ক্রয়-বিক্রয় কেনা বেচা বিষয়ক হাদিস সুনানে নাসায়ী pdf

সুনানে নাসায়ী pdf

ক্রয়-বিক্রয় কেনা বেচা বিষয়ক হাদিস সুনানে নাসায়ী pdf >> সুনানে নাসাই শরিফের মুল সুচিপত্র দেখুন

পর্বঃ ৪৫, ক্রয়-বিক্রয়, হাদীস (৪৪৪৯-৪৫১৮)

পরিছেদঃ উপার্জনের প্রতি উৎসাহিত করা
পরিছেদঃ সন্দেহ যুক্ত উপার্জন পরিহার করা
পরিছেদঃ ব্যবসা
পরিছেদঃ ক্রয়-বিক্রয়ে সতর্কতা অবলম্বন করা
পরিছেদঃ মিথ্যা কসম করে মাল বিক্রয়
পরিছেদঃ বেচাকেনায় ধোঁকাবাজের জন্য কসম
পরিছেদঃ অন্তর দিয়ে কসমে বিশ্বাস না করলে সাদ্‌কার আদেশ
পরিছেদঃ ক্রেতা ও বিক্রেতার জন্য তাহাদের পৃথক হওয়ার পূর্বে ইখতিয়ার
পরিছেদঃ রাবী নাফি [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর বর্ণনায় তার থেকে বর্ণনাকারীদের মধ্যে শব্দগত পার্থক্য
পরিছেদঃ এই হাদিসের শব্দে আব্দুল্লাহ ইবনি দীনার থেকে বর্ণনাকারীদের মধ্যে পার্থক্য
পরিছেদঃ শারীরিকভাবে পৃথক হওয়ার পূর্বে ক্রেতা-বিক্রেতার ইখতিয়ার থাকা প্রসঙ্গে
পরিছেদঃ ক্রয়-বিক্রয়ে ধোঁকা
পরিছেদঃ ওলানে দুধ আটকে রাখা
পরিছেদঃ বিক্রয় করাকালে ক্রেতাকে দেখানোর জন্য ওলানে দুধ দুই/তিন দিন আটকে রেখে ওলান বড় দেখানো, যাতে ক্রেতা বেশী দাম দেয়
পরিছেদঃ দায়িত্ব যাহার, উসুলও তার
পরিছেদঃ বেদুঈনের পক্ষ হইয়া মুহাজির ব্যক্তির ক্রয়-বিক্রয়
পরিছেদঃ নগরবাসী কর্তৃক গ্রাম্য লোকের পণ্য বিক্রি করা
পরিছেদঃ বহিরাগত লোকের পণ্য খরিদের জন্য অগ্রসর হওয়া
পরিছেদঃ মুসলমান ভাইয়ের দরদাম করার উপর দরদাম করা
পরিছেদঃ মুসলমান ভাই-এর দরদামের উপর দরদাম করা
পরিছেদঃ দালালী করা
পরিছেদঃ অধিক মূল্যে ক্রয় করা
পরিছেদঃ মুলামাসা বিক্রয়
পরিছেদঃ মুলামাসার ব্যাখ্যা
পরিছেদঃ মুনাবাযা পদ্ধতির ক্রয়-বিক্রয়
পরিছেদঃ মুনাবাযাহার ব্যাখ্যা
পরিছেদঃ পাথর নিক্ষেপের মাধ্যমে ক্রয়-বিক্রয়

পরিছেদঃ উপার্জনের প্রতি উৎসাহিত করা

৪৪৪৯. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রাসূসুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, “মানুষ যা খায়, তন্মধ্যে সর্বোত্তম হলো তার হাতের উপার্জন। আর লোকের সন্তানও তার উপার্জনের অন্তর্ভুক্ত।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৫০. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসূসুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, “তোমাদের সন্তান তোমাদের শ্রেষ্ঠ উপার্জন। অতএব তোমরা তোমাদের সন্তানেদের উপার্জন থেকে খাও।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৫১. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রাসূসুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ মানুষের নিজ হাতের উপার্জন হচ্ছে তার জন্য শ্রেষ্ঠ আহার, আর তার সন্তানও তার উপার্জনের অন্তর্ভুক্ত।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৫২. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রাসূসুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ মানুষের নিজ হাতের উপার্জন হচ্ছে তার উত্তম আহার্য। আর তার সন্তানও তার উপার্জন।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ সন্দেহ যুক্ত উপার্জন পরিহার করা

৪৪৫৩. নুমান ইবনি বাশীর [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে বলিতে শুনিয়াছি, আল্লাহর কসম! তাহাঁর পর আর কাঊকে বলিতে শুনবনা যে, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন। তিনি [সাঃআঃ] বলেছেন, হালাল সুস্পষ্ট এবং হারামও সুস্পষ্ট, আর উভয়ের মধ্যে অনেক সন্দেহজনক বিষয় রয়েছে। তিনি [সাঃআঃ] বলেন, “এ ব্যাপারে আমি তোমাদের সামনে একটি উদাহরণ পেশ করছিঃ নিশ্চয় আল্লাহ এক চারণভূমি সংরক্ষন করিয়াছেন, আল্লাহর চারন ভূমি হলো, যা তিনি হারাম করিয়াছেন। আর যে ব্যক্তি সেই চারণ ভূমির আশে পাশে পশু চরায়, হয়তো তার পশু তাতে ঢুকে পড়বে। আর যে ব্যক্তি সন্দেহযুক্ত কাজে লিপ্ত হইবে, অচিরেই তার [হারাম কাজে লিপ্ত হওয়ার] দুঃসাহস দেখা দেবে।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৫৪. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রাসু্লুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, অতিসত্ত্বর লোকের উপর এমন সময় এসে পড়বে যখন কেউ এই কথার পরওয়া করিবেনা যে, সে কোন পথে মাল সংগ্রহ করলো- হালাল পথে না হারাম পথে।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৫৫. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রাসু্লুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, লোকের উপর এমন এক সময় উপস্থিত হইবে যখন তারা সুদ খাবে। আর যে ব্যক্তি তা খাবেনা, তার গায়ে এর কিছু ধুলাবালি লাগবে।{১}

{১} বর্তমানে সারা বিশ্বে সুদভিত্তিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থা চালু রয়েছে। এই সুদভিত্তিক অর্থের দ্বারা দেশের শিল্প কল-কারখানা গড়ে তোলা হয়। কাজেই তাতে যা কিছু উৎপন্ন হয়, তা সুদের সাথে সম্পৃক্ত। এর আলোকে বলা যায় যে, বর্তমানে কেউই সুদের প্রভাবমুক্ত নয়।সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

পরিছেদঃ ব্যবসা

৪৪৫৬. আমর ইবনি তাগলিব [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রাসু্লুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কিয়ামতের কয়েকটি নিদর্শন এই যে, অর্থ-সম্পদের বিস্তার ও প্রাচুর্য দেখা দেবে, ব্যবসা বৃদ্ধি পাবে, বিদ্যা বিলুপ্ত হইবে। কোন ব্যক্তি মাল বিক্রিকালে বলবে না, আমি অমুক গোত্রের ব্যবসায়ীর সাথে পরামর্শ করে নিই। আর বিরাট লোকালয়েও লেখক তালাশ করে পাওয়া যাবে না।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ ক্রয়-বিক্রয়ে সতর্কতা অবলম্বন করা

৪৪৫৭. হাকীম ইবনি হিযাম [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

হাকীম ইবনি হিযাম [রাঃআঃ] বর্ণিত। তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ের জন্য অবকাশ থাকিবে, যতক্ষণ না তাহাদের একজন অপরজন থেকে পৃথক হইয়া যায়। তারা যদি সততা অবলম্বন করে এবং মালের দোষ-ত্রুটি বলে দেয়, তবে তাহাদের বেচাকেনায় বরকত হইবে। আর যদি তারা মিথ্যার আশ্রয় নেয় এবং দোষ-ত্রুটি গোপন রাখে, তবে উক্ত ক্রয়-বিক্রয়ে বরকত মুছে দেওয়া হইবে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ মিথ্যা কসম করে মাল বিক্রয়

৪৪৫৮. আবু যর [রাঃআঃ] সূত্রে নাবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ এমন তিন প্রকার লোক রয়েছে, যাদের সাথে কিয়ামতের দিন আল্লাহ তাআলা কথা বলবেন না, তাহাদের দিকে তাকাবেন না এবং তাহাদেরকে পবিত্রও করবেন না; আর তাহাদের জন্য রয়েছে মর্মন্তুদ শাস্তি। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ঐ আয়াত তিলাওয়াত করলে আবু যর [রাঃআঃ] বলিলেন, তারা ব্যর্থ ও ক্ষতিগ্রস্থ হইয়াছে। তিনি বলিলেনঃ তারা হলো, যে পরিধেয় বস্ত্র টাখনুর নিচে ঝুলিয়ে রাখে, যে মিথ্যা কসম করে মাল চালায়, আর যে কিছু দান করে তার খোঁটা দেয়।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৫৯. আবু যর [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেনঃ তিন প্রকার লোক আছে, যাদের দিকে কিয়ামতের দিন আল্লাহ তাআলা তাকাবেন না এবং তাহাদেরকে পবিত্রও করবেন না; আর তাহাদের জন্য রয়েছে যন্ত্রনাদায়ক শাস্তি। তারা হলো, যে ব্যক্তি কিছু দান করে তার খোঁটা দেয়, আর যে ব্যক্তি পরিধেয় বস্ত্র টাখনুর নিচে ঝুলিয়ে রাখে, আর যে ব্যক্তি মিথ্যা কথা বলে মাল চালায়।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৬০. আবু কাতাদা আনসারী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে বলিতে শুনেছেনঃ তোমরা বিক্রয়কালে অত্যধিক কসম খাওয়া থেকে বিরত থাকিবে। কেননা তা দ্বারা মাল তো খুব কাটতি হয়, কিন্তু [বরকত না থাকায়] আয় কমিয়ে দেয়।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৬১. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ কসম মালের কাটতি বাড়িয়ে দেয়, কিন্তু আয় কমিয়ে দেয়।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ বেচাকেনায় ধোঁকাবাজের জন্য কসম

৪৪৬২. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তিন প্রকারের লোক রয়েছে যাদের সাথে আল্লাহ তাআলা কিয়ামতের দিন কথা বলবেন না, তাহাদের দিকে তাকাবেন না এবং তাহাদেরকে পবিত্রও করবেন না, আর তাহাদের জন্য রয়েছে মর্মন্তুদ শাস্তি। তারা হলোঃ ঐ ব্যক্তি যে পথের ধারে প্রয়োজনাতিরিক্ত পানির উপর কর্তৃত্ব করে এবং পথিকদেরকে ঐ পানি দেয় না; আর ঐ ব্যক্তি যে ইমামের হাতে বায়আত গ্রহন করে পার্থিব সম্পদ লাভের জন্য, তারপর সে যা চায় তাকে তা দান করলে সে তার আনুগত্য বহাল থাকে আর যদি তাকে তা না দেওয়া হয়, তবে সে তার আনুগত্য রক্ষা করে না। আর ঐ ব্যক্তি যে আসরের পর অন্য ব্যক্তির সাথে মালের ক্রয়-বিক্রয় নিয়ে দরদাম করে। এক পর্যায়ে সে তাকে আল্লাহর নামে কসম করে বলে যে, তাকে এই এই দাম বলা হইয়াছে, ফলে অন্য ব্যক্তি তাকে বিশ্বাস করে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ অন্তর দিয়ে কসমে বিশ্বাস না করলে সাদ্‌কার আদেশ

৪৪৬৩. কায়স ইবনি আবু গারাযা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ আমরা মদীনায় ক্রয়-বিক্রয় করতাম। আমরা নিজেদেরকে সামাসেরাহ [দালাল] বলতাম, আর অন্য লোকও আমাদেরকে তাই বলত। একদা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আমাদের নিকট দিয়ে যাবার সময় উক্ত নাম অপেক্ষা সুন্দর নামে আমাদের আখ্যায়িত করিলেন। তিনি বলিলেনঃ হে ব্যবসায়ীগণ! তোমাদের এ ব্যবসা কাজে অপ্রয়োজনীয় কথা এবং কসম সংযোজিত হয়, অতএব তোমরা ব্যবসা করার সঙ্গে দান-খয়রাতও করিবে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ ক্রেতা ও বিক্রেতার জন্য তাহাদের পৃথক হওয়ার পূর্বে ইখতিয়ার

৪৪৬৪. হাকীম ইবনি হিযাম [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ের জন্য অবকাশ থাকিবে যতক্ষণ না তাহাদের একজন অপরজন থেকে পৃথক হইয়া যায়। তারা যদি সততা অবলম্বন করে এবং উভয়ে নিজ নিজ বস্তুর দোষ-ত্রুটি প্রকাশ করে দেয়, তবে তাহাদের ক্রয়-বিক্রয়ের বরকত দান করা হইবে। আর যদি তারা মিথ্যার আশ্রয় গ্রহন করে এবং দোষ-ত্রুটি গোপন রাখে, তবে উক্ত ক্রয়-বিক্রয়ে বরকত মুছে দেয়া হইবে।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ রাবী নাফি [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর বর্ণনায় তার থেকে বর্ণনাকারীদের মধ্যে শব্দগত পার্থক্য

৪৪৬৫. আব্দুল্লাহ ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা এবং বিক্রেতা উভয়ের জন্য তার সাথীর বিপরীতে ইখতিয়ার [ইচ্ছাধিকার] থাকিবে, যাবত না তারা পৃথক হইয়া যায়। তবে ইখতিয়ারের শর্তে ক্রয়-বিক্রয় ব্যতীত [অর্থাৎ সেক্ষেত্রে পৃথক হওয়ার পরও ইখতিয়ার থাকিবে]।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৬৬. হযরত ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ের জন্য অবকাশ থাকিবে যতক্ষণ না তারা পৃথক হইয়া যায়। কিংবা ইখতিয়ারের শর্তে কেনাবেচা হয়।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৬৭. হযরত ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ের জন্য অবকাশ থাকিবে, তাহাদের উভয়ের পৃথক না হওয়া পর্যন্ত। কিন্তু যদি ইখতিয়ারের শর্তে বেচাকেনা হয়, তবে পৃথক হওয়ার পরও ইখতিয়ার অবশিষ্ট থাকিবে।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৬৮. হযরত ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা-বিক্রেতা যখন বেচাকেনা করে, তখন তারা পৃথক না হওয়া পর্যন্ত তাহাদের জন্য অবকাশ থাকিবে, আর যদি তাহাদের ক্রয়-বিক্রয় গ্রহণ করার কথার চুক্তি সম্পন্ন করে, তা হলে ক্রয়-বিক্রয় বাধ্যতামূলক হইবে।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৬৯. হযরত ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ের জন্যই অবকাশ রয়েছে; যতক্ষণ না তারা পরস্পর পৃথক হইয়া যায়। অথবা বলেঃ গ্রহণ কর এবং অন্যজন গ্রহণ করে নেয়।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭০. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়েরই ইখতিয়ার রয়েছে যতক্ষণ না তারা পৃথক হইয়া যায়, অথবা যদি অবকাশের শর্তে ক্রয়-বিক্রয় হইয়া থাকে। রাবী নাফি [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] কখনও বলেছেন অথবা একে অন্যকে বলবে, গ্রহণ কর।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭১. হযরত ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা এবং বিক্রেতা উভয়ের জন্য ইখতিয়ার রয়েছে যতক্ষণ না তারা উভয়ে পৃথক হইয়া যায়, অথবা ঐ বিক্রয় হইবে ইখতিয়ারের উপর। রাবী নাফি [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] কখনও বলেছেন, অথবা একজন অন্যজনকে বলবে, গ্রহণ কর।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭২. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ যখন দুই ব্যক্তি ক্রয়-বিক্রয় করে, তখন তাহাদের উভয়ের ইখতিয়ার থাকে যতক্ষণ না তারা একে অপর থেকে পৃথক হইয়া যাবে। অন্য সময় তিনি বলেছেনঃ তারা পরস্পর পৃথক হওয়া পর্যন্ত, অথবা একে অন্যকে ইখতিয়ার দেয়, যদি একে অন্যকে ইখতিয়ার দেয় এবং এর উপর ক্রয়-বিক্রয় সম্পন্ন করে, তবে সে ক্রয়-বিক্রয় ওয়াজিব হইয়া যাবে। আর যদি তারা পৃথক হইয়া যায় বিক্রয় করার পর এবং তাহাদের মধ্যে কেউই ক্রয়-বিক্রয় রহিত না করে, তবে ক্রয়-বিক্রয় ওয়াজিব হইবে।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭৩. ইবনি উমার [রাঃআঃ] সূত্রে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ ক্রেতা এবং বিক্রেতা পরস্পর পৃথক না হওয়া পর্যন্ত তাহাদের জন্য ইখতিয়ার থাকিবে। হ্যাঁ, যদি ক্রয়-বিক্রয়ে ইখতিয়ার থাকে তবে ভিন্ন কথা। রাবী নাফি [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেনঃ আব্দুল্লাহ [রাঃআঃ] যখন কোন দ্রব্য খরিদ করিতেন যা তাহাঁর পছন্দনীয়, তখন তিনি তাহাঁর সাথী থেকে পৃথক হইয়া যেতেন।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭৪. হযরত ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা এবং বিক্রেতার মধ্যে ক্রয়-বিক্রয় শেষ হয় না, যতক্ষণ না তারা পরস্পর পৃথক হইয়া যায়, তবে ইখতিয়ারের শর্তে ক্রয়-বিক্রয় ব্যতীত।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ এই হাদিসের শব্দে আব্দুল্লাহ ইবনি দীনার থেকে বর্ণনাকারীদের মধ্যে পার্থক্য

৪৪৭৫. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কোন ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে ক্রয়-বিক্রয় সাব্যস্ত হয় না, যতক্ষণ না তারা পৃথক হইয়া যায়, তবে ইখতিয়ারের ক্রয়-বিক্রয় ব্যতীত।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭৬. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছেনঃ কোন ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে ক্রয়-বিক্রয় সাব্যস্ত হয় না, যতক্ষণ না তারা পৃথক হইয়া যায়। তবে ইখতিয়ারে ক্রয়-বিক্রয় ব্যতীত।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭৭. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কোন ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে ক্রয়-বিক্রয় সাব্যস্ত হয় না, যতক্ষণ না তারা পৃথক হইয়া যায়। তবে ইখতিয়ারের ক্রয়-বিক্রয় ব্যতীত।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭৮. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছেনঃ কোন ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যেকার ক্রয়-বিক্রয় সম্পূর্ণ হয় না, যতক্ষণ না তারা পৃথক হইয়া যায়, তবে ইখতিয়ারের ক্রয়-বিক্রয় ব্যতীত।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৭৯. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কোন ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যকার ক্রয়-বিক্রয় সম্পূর্ণ হয় না, যতক্ষণ না তারা পৃথক হইয়া যায়। তবে ইখতিয়ারের ক্রয়-বিক্রয় ব্যতীত।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৮০. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] থেকে বর্ণনা করিয়াছেন যে, তিনি বলেনঃ ক্রেতা বিক্রেতার ইখতিয়ার থাকিবে যাবত না তারা পৃথক হয়। অথবা তাহাদের ক্রয়-বিক্রয় হয় ইখতিয়ারের উপর।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৮১. সামুরা [রাঃআঃ] থেকে বর্ণিত যে, নাবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

ক্রেতা বিক্রেতার ইখতিয়ার থাকিবে যতক্ষণ না তারা পৃথক হয় এবং বিক্রয় দ্বারা তাহাদের প্রত্যেকের ঈপ্সিত বস্তু গ্রহণ করে নেয় আর তারা ইখতিয়ার পাবে তিনবার।{১}

{১} ইজাব-কবুল হইয়া গেলে এবং ক্রেতা-বিক্রেতা কোন শর্ত সংযোজন না করলে ক্রয়-বিক্রয় সম্পূর্ণ হইয়া যায়। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেছেনঃ “হে মুমিনগণ! তোমরা পরস্পর একে অপরের মাল বাতিল পন্থায় খাবে না, তিজারত ব্যতীত।” এতে পৃথক হওয়ার কোন শর্ত নেই। একবার রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] একটি পশু উমার [রাঃআঃ] থেকে ক্রয় করেন এবং ক্রয়ের পর তিনি সেই মজলিসেই তা ইবনি উমার [রাঃআঃ]-কে দান করেন।সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

৪৪৮২. সামুরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা-বিক্রেতার ইখতিয়ার থাকিবে, যতক্ষণ না তারা পৃথক হইয়া যায় অথবা তারা গ্রহণ করে নেয়-যা ইচ্ছা করে তার সাথী থেকে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

পরিছেদঃ শারীরিকভাবে পৃথক হওয়ার পূর্বে ক্রেতা-বিক্রেতার ইখতিয়ার থাকা প্রসঙ্গে

৪৪৮৩. আমর ইবনি শুয়ায়ব [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি তাহাঁর পিতার মাধ্যমে তাহাঁর দাদা থেকে বর্ণনা করেন যে, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ের জন্য ইখতিয়ার থাকিবে, যতক্ষণ না তারা একে অপর হইতে পৃথক হইয়া যাবে। অবশ্য যদি ইখতিয়ারের শর্তে চুক্তি হইয়া থাকে। এমতাবস্থায় ক্রেতা ও বিক্রেতা কারো জন্য সঙ্গত নয় যে, সে অপরজন হইতে দ্রুত পৃথক হইয়া যাবে এই ভয়ে যে, হয়তো সে ক্রয়-বিক্রয় প্রত্যাখ্যান করিবে।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

পরিছেদঃ ক্রয়-বিক্রয়ে ধোঁকা

৪৪৮৪. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এক ব্যক্তি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর নিকট এসে বললোঃ আমি ক্রয়-বিক্রয় করলে ঠকে যাই। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাকে বলেনঃ তুমি ক্রয়-বিক্রয়কালে বলবেঃ ধোঁকা দিবেন না। সে মতে ঐ ব্যক্তি ক্রয়-বিক্রয় করাকালে এরূপ বলতো।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৮৫. আনাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এক ব্যক্তির বিচার-বুদ্ধিতে দুর্বলতা ছিল, আর সে বেচাকেনাও করতো। তার পরিবারস্থ লোকজন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর নিকট এসে বললোঃ ইয়া রসূলুল্লাহ! তার প্রতি বেচাকেনার নিষেধাজ্ঞা আরোপ করুন। সেমতে আল্লাহর নাবী [সাঃআঃ] তাকে ডেকে নিষেধ করিলেন। সে বললোঃ ইয়া নাবী-আল্লাহ, আমি বেচাকেনা না করে থাকতে পারি না। তিনি বললেনঃ তুমি যখন বেচাকেনা করিবে, তখন বলবেঃ ধোঁকা দিবেন না।

সুনানে নাসায়ী pdf ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ ওলানে দুধ আটকে রাখা

৪৪৮৬. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যখন তোমাদের কেউ ছাগল, উট বিক্রয় করিতে মনস্থ করে, তখন সে যেন তার ওলানে দুধ আটকে না রাখে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ বিক্রয় করাকালে ক্রেতাকে দেখানোর জন্য ওলানে দুধ দুই/তিন দিন আটকে রেখে ওলান বড় দেখানো, যাতে ক্রেতা বেশী দাম দেয়

৪৪৮৭. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] সূত্রে রসূলুল্লাহ[সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেছেনঃ তোমরা বিক্রয় স্থানে পৌছার পূর্বে মাল খরিদ করার জন্য কাফেলার নিকট যাবে না, আর উট এবং বকরী ইত্যাদির ওলানে দুধ আটকে রাখবে না। যে ব্যক্তি ঐরূপ কোন জন্তু খরিদ করিবে, তখন তার দুই-এর একটা গ্রহণের ইখতিয়ার থাকিবে। ইচ্ছা করলে তা রেখে দিতে পারে; আর যদি ফেরত দেওয়ার ইচ্ছা করে, তবে তা ফেরতও দিতে পারে। তবে ফেরত দিলে তার সাথে এক সা{১} খেজুর দিবে।

{১} এক সা-এর পরিমাণ হলো ৩ সের নয় ছটাক।ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৮৮. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] সূত্রে রসূলুল্লাহ[সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেছেনঃ যে ব্যক্তি ওলানে দুধ আটকিয়ে রাখা হইয়াছে এমন জন্তু খরিদ করে, এরপর যখন সে দুধ দোহন করে, তখন তার ইচ্ছা হলে তা রাখতে পারে; আর যদি সে তা পছন্দ না করে, তবে তা ফেরত দিতে পারে। তবে ফেরত দিলে তার সাথে এক সা খেজুর দিয়ে দিবে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৮৯. মুহাম্মদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি আবু হুরাইরা [রাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছি, আবুল কাসিম [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি এমন পশু খরিদ করে যাহার ওলানে দুধ আটকিয়ে রাখা হইয়াছে, তবে তিনদিন পর্যন্ত তার ইখতিয়ার থাকিবে, যদি সে রাখতে চায় রেখে দিবে, আর যদি ফেরত দিতে চায় ফেরত দিবে। তবে ফেরত দিলে তার সাথে এক সা খেজুর দিয়ে দিবে, গম নয়।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ দায়িত্ব যাহার, উসুলও তার

৪৪৯০. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ফায়সালা দিয়েছেন যে, দায়িত্ব যাহার উসুলও তার।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

পরিছেদঃ বেদুঈনের পক্ষ হইয়া মুহাজির ব্যক্তির ক্রয়-বিক্রয়

৪৪৯১. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিষেধ করিয়াছেন বাজারে বিক্রি করার জন্য যারা বাইরে থেকে খাদ্যদ্রব্য নিয়ে আসে, বাজারে পৌঁছবার পূর্বে তাহাদের খাদ্যদ্রব্য ক্রয় করে নেয়ার জন্য অগ্রসর হইতে, মুহাজির কর্তৃক গ্রাম্য লোকের পক্ষ হইতে বিক্রি করিতে, গরু-ছাগলের ওলানে দুধ জমা করে ফুলিয়ে রাখতে, দালালী করিতে, কোন মুসলমান ভ্রাতার দরদামের উপর দরদাম করিতে। আর কোন স্ত্রীলোক কর্তৃক তার বোনের তালাক চাইতে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ নগরবাসী কর্তৃক গ্রাম্য লোকের পণ্য বিক্রি করা

৪৪৯২. আনাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

নাবী [সাঃআঃ] নগরবাসী কর্তৃক কোন গ্রাম্য লোকের পণ্য বিক্রয় করিতে নিষেধ করিয়াছেন, যদিও সে তার পিতা অথবা ভাই হয়।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৯৩. আনাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নগরবাসী কর্তৃক কোন গ্রাম্য লোকের মাল বিক্রয় করিতে নিষেধ করিয়াছেন, যদিও সে তার পিতা বা ভাই হয়।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৯৪. আনাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, কোন গ্রাম্য লোকের মাল বিক্রয় করিতে আমাদেরকে নিষেধ করা হইয়াছে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৯৫. জাবির [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ শহরের লোক গ্রাম্য লোকদের পণ্যদ্রব্য বিক্রয় করে দিবে না। লোকজনকে ছেড়ে দাও, আল্লাহ তাআলা তাহাদের কারো দ্বারা কারো রিযিক পৌঁছিয়ে থাকেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৯৬. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ বহিরাগত আমদানীকারকের সাথে শহরের বাইরে গিয়ে সাক্ষাত করিবে না বা অগ্রসর হইবে না। একজনের ক্রয়- বিক্রয়ের প্রস্তাবের উপর অন্য কেউ বিক্রির প্রস্তাব করিবে না, দালালী করিবে না, শহরের লোক গ্রাম্য লোকের পণ্য বিক্রয় করে দেবে না।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৯৭. আবদুল্লাহ [রাঃআঃ] সূত্রে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি দালালী করিতে এবং গ্রামের পণ্য বিক্রেতাকে শহরে পৌঁছার পূর্বে সামনে গিয়ে সাক্ষাত করিতে এবং শহরের লোক কর্তৃক গ্রাম্য ব্যক্তির পক্ষ হইতে পণ্য বিক্রি করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ বহিরাগত লোকের পণ্য খরিদের জন্য অগ্রসর হওয়া

৪৪৯৮. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বহিরাগত আমদানীকারকের সাথে শহরের বাইরে গিয়ে সাক্ষাত করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৪৯৯. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ যারা পণ্য দ্রব্য বাজারে বিক্রি করার জন্য বাইরে থেকে নিয়ে আসে, তারা বাজারে প্রবেশ না করা পর্যন্ত বাইরে গিয়ে তাহাদের সাথে সাক্ষাত করিতে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিষেধ করিয়াছেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫০০. ইবনি আব্বাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিষেধ করিয়াছেন বাহির হইতে যারা পণ্যদ্রব্য শহরে নিয়ে আসে, বাজারে পৌঁছার পূর্বে তাহাদের সাথে সাক্ষাত করিতে এবং গ্রাম্য লোকের পণ্য দ্রব্য শহরের লোকদের বিক্রি করে দিতে। আমি ইবনি আব্বাস [রাঃআঃ]-কে গ্রাম্য লোকের পণ্য শহরের লোক কর্তৃক বিক্রয় করার অর্থ জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেনঃ তার জন্য দালাল হইবে না।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫০১. ইবনি সীরীন [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি আবু হুরাইরা [রাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছি, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যারা বাজারে বিক্রি করার জন্য পণ্য দ্রব্য নিয়ে আসে, এগিয়ে গিয়ে তাহাদের সাথে মিলিত হইবে না। যদি কেউ এরূপ করে এবং কোন বস্তু ক্রয় করে, তবে ঐ বিক্রেতা মালিক বাজারে পৌঁছার পর তার ইখতিয়ার থাকিবে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ মুসলমান ভাইয়ের দরদাম করার উপর দরদাম করা

৪৫০২. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ গ্রাম্য লোকের পণ্য দ্রব্য শহরের লোক বিক্রয় করে দেবে না, দালালী করিবে না, কোন ব্যক্তি তার মুসলমান ভ্রাতার দরদামের উপর দরদাম করিবে না। মুসলমান ভাইয়ের বিবাহের প্রস্তাবের উপর নিজে বিবাহের প্রস্তাব দেবে না, আর কোন নারী তার মুসলমান বোনের তালাক চাইবে না, যাতে তার পাত্র শূন্য করে নিজ পাত্র পুর্ণ করিতে পারে বরং তাকে [তালাকপ্রাপ্তার স্থানে] বিবাহ করা হয়। তার জন্য তা-ই রয়েছে যা আল্লাহ তার জন্য নির্ধারণ করে রেখেছেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ মুসলমান ভাই-এর দরদামের উপর দরদাম করা

৪৫০৩. ইবনি উমার [রাঃআঃ] সূত্রে নাবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ কোন ব্যক্তি তার মুসলমান ভাইয়ের বেচাকেনার প্রস্তাবের উপর বেচাকেনার প্রস্তাব দিবে না।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫০৪. ইবনি উমার [রাঃআঃ] সূত্রে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ কোন ব্যক্তি তার মুসলমান ভাইয়ের বেচাকেনার প্রস্তাবের উপর বেচাকেনার প্রস্তাব দেবে না, যতক্ষণ না সে খরিদ করে, অথবা ছেড়ে যায়।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ দালালী করা

৪৫০৫. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

নাবী [সাঃআঃ][দাম বাড়ানোর উদ্দেশ্যে] দালালী করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫০৬. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ কোন ব্যক্তি তার মুসলমান ভাইয়ের ক্রয়-বিক্রয়ের প্রস্তাবের উপর নিজে ক্রয়-বিক্রয়ের প্রস্তাব দেবে না। গ্রাম্য লোকের পণ্য দ্রব্য শহরের লোকগণ বিক্রয় করে দিবে না, দালালী করিবে না, আর কেউ কোন মুসলমান ভাইয়ের বিক্রয়ের উপর মুল্য বৃদ্ধি করিবে না; আর কোন নারী অপর নারীর পাত্র শূন্য করে নিজ পাত্র পূর্ণ করার লক্ষ্যে তার তালাক চাইবে না।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫০৭. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] সূত্রে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ শহরের লোকগণ গ্রাম্য লোকের পণ্য বিক্রয় করিবে না। আর তোমরা দালালী করিবে না। আর কোন ব্যক্তি তার মুসলমান ভাইয়ের ক্রয়ের উপর মূল্য বৃদ্ধি করিবে না; আর কোন মহিলা অন্য কোন মুসলমান বোনের তালাক কামনা করিবে না- তার ভাণ্ডে যা আছে তা নিজে ভোগ করার জন্য।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ অধিক মূল্যে ক্রয় করা

৪৫০৮. আনাস ইবনি মালিক [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিলামে একটি পাত্র এবং একটি কাপড় বিক্রি করেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

পরিছেদঃ মুলামাসা বিক্রয়

৪৫০৯. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিষেধ করিয়াছেন মুলামাসা এবং মুনাবাযা প্রণালীতে ক্রয়-বিক্রয় করিতে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ মুলামাসার ব্যাখ্যা

৪৫১০. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিষেধ করেছেনঃ মুলামাসা ধরনের ক্রয়-বিক্রয় করিতে অর্থাৎ কাপড় না দেখে কেবল স্পর্শ করিবে আর তাতেই বেচাকেনা সাব্যস্ত হইয়া যাবে। আর তিনি নিষেধ করিয়াছেন মুনাবাযা প্রণালীতে ক্রয়-বিক্রয় করিতে। আর তা হলো কোন কাপড় নাড়াচাড়া করা বা দেখার আগে কোন ব্যক্তির দিকে ছুঁড়ে মারা আর তাতে ক্রয়- বিক্রয় সাব্যস্ত হইয়া যাওয়া।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ মুনাবাযা পদ্ধতির ক্রয়-বিক্রয়

৪৫১১. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ক্রয় বিক্রয়ে মুনাবাযা ও মুলামাসা নিষেধ করিয়াছেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫১২. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ক্রয়-বিক্রয়ের দুটি ধরন মুনাবাযা ও মুলামাসা থেকে নিষেধ করিয়াছেন।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ মুনাবাযাহার ব্যাখ্যা

৪৫১৩. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মুনাবাযা ও মুলামাসা থেকে নিষেধ করিয়াছেন। মুলামাসা এই যে, দুই ব্যক্তি রাতে দুটি কাপড় ক্রয়-বিক্রয় করিবে প্রত্যেকে তার সাথীর কাপড় হাতে স্পর্শ করিবে। মুনাবাযা এই যে, এক ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির প্রতি কাপড় ছুঁড়ে মারবে, অন্য ব্যক্তিও ঐ ব্যক্তির দিকে কাপড় ছুঁড়বে- এই পন্থায় তাহাদের ক্রয়-বিক্রয় সাব্যস্ত হইবে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫১৪. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মুলামাসা থেকে নিষেধ করিয়াছেন। আর মুলামাসা হলো কাপড় না দেখে কেবল স্পর্শের মাধ্যমে বিক্রি সাব্যস্ত করা। {এইরূপে বিক্রয় করলে আর ক্রেতা-বিক্রেতার কোন ইখতিয়ার থাকিবে না।} আর তিনি নিষেধ করিয়াছেন মুনাবাযা পদ্ধতির ক্রয়-বিক্রয় থেকে আর মুনাবাযা হলো, এক ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির দিকে স্বীয় কাপড় নিক্ষেপ করিবে তা নাড়াচাড়া করার পূর্বে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫১৫. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] দুই পদ্ধতির বস্ত্র পরিধান নিষেধ করিয়াছেন, এবং ক্রয়-বিক্রয়ের দুই প্রনালীও নিষেধ করিয়াছেন। নিষিদ্ধ ক্রয়-বিক্রয় প্রনালীদ্বয় হলো মুলামাসা এবং মুনাবাযা। মুনাবাযা পদ্ধতি হলো এরূপ বলা যে, যখন আমি এই কাপড়খানা নিক্ষেপ করবো, তখন বিক্রি সাব্যস্ত হইয়া যাবে। আর মুলামাসা পদ্ধতি হলো কাপড় স্পর্শ করলেই ক্রয়-বিক্রয় সাব্যস্ত হইয়া যাবে, তা খুলবেও না এবং উল্টিয়ে দেখবেও না, যখন স্পর্শ করিবে তখনই ক্রয়-বিক্রয় সাব্যস্ত হইবে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৪৫১৬. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] দুই পদ্ধতির কাপড় পরিধান নিষেধ করিয়াছেন। আর তিনি আমাদেরকে দুই পদ্ধতির ক্রয়-বিক্রয় থেকে নিষেধ করিয়াছেন, তা হলো মুনাবাষা ও মুলামাসা। ক্রয়-বিক্রয়ের ঐ সকল পদ্ধতি জাহিলী যুগের লোকেরা অবলম্বন করতো।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ লিগাইরিহি

৪৫১৭. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

সেই দুই পদ্ধতি হলো মুনাবাষা এবং মুলামাসা। তিনি বলেন, মুলামাসা পদ্ধতি এরূপঃ কোন ব্যক্তি অপর ব্যক্তিকে বলবে, আমি তোমার কাপড়ের পরিবর্তে আমার কাপড় বিক্রয় করবো; কিন্তু তাহাদের কেউ অন্যের কাপড়ের প্রতি দৃষ্টিপাত করিবে না, শুধু হাতে স্পর্শ করিবে। আর মুনাবাষা পদ্ধতি এরূপ যে, একজন বলবেঃ আমার নিকট যা আছে আমি তা নিক্ষেপ করবো আর তুমি তোমার নিকট যা আছে তা নিক্ষেপ করিবে, একে অন্যের নিকট হইতে ক্রয় করা জন্য। তাহাদের কেউই অবগত নয় যে, অন্যের নিকট কী পরিমাণ মাল রয়েছে এবং কোন প্রকারের রয়েছে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিছেদঃ পাথর নিক্ষেপের মাধ্যমে ক্রয়-বিক্রয়

৪৫১৮. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিষেধ করিয়াছেন, পাথর নিক্ষেপ করে ক্রয়-বিক্রয় করিতে এবং অনিশ্চিত বস্তু ক্রয়-বিক্রয় করিতে।

ক্রয়-বিক্রয় হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply