মসজিদ নির্মাণের ফযীলত এবং তার প্রতি উৎসাহ প্রদান

মসজিদ নির্মাণের ফযীলত এবং তার প্রতি উৎসাহ প্রদান

মসজিদ নির্মাণের ফযীলত এবং তার প্রতি উৎসাহ প্রদান >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৪. অধ্যায়ঃ মসজিদ নির্মাণের ফযীলত এবং তার প্রতি উৎসাহ প্রদান

১০৭৬ : উবায়দুল্লাহ আল খাওলানী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, উসমান ইবনি আফফান [রাদি.] যে সময় রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] -এর মসজিদ নির্মাণ করিলেন এবং এ কারণে লোকজন তার সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করিতে শুরু করলো তখন উবায়দুল্লাহ খাওলানী উসমানকে বলিতে শুনেছেন, তোমরা আমার ব্যাপারে বাড়াবাড়ি করে ফেলেছ। আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] -কে বলিতে শুনেছি, যে ব্যক্তি আল্লাহর উদ্দেশ্যে মসজিদ নির্মাণ করিবে, হাদীস বর্ণনাকারী বুকায়র বলেন, আমার মনে হয় তিনি বলেছিলেন এর মাধ্যমে [মসজিদ নির্মাণ] যদি সে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের প্রত্যাশা করে তাহলে মহান আল্লাহ তাআলাও তার জন্য জান্নাতের মধ্যে একটি ঘর নির্মাণ করেন বলে উল্লেখ করিয়াছেন।

ইবনি ঈসা তাহাঁর বর্ণনায় [জান্নাতের মধ্যে অনুরূপ] শব্দ ব্যবহার করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১০৭০, ইসলামিক সেন্টার- ১০৭৮]

১০৭৭ : মাহমূদ ইবনি লাবীদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

[তিনি বলেছেন] উসমান ইবনি আফফান [রাদি.] মসজিদ নির্মাণ করিতে মনস্থ করলে লোকজন তা করা পছন্দ করলো না। বরং মসজিদ যেমন আছে তেমন রেখে দেয়াই তারা ভাল মনে করলো। তখন উসমান বলিলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছি কেবল আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে কেউ মসজিদ নির্মাণ করলে আল্লাহ তাআলাও তার জন্য জান্নাতের মধ্যে অনুরূপ একখানা ঘর তৈরি করেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১০৭১, ইসলামিক সেন্টার- ১০৭৯]

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply