মন্দ নাম এবং নাফি ইত্যাদি শব্দে নাম রাখা মাকরূহ

মন্দ নাম এবং নাফি ইত্যাদি শব্দে নাম রাখা মাকরূহ

মন্দ নাম এবং নাফি ইত্যাদি শব্দে নাম রাখা মাকরূহ >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২. অধ্যায়ঃ মন্দ নাম এবং নাফি ইত্যাদি শব্দে নাম রাখা মাকরূহ

৫৪৯২

সামুরাহ্‌ ইবনি জুনদাব [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আমাদের গোলামদের চারটি নাম দ্বারা নামকরণ করিতে বারণ করেছেনঃ আফ্‌লাহ্‌, রাবাহ্‌, ইয়াসার ও নাফি।[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৪১৪, ইসলামিক সেন্টার- ৫৪৩৬]

৫৪৯৩

সামুরাহ্‌ ইবনি জুনদাব [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তোমার ক্রীতদাসের নাম রাবাহ্‌, ইয়াসার, আফ্‌লাহ্‌ ও নাফি রেখো না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৪১৫, ইসলামিক সেন্টার- ৫৪৩৭]

৫৪৯৪

সামুরাহ্‌ ইবনি জুনদাব [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহ্‌র নিকট বেশি পছন্দনীয় কালাম চারটি। আল্লাহ্‌র পবিত্রতা ঘোষণা করছি, যাবতীয় প্রশংসা আল্লাহর, [এক] আল্লাহ্‌ ছাড়া আর উপাস্য নেই এবং আল্লাহ সর্বশ্রেষ্ঠ। এগুলোর যে কোন শব্দ দ্বারা তুমি আরাম্ভ কর, এতে তোমার কোন ক্ষতি নেই এবং কক্ষনো তোমার ক্রীতদাসের নাম ইয়াসার, রাবাহ্‌, নাজীহ্‌ ও আফ্‌লাহ্‌ রাখবে না। কেননা, তুমি হয়তো বা ডাকবে ওখানে সে আছে কি? আর সে [তখন] সেখানে নাও থাকতে পারে। তখন কেউ বলবে- না এখানে নেই। [এ জবাবে কু-ধারণা তৈরি হইতে পারে]।

[বর্ণনাকারী বলেন], নবী [সাঃআঃ] কেবল এ চারটি নাম বলেছেন। অতঃপর কেউ যেন আমার চাইতে অধিক সংযোজন না করে। [ই.ফা . ৫৪১৬, ইসলামিক সেন্টার- ৫৪৩৮]

৫৪৯৫

যুহায়র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

ইসহাক্‌ ইবনি ইব্‌রাহীম, উমাইয়াহ্‌ ইবনি বিস্‌তাম, মুহাম্মাদ ইবনিল মুসান্না ও ইবনি বাশ্‌শার [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে মানসুর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে যুহায়র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর সানাদানুসারে হাদীসে বর্ণনা করিয়াছেন। কিন্তু জারীর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] ও রাওহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] উল্লিখিত হাদীস যুহায়র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বর্ণিত সম্পূর্ণ ঘটনার বর্ণনা সম্বলিত হাদীসের অবিকল। তবে শুবাহ্‌ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর হাদীসে শুধু সন্তানের নাম রাখার বর্ণনা আছে। তিনি [চার] এর কথাটি বর্ণনা করেননি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৪১৭, ইসলামিক সেন্টার- ৫৪৩৯]

৫৪৯৬

জাবির ইবনি আবদুল্লাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ইয়ালা, বারাকাহ্‌, আফলাহ, ইয়াসার ও নাফি ইত্যাদি এ রকম নাম রাখা বারণ করার ইচ্ছা পোষণ করেছিলেন। অতঃপর তাঁকে আমি লক্ষ্য করলাম যে, এ ব্যাপারে তিনি নিশ্চুপ রইলেন, কিছু বলিলেন না। তারপর রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে উঠিয়ে নেয়া হলো এবং তিনিই তা [শক্তভাবে] বারণ করেননি। পরে উমর [রাদি.] তা বারণ করার ইচ্ছা পোষণ করিলেন, তারপর তিনিও তা পরিত্যাগ করেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৪১৮, ইসলামিক সেন্টার- ৫৪৪০]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply