নতুন লেখা

শরীয়তের শাস্তি

শরীয়তের শাস্তি

পর্বঃ ৮৬, শরীয়তের শাস্তি, অধ্যায়ঃ (১-৪৭)=৪৮টি

যিনা, মদ্য, গুনাহ, ধর্মত্যাগী বিদ্রোহী ও চুরির শাস্তি

৮৬/১. অধ্যায়ঃ যিনা ও মদ্য পান।
৮৬/২. অধ্যায়ঃ মদ্যপায়ীকে প্রহার করা সম্পর্কিত।
৮৬/৩. অধ্যায়ঃ ঘরের ভিতরে শরীয়াতের শাস্তি দেয়ার হুকুম সম্পর্কিত।
৮৬/৪. অধ্যায়ঃ গাছের ডাল এবং জুতা দিয়ে মারার বর্ণনা।
৮৬/৫. অধ্যায়ঃ মদ্যপায়ীকে লানত করা মাকরূহ এবং সে মুসলিম থেকে খারিজ নয়
৮৬/৬. অধ্যায়ঃ চোর যখন চুরি করে।
৮৬/৭. অধ্যায়ঃ চোরের নাম উল্লেখ না করে তার উপর লানত করা।
৮৬/৮. অধ্যায়ঃ হুদুদ (শরীয়াতের শাস্তি) (গুনাহ্র) কাফ্ফারা হয়ে যায়।
৮৬/৯. অধ্যায়ঃ শরীয়াতের শাস্তি বা হক ব্যতীত মুমিনের পিঠ সংরক্ষিত।
৮৬/১০. অধ্যায়ঃ শরীয়াতের হদ কায়িম করা এবং আল্লাহর নিষিদ্ধ কাজে (কেউ লিপ্ত হলে তার বিরুদ্ধে) প্রতিশোধ নেয়া।
৮৬/১১. অধ্যায়ঃ উচ্চ-নীচ সকলের বেলায় শরীয়াতের শাস্তি কায়িম করা।
৮৬/১২. অধ্যায়ঃ বাদশাহ্র নিকট যখন মামলা পেশ করা হয় তখন শারীআতের শাস্তি দেয়ার বেলায় সুপারিশ করা অনুচিত।
৮৬/১৩. অধ্যায়ঃ আল্লাহর বাণীঃ পুরুষ কিংবা নারী চুরি করলে তাদের হাত কেটে দাও- (সুরা আল-মায়িদাহ ৫/৩৮)। কী পরিমাণ মাল চুরি করলে হাত কাটা যাবে। আলী (রাদি.) কব্জি পর্যন্ত কেটেছিলেন। আর ক্বাতাদাহ (রাদি.) এক মহিলা সম্পর্কে বলেছেন যে চুরি করেছিল, এতে তার বাম হাত কাটা হয়েছিল। এ ব্যতীত আর কোন শাস্তি দেয়া হয়নি।
৮৬/১৪. অধ্যায়ঃ চোরের তাওবাহ।
৮৬/১৫. অধ্যায়ঃ কাফির ও ধর্মত্যাগী বিদ্রোহীদের বিবরণ, আল্লাহর বাণীঃ যারা আল্লাহ ও তাহাঁর রাসূলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে তাদের শাস্তি…। (সুরা আল-মায়িদাহ ৫/৩৩)
৮৬/১৬. অধ্যায়ঃ নাবী (সাঃআঃ) ধর্ম পরিত্যাগকারী বিদ্রোহীদের ক্ষতস্থানে লোহা পুড়ে দাগ দেননি। শেষতক তারা মারা গেল।
৮৬/১৭. অধ্যায়ঃ ধর্ম পরিত্যাগকারী বিদ্রোহীদেরকে পানি পান করানো হয়নি; অবশেষে তারা মারা গেল।
৮৬/১৮. অধ্যায়ঃ নাবী (সাঃআঃ) বিদ্রোহীদের চোখগুলো লোহার শলাকা দিয়ে ফুঁড়ে দিলেন।

অপবাদ, অশ্লীলতা, বিবাহিত-অবিবাহিত যেনাকারীর শাস্তি । রজম করা
৮৬/১৯. অধ্যায়ঃ অশ্লীলতা পরিত্যাগকারীর ফাযীলাত।
৮৬/২০. অধ্যায়ঃ ব্যভিচারীদের পাপ।
৮৬/২১. অধ্যায়ঃ বিবাহিতকে পাথর মেরে হত্যা করা।
৮৬/২২. অধ্যায়ঃ পাগল ও পাগলী কে পাথর মেরে হত্যা করা যাবে না। [১০৫] আলী (রাদি.) উমার (রাদি.) – কে বলিলেন, আপনি কি জানেন না যে, পাগল থেকে জ্ঞান ফিরে না আসা পর্যন্ত, বালক থেকে সাবালক না হওয়া পর্যন্ত, ঘুমন্ত লোক না জাগা পর্যন্ত কলম তুলে নেয়া হয়েছে?
৮৬/২৩. অধ্যায়ঃ যেনাকারীর জন্য পাথর।
৮৬/২৪. অধ্যায়ঃ সমতল স্থানে রজম করা।
৮৬/২৫. অধ্যায়ঃ ঈদগাহে্ ও জানাজা আদায়ের জায়গায় রজম করা।
৮৬/২৬. অধ্যায়ঃ যে এমন কোন অপরাধ করিল যা হদ – এর সীমার মধ্যে নয় এবং সে ইমামকে জানালো। তবে তাওবাহ্র পর তাকে কোন শাস্তি দেয়া হইবে না, যখন সে ফতোয়া জানার জন্য আসে।
৮৬/২৭. অধ্যায়ঃ যে কেউ শাস্তির ব্যাপারে স্বীকার করিল অথচ বিস্তারিত জানাল না, তখন ইমাদের জন্য তা গোপন রাখা সঠিক হইবে কি?
৮৬/২৮. অধ্যায়ঃ নিজের দোষ স্বীকারকারীকে ইমাম কি একথা বলিতে পারে যে, সম্ভবত তুমি স্পর্শ করেছ কিংবা ইঙ্গিত করেছ?
৮৬/২৯. অধ্যায়ঃ নিজের দোষ স্বীকারকারীকে ইমামের প্রশ্ন তুমি কি বিবাহিত?
৮৬/৩০.অধ্যায়ঃ যিনার কথা স্বীকার করা।
৮৬/৩১. অধ্যায়ঃ যিনার কারণে বিবাহিতা গর্ভবতী নারীকে পাথর মেরে হত্যা করা।
৮৬/৩২. অধ্যায়ঃ অবিবাহিত যুবক, যুবতী উভয়কে বেত্রাঘাত করা হইবে এবং নির্বাসিত করা হইবে।
৮৬/৩৩. অধ্যায়ঃ গুনাহ্গার ও নপুংসকদের নির্বাসিত করা।
৮৬/৩৪. অধ্যায়ঃ ইমামের অনুপস্থিতিতে অন্যকে হদ প্রয়োগের নির্দেশ দেয়া।
৮৬/৩৫. অধ্যায়ঃ আল্লাহর বাণীঃ তোমাদের মধ্যে কারো সাধ্বী, বিশ্বাসী নারী বিবাহের সামর্থ্য না থাকলে… আয়াতের শেষ পর্যন্ত। (সুরা আন্-নিসা ৪/২৫) (আরবী) অর্থ (আরবী) (ব্যভিচারিণী)
৮৬/৩৭. অধ্যায়ঃ দাসী যিনা করলে তাকে তিরস্কার করা ও নির্বাসন দেয়া যাবে না।
৮৬/৩৮. অধ্যায়ঃ অধ্যায়ঃ যিম্মিদের বিবাহ হওয়া সম্পর্কে বিধান এবং তারা যিনা করলে ও তাদের মোকদ্দমা ইমামের নিকট পেশ করা হলে তার বিধান।
৮৬/৩৯. অধ্যায়ঃ বিচারক ও লোকদের নিকট স্বীয় স্ত্রী বা অন্যের স্ত্রীর ব্যাপারে যখন যিনার অভিযোগ করা হয় তখন বিচারকের জন্য কি জরুরী নয় যে, তার নিকট পাঠিয়ে তাকে ঐ সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করিবে, যে বিষয়ে তাকে অভিযুক্ত করা হয়েছে?
৮৬/৪০. অধ্যায়ঃ শাসক ব্যতীত অন্য কেউ যদি নিজ পরিবার কিংবা অন্য কাউকে শাসন করে।
৮৬/৪১. অধ্যায়ঃ যদি কেউ তার স্ত্রীর সাথে পরপুরুষকে দেখে এবং তাকে হত্যা করে ফেলে।
৮৬/৪২. অধ্যায়ঃ কোন বিষয়ে অস্পষ্টভাবে ইঙ্গিত করা
৮৬/৪৩. অধ্যায়ঃ শাস্তি ও শাসনের পরিমাণ কতটুকু
৮৬/৪৪. অধ্যায়ঃ যে ব্যক্তি প্রমাণ ব্যতীত অশ্লীলতা ও অন্যের কলংকিত হওয়াকে প্রকাশ করে এবং অপবাদ রটায়
৮৬/৪৫. অধ্যায়ঃ সাধ্বী রমণীদের প্রতি অপবাদ আরোপ করা।
৮৬/৪৬. অধ্যায়ঃ ক্রীতদাসদের প্রতি অপবাদ আরোপ করা
৮৬/৪৭. অধ্যায়ঃ ইমাম থেকে অনুপস্থিত ব্যক্তির ওপর হদ প্রয়োগ করার জন্য তিনি কোন ব্যক্তিকে নির্দেশ করিতে পারেন কি? উমর (রা.) এমনটা করিয়াছেন

About halalbajar.com

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Check Also

চিকিৎসা বিষয়ক হাদিস, মধু, কালজিরা, চন্দন, শিঙং ও ঝাড়ফুঁক

চিকিৎসা বিষয়ক হাদিস, মধু, কালজিরা, চন্দন, শিঙং ও ঝাড়ফুঁক চিকিৎসা বিষয়ক হাদিস, মধু, কালজিরা, চন্দন, …

Leave a Reply

%d bloggers like this: