জানাবাত অবস্থায় কারো প্রভাত হলে তার সওম শুদ্ধ হইবে

জানাবাত অবস্থায় কারো প্রভাত হলে তার সওম শুদ্ধ হইবে

জানাবাত অবস্থায় কারো প্রভাত হলে তার সওম শুদ্ধ হইবে >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১৩. অধ্যায: জানাবাত অবস্থায় কারো প্রভাত হলে তার সওম শুদ্ধ হইবে

২৪৭৯

আবু বাক্‌র [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] তাহাঁর আলোচনায় বলিলেন, জানাবাত অবস্থায় কারো ভোর হলে তার সওম হইবে না। এরপর এ কথাটি আমি আবদুর রহমান ইবনি হারিস [রাদি.]-এর নিকট বর্ণনা করলাম। কিন্তু তিনি তা অস্বীকার করিলেন। তরপর আবদুর রহমান চললেন। আমিও তাহাঁর সাথে সাথে চললাম। আমরা আয়েশাহ এবং উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.]-এর নিকট গেলাম। এরপর আবদুর রহমান তাঁদের উভয়কে এ সম্বন্ধে জিজ্ঞেস করিলেন। তাঁরা বলিলেন, নবী [সাঃআঃ] ইহতিলাম ব্যতিরেকে জানাবাতের অবস্থায় ভোর করিতেন এবং সওম পালন করিতেন। তারপর আমরা মারওয়ানের নিকট আসলাম এবং আবদুর রহমান তার সাথে এ নিয়ে আলোচনা করিলেন। এরপর মারওয়ান বলিলেন, আমি তোমাকে কসম দিয়ে বলছি, তুমি আবু হুরায়রার নিকট যাও এবং তার কথাটি রদ করে দাও। এরপর আমি আবু হুরায়রার নিকট গেলাম। এ সময় আবু বকর [রাদি.] আবদুর রহমানের সাথে ছিলেন। আবদুর রহমান এ নিয়ে আবু হুরায়রার সঙ্গে আলোচনা করিলেন। আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] বলিলেন, তোমার নিকট তাঁরা উভয়েই কি এ কথা বলেছেন? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ, তাঁরা উভয়েই এ কথা বলেছেন। তখন আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] বলিলেন, বস্তুত তাঁরাই সর্বাধিক অবগত। তারপর আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] তাহাঁর এ কথাটিকে ফায্‌ল ইবনি আব্বাসের প্রতি সম্পর্কিত করে বলিলেন, আমি এ কথাটি ফায্‌লের [ইবনি আব্বাস] থেকে শুনেছিলাম, নবী [সাঃআঃ] থেকে শুনিনি। রাবী বলেন, এরপর আবু হুরায়রাহ [রাদি.] এ বিষয়ে তাহাঁর মত পরিবর্তন করেন। বর্ণনাকারী বলেন, আমি আবদুল মালিককে জিজ্ঞেস করলাম, তারা রমাযানের কথা বলেছে কি? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ অনুরূপই নবী [সাঃআঃ] ইহতিলাম ব্যতিরেকেও জানাবাত অবস্থায় ভোর করিতেন। এরপর সওম পালন করিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪৫৬, ইসলামিক সেন্টার- ২৪৫৫]

২৪৮০

নবী [সাঃআঃ]-এর সহধর্মিণী আয়েশাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রমজান মাসে ইহতিলাম ছাড়াই নবী [সাঃআঃ]-এর জানাবাত অবস্থায় ফাজ্‌রের নামাজের সময় হয়ে যেত। তখন তিনি গোসল করিতেন এবং সওম পালন করিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪৫৭, ইসলামিক সেন্টার- ২৪৫৬]

২৪৮১

আবু বাক্‌র [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, একদা মারওয়ান তাকে উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.]-এর নিকট পাঠালেন ঐ ব্যক্তি সম্পর্কে জিজ্ঞেস করার জন্য যার জানাবাতের অবস্থায় ভোর হলো, সে সওম পালন করিতে পারবে কি? তিনি বলিলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর ইহতিলাম ব্যতিরেকে স্ত্রী সহবাসের কারণে গোসল ফরয হওয়া অবস্থায় ভোর হতো। এরপর তিনি সওম ভঙ্গও করিতেন না এবং রোজার কাযাও করিতেন না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪৫৮, ইসলামিক সেন্টার- ২৪৫৭]

২৪৮২

নবী [সাঃআঃ] এর সহধর্মিণী আয়িশাহ্ এবং উম্মু সালামাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তাঁরা উভয়ই বলেন, রমজান মাসে ইহ্তিলাম ছাড়াই স্ত্রী সহবাসের কারণে জানাবাতের অবস্থায় রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর ভোর হতো, এরপর তিনি সওম পালন করিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪৫৯, ইসলামিক সেন্টার- ২৪৫৮]

২৪৮৩

আয়েশাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, ফাতাওয়া জিজ্ঞেস করার জন্য এক ব্যক্তি নবী [সাঃআঃ]-এর নিকট এলো। এ সময় তিনি দরজার পেছন থেকে কথাগুলো শুনছিলেন। লোকটি বলিল, ইয়া রসূলুল্লাহ! জানাবাতের অবস্থায় আমার ফাজরের সময় হয়ে যায়, এমতাবস্থায় আমি সওম পালন করিতে পারি কি? উত্তরে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেন, জানাবাতের অবস্থায় আমারও ফাজরের নামাজের সময় হয়ে যায়, আমি তো সওম পালন করি। এরপর লোকটি বলিল, হে আল্লাহর রসূল! আপনি তো আমাদের মতো নন। আল্লাহ তাআলা আপনার পূর্বাপর সমূদয় গুনাহ ক্ষমা করে দিয়েছেন। তখন তিনি বলিলেন, আল্লাহর শপথ! আমার আশা, আমি আল্লাহকে তোমাদের চেয়ে সর্বাধিক ভয় করি এবং আমি সর্বাধিক অবগত ঐ বিষয় সম্পর্কে, যা থেকে আমার বিরত থাকা আবশ্যক। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪৬০, ইসলামিক সেন্টার- ২৪৫৯]

২৪৮৪

সুলায়মান ইবনি ইয়াসার [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.]-কে প্রশ্ন করিলেন, জানাবাতের অবস্থায় যার ভোর হয়, সে সওম পালন করিবে কি? তিনি বলিলেন, ইহতিলাম ছাড়াই জানাবাতের অবস্থায় রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর ভোর হতো এবং তিনি সওম পালন করিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪৬১, ইসলামিক সেন্টার- ২৪৬০]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply