মাসজিদে প্রস্রাব এবং অন্যান্য নাপাকী পড়লে তা ধুয়ে ফেলা ..

মাসজিদে প্রস্রাব এবং অন্যান্য নাপাকী পড়লে তা ধুয়ে ফেলা ..

মাসজিদে প্রস্রাব এবং অন্যান্য নাপাকী পড়লে তা ধুয়ে ফেলা ..  >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৩০. অধ্যায়ঃ মাসজিদে প্রস্রাব এবং অন্যান্য নাপাকী পড়লে তা ধুয়ে ফেলা জরুরী। আর পানি দ্বারাই মাটি পবিত্র হয়, কুঁড়ে ফেলার প্রয়োজন পড়ে না।

৫৪৬

আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

[তিনি বলেছেন] এক বেদুঈন এসে মাসজিদের মধ্যে প্রস্রাব করিতে শুরু করিল। উপস্থিত লোকদের মধ্যে কেউ কেউ তাকে বাধা দিতে দাঁড়ালে রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বললেনঃ থামো, তাকে প্রস্রাব করিতে বাধা দিও না। আনাস বলেন, লোকটির প্রস্রাব করা শেষ হলে নবী[সাঃআঃ] এক বালতি পানি আনিয়ে তার প্রস্রাবের উপর ঢেলে দিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৫০, ইসলামিক সেন্টার- ৫৬৬]

৫৪৭

আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, একদা জনৈক বেদুঈন এসে মাসজিদের এক কোণে দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করিতে থাকলে লোকজন চিৎকার করে তাকে বিরত রাখার চেষ্টা করিল। তা দেখে রসুলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলিলেন, থাম, তাকে বাধা দিওনা। তার প্রস্রাব করা শেষ হলে রসুলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এক বালতি পানি আনতে আদেশ দিলেন এবং প্রস্রাবের উপর ঢেলে দিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৫১, ইসলামিক সেন্টার- ৫৬৭]

৫৪৮

ইসহাকের চাচা আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, একদিন আমরা রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এর সঙ্গে মাসজিদে নববীতে বসে ছিলাম। এ সময় হঠাৎ এক বেদুঈন এসে মাসজিদের মধ্যে দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করিতে লাগল, তা দেখে রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এর সাহাবাগণ থামো থামো  বলে তাকে প্রস্রাব করিতে বাধা দিলেন। আনাস বলেন, তখন রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বললেনঃ তোমরা তাকে বাধা দিও না , বরং তাকে ছেড়ে দাও। লোকেরা তাকে ছেড়ে দিল, সে প্রস্রাব সেরে নিল। তখন রসুলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] তাকে কাছে ডেকে বললেনঃ এটা হলো মাসজিদ। এখানে প্রস্রাব করা কিংবা ময়লা আবর্জনা ফেলা যায় না। বরং এ হল আল্লাহর যিকর করা, নামাজ আদায় করা এবং কুরআন পাঠ করার স্থান। অথবা রসুলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] কথাটা যেভাবে বলেছেন তাই আনাস বলেন, এরপর রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] সবার মধ্য থেকে এক ব্যক্তিকে এক বালতি পানি আনতে আদেশ করিলেন। সে এক বালতি পানি আনলে তিনি তা প্রস্রাবের উপর ঢেলে দিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৫২, ইসলামিক সেন্টার- ৫৬৮]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply