সুরা আহকাফ বাংলা Sura Ahqaf in Words & Audio

সুরা আহকাফ বাংলা Sura Ahqaf in Words & Audio

১১৪ টি সুরা >> তাফসীরঃ বুখারী >> তিরমিজি

Arabicতাফসীর

৪৬, সুরা আহকাফ, আয়াত-৩৫, মাক্কী, রুকু-৪

সুরা আহকাফ mp3 Download

সুরা আহকাফ Sura Ahqaf ع রুকু [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

শব্দে শব্দে সুরা আহকাফ Sura Ahqaf in Words ع রুকু [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামেبِسۡمِ ٱللَّهِ ٱلرَّحۡمَٰنِ ٱلرَّحِيمِ
(1) হা-মীম।حمٓ ١
(2) এই কিতাব মহা পরাক্রমশালী প্রজ্ঞাময় আল্লাহর নিকট থেকে নাযিলকৃত।تَنزِيلُ ٱلۡكِتَٰبِ مِنَ ٱللَّهِ ٱلۡعَزِيزِ ٱلۡحَكِيمِ ٢
(3) আমি আসমানসমূহ, যমীন ও এতদোভয়ের মধ্যে যা কিছু আছে, তা যথাযথভাবে ও একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য সৃষ্টি করেছি। আর যারা কুফরী করে, তাদেরকে যে বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে তা থেকে তারা বিমুখ।مَا خَلَقۡنَا ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَٱلۡأَرۡضَ وَمَا بَيۡنَهُمَآ إِلَّا بِٱلۡحَقِّ وَأَجَلٖ مُّسَمّٗىۚ وَٱلَّذِينَ كَفَرُواْ عَمَّآ أُنذِرُواْ مُعۡرِضُونَ ٣
(4) বল, ‘তোমরা আমাকে সংবাদ দাও তোমরা আল্লাহর পরিবর্তে যাদেরকে ডাক আমাকে দেখাও তো তারা যমীনে কী সৃষ্টি করেছে? অথবা আসমানসমূহে তাদের কোন অংশীদারিত্ব আছে কি? এর পূর্ববর্তী কোন কিতাব অথবা পরম্পরাগত কোন জ্ঞান তোমরা আমার কাছে নিয়ে এসো, যদি তোমরা সত্যবাদী হও’।قُلۡ أَرَءَيۡتُم مَّا تَدۡعُونَ مِن دُونِ ٱللَّهِ أَرُونِي مَاذَا خَلَقُواْ مِنَ ٱلۡأَرۡضِ أَمۡ لَهُمۡ شِرۡكٞ فِي ٱلسَّمَٰوَٰتِۖ ٱئۡتُونِي بِكِتَٰبٖ مِّن قَبۡلِ هَٰذَآ أَوۡ أَثَٰرَةٖ مِّنۡ عِلۡمٍ إِن كُنتُمۡ صَٰدِقِينَ ٤
(5) তার চেয়ে অধিক পথভ্রষ্ট আর কে, যে আল্লাহর পরিবর্তে এমন কাউকে ডাকে, যে কিয়ামত দিবস পর্যন্তও তার ডাকে সাড়া দেবে না? আর তারা তাদের আহবান সম্পর্কে উদাসীন।وَمَنۡ أَضَلُّ مِمَّن يَدۡعُواْ مِن دُونِ ٱللَّهِ مَن لَّا يَسۡتَجِيبُ لَهُۥٓ إِلَىٰ يَوۡمِ ٱلۡقِيَٰمَةِ وَهُمۡ عَن دُعَآئِهِمۡ غَٰفِلُونَ ٥
(6) আর যখন মানুষকে একত্র করা হবে, তখন এ উপাস্যগুলো তাদের শত্রু হবে এবং তারা তাদের ইবাদাত অস্বীকার করবে।وَإِذَا حُشِرَ ٱلنَّاسُ كَانُواْ لَهُمۡ أَعۡدَآءٗ وَكَانُواْ بِعِبَادَتِهِمۡ كَٰفِرِينَ ٦
(7) যখন তাদের কাছে আমার সুস্পষ্ট আয়াতসমূহ তিলাওয়াত করা হয়। তখন যারা কুফরী করে তাদের নিকট সত্য আসার পর বলে, ‘এটাতো প্রকাশ্য জাদু’।وَإِذَا تُتۡلَىٰ عَلَيۡهِمۡ ءَايَٰتُنَا بَيِّنَٰتٖ قَالَ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ لِلۡحَقِّ لَمَّا جَآءَهُمۡ هَٰذَا سِحۡرٞ مُّبِينٌ ٧
(8) তবে কি তারা বলে যে, ‘সে এটা নিজে উদ্ভাবন করেছে’? বল, ‘যদি আমি এটা উদ্ভাবন করে থাকি, তবে তোমরা আমাকে আল্লাহর (আযাব) থেকে বাঁচাতে সামান্য কিছুরও মালিক নও। তোমরা যে বিষয়ে আলোচনায় মত্ত আছ, তিনি সে বিষয়ে সম্যক অবগত। আমার ও তোমাদের মধ্যে সাক্ষী হিসেবে তিনিই যথেষ্ট। আর তিনি অতি ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু’।أَمۡ يَقُولُونَ ٱفۡتَرَىٰهُۖ قُلۡ إِنِ ٱفۡتَرَيۡتُهُۥ فَلَا تَمۡلِكُونَ لِي مِنَ ٱللَّهِ شَيۡ‍ًٔاۖ هُوَ أَعۡلَمُ بِمَا تُفِيضُونَ فِيهِۚ كَفَىٰ بِهِۦ شَهِيدَۢا بَيۡنِي وَبَيۡنَكُمۡۖ وَهُوَ ٱلۡغَفُورُ ٱلرَّحِيمُ ٨
(9) বল, ‘আমি রাসূলদের মধ্যে নতুন নই। আর আমি জানি না আমার ও তোমাদের ব্যাপারে কী করা হবে। আমার প্রতি যা ওহী করা হয়, আমি কেবল তারই অনুসরণ করি। আর আমি একজন সুস্পষ্ট সতর্ককারী মাত্র’।قُلۡ مَا كُنتُ بِدۡعٗا مِّنَ ٱلرُّسُلِ وَمَآ أَدۡرِي مَا يُفۡعَلُ بِي وَلَا بِكُمۡۖ إِنۡ أَتَّبِعُ إِلَّا مَا يُوحَىٰٓ إِلَيَّ وَمَآ أَنَا۠ إِلَّا نَذِيرٞ مُّبِينٞ ٩
(10) বল, তোমরা আমাকে জানাও, যদি এ কুরআন আল্লাহর কাছ থেকে এসে থাকে, আর তোমরা এটাকে অস্বীকার করলে, অথচ বনী ইসরাঈলের একজন সাক্ষী এ ব্যাপারে অনুরূপ সাক্ষ্য দিল। অতঃপর সে ঈমান আনল আর তোমরা অহঙ্কার করলে। নিশ্চয় আল্লাহ যালিম কওমকে হেদায়াত করেন না।قُلۡ أَرَءَيۡتُمۡ إِن كَانَ مِنۡ عِندِ ٱللَّهِ وَكَفَرۡتُم بِهِۦ وَشَهِدَ شَاهِدٞ مِّنۢ بَنِيٓ إِسۡرَٰٓءِيلَ عَلَىٰ مِثۡلِهِۦ فَ‍َٔامَنَ وَٱسۡتَكۡبَرۡتُمۡۚ إِنَّ ٱللَّهَ لَا يَهۡدِي ٱلۡقَوۡمَ ٱلظَّٰلِمِينَ ١٠

সুরা আহকাফ ع রুকু [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

.

(11) আর যারা কুফরী করেছে তারা যারা ঈমান এনেছে তাদের সম্পর্কে বলে, ‘যদি এটা ভাল হত তবে তারা আমাদের থেকে অগ্রণী হতে পারত না’। আর যখন তারা এর দ্বারা হেদায়াত প্রাপ্ত হয়নি, তখন তারা অচিরেই বলবে, ‘এটা তো এক পুরাতন মিথ্যা’।وَقَالَ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ لِلَّذِينَ ءَامَنُواْ لَوۡ كَانَ خَيۡرٗا مَّا سَبَقُونَآ إِلَيۡهِۚ وَإِذۡ لَمۡ يَهۡتَدُواْ بِهِۦ فَسَيَقُولُونَ هَٰذَآ إِفۡكٞ قَدِيمٞ ١١
(12) আর এর পূর্বে এসেছিল মূসার কিতাব পথপ্রদর্শক ও রহমতস্বরূপ। আর এটি তার সত্যায়নকারী কিতাব, আরবী ভাষায়; যাতে এটা যালিমদেরকে সতর্ক করতে পারে এবং তা ইনসাফকারীদের জন্য এক সুসংবাদ।وَمِن قَبۡلِهِۦ كِتَٰبُ مُوسَىٰٓ إِمَامٗا وَرَحۡمَةٗۚ وَهَٰذَا كِتَٰبٞ مُّصَدِّقٞ لِّسَانًا عَرَبِيّٗا لِّيُنذِرَ ٱلَّذِينَ ظَلَمُواْ وَبُشۡرَىٰ لِلۡمُحۡسِنِينَ ١٢
(13) নিশ্চয় যারা বলে, ‘আমাদের রব আল্লাহ’ অতঃপর অবিচল থাকে, তাদের কোন ভয় নেই এবং তারা চিন্তিতও হবে না।إِنَّ ٱلَّذِينَ قَالُواْ رَبُّنَا ٱللَّهُ ثُمَّ ٱسۡتَقَٰمُواْ فَلَا خَوۡفٌ عَلَيۡهِمۡ وَلَا هُمۡ يَحۡزَنُونَ ١٣
(14) তারাই জান্নাতের অধিবাসী, তাতে তারা স্থায়ীভাবে থাকবে, তারা যা আমল করত তার পুরস্কারস্বরূপ।أُوْلَٰٓئِكَ أَصۡحَٰبُ ٱلۡجَنَّةِ خَٰلِدِينَ فِيهَا جَزَآءَۢ بِمَا كَانُواْ يَعۡمَلُونَ ١٤
(15) আর আমি মানুষকে তার মাতা-পিতার প্রতি সদয় ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছি। তার মা তাকে অতিকষ্টে গর্ভে ধারণ করেছে এবং অতি কষ্টে তাকে প্রসব করেছে। তার গর্ভধারণ ও দুধপান ছাড়ানোর সময় লাগে ত্রিশ মাস। অবশেষে যখন সে তার শক্তির পূর্ণতায় পৌঁছে এবং চল্লিশ বছরে উপনীত হয়, তখন সে বলে, ‘হে আমার রব, আমাকে সামর্থ্য দাও, তুমি আমার উপর ও আমার মাতা-পিতার উপর যে নিআমত দান করেছ, তোমার সে নিআমতের যেন আমি শোকর আদায় করতে পারি এবং আমি যেন সৎকর্ম করতে পারি, যা তুমি পছন্দ কর। আর আমার জন্য তুমি আমার বংশধরদের মধ্যে সংশোধন করে দাও। নিশ্চয় আমি তোমার কাছে তাওবা করলাম এবং নিশ্চয় আমি মুসলিমদের অন্তর্ভুক্ত’।وَوَصَّيۡنَا ٱلۡإِنسَٰنَ بِوَٰلِدَيۡهِ إِحۡسَٰنًاۖ حَمَلَتۡهُ أُمُّهُۥ كُرۡهٗا وَوَضَعَتۡهُ كُرۡهٗاۖ وَحَمۡلُهُۥ وَفِصَٰلُهُۥ ثَلَٰثُونَ شَهۡرًاۚ حَتَّىٰٓ إِذَا بَلَغَ أَشُدَّهُۥ وَبَلَغَ أَرۡبَعِينَ سَنَةٗ قَالَ رَبِّ أَوۡزِعۡنِيٓ أَنۡ أَشۡكُرَ نِعۡمَتَكَ ٱلَّتِيٓ أَنۡعَمۡتَ عَلَيَّ وَعَلَىٰ وَٰلِدَيَّ وَأَنۡ أَعۡمَلَ صَٰلِحٗا تَرۡضَىٰهُ وَأَصۡلِحۡ لِي فِي ذُرِّيَّتِيٓۖ إِنِّي تُبۡتُ إِلَيۡكَ وَإِنِّي مِنَ ٱلۡمُسۡلِمِينَ ١٥
(16) এরাই, যাদের উৎকৃষ্ট আমলগুলো আমি কবূল করি এবং তাদের মন্দ কাজগুলো ক্ষমা করে দেই। তারা জান্নাতবাসীদের অন্তর্ভুক্ত। তাদেরকে যে ওয়াদা দেয়া হয়েছে, তা সত্য ওয়াদা।أُوْلَٰٓئِكَ ٱلَّذِينَ نَتَقَبَّلُ عَنۡهُمۡ أَحۡسَنَ مَا عَمِلُواْ وَنَتَجَاوَزُ عَن سَيِّ‍َٔاتِهِمۡ فِيٓ أَصۡحَٰبِ ٱلۡجَنَّةِۖ وَعۡدَ ٱلصِّدۡقِ ٱلَّذِي كَانُواْ يُوعَدُونَ ١٦
(17) আর যে ব্যক্তি তার মাতা-পিতাকে বলে, ‘তোমাদের জন্য আফসোস’! তোমরা কি আমাকে এই প্রতিশ্রুতি দাও যে, আমি পুনরুত্থিত হব’ অথচ আমার পূর্বে অনেক প্রজন্ম গত হয়ে গেছে’? আর তারা দু’জন আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করে বলে, ‘দুর্ভোগ তোমার জন্য! তুমি ঈমান আন। নিশ্চয় আল্লাহর ওয়াদা সত্য’। তখন সে বলে, ‘এটা কেবল অতীতকালের কল্পকাহিনী ছাড়া আর কিছু নয়’।وَٱلَّذِي قَالَ لِوَٰلِدَيۡهِ أُفّٖ لَّكُمَآ أَتَعِدَانِنِيٓ أَنۡ أُخۡرَجَ وَقَدۡ خَلَتِ ٱلۡقُرُونُ مِن قَبۡلِي وَهُمَا يَسۡتَغِيثَانِ ٱللَّهَ وَيۡلَكَ ءَامِنۡ إِنَّ وَعۡدَ ٱللَّهِ حَقّٞ فَيَقُولُ مَا هَٰذَآ إِلَّآ أَسَٰطِيرُ ٱلۡأَوَّلِينَ ١٧
(18) তাদের পূর্বে যে জিন ও মানবজাতি গত হয়ে গেছে, তাদের মত এদের প্রতিও আল্লাহর বাণী সত্য হয়েছে। নিশ্চয় এরা ছিল ক্ষতিগ্রস্ত।أُوْلَٰٓئِكَ ٱلَّذِينَ حَقَّ عَلَيۡهِمُ ٱلۡقَوۡلُ فِيٓ أُمَمٖ قَدۡ خَلَتۡ مِن قَبۡلِهِم مِّنَ ٱلۡجِنِّ وَٱلۡإِنسِۖ إِنَّهُمۡ كَانُواْ خَٰسِرِينَ١٨
(19) আর সকলের জন্যই তাদের আমল অনুসারে মর্যাদা রয়েছে। আর আল্লাহ যেন তাদেরকে তাদের কর্মের পূর্ণ প্রতিফল দিতে পারেন। আর তাদের প্রতি কোন যুলম করা হবে না।وَلِكُلّٖ دَرَجَٰتٞ مِّمَّا عَمِلُواْۖ وَلِيُوَفِّيَهُمۡ أَعۡمَٰلَهُمۡ وَهُمۡ لَا يُظۡلَمُونَ ١٩
(20) আর যেদিন কাফিরদেরকে জাহান্নামের সামনে পেশ করা হবে (তাদেরকে বলা হবে) ‘তোমরা তোমাদের দুনিয়ার জীবনে তোমাদের সুখ সামগ্রীগুলো নিঃশেষ করেছ এবং সেগুলো ভোগ করেছ। তোমরা যেহেতু অন্যায়ভাবে যমীনে অহঙ্কার করতে এবং তোমরা যেহেতু নাফরমানী করতে, সেহেতু তার প্রতিফলস্বরূপ আজ তোমাদেরকে অপমানজনক আযাব প্রদান করা হবে’।وَيَوۡمَ يُعۡرَضُ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ عَلَى ٱلنَّارِ أَذۡهَبۡتُمۡ طَيِّبَٰتِكُمۡ فِي حَيَاتِكُمُ ٱلدُّنۡيَا وَٱسۡتَمۡتَعۡتُم بِهَا فَٱلۡيَوۡمَ تُجۡزَوۡنَ عَذَابَ ٱلۡهُونِ بِمَا كُنتُمۡ تَسۡتَكۡبِرُونَ فِي ٱلۡأَرۡضِ بِغَيۡرِ ٱلۡحَقِّ وَبِمَا كُنتُمۡ تَفۡسُقُونَ ٢٠

সুরা আহকাফ ع রুকু [২][2] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

.

(21) আর স্মরণ কর ‘আ’দ সম্প্রদায়ের ভাইয়ের কথা, যখন সে আহকাফের স্বীয় সম্প্রদায়কে সতর্ক করেছিল। আর এমন সতর্ককারীরা তার পূর্বে এবং তার পরেও গত হয়েছে যে, ‘তোমরা আল্লাহ ছাড়া কারো ইবাদাত করো না। নিশ্চয় আমি তোমাদের উপর এক ভয়াবহ দিনের আযাবের আশঙ্কা করছি’।۞وَٱذۡكُرۡ أَخَا عَادٍ إِذۡ أَنذَرَ قَوۡمَهُۥ بِٱلۡأَحۡقَافِ وَقَدۡ خَلَتِ ٱلنُّذُرُ مِنۢ بَيۡنِ يَدَيۡهِ وَمِنۡ خَلۡفِهِۦٓ أَلَّا تَعۡبُدُوٓاْ إِلَّا ٱللَّهَ إِنِّيٓ أَخَافُ عَلَيۡكُمۡ عَذَابَ يَوۡمٍ عَظِيمٖ ٢١
(22) তারা বলল, ‘তুমি কি আমাদেরকে আমাদের উপাস্যদের থেকে নিবৃত্ত করতে আমাদের নিকট এসেছ? তুমি যদি সত্যবাদীদের অন্তর্ভুক্ত হও, তাহলে আমাদেরকে যার ভয় দেখাচ্ছ তা নিয়ে এসো’।قَالُوٓاْ أَجِئۡتَنَا لِتَأۡفِكَنَا عَنۡ ءَالِهَتِنَا فَأۡتِنَا بِمَا تَعِدُنَآ إِن كُنتَ مِنَ ٱلصَّٰدِقِينَ ٢٢
(23) সে বলল, ‘এ জ্ঞান একমাত্র আল্লাহর কাছে। আর যা দিয়ে আমাকে পাঠানো হয়েছে, আমি তোমাদের কাছে তা-ই প্রচার করি, কিন্তু আমি দেখছি, তোমরা এক মূর্খ সম্প্রদায়’।قَالَ إِنَّمَا ٱلۡعِلۡمُ عِندَ ٱللَّهِ وَأُبَلِّغُكُم مَّآ أُرۡسِلۡتُ بِهِۦ وَلَٰكِنِّيٓ أَرَىٰكُمۡ قَوۡمٗا تَجۡهَلُونَ ٢٣
(24) অতঃপর যখন তারা তাদের উপত্যকার দিকে মেঘমালা দেখল তখন তারা বলল, ‘এ মেঘমালা আমাদেরকে বৃষ্টি দেবে’। (হূদ বলল,) বরং এটি তা-ই যা তোমরা ত্বরান্বিত করতে চেয়েছিলে। এ এক ঝড়, যাতে যন্ত্রণাদায়ক আযাব রয়েছে’।فَلَمَّا رَأَوۡهُ عَارِضٗا مُّسۡتَقۡبِلَ أَوۡدِيَتِهِمۡ قَالُواْ هَٰذَا عَارِضٞ مُّمۡطِرُنَاۚ بَلۡ هُوَ مَا ٱسۡتَعۡجَلۡتُم بِهِۦۖ رِيحٞ فِيهَا عَذَابٌ أَلِيمٞ ٢٤
(25) এটা তার রবের নির্দেশে সব কিছু ধ্বংস করে দেবে’। ফলে তারা এমন (ধ্বংস) হয়ে গেল যে, তাদের আবাসস্থল ছাড়া আর কিছুই দেখা যাচ্ছিল না। এভাবেই আমি অপরাধী কওমকে প্রতিফল দিয়ে থাকি।تُدَمِّرُ كُلَّ شَيۡءِۢ بِأَمۡرِ رَبِّهَا فَأَصۡبَحُواْ لَا يُرَىٰٓ إِلَّا مَسَٰكِنُهُمۡۚ كَذَٰلِكَ نَجۡزِي ٱلۡقَوۡمَ ٱلۡمُجۡرِمِينَ ٢٥
(26) আর আমি অবশ্যই তাদেরকে যাতে প্রতিষ্ঠিত করেছিলাম, তোমাদেরকে তাতে প্রতিষ্ঠিত করিনি। আর আমি তাদেরকে কান, চোখ ও হৃদয় দিয়েছিলাম, কিন্তু তারা যখন আমার আয়াতসমূহকে অস্বীকার করত, তখন তাদের কান, তাদের চোখ ও তাদের হৃদয়সমূহ তাদের কোন উপকারে আসেনি। আর তারা যা নিয়ে ঠাট্টা-বিদ্রূপ করত তা-ই তাদেরকে পরিবেষ্টন করল।وَلَقَدۡ مَكَّنَّٰهُمۡ فِيمَآ إِن مَّكَّنَّٰكُمۡ فِيهِ وَجَعَلۡنَا لَهُمۡ سَمۡعٗا وَأَبۡصَٰرٗا وَأَفۡ‍ِٔدَةٗ فَمَآ أَغۡنَىٰ عَنۡهُمۡ سَمۡعُهُمۡ وَلَآ أَبۡصَٰرُهُمۡ وَلَآ أَفۡ‍ِٔدَتُهُم مِّن شَيۡءٍ إِذۡ كَانُواْ يَجۡحَدُونَ بِ‍َٔايَٰتِ ٱللَّهِ وَحَاقَ بِهِم مَّا كَانُواْ بِهِۦ يَسۡتَهۡزِءُونَ ٢٦

সুরা আহকাফ ع রুকু [৩][3] >> [১][1] >> [২][2] >> [৪][4]

.

(27) আর অবশ্যই আমি তোমাদের পার্শ্ববর্তী জনপদসমূহ ধ্বংস করেছিলাম। আর আমি বিভিন্নভাবে আয়াতসমূহকে বর্ণনা করেছিলাম যাতে তারা ফিরে আসে।وَلَقَدۡ أَهۡلَكۡنَا مَا حَوۡلَكُم مِّنَ ٱلۡقُرَىٰ وَصَرَّفۡنَا ٱلۡأٓيَٰتِ لَعَلَّهُمۡ يَرۡجِعُونَ ٢٧
(28) অতঃপর তারা আল্লাহর সান্নিধ্য লাভের জন্য আল্লাহর পরিবর্তে যাদেরকে উপাস্যরূপে গ্রহণ করেছিল, তারা কেন তাদেরকে সাহায্য করল না? বরং তারা তাদের থেকে অদৃশ্য হয়ে গেল, আর এটা তাদের মিথ্যাচার এবং তাদের মনগড়া উদ্ভাবন।فَلَوۡلَا نَصَرَهُمُ ٱلَّذِينَ ٱتَّخَذُواْ مِن دُونِ ٱللَّهِ قُرۡبَانًا ءَالِهَةَۢۖ بَلۡ ضَلُّواْ عَنۡهُمۡۚ وَذَٰلِكَ إِفۡكُهُمۡ وَمَا كَانُواْ يَفۡتَرُونَ ٢٨
(29) আর স্মরণ কর, যখন আমি জিনদের একটি দলকে তোমার কাছে ফিরিয়ে দিয়েছিলাম। তারা কুরআন পাঠ শুনছিল। যখন তারা তার কাছে উপস্থিত হল, তখণ তারা বলল, ‘চুপ করে শোন। তারপর যখন পাঠ শেষ হল তখন তারা তাদের কওমের কাছে সতর্ককারী হিসেবে ফিরে গেল।وَإِذۡ صَرَفۡنَآ إِلَيۡكَ نَفَرٗا مِّنَ ٱلۡجِنِّ يَسۡتَمِعُونَ ٱلۡقُرۡءَانَ فَلَمَّا حَضَرُوهُ قَالُوٓاْ أَنصِتُواْۖ فَلَمَّا قُضِيَ وَلَّوۡاْ إِلَىٰ قَوۡمِهِم مُّنذِرِينَ ٢٩
(30) তারা বলল, ‘হে আমাদের কওম, আমরা তো এক কিতাবের বাণী শুনেছি, যা মূসার পরে নাযিল করা হয়েছে। যা পূর্ববর্তী কিতাবকে সত্যায়ন করে আর সত্য ও সরল পথের প্রতি হিদায়াত করে’।قَالُواْ يَٰقَوۡمَنَآ إِنَّا سَمِعۡنَا كِتَٰبًا أُنزِلَ مِنۢ بَعۡدِ مُوسَىٰ مُصَدِّقٗا لِّمَا بَيۡنَ يَدَيۡهِ يَهۡدِيٓ إِلَى ٱلۡحَقِّ وَإِلَىٰ طَرِيقٖ مُّسۡتَقِيمٖ٣٠
(31) হে আমাদের কওম, আল্লাহর দিকে আহবানকারীর প্রতি সাড়া দাও এবং তার প্রতি ঈমান আন, আল্লাহ তোমাদের পাপসমূহ ক্ষমা করবেন। আর তোমাদেরকে যন্ত্রণাদায়ক আযাব থেকে রক্ষা করবেন’।يَٰقَوۡمَنَآ أَجِيبُواْ دَاعِيَ ٱللَّهِ وَءَامِنُواْ بِهِۦ يَغۡفِرۡ لَكُم مِّن ذُنُوبِكُمۡ وَيُجِرۡكُم مِّنۡ عَذَابٍ أَلِيمٖ ٣١
(32) আর যে আল্লাহর দিকে আহবানকারীর ডাকে সাড়া দেবে না সে যমীনে তাকে অপারগকারী নয়। আর আল্লাহ ছাড়া তার কোন অভিভাবক নেই। এরাই স্পষ্ট বিভ্রান্তির মধ্যে রয়েছে।وَمَن لَّا يُجِبۡ دَاعِيَ ٱللَّهِ فَلَيۡسَ بِمُعۡجِزٖ فِي ٱلۡأَرۡضِ وَلَيۡسَ لَهُۥ مِن دُونِهِۦٓ أَوۡلِيَآءُۚ أُوْلَٰٓئِكَ فِي ضَلَٰلٖ مُّبِينٍ ٣٢
(33) তারা কি দেখে না যে, নিশ্চয় আল্লাহ, যিনি আসমানসমূহ ও যমীন সৃষ্টি করেছেন আর এগুলোর সৃষ্টিতে তিনি ক্লান্ত হননি, তিনি মৃতদেরকে জীবন দিতে সক্ষম? অবশ্যই হ্যাঁ, নিশ্চয় তিনি সকল কিছুর ওপর ক্ষমতাবান।أَوَ لَمۡ يَرَوۡاْ أَنَّ ٱللَّهَ ٱلَّذِي خَلَقَ ٱلسَّمَٰوَٰتِ وَٱلۡأَرۡضَ وَلَمۡ يَعۡيَ بِخَلۡقِهِنَّ بِقَٰدِرٍ عَلَىٰٓ أَن يُحۡـِۧيَ ٱلۡمَوۡتَىٰۚ بَلَىٰٓۚ إِنَّهُۥ عَلَىٰ كُلِّ شَيۡءٖ قَدِيرٞ ٣٣
(34) আর যেদিন কাফিরদেরকে জাহান্নামের কাছে পেশ করা হবে (বলা হবে), ‘এটা কি সত্য নয়’? তারা বলবে, ‘অবশ্যই হ্যাঁ, আমাদের রবের কসম তিনি বলবেন, ‘তাহলে আযাব আস্বাদন কর, যেহেতু তোমরা কুফরী করছিলে’।وَيَوۡمَ يُعۡرَضُ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ عَلَى ٱلنَّارِ أَلَيۡسَ هَٰذَا بِٱلۡحَقِّۖ قَالُواْ بَلَىٰ وَرَبِّنَاۚ قَالَ فَذُوقُواْ ٱلۡعَذَابَ بِمَا كُنتُمۡ تَكۡفُرُونَ ٣٤
(35) অতএব তুমি ধৈর্যধারণ কর, যেমন ধৈর্যধারণ করেছিল সুদৃঢ় সংকল্পের অধিকারী রাসূলগণ। আর তাদের জন্য তাড়াহুড়া করো না। তাদেরকে যে বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছিল, যেদিন তারা তা প্রত্যক্ষ করবে, মনে হবে তারা পৃথিবীতে এক দিনের কিছু সময় অবস্থান করেছে। সুতরাং এটা এক ঘোষণা, তাই পাপাচারী কওমকেই ধ্বংস করা হবে।فَٱصۡبِرۡ كَمَا صَبَرَ أُوْلُواْ ٱلۡعَزۡمِ مِنَ ٱلرُّسُلِ وَلَا تَسۡتَعۡجِل لَّهُمۡۚ كَأَنَّهُمۡ يَوۡمَ يَرَوۡنَ مَا يُوعَدُونَ لَمۡ يَلۡبَثُوٓاْ إِلَّا سَاعَةٗ مِّن نَّهَارِۢۚ بَلَٰغٞۚ فَهَلۡ يُهۡلَكُ إِلَّا ٱلۡقَوۡمُ ٱلۡفَٰسِقُونَ ٣٥

সুরা আহকাফ ع রুকু [৪][4] >> [১][1] >> [২][2] >> [৩][3]

শব্দে শব্দে সুরা আহকাফ Sura Ahqaf in Words ع রুকু [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

(1)

حمٓ

হা-মীম

Ha Meem

(2)

تَنزِيلُ

অবতীর্ণ করা

(The) revelation

ٱلْكِتَٰبِ

এই কিতাব

(of) the Book

مِنَ

পক্ষ হতে

(is) from

ٱللَّهِ

আল্লাহর

Allah

ٱلْعَزِيزِ

(যিনি) পরাক্রমশালী

the All-Mighty

ٱلْحَكِيمِ

মহাবিজ্ঞ

the All-Wise

(3)

مَا

না

Not

خَلَقْنَا

আমরা সৃষ্টি করেছি

We created

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশ

the heavens

وَٱلْأَرْضَ

আর (না)পৃথিবীকে

and the earth

وَمَا

এবং যা কিছু (আছে)

and what

بَيْنَهُمَآ

উভয়ের মাঝে

(is) between both of them

إِلَّا

ব্যতীত

except

بِٱلْحَقِّ

যথাযথভাবে

in truth

وَأَجَلٍ

এবং একটা সময়ের (জন্যে)

and (for) a term

مُّسَمًّى

সুনির্দিষ্ট

appointed

وَٱلَّذِينَ

কিন্তু যারা

But those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছে

disbelieve

عَمَّآ

সে সম্পর্কে যার

from what

أُنذِرُوا۟

তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে

they are warned

مُعْرِضُونَ

(তা হতে) তারা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে

(are) turning away

(4)

قُلْ

(হে নাবী) বলো

Say

أَرَءَيْتُم

“তোমরা কি (ভেবে) দেখেছ

“Do you see

مَّا

যাদেরকে

what

تَدْعُونَ

তোমরা ডাক

you call

مِن

মধ্য হতে

besides

دُونِ

ছাড়া

besides

ٱللَّهِ

আল্লাহকে (তারা কারা?)

Allah?

أَرُونِى

আমাকে দেখাও

Show me

مَاذَا

কি

what

خَلَقُوا۟

তারা সৃষ্টি করেছে

they have created

مِنَ

মধ্য হতে

of

ٱلْأَرْضِ

পৃথিবীর

the earth

أَمْ

অথবা কি

or

لَهُمْ

তাদের জন্যে আছে

for them

شِرْكٌ

কোন অংশ

(is) any share

فِى

মধ্যে

in

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশসমূহের

the heavens?

ٱئْتُونِى

আমার কাছে আন

Bring me

بِكِتَٰبٍ

কোন বই নিয়ে (এর সমর্থনে)

a book

مِّن

থেকে

from

قَبْلِ

পূর্বের

before

هَٰذَآ

এর

this

أَوْ

অথবা

or

أَثَٰرَةٍ

ঐতিহ্যগত

traces

مِّنْ

কোনো

of

عِلْمٍ

জ্ঞান

knowledge

إِن

যদি

if

كُنتُمْ

তোমরা হও

you are

صَٰدِقِينَ

সত্যবাদী”

truthful”

(5)

وَمَنْ

এবং কে

And who

أَضَلُّ

অধিক বিভ্রান্ত (হতে পারে)

(is) more astray

مِمَّن

তার চেয়ে যে

than (he) who

يَدْعُوا۟

ডাকে

calls

مِن

মধ্য হতে

besides

دُونِ

ছাড়া

besides

ٱللَّهِ

আল্লাহ

Allah

مَن

(এমন সত্তাকে) যা

who

لَّا

না

will not respond

يَسْتَجِيبُ

ডাকে সাড়া দেবে

will not respond

لَهُۥٓ

তাকে

to him

إِلَىٰ

পর্যন্ত

until

يَوْمِ

দিন

(the) Day

ٱلْقِيَٰمَةِ

কিয়ামতের

(of) Resurrection

وَهُمْ

এবং তারা

and they

عَن

সম্বন্ধে

of

دُعَآئِهِمْ

তাদের প্রার্থনা

their calls

غَٰفِلُونَ

অনবহিত

(are) unaware

(6)

وَإِذَا

এবং যখন

And when

حُشِرَ

একত্র করা হবে

are gathered

ٱلنَّاسُ

সব মানুষকে

the people

كَانُوا۟

তারা হবে

they will be

لَهُمْ

তাদের জন্যে

for them

أَعْدَآءً

শত্রু

enemies

وَكَانُوا۟

এবং তারা হবে

and they will be

بِعِبَادَتِهِمْ

তাদের উপাসনা সম্বন্ধে

of their worship

كَٰفِرِينَ

অস্বীকারকারী

deniers

(7)

وَإِذَا

এবং যখন

And when

تُتْلَىٰ

আবৃত্তি করা হয়

are recited

عَلَيْهِمْ

তাদের নিকট

to them

ءَايَٰتُنَا

আমাদের আয়াতগুলোকে

Our Verses

بَيِّنَٰتٍ

সুস্পষ্ট

clear

قَالَ

(তখন) বলে

say

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছে

disbelieve

لِلْحَقِّ

মহাসত্যকে

of the truth

لَمَّا

যখন

when

جَآءَهُمْ

তাদের কাছে এসেছে

it comes to them

هَٰذَا

“এটা

“This

سِحْرٌ

জাদু

(is) a magic

مُّبِينٌ

সুস্পষ্ট”

clear”

(8)

أَمْ

অথবা

Or

يَقُولُونَ

তারা বলে

they say

ٱفْتَرَىٰهُ

“সে তা রচনা করেছে”

“He has invented it”

قُلْ

বলো

Say

إِنِ

“যদি

“If

ٱفْتَرَيْتُهُۥ

তা আমি রচনা করে থাকি

I have invented it

فَلَا

না তবে

then not

تَمْلِكُونَ

তোমরা সক্ষম

you have power

لِى

আমাকে (রক্ষা করতে)

for me

مِنَ

হতে

against

ٱللَّهِ

আল্লাহ

Allah

شَيْـًٔا

কিছুমাত্র

anything

هُوَ

তিনি

He

أَعْلَمُ

খুব জানেন

knows best

بِمَا

ঐ বিষয়ে

of what

تُفِيضُونَ

তোমরা আলোচনা করে বেড়াচ্ছ

you utter

فِيهِ

যে সম্বন্ধে

concerning it

كَفَىٰ

(তিনিই) যথেষ্ট

Sufficient is He

بِهِۦ

সে বিষয়ে

Sufficient is He

شَهِيدًۢا

সাক্ষী (হিসাবে)

(as) a Witness

بَيْنِى

আমার মাঝে

between me

وَبَيْنَكُمْ

ও তোমাদের মাঝে

and between you

وَهُوَ

এবং তিনিই

and He

ٱلْغَفُورُ

ক্ষমাশীল

(is) the Oft-Forgiving

ٱلرَّحِيمُ

দয়াময়

the Most Merciful

(9)

قُلْ

বলো

Say

مَا

“নই

“Not

كُنتُ

আমি (কোন রাসূল)

I am

بِدْعًا

অভিনব

a new (one)

مِّنَ

মধ্য হতে

among

ٱلرُّسُلِ

রাসূলগণের

the Messengers

وَمَآ

এবং না

and not

أَدْرِى

আমি জানি

I know

مَا

কি

what

يُفْعَلُ

(আচরণ) করা হবে

will be done

بِى

আমার সাথে

with me

وَلَا

আর না

and not

بِكُمْ

তোমাদের সাথে

with you

إِنْ

না

Not

أَتَّبِعُ

আমি অনুসরণ করি

I follow

إِلَّا

এ ব্যতীত

but

مَا

যা

what

يُوحَىٰٓ

ওহী করা হয়

is revealed

إِلَىَّ

আমার প্রতি

to me

وَمَآ

এবং নই

and not

أَنَا۠

আমি (আর কিছু)

I am

إِلَّا

এ ব্যতীত

but

نَذِيرٌ

একজন সতর্ককারী

a warner

مُّبِينٌ

সুস্পষ্ট”

clear”

(10)

قُلْ

বলো

Say

أَرَءَيْتُمْ

“তোমরা (ভেবে) দেখেছ কি

“Do you see

إِن

যদি

if

كَانَ

হয় (এটা)

it is

مِنْ

হতে

from Allah

عِندِ

নিকট

from Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহর

from Allah

وَكَفَرْتُم

আর তোমরা অস্বীকার করছ (তবে কি পরিণতি হবে)

and you disbelieve

بِهِۦ

তা

in it

وَشَهِدَ

এবং সাক্ষ্য দিয়েছে

and testifies

شَاهِدٌ

একজন সাক্ষী

a witness

مِّنۢ

মধ্য হতে

from

بَنِىٓ

বনী

(the) Children of Israel

إِسْرَٰٓءِيلَ

ইসরাঈলের

(the) Children of Israel

عَلَىٰ

উপর

to

مِثْلِهِۦ

তার অনুরূপ (কালামের)

(the) like thereof

فَـَٔامَنَ

এরপরে সে ঈমান আনল

then he believed

وَٱسْتَكْبَرْتُمْ

অথচ তোমরা অহংকার করলে”

while you are arrogant?”

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

لَا

না

(does) not

يَهْدِى

পথ দেখান

guide

ٱلْقَوْمَ

সম্প্রদায়কে

the people

ٱلظَّٰلِمِينَ

সীমালঙ্ঘনকারী

the wrongdoers

Sura Ahqaf in Words ع রুকু [১][1] >> [২][2] >> [৩][3] >> [৪][4]

(11)

وَقَالَ

এবং বলে

And say

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছে

disbelieve

لِلَّذِينَ

(তাদের)-কে যারা

of those who

ءَامَنُوا۟

ঈমান এনেছে

believe

لَوْ

“যদি

“If

كَانَ

হতো

it had been

خَيْرًا

উত্তম

good

مَّا

না

not

سَبَقُونَآ

তারা আমাদের আগে যেতে পারত

they (would) have preceded us

إِلَيْهِ

তার প্রতি”

to it”

وَإِذْ

এবং যখন

And when

لَمْ

নি

not

يَهْتَدُوا۟

পথ পায়

they (are) guided

بِهِۦ

তার দ্বারা

by it

فَسَيَقُولُونَ

তখন অচিরেই তারা বলবেই

they say

هَٰذَآ

“এটা

“This

إِفْكٌ

মিথ্যা

(is) a lie

قَدِيمٌ

পুরাতন”

ancient”

(12)

وَمِن

এবং

And before it

قَبْلِهِۦ

তার পূর্বে

And before it

كِتَٰبُ

কিতাব (এসেছে)

(was the) Scripture

مُوسَىٰٓ

মুসার

(of) Musa

إِمَامًا

পথ প্রদর্শক

(as) a guide

وَرَحْمَةً

ও অনুগ্রহ (স্বরূপ)

and a mercy

وَهَٰذَا

এবং এই

And this

كِتَٰبٌ

কিতাব

(is) a Book

مُّصَدِّقٌ

(তার) সত্যায়নকারী/ সমর্থক

confirming

لِّسَانًا

ভাষায়

(in) language

عَرَبِيًّا

আরবী

Arabic

لِّيُنذِرَ

যেন সতর্ক করে

to warn

ٱلَّذِينَ

(তাদেরকে) যারা

those who

ظَلَمُوا۟

যুলুম করেছে

do wrong

وَبُشْرَىٰ

এবং সুসংবাদ (দেয়)

and (as) a glad tidings

لِلْمُحْسِنِينَ

সৎকর্মশীলদের জন্যে

for the good-doers

(13)

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

ٱلَّذِينَ

যারা

those who

قَالُوا۟

বলে

say

رَبُّنَا

“আমাদের রব

“Our Lord

ٱللَّهُ

আল্লাহই”

(is) Allah”

ثُمَّ

এরপর

then

ٱسْتَقَٰمُوا۟

তারা অবিচল থাকে

remain firm

فَلَا

নেইতখন

then no

خَوْفٌ

কোনো ভয়

fear

عَلَيْهِمْ

তাদের উপর

on them

وَلَا

আর না

and nor

هُمْ

তারা

they

يَحْزَنُونَ

দুঃখিত হবে

will grieve

(14)

أُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসব লোক

Those

أَصْحَٰبُ

অধিবাসী (হবে)

(are the) companions

ٱلْجَنَّةِ

জান্নাতের

(of) Paradise

خَٰلِدِينَ

তারা চিরস্থায়ী হবে

abiding forever

فِيهَا

তার মধ্যে

therein

جَزَآءًۢ

পুরস্কার

a reward

بِمَا

বিনিময়ে যা

for what

كَانُوا۟

তারা ছিল

they used (to)

يَعْمَلُونَ

তারা কাজ করে

do

(15)

وَوَصَّيْنَا

এবং আমরা নির্দেশ দিয়েছি

And We have enjoined

ٱلْإِنسَٰنَ

মানুষকে

(on) man

بِوَٰلِدَيْهِ

তার পিতামাতার সাথে

to his parents

إِحْسَٰنًا

ভালো ব্যবহারের

kindness

حَمَلَتْهُ

তাকে গর্ভেধারণ করেছে

Carried him

أُمُّهُۥ

তার মা

his mother

كُرْهًا

কষ্ট করে

(with) hardship

وَوَضَعَتْهُ

ও তাকে প্রসব করেছে

and gave birth to him

كُرْهًا

কষ্টে

(with) hardship

وَحَمْلُهُۥ

এবং তার গর্ভধারণ

And (the) bearing of him

وَفِصَٰلُهُۥ

ও তার দুধ ছাড়ানোর মেয়াদ

and (the) weaning of him

ثَلَٰثُونَ

ত্রিশ

(is) thirty

شَهْرًا

মাস

month(s)

حَتَّىٰٓ

এমনকি

until

إِذَا

যখন

when

بَلَغَ

সে পৌঁছে

he reaches

أَشُدَّهُۥ

তার পূর্ণশক্তিতে/ তার যৌবন বয়সে

his maturity

وَبَلَغَ

ও পৌঁছে (বয়স)

and reaches

أَرْبَعِينَ

চল্লিশ

forty

سَنَةً

বছরে

year(s)

قَالَ

সে বলে

he says

رَبِّ

“হে আমার রব

“My Lord

أَوْزِعْنِىٓ

আমাকে সামর্থ্য দাও

grant me (the) power

أَنْ

যেন

that

أَشْكُرَ

আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি

I may be grateful

نِعْمَتَكَ

তোমার অনুগ্রহের

(for) Your favor

ٱلَّتِىٓ

যা

which

أَنْعَمْتَ

তুমি অনুগ্রহ দান করেছ

You have bestowed

عَلَىَّ

আমার উপর

upon me

وَعَلَىٰ

ও উপর

and upon

وَٰلِدَىَّ

আমার পিতা-মাতার

my parents

وَأَنْ

এবং যেন

and that

أَعْمَلَ

আমি কাজ করি

I do

صَٰلِحًا

সৎকর্ম

righteous (deeds)

تَرْضَىٰهُ

যা পছন্দ কর তুমি

which please You

وَأَصْلِحْ

এবং যোগ্যতা সৃষ্টি করে দাও

and make righteous

لِى

আমার জন্যে

for me

فِى

মধ্যে

among

ذُرِّيَّتِىٓ

আমার সন্তানদের

my offspring

إِنِّى

আমি নিশ্চয়ই

indeed

تُبْتُ

তওবা করছি

I turn

إِلَيْكَ

তোমার কাছে

to You

وَإِنِّى

এবং আমি নিশ্চয়ই

and indeed I am

مِنَ

অন্তর্ভুক্ত

of

ٱلْمُسْلِمِينَ

আত্মসমর্পণকারীদের”

those who submit”

(16)

أُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসব লোক

Those

ٱلَّذِينَ

(তারাই) যাদের

(are) the ones

نَتَقَبَّلُ

আমরা গ্রহণ করি

We will accept

عَنْهُمْ

তাদের থেকে

from them

أَحْسَنَ

সর্বোত্তম

(the) best

مَا

যা

(of) what

عَمِلُوا۟

তারা কাজ করেছে

they did

وَنَتَجَاوَزُ

এবং আমরা মার্জনা করি

and We will overlook

عَن

যে

from

سَيِّـَٔاتِهِمْ

তাদের মন্দকাজগুলোকে

their evil deeds

فِىٓ

হতে

among

أَصْحَٰبِ

অধিবাসীদের

(the) companions

ٱلْجَنَّةِ

জান্নাতের

(of) Paradise

وَعْدَ

প্রতিশ্রুতি

A promise

ٱلصِّدْقِ

সত্য

TRUE

ٱلَّذِى

যা

which

كَانُوا۟

দেওয়া হয়েছিল

they were

يُوعَدُونَ

তাদের প্রতিশ্রুতি

promised

(17)

وَٱلَّذِى

এবং যে

But the one who

قَالَ

বলে

says

لِوَٰلِدَيْهِ

তার পিতামাতাকে

to his parents

أُفٍّ

“ধিক (আফসোস)

“Uff

لَّكُمَآ

তোমাদের দু’জনের জন্যে

to both of you!

أَتَعِدَانِنِىٓ

আমাকে কি তোমরা ভয় দেখাচ্ছ

Do you promise me

أَنْ

যে

that

أُخْرَجَ

আমাকে বের করে আনা হবে

I will be brought forth

وَقَدْ

অথচ নিশ্চয়ই

and have already passed away

خَلَتِ

অতীত হয়েছে

and have already passed away

ٱلْقُرُونُ

বহু জনগোষ্ঠী

the generations

مِن

before me?”

قَبْلِى

আমার পূর্বে”

before me?”

وَهُمَا

এবং তারা দু’জন

And they both

يَسْتَغِيثَانِ

ফরিয়াদ করে

seek help

ٱللَّهَ

আল্লাহর কাছে (এবং বলে)

(of) Allah

وَيْلَكَ

“তোমার জন্যে দুর্ভোগ

“Woe to you!

ءَامِنْ

ঈমান আন

Believe!

إِنَّ

নিশ্চয়ই

Indeed

وَعْدَ

প্রতিশ্রুতি

(the) Promise

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(of) Allah

حَقٌّ

সত্য”

(is) true”

فَيَقُولُ

অতঃপর সে বলে

But he says

مَا

“নয়

“Not

هَٰذَآ

এটা

(is) this

إِلَّآ

এ ব্যতীত

but

أَسَٰطِيرُ

উপকথা সমূহ

(the) stories

ٱلْأَوَّلِينَ

পুরাতনকালের লোকদের”

(of) the former (people)”

(18)

أُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসব লোক

Those

ٱلَّذِينَ

তারাই

(are) the ones

حَقَّ

অবধারিত হয়েছে

(has) proved true

عَلَيْهِمُ

তাদের উপর

against them

ٱلْقَوْلُ

(আল্লাহর) বাণী

the word

فِىٓ

(তারা হবে) অন্তর্ভুক্ত

among

أُمَمٍ

(শাস্তিপ্রাপ্ত) সম্প্রদায়গুলোর

nations

قَدْ

অবশ্যই

(that) already passed away

خَلَتْ

(যারা) অতীত হয়েছে

(that) already passed away

مِن

মধ্য হতে

before them

قَبْلِهِم

তাদের পূর্বে

before them

مِّنَ

মধ্য হতে

of

ٱلْجِنِّ

জিন

(the) jinn

وَٱلْإِنسِ

ও মানুষের

and the men

إِنَّهُمْ

তারা নিশ্চয়ই

Indeed, they

كَانُوا۟

তারা ছিল

are

خَٰسِرِينَ

ক্ষতিগ্রস্ত

(the) losers

(19)

وَلِكُلٍّ

এবং প্রত্যেকের জন্যে

And for all

دَرَجَٰتٌ

মর্যাদা (রয়েছে)

(are) degrees

مِّمَّا

তা হতে যা

for what

عَمِلُوا۟

তারা কাজ করেছে

they did

وَلِيُوَفِّيَهُمْ

এবং তাদেরকে যেন পূর্ণ দেন

and that He may fully compensate them

أَعْمَٰلَهُمْ

তাদের কাজের (প্রতিফল)

(for) their deeds

وَهُمْ

এবং তাদের (উপর)

and they

لَا

না

will not be wronged

يُظْلَمُونَ

অবিচার করা হবে

will not be wronged

(20)

وَيَوْمَ

এবং যেদিন

And (the) Day

يُعْرَضُ

উপস্থিত করা হবে

will be exposed

ٱلَّذِينَ

(তাদেরকে) যারা

those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছিল

disbelieved

عَلَى

নিকট

to

ٱلنَّارِ

আগুনের (বলা হবে)

the Fire

أَذْهَبْتُمْ

“তোমরা নিঃশেষ করেছ

“You exhausted

طَيِّبَٰتِكُمْ

তোমাদের সুখ-সুবিধাগুলোকে

your good things

فِى

মধ্যে

in

حَيَاتِكُمُ

তোমাদের জীবনের

your life

ٱلدُّنْيَا

দুনিয়ার

(of) the world

وَٱسْتَمْتَعْتُم

এবং তোমরা ভোগ করেছ

and you took your pleasures

بِهَا

তার দ্বারা

therein

فَٱلْيَوْمَ

অতএব আজ

So today

تُجْزَوْنَ

তোমাদের প্রতিফল দেওয়া হবে

you will be recompensed

عَذَابَ

শাস্তি

(with) a punishment

ٱلْهُونِ

অপমানের

humiliating

بِمَا

এ কারণে যা

because

كُنتُمْ

তোমরা করছিলে

you were

تَسْتَكْبِرُونَ

অহংকার

arrogant

فِى

মধ্যে

in

ٱلْأَرْضِ

পৃথিবীর

the earth

بِغَيْرِ

ব্যতীত

without

ٱلْحَقِّ

অধিকার

[the] right

وَبِمَا

এবং এ কারণে যা

and because

كُنتُمْ

তোমরা করছিলে

you were

تَفْسُقُونَ

পাপাচার”

defiantly disobedient”

Sura Ahqaf in Words ع রুকু [২][2] >> [১][1] >> [৩][3] >> [৪][4]

(21)

وَٱذْكُرْ

এবং স্মরণ করো

And mention

أَخَا

ভাই

(the) brother

عَادٍ

আ’দের (অর্থাৎ হুদের কথা)

(of) Aad

إِذْ

যখন

when

أَنذَرَ

সে সতর্ক করেছিল

he warned

قَوْمَهُۥ

তার জাতিকে

his people

بِٱلْأَحْقَافِ

আহকাফ (উপত্যকায়)

in the Al-Ahqaf

وَقَدْ

এবং নিশ্চয়ই

and had already passed away

خَلَتِ

অতীত হয়েছে

and had already passed away

ٱلنُّذُرُ

সতর্ককারীরা

[the] warners

مِنۢ

মধ্য হতে

before him

بَيْنِ

মধ্য হতে

before him

يَدَيْهِ

তার নিকট অতীতেও

before him

وَمِنْ

এবং

and after him

خَلْفِهِۦٓ

তার পরেও (এই বলে)

and after him

أَلَّا

“যে না

“That not

تَعْبُدُوٓا۟

তোমরা এবাদত করো (অন্য কারো)

you worship

إِلَّا

ব্যতীত

except

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

إِنِّىٓ

আমি নিশ্চয়ই

Indeed, I

أَخَافُ

ভয় করি

[I] fear

عَلَيْكُمْ

তোমাদের উপর

for you

عَذَابَ

শাস্তির

a punishment

يَوْمٍ

(এমন এক) দিনের

(of) a Day

عَظِيمٍ

(যা) বড় কঠিন”

Great”

(22)

قَالُوٓا۟

তারা বলেছিল

They said

أَجِئْتَنَا

“তুমি আমাদের কাছে এসেছ কি

“Have you come to us

لِتَأْفِكَنَا

আমাদেরকে ফিরাবে তুমি

to turn us away

عَنْ

হতে

from

ءَالِهَتِنَا

আমাদের উপাস্যগুলো

our gods?

فَأْتِنَا

আমাদের কাছে আন তাহলে

Then bring us

بِمَا

ঐ বিষয় নিয়ে যার

what

تَعِدُنَآ

তুমি আমাদেরকে ভয় দেখাচ্ছ

you threaten us

إِن

যদি

if

كُنتَ

তুমি হও

you are

مِنَ

অন্তর্ভুক্ত

of

ٱلصَّٰدِقِينَ

সত্যবাদীদের”

the truthful”

(23)

قَالَ

সে বলল

He said

إِنَّمَا

“প্রকৃতপক্ষে

“Only

ٱلْعِلْمُ

এ জ্ঞান (আছে)

the knowledge

عِندَ

(শুধুমাত্র) নিকট

(is) with Allah

ٱللَّهِ

আল্লাহরই

(is) with Allah

وَأُبَلِّغُكُم

এবং আমি তোমাদের পৌঁছাই

and I convey to you

مَّآ

সেই (পয়গাম)

what

أُرْسِلْتُ

আমি প্রেরিত হয়েছি

I am sent

بِهِۦ

যা নিয়ে

with it

وَلَٰكِنِّىٓ

কিন্তু আমি

but

أَرَىٰكُمْ

তোমাদেরকে দেখছি

I see you

قَوْمًا

(এমন) লোক

a people

تَجْهَلُونَ

(যারা) মূর্খতা করছ”

ignorant”

(24)

فَلَمَّا

অতঃপর যখন

Then when

رَأَوْهُ

তারা তা দেখলো

they saw it

عَارِضًا

মেঘমালারূপে

(as) a cloud

مُّسْتَقْبِلَ

আগ্রসরমান

approaching

أَوْدِيَتِهِمْ

তাদের উপত্যকাগুলোর (দিকে)

their valleys

قَالُوا۟

তারা বলল

they said

هَٰذَا

“এটা

“This

عَارِضٌ

মেঘমালা

(is) a cloud

مُّمْطِرُنَا

আমাদেরকে বৃষ্টি দিবে”

bringing us rain”

بَلْ

বরং না

Nay

هُوَ

সেই (জিনিস)

it

مَا

যা

(is) what

ٱسْتَعْجَلْتُم

তোমরা তাড়াতাড়ি চেয়েছিলে

you were asking it to be hastened

بِهِۦ

তার

you were asking it to be hastened

رِيحٌ

(এটা) ঝড়ো বাতাস

a wind

فِيهَا

তার মধ্যে আছে

in it

عَذَابٌ

শাস্তি

(is) a punishment

أَلِيمٌ

বড় যন্ত্রণাদায়ক

painful

(25)

تُدَمِّرُ

ধ্বংস করে দিবে

Destroying

كُلَّ

প্রত্যেক

every

شَىْءٍۭ

জিনিসকে

thing

بِأَمْرِ

নির্দেশের মাধ্যমে

by (the) command

رَبِّهَا

তার রবের

(of) its Lord

فَأَصْبَحُوا۟

তখন তারা হয়ে গেল (এমন যে)

Then they became (such)

لَا

না

not

يُرَىٰٓ

দেখা যাচ্ছিল (আর কিছু)

is seen

إِلَّا

এ ব্যতীত

except

مَسَٰكِنُهُمْ

তাদের বসতিগুলো

their dwellings

كَذَٰلِكَ

এভাবে

Thus

نَجْزِى

আমরা কর্মফল দিই

We recompense

ٱلْقَوْمَ

সম্প্রদায়কে

the people

ٱلْمُجْرِمِينَ

(যারা) অপরাধী

[the] criminals

(26)

وَلَقَدْ

এবং নিশ্চয়ই

And certainly

مَكَّنَّٰهُمْ

তাদেরকে আমরা ক্ষমতা দিয়েছিলাম

We had established them

فِيمَآ

এমন বিষয়ে যার

in what

إِن

না

not

مَّكَّنَّٰكُمْ

তোমাদেরকে আমরা ক্ষমতা দিয়েছি

We have established you

فِيهِ

সেসব বিষয়ে

in it

وَجَعَلْنَا

এবং আমরা দিয়েছিলাম

and We made

لَهُمْ

তাদেরকে

for them

سَمْعًا

কান

hearing

وَأَبْصَٰرًا

ও চোখ

and vision

وَأَفْـِٔدَةً

ও হৃদয়

and hearts

فَمَآ

অতঃপর না

But not

أَغْنَىٰ

কাজে আসল

availed

عَنْهُمْ

তাদের জন্যে

them

سَمْعُهُمْ

তাদের কান

their hearing

وَلَآ

এবং না

and not

أَبْصَٰرُهُمْ

তাদের চোখ

their vision

وَلَآ

আর না

and not

أَفْـِٔدَتُهُم

তাদের অন্তর

their hearts

مِّن

কোনো

any

شَىْءٍ

কিছুই

thing

إِذْ

যখন

when

كَانُوا۟

করছিল

they were

يَجْحَدُونَ

তারা অস্বীকার

rejecting

بِـَٔايَٰتِ

আয়াতগুলোকে

(the) Signs

ٱللَّهِ

আল্লাহর

(of) Allah

وَحَاقَ

এবং ঘিরে নিল

and enveloped

بِهِم

তাদেরকে

them

مَّا

তাই

what

كَانُوا۟

তারা ছিল

they used (to)

بِهِۦ

যে সম্পর্কে

[at it]

يَسْتَهْزِءُونَ

ঠাট্টা-বিদ্রুপ করত

ridicule

Sura Ahqaf in Words ع রুকু [৩][3] >> [১][1] >> [২][2] >> [৪][4]

(27)

وَلَقَدْ

এবং নিশ্চয়ই

And certainly

أَهْلَكْنَا

আমরা ধ্বংস করেছি

We destroyed

مَا

যা

what

حَوْلَكُم

তোমাদের চারপাশে (আজ দেখছ)

surrounds you

مِّنَ

মধ্য হতে

of

ٱلْقُرَىٰ

জনপদ সমূহের

the towns

وَصَرَّفْنَا

এবং আমরা বিভিন্নভাবে বর্ণনা করেছি

and We have diversified

ٱلْءَايَٰتِ

আমার নিদর্শন সমূহকে

the Signs

لَعَلَّهُمْ

যাতে তারা

that they may

يَرْجِعُونَ

ফিরে আসে

return

(28)

فَلَوْلَا

অতঃপর কেন না

Then why (did) not

نَصَرَهُمُ

তাদেরকে সাহায্য করল

help them

ٱلَّذِينَ

(সেসব সত্তা) যাদেরকে

those whom

ٱتَّخَذُوا۟

তারা গ্রহণ করেছিল

they had taken

مِن

মধ্য হতে

besides

دُونِ

ছাড়া

besides

ٱللَّهِ

আল্লাহকে

Allah

قُرْبَانًا

নৈকট্যের মাধ্যম

gods as a way of approach?

ءَالِهَةًۢ

উপাস্যরূপে

gods as a way of approach?

بَلْ

বরং

Nay

ضَلُّوا۟

তারা হারিয়ে গেল

they were lost

عَنْهُمْ

তাদের থেকে

from them

وَذَٰلِكَ

এবং এটাই (পরিণতি)

And that

إِفْكُهُمْ

তাদের মিথ্যার

(was) their falsehood

وَمَا

এবং যা

and what

كَانُوا۟

তারা

they were

يَفْتَرُونَ

রচনা করছিল

inventing

(29)

وَإِذْ

এবং (স্মরণ কর)যখন

And when

صَرَفْنَآ

আমরা আকৃষ্ট করে দিয়েছিলাম

We directed

إِلَيْكَ

তোমার দিকে

to you

نَفَرًا

এক দলকে

a party

مِّنَ

মধ্য হতে

of

ٱلْجِنِّ

জিনদের

the jinn

يَسْتَمِعُونَ

তারা শুনতে পায়

listening

ٱلْقُرْءَانَ

কুরআন (তেলাওয়াত)

(to) the Quran

فَلَمَّا

অতঃপর যখন

And when

حَضَرُوهُ

তারা সেখানে উপস্থিত হলো

they attended it

قَالُوٓا۟

তারা বলল

they said

أَنصِتُوا۟

“তোমরা চুপ করে শোনো”

“Listen quietly”

فَلَمَّا

অতঃপর যখন

And when

قُضِىَ

শেষ হল

it was concluded

وَلَّوْا۟

তারা ফিরে গেল

they turned back

إِلَىٰ

দিকে

to

قَوْمِهِم

তাদের জাতির

their people

مُّنذِرِينَ

সতর্ককারী হয়ে

(as) warners

(30)

قَالُوا۟

তারা বলল

They said

يَٰقَوْمَنَآ

“হে আমাদের জাতি

“O our people!

إِنَّا

আমরা নিশ্চয়ই

Indeed, we

سَمِعْنَا

আমরা শুনেছি

[we] have heard

كِتَٰبًا

এক কিতাব

a Book

أُنزِلَ

অবতীর্ণ করা হয়েছে

revealed

مِنۢ

মধ্য হতে

after

بَعْدِ

পরে

after

مُوسَىٰ

মুসার

Musa

مُصَدِّقًا

সত্যায়নকারী/ সমর্থনকারী

confirming

لِّمَا

তার যা

what

بَيْنَ

তার পূর্বে (এসেছে)

(was) before it

يَدَيْهِ

তার পূর্বে (এসেছে)

(was) before it

يَهْدِىٓ

(এই কিতাব) পথ দেখায়

guiding

إِلَى

দিকে

to

ٱلْحَقِّ

সত্যের

the truth

وَإِلَىٰ

এবং দিকে

and to

طَرِيقٍ

পথের

a Path

مُّسْتَقِيمٍ

সরল সঠিক

Straight

(31)

يَٰقَوْمَنَآ

হে আমাদের জাতি

O our people!

أَجِيبُوا۟

তোমরা সাড়া দাও

Respond

دَاعِىَ

আহবানকারীর (ডাকে)

(to the) caller

ٱللَّهِ

আল্লাহর (দিকে)

(of) Allah

وَءَامِنُوا۟

এবং ঈমান আন

and believe

بِهِۦ

তার উপর

in him

يَغْفِرْ

ক্ষমা করবেন (আল্লাহ)

He will forgive

لَكُم

তোমাদের জন্যে

for you

مِّن

থেকে

of

ذُنُوبِكُمْ

তোমাদের পাপ গুলোকে

your sins

وَيُجِرْكُم

এবং তোমাদের রক্ষা করবেন

and will protect you

مِّنْ

হতে

from

عَذَابٍ

শাস্তি

a punishment

أَلِيمٍ

নিদারুণ কষ্টকর

painful

(32)

وَمَن

আর যে

And whoever

لَّا

না

(does) not

يُجِبْ

সাড়া দেয়

respond

دَاعِىَ

আহবানকারীর (ডাকে)

(to the) caller

ٱللَّهِ

আল্লাহর (দিকে)

(of) Allah

فَلَيْسَ

তবে সে নয়

then not

بِمُعْجِزٍ

(আল্লাহকে) ব্যর্থ করে দিতে সক্ষম

he can escape

فِى

মধ্যে

in

ٱلْأَرْضِ

পৃথিবীর

the earth

وَلَيْسَ

আর নেই

and not

لَهُۥ

তার জন্যে

for him

مِن

ব্যতীত

besides Him

دُونِهِۦٓ

তিনি

besides Him

أَوْلِيَآءُ

কোন পৃষ্ঠপোষক

protectors

أُو۟لَٰٓئِكَ

ঐসব লোক

Those

فِى

(পড়ে আছে) মধ্যে

(are) in

ضَلَٰلٍ

বিভ্রান্তির

error

مُّبِينٍ

সুস্পষ্ট”

clear”

(33)

أَوَلَمْ

কি না

Do not

يَرَوْا۟

তারা অনুধাবন করে

they see

أَنَّ

যে

that

ٱللَّهَ

আল্লাহ

Allah

ٱلَّذِى

যিনি

(is) the One Who

خَلَقَ

সৃষ্টি করেছেন

created

ٱلسَّمَٰوَٰتِ

আকাশ

the heavens

وَٱلْأَرْضَ

ও পৃথিবীকে

and the earth

وَلَمْ

এবং নি

and (did) not

يَعْىَ

ক্লান্তি বোধ করেন

get tired

بِخَلْقِهِنَّ

তাদের সৃষ্টিতে

by their creation

بِقَٰدِرٍ

(তিনিই তো) সক্ষম

(is) able

عَلَىٰٓ

(এর) উপর

to give life

أَن

যে

to give life

يُحْۦِىَ

তিনি জীবিত করবেন

to give life

ٱلْمَوْتَىٰ

মৃতদেরকে

(to) the dead?

بَلَىٰٓ

কেন নয়?

Yes

إِنَّهُۥ

তিনি নিশ্চয়ই

indeed He

عَلَىٰ

উপর

(is) on

كُلِّ

সব

every

شَىْءٍ

কিছুর

thing

قَدِيرٌ

সর্বশক্তিমান

All-Powerful

(34)

وَيَوْمَ

এবং যেদিন

And (the) Day

يُعْرَضُ

উপস্থিত করা হবে

are exposed

ٱلَّذِينَ

(তাদেরকে যারা)

those who

كَفَرُوا۟

অস্বীকার করেছে

disbelieved

عَلَى

নিকট

to

ٱلنَّارِ

আগুনের

the Fire

أَلَيْسَ

“(বলা হবে) নয় কি

“Is not

هَٰذَا

এটা

this

بِٱلْحَقِّ

সত্য”

the truth?”

قَالُوا۟

তারা বলবে

They will say

بَلَىٰ

“হ্যাঁ নিশ্চয়ই

“Yes

وَرَبِّنَا

আমাদের রবের শপথ (এটা সত্য)”

by our Lord”

قَالَ

(আল্লাহ) বলবেন

He will say

فَذُوقُوا۟

“এখন তোমরা স্বাদ নাও

“Then taste

ٱلْعَذَابَ

শাস্তির

the punishment

بِمَا

এ কারণে যা

because

كُنتُمْ

তোমরা করছিলে

you used (to)

تَكْفُرُونَ

অস্বীকার”

disbelieve”

(35)

فَٱصْبِرْ

অতএব (হে নবী) ধৈর্য ধরো

So be patient

كَمَا

যেমন

as

صَبَرَ

ধৈর্য ধরেছে

had patience

أُو۟لُوا۟

তারা

those of determination

ٱلْعَزْمِ

দৃঢ়সংকল্পসম্পন্ন

those of determination

مِنَ

মধ্য থেকে

of

ٱلرُّسُلِ

রাসূলগণের

the Messengers

وَلَا

এবং না

and (do) not

تَسْتَعْجِل

তাড়াহুড়া করো

seek to hasten

لَّهُمْ

তাদের জন্যে

for them

كَأَنَّهُمْ

তারা যেন (ভাববে)

As if they had

يَوْمَ

যেদিন

(the) Day

يَرَوْنَ

তারা দেখবে

they see

مَا

যা (আজ)

what

يُوعَدُونَ

তাদেরকে ভয় দেখানো হচ্ছে

they were promised

لَمْ

নি

not

يَلْبَثُوٓا۟

তারা অবস্থান করে

remained

إِلَّا

এ ব্যতীত

except

سَاعَةً

একদণ্ড

an hour

مِّن

থেকে

of

نَّهَارٍۭ

দিনের

a day

بَلَٰغٌ

এ এক ঘোষণা (কথা)

A clear Message

فَهَلْ

অতঃপর কি

But will

يُهْلَكُ

ধ্বংস করা হবে (অন্য কাউকে)

(any) be destroyed

إِلَّا

এ ব্যতীত

except

ٱلْقَوْمُ

(যারা) সম্প্রদায়

the people

ٱلْفَٰسِقُونَ

সত্যত্যাগী

the defiantly disobedient?

Sura Ahqaf in Words ع রুকু [৪][4] >> [১][1] >> [২][2] >> [৩][3]

৪৫ সুরা যাসিয়া << সুরা আহকাফ >> ৪৭ সুরা মুহাম্মাদ

By Quran Sharif

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply