সাকীফ গোত্রের মিথ্যাবাদী ও নির্বিচার হত্যাকারীর বিবরণ

সাকীফ গোত্রের মিথ্যাবাদী ও নির্বিচার হত্যাকারীর বিবরণ

সাকীফ গোত্রের মিথ্যাবাদী ও নির্বিচার হত্যাকারীর বিবরণ >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৫৮. অধ্যায়ঃ সাকীফ গোত্রের মিথ্যাবাদী ও নির্বিচার হত্যাকারীর বিবরণ

৬৩৯০

আবু নাওফিল [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

আমি [মাক্কায়] উকবাতুল মাদীনাহ্ নামে ঘাঁটিতে আবদুল্লাহ ইবনি যুবায়র [রাদি.]-কে [শুলীকাষ্ঠে ঝুলতে] দেখিতে পেলাম। রাবী বলেন, তখন অন্যান্য লোকজন তাহাঁর কাছ দিয়ে যাচ্ছিল। পরিশেষ আবদুল্লাহ ইবনি উমর [রাদি.] তাহাঁর কাছ দিয়ে যাওয়াকালে বলিলেন, আস্সালামু আলাইকা ইয়া আবু খুবায়ব! আস্সালামু আলাইকা ইয়া আবু খুবায়ব! আস্সালামু আলাইকা ইয়া আবু খুবায়ব! আল্লাহ্‌র শপথ! আমি অবশ্য আপনাকে এ থেকে বিরত থাকতে বলেছিলাম। আল্লাহ্‌র শপথ! আমি অবশ্য আপনাকে এ থেকে নিষেধ করছিলাম, আমি অবশ্য আপনাকে এ থেকে নিষেধ করছিলাম। আল্লাহ্‌র শপথ! আমি যদ্দুর জানি আপনি ছিলেন সর্বাধিক সিয়াম পালনকারী, সর্বাধিক নামাজ আদায়কারী এবং আত্মীয়তার সম্পর্ক সম্মিলনকারী। আল্লাহর শপথ, শ্রেষ্ঠ উম্মাতের দৃষ্টিতে আজ আপনি [আপনার মতো মহৎ ব্যক্তিত্ব] নিকৃষ্ট মানুষে গণ্য হয়েছেন। তারপর আবদুল্লাহ ইবনি উমর [রাদি.] সেখান হইতে প্রত্যাবর্তন করিলেন। আবদুল্লাহ ইবনি উমর [রাদি.]-এর এ অবস্থান [থামা] ও তাহাঁর বক্তব্য হাজ্জাজের নিকট পৌঁছল। তখন সে আবদুল্লাহ ইবনি যুবায়রের নিকট লোক প্রেরণ করিল এবং তাঁকে শূলীর উপর থেকে নামানো হলো। তারপর ইয়াহূদীদের কবরস্থানে তাঁকে নিক্ষিপ্ত করা হলো। তারপর সে তাহাঁর মা আসমা বিন্ত আবু বকর [রাদি.]-কে ডেকে নেয়ার জন্য দূত পাঠায়। তিনি তাহাঁর নিকট আসতে অস্বীকৃতি জানালেন। হাজ্জাজ আবার তাহাঁর নিকট লোক পাঠাল তাঁকে তাহাঁর নিকট আসার জন্য এই বলে যে, তোমাকে অবশ্যই আসতে হইবে। অন্যথায় তোমার নিকট এমন লোক পাঠাব যে, তোমাকে চুল ধরে টেনে নিয়ে আসবে। রাবী বলিলেন, এরপরও তিনি অস্বীকৃতি জানালেন এবং বলিলেন, আল্লাহর শপথ! আমি সে পর্যন্ত তোমার নিকট আসব না যতক্ষণ না তুমি আমার নিকট এমন লোক পাঠাবে যে, আমার চুলে ধরে টেনে নিয়ে আসবে। রাবী বলেন, তারপর হাজ্জাজ বলেন, আমার জুতা নাও। তারপর সে জুতা পরল এবং সদর্পে আসমা বিন্ত আবু বকর [রাদি.]-এর নিকট পৌঁছল এবং সে বলিল, তুমি তো দেখলে আল্লাহর শত্রুর সাথে আমি কী ব্যবহার করেছি। তিনি বলিলেন, “হ্যাঁ আমি তোকে দেখছি, তুই তাহাঁর দুনিয়া বরবাদ করে দিয়েছিস। আর সে তোর আখিরাত নষ্ট করে দিয়েছে। আমি জানতে পেরেছি যে, তুই তাকে [তিরস্কার স্বরূপ] দুটি কোমরবন্ধনীর ছেলে বলে সম্বোধন করে থাকিস। আল্লাহর শপথ! আমিই দু কোমরবন্ধ ব্যবহার কারিণী। এর একটির মাঝে আমি রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এবং আবু বকর [রাদি.]-এর খাদ্যদ্রব্য বেঁধে তুলে রাখতাম যাতে বাহনের পশু থেকে খেয়ে ফেলতে না পারে। অপরটি হলো যা স্ত্রীলোকের জন্য প্রয়োজন। জেনে রাখো, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] আমাদের নিকট বর্ণনা করিয়াছেন যে, সাকীফ সম্প্রদায়ে এক মিথ্যুকের এবং নরহত্যাকারীর অভ্যুদয় হইবে। মিথ্যুককে তো আমরা সকলে দেখেছি, আমি রক্ত প্রবাহকারী তোমাকে ব্যতীত আর কাউকে মনে করছি না।” এ কথা শুনে হাজ্জাজ উঠে দাঁড়াল এবং আসমা [রাদি.]-এর কথার কোন প্রত্যুত্তর করিল না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬২৬৫, ইসলামিক সেন্টার- ৬৩১৪]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply