শিগার বিবাহ হারাম ও তা বাতিল

শিগার বিবাহ হারাম ও তা বাতিল

শিগার বিবাহ হারাম ও তা বাতিল >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৭. অধ্যায়ঃ শিগার বিবাহ হারাম ও তা বাতিল

৩৩৫৬

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] শিগার পদ্ধতির বিবাহ নিষিদ্ধ করিয়াছেন।

শিগার হল- কোন ব্যাক্তি কর্তৃক তার কন্যাকে অপর ব্যাক্তির নিকট এ শর্তে বিবাহ দেয়া যে, শেষোক্ত ব্যাক্তি তার কন্যাকে প্রথোমক্ত ব্যাক্তির নিকট বিবাহ দিবে এবং তাদের মধ্যে মাহর দেয়া হইবে না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৩০, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩২৯]

৩৩৫৭

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

এ সানাদে নবী [সাঃআঃ] থেকে অনুরূপ বর্ণিত হয়েছে। তবে উবায়দুল্লাহর বর্ণনায় আছে, তিনি বলেনঃ আমি নাফি [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর নিকট জিজ্ঞেস করলাম, শিগার কী?” [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৩১, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৩০]

৩৩৫৮

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] শিগার নিষিদ্ধ করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৩২, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৩১]

৩৩৫৯

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ “ইসলামে শিগার নেই।” [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৩৩, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৩২]

৩৩৬০

আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] শিগার পদ্ধতির বিবাহ নিষিদ্ধ করিয়াছেন।

ইবনি নুমায়রের বর্ণনায় আরো আছেঃ “শিগার এই যে, কোন ব্যাক্তি অপর ব্যাক্তিকে বলে, তোমার কন্যাকে আমার সাথে বিবাহ দাও এবং আমিও আমার কন্যাকে তোমার সাথে বিবাহ দিব। তোমার বোনকে আমার সাথে বিবাহ দাও, আমিও তোমার সাথে আমার বোনকে বিবাহ দিব।” [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৩৪, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৩৩]

৩৩৬১

উবায়দুল্লাহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] থেকে এ সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

অনুরূপ বর্ণিত হয়েছে। তবে এ সূত্রে ইবনি নুমায়রের অতিরিক্ত বর্ণনা উল্লেখিত হয়নি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৩৫, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৩৪]

৩৩৬২

জাবির ইবনি আবদুল্লাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] শিগার পদ্ধতির বিবাহ নিষিদ্ধ করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৩৬, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৩৫]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply