মাসজিদে হারানো বস্তু খোঁজ করা নিষিদ্ধ ..

মাসজিদে হারানো বস্তু খোঁজ করা নিষিদ্ধ ..

মাসজিদে হারানো বস্তু খোঁজ করা নিষিদ্ধ ..>> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১৮. অধ্যায়ঃ মাসজিদে হারানো বস্তু খোঁজ করা নিষিদ্ধ এবং যে খোঁজ করে তাকে কি বলবে

১১৪৭

আবু হুরায়রাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কেউ কোন লোককে মাসজিদের মধ্যে হারানো জিনিস খোঁজ করিতে দেখলে [অর্থাৎ- উচ্চৈঃস্বরে] যেন বলেঃ আল্লাহ করুন! তোমার জিনিস যেন তুমি না পাও। কারণ মসজিদ তো এ উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয়নি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১১৪১, ইসলামিক সেন্টার- ১১৪৯]

১১৪৮

আবু হুরায়রাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] -কে বলিতে শুনেছি। পূর্ব বর্ণিত হাদীসের অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১১৪১, ইসলামিক সেন্টার- ১১৫০]

১১৪৯

বুরায়দাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি [বুরায়দাহ্] বলেন, জনৈক ব্যক্তি মাসজিদে হারানো জিনিস অনুসন্ধান করিল। সে বলিল, লাল বর্ণের উটের প্রতি কে ঘোষণা জানাল? অতঃপর নবী [সাঃআঃ] বললেনঃ তুমি যেন তোমার হারানো জিনিস না পাও। কেননা মসজিদ তো মাসজিদের কাজের জন্য বানানো হয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১১৪২, ইসলামিক সেন্টার- ১১৫১]

১১৫০

বুরায়দাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি [বুরায়দাহ্] বলেন, নবী [সাঃআঃ] -এর নামাজ আদায় শেষ হলে জনৈক ব্যক্তি দাড়িয়ে জিজ্ঞেস করিল, লোহিত বর্ণের উটের কথা কে বলিল? এ কথা শুনে নবী [সাঃআঃ] বলিলেন, তুমি যেন তা [তোমার হারানো বস্তুটি] না পাও। কারণ মসজিদ মাসজিদের কাজের জন্য নির্মিত হয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১১৪৩, ইসলামিক সেন্টার- ১১৫২]

১১৫১

বুরায়দাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি [বুরায়দাহ্] বলেন, একদিন নবী [সাঃআঃ] ফাজরের নামাজ আদায়ের পর এক গ্রাম্য আরব এসে মাসজিদের দরজায় তার মাথা প্রবেশ করিল। এতটুকু বর্ণনা করার পর তিনি [মুহাম্মাদ ইবনি শায়বাহ] আবু মিসান ও সাওরী বর্ণিত হাদীসের অনুরূপ বিষয়বস্তু সম্বলিত হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন।

ঈমাম মুসলিম [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, শায়বাহ ইবনি নাআমাহ আবু নাআমাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]। তাহাঁর থেকে মিসআর, হুশায়ম, জারীর সহ অন্যান্য কুফীগণ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১১৪৪, ইসলামিক সেন্টার- ১১৫৩]

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply