَا وَزَرَ ١١
(12) ঠাঁই শুধু সেদিন তোমার রবের নিকট।إِلَىٰ رَبِّكَ يَوۡمَئِذٍ ٱلۡمُسۡتَقَرُّ ١٢
(13) সেদিন মানুষকে অবহিত করা হবে কী সে অগ্রে পাঠিয়েছিল এবং পশ্চাতে পাঠিয়েছিল।يُنَبَّؤُاْ ٱلۡإِنسَٰنُ يَوۡمَئِذِۢ بِمَا قَدَّمَ وَأَخَّرَ ١٣
(14) বরং মানুষ তার নিজের উপর দৃষ্টিমান।بَلِ ٱلۡإِنسَٰنُ عَلَىٰ نَفۡسِهِۦ بَصِيرَةٞ ١٤
(15) যদিও সে নানা অজুহাত পেশ করে থাকে।وَلَوۡ أَلۡقَىٰ مَعَاذِيرَهُۥ ١٥
(16) কুরআন তাড়াতাড়ি আয়ত্ত করার উদ্দেশ্যে তুমি তোমার জিহবাকে দ্রুত আন্দোলিত করো না।لَا تُحَرِّكۡ بِهِۦ لِسَانَكَ لِتَعۡجَلَ بِهِۦٓ ١٦
(17) নিশ্চয়ই এর সংরক্ষণ ও পাঠ আমার দায়িত্বে।إِنَّ عَلَيۡنَا جَمۡعَهُۥ وَقُرۡءَانَهُۥ ١٧
(18) অতঃপর যখন আমি তা পাঠ করি তখন তুমি তার পাঠের অনুসরণ কর।فَإِذَا قَرَأۡنَٰهُ فَٱتَّبِعۡ قُرۡءَانَهُۥ ١٨
(19) তারপর তার বর্ণনার দায়িত্ব আমারই।ثُمَّ إِنَّ عَلَيۡنَا بَيَانَهُۥ ١٩
(20) কখনো না, বরং তোমরা দুনিয়ার জীবনকে ভালবাস।كَلَّا بَلۡ تُحِبُّونَ ٱلۡعَاجِلَةَ ٢٠
(21) আর তোমরা ছেড়ে দিচ্ছ আখিরাতকে।وَتَذَرُونَ ٱلۡأٓخِرَةَ ٢١
(22) সেদিন কতক মুখমন্ডল হবে হাস্যোজ্জ্বল।وُجُوهٞ يَوۡمَئِذٖ نَّاضِرَةٌ٢٢
(23) তাদের রবের প্রতি দৃষ্টিনিক্ষেপকারী।إِلَىٰ رَبِّهَا نَاظِرَةٞ ٢٣
(24) আর সেদিন অনেক মুখমন্ডল হবে বিবর্ণ-বিষন্ন।وَوُجُوهٞ يَوۡمَئِذِۢ بَاسِرَةٞ ٢٤
(24) তারা ধারণা করবে যে, এক বিপর্যয় তাদের উপর আপতিত করা হবে।تَظُنُّ أَن يُفۡعَلَ بِهَا فَاقِرَةٞ ٢٥
(26) কখনই না, যখন প্রাণ কণ্ঠাগত হবে।كَلَّآ إِذَا بَلَغَتِ ٱلتَّرَاقِيَ ٢٦
(27) আর বলা হবে, ‘কে তাকে বাঁচাবে’?وَقِيلَ مَنۡۜ رَاقٖ ٢٧
(28) আর সে মনে করবে, এটিই বিদায়ক্ষণ।وَظَنَّ أَنَّهُ ٱلۡفِرَاقُ ٢٨
(29) আর পায়ের গোছার সংগে পায়ের গোছা জড়িয়ে যাবে।وَٱلۡتَفَّتِ ٱلسَّاقُ بِٱلسَّاقِ ٢٩
(30) সেদিন তোমার রবের কাছেই সকলকে হাঁকিয়ে নেয়া হবে।إِلَىٰ رَبِّكَ يَوۡمَئِذٍ ٱلۡمَسَاقُ ٣٠
সুরা কিয়ামাতع রুকু
(31) সুতরাং সে বিশ্বাসও করেনি এবং সালাতও আদায় করেনি।فَلَا صَدَّقَ وَلَا صَلَّىٰ ٣١
(32) বরং সে সত্য প্রত্যাখ্যান করেছিল এবং ফিরে গিয়েছিল।وَلَٰكِن كَذَّبَ وَتَوَلَّىٰ ٣٢
(33) তারপর সে দম্ভভরে পরিবার-পরিজনের কাছে চলে গিয়েছিল।ثُمَّ ذَهَبَ إِلَىٰٓ أَهۡلِهِۦ يَتَمَطَّىٰٓ ٣٣
(34) দুর্ভোগ তোমার জন্য এবং দুর্ভোগ!أَوۡلَىٰ لَكَ فَأَوۡلَىٰ ٣٤
(35) তারপরও দুর্ভোগ তোমার জন্য এবং দুর্ভোগ!ثُمَّ أَوۡلَىٰ لَكَ فَأَوۡلَىٰٓ ٣٥
(36) মানুষ কি মনে করে যে, তাকে এমনি ছেড়ে দেয়া হবে?أَيَحۡسَبُ ٱلۡإِنسَٰنُ أَن يُتۡرَكَ سُدًى ٣٦
(37) সে কি বীর্যের শুক্রবিন্দু ছিল না যা স্খলিত হয়?أَلَمۡ يَكُ نُطۡفَةٗ مِّن مَّنِيّٖ يُمۡنَىٰ ٣٧
(38) অতঃপর সে ‘আলাকায় পরিণত হয়। তারপর আল্লাহ তাকে সুন্দর আকৃতিতে সৃষ্টি করেছেন এবং সুবিন্যস্ত করেছেন।ثُمَّ كَانَ عَلَقَةٗ فَخَلَقَ فَسَوَّىٰ ٣٨
(39) অতঃপর তিনি তা থেকে সৃষ্টি করেন জোড়ায় জোড়ায় পুরুষ ও নারী।فَجَعَلَ مِنۡهُ ٱلزَّوۡجَيۡنِ ٱلذَّكَرَ وَٱلۡأُنثَىٰٓ ٣٩
(40) তিনি কি মৃতদের জীবিত করতে সক্ষম নন?أَلَيۡسَ ذَٰلِكَ بِقَٰدِرٍ عَلَىٰٓ أَن يُحۡـِۧيَ ٱلۡمَوۡتَىٰ ٤٠
সুরা কিয়ামাতع রুকু

Sura Qiyama in Words

(1)

لَآ

না

Nay!

أُقْسِمُ

কসম খাচ্ছি

I swear

بِيَوْمِ

দিনের

by (the) Day

ٱلْقِيَٰمَةِ

কিয়ামাতের

(of) the Resurrection

(2)

وَلَآ

এবং না

And nay!

أُقْسِمُ

শপথ করছি আমি

I swear

بِٱلنَّفْسِ

মনের

by the soul

ٱللَّوَّامَةِ

তিরস্কারকারী

self-accusing

(3)

أَيَحْسَبُ

মনে করেছে কি

Does think

ٱلْإِنسَٰنُ

মানুষ

[the] man

أَلَّن

কখন না

that not

نَّجْمَعَ

একত্রিত আমরা করব

We will assemble

عِظَامَهُۥ

তার অস্তিগুলকে

his bones?

(4)

بَلَىٰ

কােনো না

Nay!

قَٰدِرِينَ

সক্ষম

[We are] able

عَلَىٰٓ

এতে

on

أَن

যে

that

نُّسَوِّىَ

পূর্ণবিন্যস্ত আমরা করবো

We can restore

بَنَانَهُۥ

তার আঙ্গুলির অগ্রভাগ

his fingertips

(5)

بَلْ

বরং

Nay!

يُرِيدُ

চায়ে

Desires

ٱلْإِنسَٰنُ

মানুষ

[the] man

لِيَفْجُرَ

কুকর্ম করার জন্য

to give (the) lie

أَمَامَهُۥ

তার ভবিষ্যতেও

(to) what is before him

(6)

يَسْـَٔلُ

সে জিজ্ঞাস করে

He asks

أَيَّانَ

“কবে

“When

يَوْمُ

দিন

(is the) Day

ٱلْقِيَٰمَةِ

কিয়ামাতের”

(of) the Resurrection?”

(7)

فَإِذَا

যখন অতঃপর

So when

بَرِقَ

স্থির হয়ে যাবে

is dazzled

ٱلْبَصَرُ

চক্ষু

the vision

(8)

وَخَسَفَ

এবং আলোকহীন হবে

And becomes dark

ٱلْقَمَرُ

চাঁদ

the moon

(9)

وَجُمِعَ

এবং একত্রিত করা হবে

And are joined

ٱلشَّمْسُ

সূর্য

the sun

وَٱلْقَمَرُ

ও চাঁদ

and the moon

(10)

يَقُولُ

বলবে

Will say

ٱلْإِنسَٰنُ

মানুষ

[the] man

يَوْمَئِذٍ

সেই দিন

that Day

أَيْنَ

“কোথায়

“Where

ٱلْمَفَرُّ

পালাবার জায়গা”

(is) the escape?”

(11)

كَلَّا

কক্ষন না

By no means!

لَا

নাই

(There is) no

وَزَرَ

আশ্রয় স্থল

refuge

(12)

إِلَىٰ

দিকে

To

رَبِّكَ

তোমার রবের

your Lord

يَوْمَئِذٍ

সেদিন

that Day

ٱلْمُسْتَقَرُّ

অবস্থানহল

(is) the place of rest

(13)

يُنَبَّؤُا۟

জানিয়ে দেয়া হবে

Will be informed

ٱلْإِنسَٰنُ

মানুষ কে

[the] man

يَوْمَئِذٍۭ

সেদিন

that Day

بِمَا

যা ওই বিষয়ে

of what

قَدَّمَ

সে আগে পাঠিয়েছে

he sent forth

وَأَخَّرَ

এবং পিছে ছেড়েছে

and kept back

(14)

بَلِ

বরং

Nay!

ٱلْإِنسَٰنُ

মানুষ

[The] man

عَلَىٰ

সম্পর্কে

against

نَفْسِهِۦ

তার নিজের

himself

بَصِيرَةٌ

খুব অবগত

(will be) a witness

(15)

وَلَوْ

এবং যদিও

Even if

أَلْقَىٰ

পেশ করে সে

he presents

مَعَاذِيرَهُۥ

তার অজুহাত সমূহ

his excuses

(16)

لَا

না

Not

تُحَرِّكْ

নাড়াবে

move

بِهِۦ

এর সাথে

with it

لِسَانَكَ

তোমার জিহ্বা

your tongue

لِتَعْجَلَ

তাড়াতাড়ির জন্য

to hasten

بِهِۦٓ

এর সাথে

with it

(17)

إِنَّ

নিশ্চয়

Indeed

عَلَيْنَا

আমাদের দায়িত্ব

upon Us

جَمْعَهُۥ

তা মুখস্ত করান

(is) its collection

وَقُرْءَانَهُۥ

এবং তা পাঠ করান

and its recitation

(18)

فَإِذَا

যখন অতঃপর

And when

قَرَأْنَٰهُ

তা আমরা পড়ি

We have recited it

فَٱتَّبِعْ

অনিুসরণ তখন করো

then follow

قُرْءَانَهُۥ

তা পাঠের

its recitation

(19)

ثُمَّ

অতঃপর

Then

إِنَّ

নিশ্চয়

indeed

عَلَيْنَا

আমাদের দায়িত্ব

upon Us

بَيَانَهُۥ

তা ব্যাখ্যা দেয়া

(is) its explanation

(20)

كَلَّا

কক্ষন না

No!

بَلْ

বরং

But

تُحِبُّونَ

তোমরা পছন্দ করো

you love

ٱلْعَاجِلَةَ

পার্থিব জীবন

the immediate
(21)

وَتَذَرُونَ

এবং তোমরা উপেক্ষা করো

And leave

ٱلْءَاخِرَةَ

পরকাল

the Hereafter

(22)

وُجُوهٌ

কিছুু মুখ

Faces

يَوْمَئِذٍ

সে দিন

that Day

نَّاضِرَةٌ

উজ্জ্বল হবে

(will be) radiant

(23)

إِلَىٰ

দিকে

Towards

رَبِّهَا

তার রবের

their Lord

نَاظِرَةٌ

দৃষ্টিমান হবে

looking

(24)

وَوُجُوهٌ

এবং কিছু মুখ

And faces

يَوْمَئِذٍۭ

সে দিন

that Day

بَاسِرَةٌ

স্লান হবে

(will be) distorted

(25)

تَظُنُّ

ধারণা করবে

Thinking

أَن

যে

that

يُفْعَلَ

করা হবে

will be done

بِهَا

তার সাথে

to them

فَاقِرَةٌ

কোমর চূর্ণ আচরণ

backbreaking

(26)

كَلَّآ

কক্ষন না

No!

إِذَا

যখন

When

بَلَغَتِ

পৌছবে

it reaches

ٱلتَّرَاقِىَ

কণ্ঠ দেশে (প্রাণ)

the collar bones

(27)

وَقِيلَ

এবং বলা হবে

And it is said

مَنْ

“কে

“Who

رَاقٍ

ঝাড়ফুককারী”

(will) cure?”

(28)

وَظَنَّ

এবং সে মনে করবে

And he is certain

أَنَّهُ

তার যে

that it

ٱلْفِرَاقُ

বিদায়ক্ষণ

(is) the parting

(29)

وَٱلْتَفَّتِ

এবং জড়িয়ে যাবে

And is wound

ٱلسَّاقُ

পিন্ডলির

the leg

بِٱلسَّاقِ

পিন্ডলি সাথে

about the leg

(30)

إِلَىٰ

দিকে

To

رَبِّكَ

তোমার রবের

your Lord

يَوْمَئِذٍ

সে দিন

that Day

ٱلْمَسَاقُ

যাত্রা

(will be) the driving

Ruku 1

(31)

فَلَا

না অতঃপর

And not

صَدَّقَ

সত্য মানল

he accepted (the) truth

وَلَا

এবং না

and not

صَلَّىٰ

নামায পড়ল

he prayed

(32)

وَلَٰكِن

বরং

But

كَذَّبَ

মিথ্যারোপ করল

he denied

وَتَوَلَّىٰ

ও ফিরে গেল

and turned away

(33)

ثُمَّ

পরে

Then

ذَهَبَ

গেল

he went

إِلَىٰٓ

দিকে

to

أَهْلِهِۦ

পরিবারের তার

his family

يَتَمَطَّىٰٓ

সদম্ভে

swaggering

(34)

أَوْلَىٰ

দুর্ভোগ

Woe

لَكَ

তোমার জন্যে

to you

فَأَوْلَىٰ

অতঃপর দুর্ভোগ

and woe!

(35)

ثُمَّ

এরপর

Then

أَوْلَىٰ

দুুর্ভোগ

woe

لَكَ

তোমার জন্য

to you

فَأَوْلَىٰٓ

দুর্ভোগ অতঃপর

and woe!

(36)

أَيَحْسَبُ

মনে করেছ কি

Does think

ٱلْإِنسَٰنُ

মানুষ

man

أَن

যে

that

يُتْرَكَ

ছেড়ে দেয়া হবে

he will be left

سُدًى

লাগামহিন

neglected?

(37)

أَلَمْ

না কি

Was not

يَكُ

সে ছিল

he

نُطْفَةً

এক ফটা

a sperm

مِّن

থেকে

from

مَّنِىٍّ

শুক্র

semen

يُمْنَىٰ

নির্গত

emitted?

(38)

ثُمَّ

পরে

Then

كَانَ

হয়

he was

عَلَقَةً

জমাট রক্ত

a clinging substance

فَخَلَقَ

তিনি আকৃতি অতঃপর দিলেন

then He created

فَسَوَّىٰ

সুঠাম অতঃপর করলেন

and proportioned

(39)

فَجَعَلَ

বানালেন অতঃপর

Then made

مِنْهُ

তা থেকে

of him

ٱلزَّوْجَيْنِ

দুই জোড়া

two mates

ٱلذَّكَرَ

পুরুষ

(the) male

وَٱلْأُنثَىٰٓ

ও নাড়ি

and the female

(40)

أَلَيْسَ

নয় কি

Is not

ذَٰلِكَ

সেই

[that]

بِقَٰدِرٍ

সক্ষম

(He) Able

عَلَىٰٓ

এতে

[over]

أَن

যে

to

يُحْۦِىَ

জীবিত করবেন

give life

ٱلْمَوْتَىٰ

মৃত্যুকে

(to) the dead?

Rulu 2

৭৪ সুরা মুদ্দাসসির<< সুরা কিয়ামাত >>৭৬ সুরা দা’হর

By Quran Sharif

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply