রোজার সময় পূর্ণ হওয়া এবং দিবস সমাপ্ত হওয়া

রোজার সময় পূর্ণ হওয়া এবং দিবস সমাপ্ত হওয়া

রোজার সময় পূর্ণ হওয়া এবং দিবস সমাপ্ত হওয়া >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১০. অধ্যায়ঃ রোজার সময় পূর্ণ হওয়া এবং দিবস সমাপ্ত হওয়া

২৪৪৮

উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন: যখন রাত আসে, দিন চলে যায় এবং সূর্য অদৃশ্য হয়ে যায়, তখন সিয়াম পালনকারী ইফত্বার করিবে। {৫}

ইবনি নুমায়র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] [আরবী] শব্দটি উল্লেখ করেননি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪২৫, ইসলামিক সেন্টার- ২৪২৪]

{৫} অর্থাৎ সূর্যাস্তের পর আর দেরী করিবে না, যেমন কত কত সন্দেহ পোষণকারী বলে যে, আর কিছু দেরী করলে কী হইবে এত বেখবর কেন। অথচ তারা এটা জানে না যে, প্রথম সূর্যাস্তের সময়েই ইফত্বার করা সুন্নাত। আর সূর্যাস্ত যাওয়া, রাতের আগমন ও দিনের প্রস্থান এ তিনটি একই সময়ে সংঘটিত হয়। বরং রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বিষয়টাকে পরিস্কার করার জন্য তিনটিকে এভাবে উল্লেখ করিয়াছেন। হ্যাঁ, যে স্থানে সূর্যাস্ত বুঝা যায় না, তখায় একটু আঁধার করে ইফত্বার করা যায়।

২৪৪৯

আবদুল্লাহ ইবনি আওফা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রমজান মাসে কোন এক সফরে আমরা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সঙ্গী ছিলাম। সূর্য ডুবে গেলে তিনি বলিলেন, হে অমুক! অবতরণ কর এবং আমাদের জন্য ছাতু গুলে আনো। সে বলিল, ইয়া রসূলাল্লাহ! এখনো দিন রয়ে গেছে। পুনরায় তিনি বলিলেন, অবতরণ কর এবং আমাদের জন্য ছাতু গুলে আনো। তখন সে অবতরণ করিল এবং ছাতু গুলে তার নিকট পেশ করিল। নবী [সাঃআঃ] পান করিলেন এবং হাত দ্বারা ইঙ্গিত করে বলিলেন, সূর্য এদিক থেকে অদৃশ্য হয়ে যায় এবং রাত্র যখন এদিক থেকে ঘনিয়ে আসবে, তখন সিয়াম পালনকারী ইফত্বার করিবে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪২৬, ইসলামিক সেন্টার- ২৪২৫]

২৪৫০

ইবনি আবু আওফা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, এক সফরে আমরা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সাথে ছিলাম। যখন সূর্য অদৃশ্য হয়ে গেল তখন তিনি এক ব্যক্তিকে বলিলেন, অবতরণ কর এবং আমাদের জন্য ছাতু গুলে আনো। সে বলিল, ইয়া রসূলাল্লাহ! সন্ধ্যা হইতে দিন। পুনরায় তিনি বলিলেন, অবতরণ কর এবং আমাদের জন্য ছাতু গুলে আনো। সে বলিল, দিন আমাদের আরো বাকী রয়েছে। এরপর সে অবতরণ করে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর জন্য ছাতু গুলে আনলো। তিনি পান করিলেন এবং হাত দ্বারা পূর্বদিকে ইঙ্গিত করে বলিলেন, যখন তোমরা দেখবে যে, এদিক থেকে রাত্র ঘনিয়ে আসছে, তখন সিয়াম পালনকারীর ইফত্বারের সময় হইবে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪২৭, ইসলামিক সেন্টার- ২৪২৬]

২৪৫১

আবদুল্লাহ ইবনি আবু আওফা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমরা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সাথে ভ্রমণ করলাম। এ সময় তিনি সওমরত ছিলেন। যখন সূর্য অদৃশ্য হয়ে গেল তখন তিনি বলিলেন, হে অমুক! তুমি অবতরণ কর এবং আমাদের জন্য ছাতু গুলে আনো। এরপর তিনি ইবনি মুসহির এবং আব্বাস ইবনি আও্‌ওয়াম-এর অনুরূপ হাদীসটি বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪২৮, ইসলামিক সেন্টার- ২৪২৭]

২৪৫২

ইবনি আবু আওফা [রাদি.]-এর সূত্রে নবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণীতঃ

ইবনি মুসহির, আব্বাস ও আবদুল ওয়াহিদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। তবে তাঁদের কারো হাদীসের মধ্য রমজান মাসের উল্লেখ নেই। অনুরূপভাবে হুশায়ম ব্যতীত তাদের বর্ণনায় “এবং যখন রাত্র এদিক থেকে ঘনিয়ে আসে” এ কথাটিও উল্লেখ নেই। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৪২৯, ইসলামিক সেন্টার- ২৪২৮]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply