যে ব্যক্তি রাত্র ঘুমিয়ে সকাল করিল তার প্রসঙ্গে আলোচনা

যে ব্যক্তি রাত্র ঘুমিয়ে সকাল করিল তার প্রসঙ্গে আলোচনা ।

যে ব্যক্তি রাত্র ঘুমিয়ে সকাল করিল তার প্রসঙ্গে আলোচনা । >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৮. অধ্যায়ঃ যে ব্যক্তি রাত্র ঘুমিয়ে সকাল করিল তার প্রসঙ্গে আলোচনা ।

১৭০২

আবদুল্লাহ ইবনি মাসঊদ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, জনৈক ব্যক্তি সম্পর্কে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]–এর কাছে বলা হল যে, সে সকাল পর্যন্ত ঘুমিয়ে কাটায় [অর্থাৎ রাতে উঠে তাহাজ্জুদ পড়ে না ] এ কথা শুনে তিনি বললেনঃ ঐ লোকটি এমন যার কানে শাইত্বন পেশাব করে দিয়েছে অথবা বলেছেন, দু কানে।{৩৫} [ ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১৬৮৭, ইসলামিক সেন্টার-১৬৯৮]

{৩৫} শাইত্বনের পেসাব দ্বারা শাইত্বন কর্তৃক ব্যক্তির বিপর্যয় বুঝানো হয়েছে । এ ক্ষেত্রে উপহাসচ্ছলে তাঁকে উজ্জীবিত করা উদ্দেশ্য । [মুসলিম শারহে নাবাবী-১ম খণ্ড ২৬৪পৃষ্টা]

১৭০৩

আলী ইবনি আবু ত্বলিব [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] একদিন রাতের বেলা তাহাঁর ও ফাত্বিমাহ্‌ [রাদি.]–এর কাছে এসে জিজ্ঞেস করলেনঃ তোমরা কি [তাহাজ্জুদের] নামাজ আদায় কর না? তখন আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসূল! আমরা সবাই তো আল্লাহর নিয়ন্ত্রণাধীন। তিনি ইচ্ছা করলে আমাদেরকে জাগিয়ে দিতে পারেন। {আলী [রাদি.] বলেছেন} আমি এ কথা বললেঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ফিরে গেলেন। যখন তিনি ফিরে যাচ্ছিলেন, আমি শুনলাম তখন তিনি উরুর উপরে সজোরে হাত চাপড়ে বলছেনঃ মানুষ অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিতর্ক করিতে অভ্যস্ত। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১৬৮৮, ইসলামিক সেন্টার- ১৬৯৫]

১৭০৪

আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি এটি নবী [সাঃআঃ] পর্যন্ত পৌছিয়েছেন। তিনি [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তোমাদের মধ্যে কেউ যখন নিদ্রা যায় তখন শাইত্বন তাহাঁর মাথার শেষ প্রান্তে অর্থাৎ ঘাড়ে তিনটা গিরা দেয়। প্রত্যেকটা গিরাতে সে ফুঁক দিয়ে বলে, এখনো অনেক রাত আছে [ঘুমিয়ে থাক] তাই যখন সে ঘুম থেকে জেগে আল্লাহর নাম উচ্চারণ করে তখন একটি গিরা খুলে যায়। এরপর সে ওযু করলে আরো একটি গিরাসহ মোট দুটি গিরা খুলে যায়। আর যখন সে [তাহাজ্জুদের ] নামাজ আদায় করে তখন সবগুলো গিরা খুলে যায়। এভাবে সে কর্মতৎপর ও প্রফুল্ল মনের অধিকারী হয়ে সকাল জেগে উঠে। অন্যথায় মানুষ বিমর্ষ ও অলস মন নিয়ে জেগে উঠে। [ ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১৬৮৯, ইউ.সে. ১৬৯৬]

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply