মাদীনাহ নিজের মধ্য থেকে নিকৃষ্ট জিনিস বের করে দিবে

মাদীনাহ নিজের মধ্য থেকে নিকৃষ্ট জিনিস বের করে দিবে

মাদীনাহ নিজের মধ্য থেকে নিকৃষ্ট জিনিস বের করে দিবে >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৮৮. অধ্যায়ঃ মাদীনাহ নিজের মধ্য থেকে নিকৃষ্ট জিনিস বের করে দিবে

৩২৪৩

আবু হুরায়রাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ [মদীনার] লোকদের উপর এমন এক সময় আসবে যখন কোন ব্যক্তি তার চাচাত ভাইকে এবং নিকটাত্মীয়কে ডেকে বলবে, আসো, কোন উর্বর এলাকায় গিয়ে বসতি স্থাপন করি, আসো, কোন শস্য-শ্যামল এলাকায় গিয়ে বাস করি। কিন্তু মাদীনাই তাদের জন্য উত্তম যদি তারা জানত! সে সত্তার শপথ যাঁর হাতে আমার প্রাণ! যদি কোন ব্যক্তি মদীনার উপর বিরক্ত হয়ে চলে যায় তবে আল্লাহ্ তাআলা তার চাইতে উত্তম ব্যক্তি তার স্থলবর্তী করবেন। সাবধান! মাদীনাহ হচ্ছে হাপর তুল্য, যা নিজের মধ্য হইতে নিকৃষ্ট জিনিস [ময়লা] বের করে দেয়। ক্বিয়ামত সংঘটিত হইবে না, যতক্ষন মাদীনাহ তার বুক থেকে নিকৃষ্ট লোকদের বের করে না দিবে যেমন হাপর লোহার ময়লা দূর করে দেয়। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩২১৮, ইসলামিক সেন্টার- ৩২১৫]

৩২৪৪

আবু হুরায়রাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আমি এমন একটি জনপদে [হিজরাতের] জন্য আদিষ্ট যা সমস্ত জনপদ খেয়ে ফেলবে [আধিপত্য বিস্তার করিবে]। লোকেরা তাকে ইয়াস্রিব নামে অভিহিত করেছে। অথচ তা হল মাদীনাহ। তা লোকদের এমনভাবে বের করিবে যেমনিভাবে হাপর লোহার ময়লা বের করে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩২১৯, ইসলামিক সেন্টার- ৩২১৬]

৩২৪৫

ইয়াহ্ইয়া ইবনি সাঈদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

এ সূত্রে অনুরূপ বর্ণিত হয়েছে। তবে এরা দুজন বলেছেন: “যেমন হাপর ময়লা দূর করে” এবং “লোহা” শব্দের উল্লেখ করেননি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩২২০, ইসলামিক সেন্টার- ৩২১৭]

৩২৪৬

জাবির ইবনি আবদুল্লাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

এক বেদুঈন [গ্রাম্য লোক] রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর নিকট [ইসলামে দীক্ষিত হবার] বায়আত হল। অতঃপর বেদুঈন মাদীনায় প্রবল জ্বরে আক্রান্ত হল। সে নবী [সাঃআঃ]-এর নিকট এসে বলিল, হে মুহাম্মাদ! আমার বায়আত প্রত্যাহার করুন। তিনি তার কথা প্রত্যাখান করিলেন। সে পুনরায় তাহাঁর নিকট এসে বলিল, আমার বায়আত ফিরিয়ে নিন। তিনি তা অস্বীকার করিলেন। সে পুনরায় এসে বলিল, ইয়া মুহাম্মাদ! আমার বায়আত প্রত্যাহার করুন। তিনি এবারও অস্বীকার করিলেন। সে পুনরায় এসে বলিল, ইয়া মুহাম্মাদ! আমার বায়য়াত প্রত্যাহার করুন। তিনি এবারও অস্বীকার করিলেন। অতঃপর বেদুঈন [মাদীনাহ থেকে] চলে গেল। তখন রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ “মাদীনাহ হচ্ছে হাপর স্বরুপ, সে নিজের বুক থেকে ময়লা বহিস্কার করে দেয় এবং পবিত্র জিনিস ধুয়ে মুছে সাফ করে”। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩২২১, ইসলামিক সেন্টার- ৩২১৮]

৩২৪৭

যায়দ ইবনি সাবিত [রাদি.]-এর সূত্রে নবী [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, এ হল ত্বয়বাহ্ [পবিত্র] অর্থাৎ মাদীনাহ, তা ময়লা দূর করে দেয় যেমন আগুন রুপার ময়লা দূর করে দেয়। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩২২২, ইসলামিক সেন্টার- ৩২১৯]

৩২৪৮

জাবির ইবনি সামুরাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ আল্লাহ্ তাআলা মদীনার নাম রেখেছেন ত্বাবাহ্।[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩২২৩, ইসলামিক সেন্টার- ৩২২০]

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply