সুরা আল গাশিয়াহ এর তাফসীর

সুরা আল গাশিয়াহ এর তাফসীর

সুরা আল গাশিয়াহ এর তাফসীর >> বুখারী শরীফ এর মুল সুচিপত্র পড়ুন >> সুরা গাশিয়াহ আরবি তে পড়ুন বাংলা অনুবাদ সহ

সুরা আল গাশিয়াহ এর তাফসীর

৬৫/৯১/১.অধ্যায়ঃ পরিচ্ছেদ নাই।

(88) سُوْرَةُ هَلْ أَتَاكَ حَدِيْثُ الْغَاشِيَةِ

সুরা (৮৮) : হাল আত্বা-কা হাদীসুল গাশিয়াহ ( সুরা আল গাশিয়াহ এর তাফসীর )

وَقَالَ ابْنُ عَبَّاسٍ {عَامِلَةٌ نَّاصِبَةٌ} النَّصَارَى وَقَالَ مُجَاهِدٌ {عَيْنٍ اٰنِيَةٍ}بَلَغَ إِنَاهَا وَحَانَ شُرْبُهَا {حَمِيْمٍ اٰنٍ} بَلَغَ إِنَاهُ {لَا تَسْمَعُ فِيْهَا لَاغِيَةً} شَتْمًا وَيُقَالُ {الضَّرِيْعُ} نَبْتٌ يُقَالُ لَهُ الشِّبْرِقُ يُسَمِّيْهِ أَهْلُ الْحِجَازِ الضَّرِيْعَ إِذَا يَبِسَ وَهُوَ سُمٌّ {بِمُسَيْطِرٍ} بِمُسَلَّطٍ وَيُقْرَأُ بِالصَّادِ وَالسِّيْنِ وَقَالَ ابْنُ عَبَّاسٍ {إِيَابَهُمْ} مَرْجِعَهُمْ.

ইবনু আববাস (রাদি.) বলেন, عَامِلَةٌ نَّاصِبَةٌ (ক্লিষ্ট-ক্লান্ত) বলে খ্রিস্টান সম্প্রদায়কে বোঝানো হয়েছে। মুজাহিদ (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) বলেন, عَيْنٍاٰنِيَةٍটগবগে গরম পানিতে কানায় কানায় ভর্তি ঝরণাধারা। حَمِيْمٍاٰنٍ চরম ফুটন্ত পানি। لَا تَسْمَعُ فِيْهَا لَاغِيَةً সেখানে তারা গালি-গালাজ শুনবে না। الشِّبْرِقُএক প্রকার কাঁটাওয়ালা গুল্ম। (তা যখন সবুজ থাকে তখন) তাকে الضَّرِيْعَবলা হয়, আর যখন শুকিয়ে যায়, তখন হিজাযবাসীরা একেই الضَّرِيْعُ বলে। এ এক প্রকার বিষাক্ত আগাছা। بِمُسَيْطِرٍ কর্মবিধায়ক। শব্দটি س ও ص উভয় বর্ণ দিয়েই পড়া হয়। ইবনু আববাস (রাদি.) বলেন, إِيَابَهُمْ তাদের ফিরে আসার জায়গা।

By ইমাম বুখারী

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply