নতুন লেখা

মদ্যপানের শাস্তি

মদ্যপানের শাস্তি

মদ্যপানের শাস্তি >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৮. অধ্যায়ঃ মদ্যপানের শাস্তি

৪৩৪৪

আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম]-এর নিকট একদিন একজন মদ্যপানকারী ব্যক্তিকে উপস্থিত করা হলো। তখন তিনি দুটি খেজুরের ডাল দিয়ে চল্লিশ বারের মত তাকে বেত্রাঘাত করিলেন।

বর্ণনাকারী বলেন যে, আবু বকর [রাদি.]- ও [তাহাঁর খিলাফত আমলে] তাই করেন। পরে যখন উমর [রাদি.] খলীফা হলেন, তিনি এ ব্যাপারে বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গের পরামর্শ চাইলেন। তখন আবদুর রহমান [রাদি.] বলিলেন, অপরাধের শাস্তি কমপক্ষে আশি বেত্রাঘাত হওয়া প্রয়োজন। তাই উমর [রাদি.] এরই নির্দেশ দিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৩০৩, ইসলামিক সেন্টার-৪৩০৪]

৪৩৪৫

কাতাদাহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

আমি আনাস [রাদি.]- কে বলিতে শুনেছি, একদা রসূলুল্লাহ [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম]- এর নিকট এক ব্যাক্তিকে আনা হল…অতঃপর রাবী আনাস উল্লিখিত হাদীসের অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৩০৪, ইসলামিক সেন্টার-৪৩০৫]

৪৩৪৬

আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] মদ্যপানে খেজুরের ডাল ও জুতা দ্বারা প্রহার করিয়াছেন। আবু বকর [রাদি.] তাহাঁর আমালে চল্লিশটি বেত্রাঘাত করিয়াছেন। উমর [রাদি.]-এর খিলাফতকালে মানুষের সমৃদ্ধি এলে তারা প্রচুর পানি ও ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় বসবাস আরম্ভ করলো। তিনি তাদেরকে বলিলেন, মদ্যপানের বেত্রাঘাত বিষয়ে আপনাদের মতামত কী? আবদুর রহমান ইবনি আওফ [রাদি.] বলিলেন, এ ব্যাপারে আমি মনে করি যে, আপনি সর্বনিম্ন দন্ড নির্ধারণ করুন। তারপর উমর [রাদি.] মদ্যপানের শাস্তি হিসাবে আশিটি বেত্রাঘাত নির্ধারণ করেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৩০৫, ইসলামিক সেন্টার-৪৩০৬]

৪৩৪৭

হিশাম [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

হিশাম [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে এ সানাদে অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৩০৬, ইসলামিক সেন্টার-৪৩০৭]

৪৩৪৮

আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] মদ্যপানের অপরাধে জুতো এবং খেজুরের ডাল দ্বারা চল্লিশটি আঘাত করিতেন। অতঃপর ওয়াকী উল্লিখিত হাদীস বর্ণনাকারীদ্বয়ের অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করেন। আর তিনি …… পানি ও বসতি কথাটির উল্লেখ করেন নি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৩০৭, ইসলামিক সেন্টার-৪৩০৮]

৪৩৪৯

আবু বাকর ইবনি আবু শাইবাহ্, যুহায়র ইবনি হার্ব, আলী ইবনি হুজর ও ইসহাক্ ইবনি ইবরাহীম হানযালী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হাদীসের শব্দগুলো তাহাঁরই [বর্ণনা করা], হুসায়ন ইবনি মুনযির আবু হাসান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি উসমান ইবনি আফ্ফান [রাদি.]-এর কাছে উপস্থিত ছিলাম। তখন ওয়ালীদকে তাহাঁর কাছে আনা হল। সে ফজরের দুরাকআত নামাজ আদায় করে বলেছিল, আমি তোমাদের উদ্দেশে আরও অধিক রাকআত পড়ব। তখন দুব্যক্তি ওয়ালীদের ব্যাপারে সাক্ষ্য দিল। তন্মধ্যে একজনের নাম ছিল হুমরান। সে বলিল, সে মদ খেয়েছে। দ্বিতীয় ব্যক্তি সাক্ষ্য দিল যে, সে তাকে বমি করিতে দেখেছে [মদ্যপানের কারণে]। তখন, উসমান [রাদি.] বলিলেন, সে মদ খাওয়ার পরই বমি করেছে। অতএব তিনি বলিলেন, হে আলী [রাদি.] আপনি উঠুন ও তাকে বেত্রাঘাত করুন। তখন আলী [রাদি.] হাসান [রাদি.] কে বলিলেন, হে হাসান! তুমি উঠ ও তাকে বেত্রাঘাত কর। হাসান [রাদি.] বলিলেন, যে ক্ষমতার স্বাদ ভোগ করেছে সে তার তিক্ততা ভোগ করুক। এতে যেন আলী [রাদি.] তার প্রতি মর্মাহত হলেন। অতঃপর তিনি বলিলেন, হে আবদুল্লাহ ইবনি জাফার! তুমি উঠ এবং তাকে দুর্রা [বেত্রাঘাত] কর। তিনি তাকে দুর্রা মারলেন। আর আলী [রাদি.] তা গণনা করিলেন। যখন চল্লিশটি দুর্রা মেরেছেন তখন আলী [রাদি.] বলিলেন, তুমি বিরত হও। এরপর তিনি বলিলেন যে, নবী [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] চল্লিশটি বেত্রাঘাত করিয়াছেন এবং আবু বাকর [রাদি.]-ও তাহাঁর খিলাফাতকালে চল্লিশটি দুর্রা মেরেছেন। আর উমর [রাদি.] [তাহাঁর খিলাফাত কালে] আশিটি দুর্রা মেরেছেন। আর এতদুভয় সংখ্যার প্রতিটিই সুন্নাত। তবে এটি [শেষোক্তটি] আমার নিকট অধিক পছন্দনীয়।

আলী ইবনি হুজ্র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] তাহাঁর বর্ণনায় কিছু অতিরিক্ত বর্ণনা করিয়াছেন। ইসমাঈল [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন যে, আমি তা দানাজ থেকে শুনেছিলাম, কিন্তু এখন তা আমার মনে নেই। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৩০৮, ইসলামিক সেন্টার-৪৩০৯]

৪৩৫০

আলী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, কোন অপরাধীর উপর হদ্দ [শরীয়তের শাস্তি] প্রয়োগে সে যদি মারা যায় তাতে আমি ব্যথিত হয়নি। কিন্তু মদ্যপায়ীর শাস্তি প্রদানে আমি ভীত। কেননা, এতে যদি সে মারা যায় তবে আমি তার দিয়্যাত [ক্ষতিপূরণ] প্রদান করব। কেননা রাসূলুল্লাহ [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] এ ব্যাপারে শাস্তির কোন পরিমাণ নির্ধারিত করে যাননি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৩০৯, ইসলামিক সেন্টার-৪৩১০]

৪৩৫১

সুফ্ইয়ান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

সুফ্ইয়ান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে একই সূত্রে উল্লিখিত হাদীসের অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৩১০, ই. সে ৪৩১১]

About Muslim

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Check Also

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে”

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে” মহান আল্লাহর …

Leave a Reply

%d bloggers like this: