আর যারা করিতে সক্ষম তারা ফিদ্‌ইয়াহ্ হিসেবে একজন মিসকীনকে খাদ্য দিবে

আর যারা করিতে সক্ষম তারা ফিদ্‌ইয়াহ্ হিসেবে একজন মিসকীনকে খাদ্য দিবে

আর যারা করিতে সক্ষম তারা ফিদ্‌ইয়াহ্ হিসেবে একজন মিসকীনকে খাদ্য দিবে >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৫. অধ্যায়ঃ আল্লাহর বাণী –“আর যারা করিতে সক্ষম তারা ফিদ্‌ইয়াহ্ হিসেবে একজন মিসকীনকে খাদ্য দিবে” – এ হুকুম মানসূখ হয়ে গেছে

২৫৭৫

সালমাহ্ ইবনি আকওয়া [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, “যারা রোজা পালন করিতে সক্ষম [অথচ রোজা পালন করিতে চায় না] তারা ফিদইয়াহ্ হিসেবে একজন মিসকীনকে খাদ্য দান করিবে” যখন এ আয়াত অবতীর্ণ হল, কেউ যদি রামাদানে রোজা পালন করিতে না চাইতো সে রোজা ভাঙ্গত এবং তার পরিবর্তে ফিদইয়াহ্ আদায় করে দিত। অতঃপর এর পরবর্তি আয়াত অবতীর্ণ হলো এবং তা পূর্ববর্তী আয়াতের হুকুমকে মানসূখ [রহিত] করে দিল।” [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৫৫২, ইসলামিক সেন্টার- ২৫৫১]

২৫৭৬

সালমাহ্ ইবনি আকওয়া [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর যুগে রমজান মাসে আমাদের মধ্যে যার ইচ্ছা হত রোজা পালন করত আর যে চাইত ভঙ্গ করত এবং এর বিনিময়ে ফিদইয়াহ্ হিসেবে একজন মিসকীনকে খাদ্য দান করত। অবশেষে এ আয়াত নাযিল হল, “কাজেই আজ হইতে যে ব্যক্তিই এ মাসের সম্মুখিন হইবে তার জন্য এ পূর্ণ মাসের রোজা পালন করা একান্ত কর্তব্য।” [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৫৫৩, ইসলামিক সেন্টার- ২৫৫২]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply