মুআবিয়াহ (রাদি.)-এর উল্লেখ।

মুআবিয়াহ (রাদি.)-এর উল্লেখ।

মুআবিয়াহ (রাদি.)-এর উল্লেখ।  >> বুখারী শরীফ এর মুল সুচিপত্র পড়ুন

৬২/২৮. অধ্যায়ঃ মুআবিয়াহ (রাদি.)-এর উল্লেখ।

৩৭৬৪

ইবনু আবু মুলাইকা (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, একবার মুআবিয়াহ (রাদি.) ইশার সলাতের পর এক রাকআত বিতরের সলাত আদায় করেন। তখন তাহাঁর নিকট ইবনু আব্বাসের আযাদকৃত গোলাম হাযির ছিলেন। তিনি ইবনু আব্বাস (রাদি.)-এর নিকট ঘটনাটি বর্ণনা করেন, তখন ইবনু আব্বাস (রাদি.) বলিলেন, তাঁকে কিছু বলো না, কেননা, তিনি আল্লাহর রাসুল (সাঃআঃ)-এর সাহচর্য লাভ করিয়াছেন।

(আঃপ্রঃ ৩৪৮১, ইঃফাঃ ৩৪৮৯)

৩৭৬৫

ইবনু আবু মুলায়কাহ (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) হইতে বর্ণিতঃ

ইবনু আব্বাস (রাদি.)-কে বলা হল, আপনি আমীরুল মুমিনীন মুআবিয়াহ (রাদি.)-এর সঙ্গে এ বিষয় আলাপ করবেন কি? যেহেতু তিনি বিতর সলাত এক রাকআত আদায় করিয়াছেন। ইবনু আব্বাস (রাদি.) বলিলেন, তিনি ঠিকই করিয়াছেন, কারণ তিনি নিজেই একজন ফকীহ।

(আঃপ্রঃ ৩৪৮২, ইঃফাঃ ৩৪৯০)

৩৭৬৬

মুআবিয়াহ (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, তোমরা এমন এক সলাত আদায় কর, আমরা নাবী (সাঃআঃ)-এর সঙ্গ লাভ করেছি, আমরা তাঁকে তা আদায় করিতে দেখিনি বরং তিনি এ দুরাকআত সলাত আদায় করিতে নিষেধ করিয়াছেন। অর্থাৎ আসরের পর দু রাকআত।

(আঃপ্রঃ ৩৪৮৩, ইঃফাঃ ৩৪৯১)

By ইমাম বুখারী

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply