গর্ভের সন্তানের দিয়্যাত এবং ভুলবশত হত্যা ..

গর্ভের সন্তানের দিয়্যাত এবং ভুলবশত হত্যা

গর্ভের সন্তানের দিয়্যাত এবং ভুলবশত হত্যা >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১১. অধ্যায়ঃ গর্ভের সন্তানের দিয়্যাত এবং ভুলবশত হত্যা এবং ভুলসদৃশ ইচ্ছাকৃত হত্যার দিয়্যাত [রক্তপণ], অপরাধীর ওয়ারিসগণের উপর আবশ্যক হওয়া সম্পর্কে

৪২৮১

আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

হুযায়ল গোত্রের দুজন মহিলা একে অপরের প্রতি তীর নিক্ষেপ করিল তাতে আহত মহিলার গর্ভপাত হয়ে গেল। তখন নবী [সাঃআঃ] এতে [দন্ড স্বরূপ আহতকারী মহিলাকে] একটি গোলাম অথবা একটি দাসী আযাদ করে দেয়ার হুকুম দিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২৪২, ইসলামিক সেন্টার- ৪২৪২]

৪২৮২

আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, যে ব্যক্তি বানূ লিহ্ইয়ান গোত্রের এক মহিলার গর্ভপাত ঘটানোর জন্য দায়ী ছিল রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এ অভিযুক্ত ব্যক্তির প্রতি একটি গোলাম অথবা একটি দাসী প্রদানের নির্দেশ দেন। এরপর যে মহিলাকে [ক্ষতিপূরণ হিসেবে] গোলাম প্রদানের নির্দেশ দিয়েছিলেন, সে মরে গেল। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ফায়সালা দিলেন যে, তার পরিত্যক্ত সম্পদ তার সন্তার ও স্বামীর। আর হত্যাকারীর ওয়ারিসগণের উপর দিয়াত [রক্তপণ] প্রদানের হুকুম আরোপিত হইবে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২৪৩, ইসলামিক সেন্টার- ৪২৪৩]

৪২৮৩

আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, হুযায়ল গোত্রের দুজন মহিলা পরস্পর সংঘর্ষে লিপ্ত হল। এতে একজন অপরজনকে পাথর দ্বারা আঘাত করিল। এর দ্বারা সে ঐ মহিলা ও তার গর্ভের সন্তানকে হত্যা করে ফেলল। তখন নিহত মহিলার উত্তরাধিকারীরা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কাছে অভিযোগ করিল। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হুকুম দিলেন যে, সন্তানের দিয়্যাত হল একটি দাস কিংবা-দাসী প্রদান করা। নিহত মহিলার দিয়্যাত [রক্তপণ] হত্যাকারী মহিলার ওয়ারিসগণের উপর আরোপিত হইবে। আর [নিহত] মহিলার ওয়ারিস হইবে তার সন্তান এবং তার সাথে অন্য ওয়ারিসগণ। হামাল ইবনি নাবিগাতুল হযালী [রাদি.] বলিলেন, হে আল্লাহর রসূল! আমরা কিভাবে এর ক্ষতিপূরণ প্রদান করবো, যে পান করেনি, খায়নি, কথা বলেনি এবং শব্দও করেনি? সে তো এলো আর গেল। এমন ছন্দযুক্ত বাক্যবলার কারণে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ এ যেন গণকদের ভাই।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২৪৪, ইসলামিক সেন্টার- ৪২৪৪]

৪২৮৪

আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, দুজন মহিলা পরস্পর সংঘর্ষে লিপ্ত হল …… এরপর পূর্ববর্তী হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করেন। কিন্তু রাবী তাতে …………… [নিহত মহিলার ওয়ারিস হইবে তার সন্তান আর তার সঙ্গে অন্যান্য ওয়ারিসগণ] এ কথা উল্লেখ করেননি। বরং তিনি উল্লেখ করিয়াছেন, ………………. [তখন কোন ব্যক্তি বলিল, আমরা কিভাবে এর ক্ষতিপূরণ দেব]? আর রাবী তার বর্ণনায় হামাল ইবনি মালিকের নামও উল্লেখ করেননি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২৪৫, ইসলামিক সেন্টার- ৪২৪৫]

৪২৮৫

মুগীরাহ্ ইবনি শুবাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, এক মহিলা তার সতীনকে কুঁড়েঘরের খুঁটি দ্বারা আঘাত করিল। সে ছিল গর্ভবতী মহিলা। [আঘাতকারী মহিলা আঘাত দিয়ে] তাকে মেরে ফেলল। বর্ণনাকারী বলেন যে, তাদের একজন ছিল লিহ্ইয়ান গোত্রের মহিলা। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হত্যাকারী মহিলার ওয়ারিসগণের ওপর নিহত মহিলার হত্যার [দিয়াত] ক্ষতিপূরণ প্রদানের নির্দেশ দিলেন এবং গর্ভে নিহত হওয়া [সন্তানের] জন্য একটি দাস [ক্ষতিপূরণ হিসেবে] প্রদানের হুকুম দিলেন। তখন হত্যাকারী মহিলার গোত্রের এক ব্যক্তি বলিল, আমরা এমন শিশুর কিভাবে ক্ষতিপূরণ দেব যে খায়নি, পান করেনি এবং কোন শব্দও করেনি? সে তো এলো আর গেল। এ বাতিলযোগ্য। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ সে যেন বেদুঈনের মত ছন্দযুক্ত বাক্যে কথা বলিল।

বর্ণনাকারী বলেন, এরপর তিনি তাদের উপর [দিয়্যাত] ক্ষতিপূরণ আদায়ের নির্দেশ দিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২৪৬, ইসলামিক সেন্টার- ৪২৪৬]

৪২৮৬

মুগীরাহ্ ইবনি শুবাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, একজন মহিলা তার সতীনকে তাঁবুর খুঁটি দিয়ে মেরে ফেলল। এ অভিযোগ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর নিকট দায়ের করা হল। তখন তিনি হত্যাকারী মহিলার গোত্রের উপর দিয়্যাত প্রদানের নির্দেশ দিলেন। নিহত মহিলাটি ছিল গর্ভবতী। অতএব তিনি গর্ভের বাচ্চার জন্য [দিয়াত হিসেবে] একটি দাস প্রদানের নির্দেশ দিলেন। এতে তার গোত্রের এক লোক বলিল, আমরা কেমন করে তার রক্তপণ আদায় করব যে খায়নি, পান করেনি এবং কোন শব্দও করেনি? তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ এতো বেদুঈনের ছন্দযুক্ত কথার মত একটি কথা বলছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪২৪৭, ইসলামিক সেন্টার- ৪২৪৭]

৪২৮৭

মানসূর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

মানসূর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে উক্ত সানাদে জারীর এবং মুফায্যাল [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বর্ণিত হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করিয়াছেন। [ই ফা ৪২৪৮, ই সে ৪২৪৮]

৪২৮৮

মানসূর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

উল্লেখিত হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করিয়াছেন। কিন্তু তিনি তাতে একটু অতিরিক্ত বর্ণনা করিয়াছেন…… এবং সে গর্ভপাত ঘটিয়ে দিয়েছিল। তখন এ ঘটনা নবী [সাঃআঃ] এর নিকট উপস্থাপন করা হল। তিনি এতে একটি গোলাম [দিয়্যাত হিসেবে] প্রদানের জন্য হত্যাকারী মহিলার অভিভাবকের প্রতি নির্দেশ দিলেন। কিন্তু তিনি তাহাঁর বর্ণিত হাদীসে আরবী [মহিলার দিয়্যাত] কথাটির উল্লেখ করেননি। [ই ফা ৪২৪৯, ই সে ৪২৪৯]

৪২৮৯

মিস্ওয়াক ইবনি মাখরামাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, উমর ইবনি খাত্তাব [রাদি.] জনগনের কাছে একবার [আরবী] মহিলার গর্ভের সন্তান হত্যার ক্ষতিপূরণ সম্পর্কে পরামর্শ চাইলেন। তখন মুগীরাহ্ ইবনি শুবাহ্ [রাদি.] বলিলেন, আমি নবী [সাঃআঃ] এর কাছে একদা উপস্থিত ছিলাম। তখন তিনি এ অপরাধের কারণে একটি দাস অথবা দাসী প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন। রাবী বলেন, তখন উমর [রাদি.] মুগীরাহ্ [রাদি.] কে বলিলেন, এ ব্যাপারে আপনার সঙ্গে সাক্ষ্যদাতা একজন লোক নিয়ে আসুন। বর্ণনাকারী বলেন যে, তখন তার স্বপক্ষে মুহাম্মাদ ইবনি মাসলামাহ [রাদি.] সাক্ষ্য প্রদান করিলেন। [ই ফা ৪২৫০, ই সে ৪২৫০]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply