বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ – অপরাধ প্রসঙ্গ অধ্যায়

বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ – অপরাধ প্রসঙ্গ

বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ – অপরাধ প্রসঙ্গ ১১৫৮ -১২০৪ >> বুলুগুল মারাম এর মুল সুচিপত্র দেখুন

অধ্যায় – ঃ অপরাধ প্রসঙ্গ

পরিচ্ছেদ ০১. মুসলমানের রক্তের মর্যাদা
পরিচ্ছেদ ০২. রক্তের মর্যাদা
পরিচ্ছেদ ০৩. দাসের হত্যার বদলে মনিবকে হত্যা করার বিধান
পরিচ্ছেদ ০৪. সন্তানকে হত্যার বদলে পিতাকে হত্যা করার বিধান
পরিচ্ছেদ ০৫. কাফিরকে হত্যার বদলে মুসলিম হত্যা করা প্রসঙ্গ এবং সকল মুমিনের রক্ত সমমর্যাদা সম্পন্ন
পরিচ্ছেদ ০৬. ভারী জিনিস দ্বারা হত্যার প্রতিশোধ নেওয়া এবং মহিলার খুনের দায়ে পুরুষকে হত্যা করা
পরিচ্ছেদ ০৭. গরীব পরিবারের বালকের অপরাধের বিধান
পরিচ্ছেদ ০৮. ক্ষত সেরে উঠার পূর্বে কিসাস বা প্রতিশোধ নেওয়া নিষেধ
পরিচ্ছেদ ০৯. “শিবহে আমাদ” [ইচ্ছাকৃত হত্যার অনুরূপ হত্যা] হত্যা প্রসঙ্গ এবং ভ্রুণ হত্যার পণ
পরিচ্ছেদ ১০. দাঁতের মতোই অন্যান্য অঙ্গের কিসাস সাব্যস্ত হইবে
পরিচ্ছেদ ১১. লোকেদের মধ্যে পড়ে যে নিহত হয় আর তার হত্যাকারী কে তা জানা যায় না
পরিচ্ছেদ ১২. আটককারী এবং হত্যাকারীর শাস্তি
পরিচ্ছেদ ১৩. চুক্তিবদ্ধ কাফিরকে হত্যার অপরাধে মুসলমানকে হত্যা করার বিধান
পরিচ্ছেদ ১৪. একজনকে হত্যার বদলে সকলকে হত্যা করার প্রসঙ্গে
পরিচ্ছেদ ১৫. নিহতের অভিভাবকদের কিসাস এবং দিয়াত-এ দুটোর কোন একটির সুযোগ দেওয়া

পরিচ্ছেদ ০১. মুসলমানের রক্তের মর্যাদা

১১৫৮. ইবনি মাসউদ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, আল্লাহ ছাড়া অন্য কোন উপাস্য নেই এবং মুহাম্মদ [সাঃআঃ] আল্লাহর রাসূল [সাঃআঃ] এ সত্যে বিশ্বাস স্থাপন করেছে ও এর প্রতি স্বীকৃতি ঘোষণা করেছে এমন কোন মুসলিমের জীবননাশ বৈধ নয়, তবে যদি সে তিনটি অপরাধের কোন একটি করে বসে [১] বিবাহিত হওয়ার পর যিনা [ব্যভিচার] করে [২] অন্যায়ভাবে কারো জীবননাশ করে, [৩] ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করতঃ মুসলমানের জামাআত হতে যে দূরে চলে যায়। {১২৬১}

{১২৬১} বোখারী ৬৮৭৮, মুসলিম ১৬৭৬, তিরমিজি ১৪০২, নাসাঈ ৪০১৬, আবু দাঊদ ৪৩৫২, ইবনি মাজাহ ২৫৩৪, আহম্মদ ৩৬১৪, ৪০৫৫, দারিমী ২২৯৮, ২৪৪৭। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১১৫৯. আয়িশা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, কোন মুসলিম ব্যক্তি যদি সাক্ষ্য দেয় যে , আল্লাহ ব্যতীত আর কোন ইলাহ্ নেই এবং আমি আল্লাহ্‌র রসূল, তবে তিন-তিনটি কারণ ছাড়া তাকে হত্যা করা বৈধ নয়। [যথা] বিবাহিত ব্যভিচারী, জানের বদলে জান, আর নিজের দ্বীন ত্যাগকারী মুসলিম জামাআত তেকে পৃথক হয়ে যাওয়া ব্যাক্তি। {১২৬২}

{১২৬২} আবু দাঊদ ৪৩৫৩, নাসাঈ ৪০১৬, ৪০১৭, ৪০৪৮, আহম্মদ ২৩৭৮৩, ২৫১৭২। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ০২. রক্তের মর্যাদা

১১৬০. আব্দুল্লাহ ইবনি মাসউদ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন; রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কিয়ামাতের দিবসে মানুষের হক্ব প্রসঙ্গে সবার আগে খুনের বিচার করা হইবে। {১২৬৩}

{১২৬৩} বোখারী ৬৮৬৪, মুসলিম ১৬৭৮,তিরমিজি ১৩৯৬, ১৩৯৭, নাসাঈ ৩৯৯১,৩৯৯২, ইবনি মাজাহ ২৬১৫, ২৬১৭,আহম্মদ ৩৬৬৫, ৪১৮৮, ৪২০১। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ০৩. দাসের হত্যার বদলে মনিবকে হত্যা করার বিধান

১১৬১. সামুরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি তার দাসকে হত্যা করিবে আমরা তাকে হত্যা করব, যে তার দাসের নাক কান কাটবে আমরা তার নাক কান কেটে নেব। {১২৬৪}

{১২৬৪} আবু দাঊদ ৪৫১৫, ৪৫১৮, তিরমিজি ১৪১৪, নাসাঈ ৪৭৩৬, ৪৭৩৭, ইবনি মাজাহ ২৬৬৩, আহম্মদ ১৯৫৯৮, ১৯৬১৪, দারিমী ২৩৫৮। ঈমাম বাইহাকী তাহাঁর সুনানে কুবরায় ৮/৩৫ গ্রন্থে একে জঈফ বলেছেন। আর তিনি সুনানে সুগরার ৩/২১০ গ্রন্থে বলেছেন। ইয়াহইয়া বিন মুঈন ও শুবা অস্বীকৃতি জ্ঞাপন করিয়াছেন সামুরা থেকে হাসান এর শ্রবণ করাকে। শাঈখ আলবানী তাহাঁর তাখরীজ মিশকাতুল মাসাবীহ ৩৪০৪ গ্রন্থে এর সনদকে দুর্বল বলেছেন। শাঈখ মুহাম্মাদ বিন আবদুল ওয়াহহাব ৪/১৯৩ গ্রন্থে বলেন, হাসান পর্যন্ত সনদ সহিহ, মুহাদ্দিসগণ সামুরা থেকে হাসানের এ হাদিসটি শোনার ব্যাপারে মতভেদ করিয়াছেন। ঈমাম শওকানী তাহাঁর আদদিরারী আল মাযীয়্যাহ ৪১১ গ্রন্থে বলেন, এর সনদে দুর্বলতা রয়েছে, কেননা হাসান এটি সামুরা থেকে বর্ণনা করিয়াছেন। আর তিনি নাইলুল আওত্বর ৭/১৫৬ গ্রন্থে এর সনদকে দুর্বল বলেছেন। শাইখ আলবানী তাহাঁর জঈফ আবু দাঊদ ৪৫১৫, জঈফ নাসাঈ ৪৭৬৭, জঈফ তিরমিজি ১৪১৪ গ্রন্থসমূহে একে দুর্বল বলেছেন। ইবনি উসাইমীন তাহাঁর শরহে বুলুগুল মারাম ৫/২২৯ গ্রন্থে বলেনঃ একে বিচ্ছিন্নতার দোষে দুষ্ট করা হয়েছে। সঠিক হলো মুত্তাসিল। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ দুর্বল হাদিস

পরিচ্ছেদ ০৪. সন্তানকে হত্যার বদলে পিতাকে হত্যা করার বিধান

১১৬২. উমর ইবনিল খাত্তাব [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে বলিতে শুনিয়াছি, সন্তানের হত্যার বদলে পিতাকে হত্যা করা যাবে না। {১২৬৫}

{১২৬৫} তিরমিজি ১৪৮০, আর দাউদ ২৮৫৮। ঈমাম তিরমিজি তাহাঁর সুনানে ১৪০০, ঈমাম বাগাবী তাহাঁর শারহুস সুন্নাহ ৫/৩৯৪ গ্রন্থে এর সনদে ইযতিরাব সংঘটিত হওয়ার কথা উল্লেখ করিয়াছেন। ইবনিল কাত্ত্বান তার আল ওয়াহম ওয়াল ঈহাম ৩/৩৬৪ গ্রন্থে বলেন, এর সনদে হাজ্জাজ বিন আরত্বআহ নামক দুর্বল বর্ণনাকারী রহিয়াছে। মুহাম্মাদ বিন আবদুল হাদী তার তানকীহ তাহকীকুত তালীক ৩/২৬০ গ্রন্থে বলেন,এর সনদে হাজ্জাজ সম্পর্কে ইবনিল মুবারক বলেন, সে হাদিস বর্ণনার ক্ষেত্রে তাদলীস করত। ঈমাম সনআনী তার সুবুলুস সালাম ৩/৩৬৪ গ্রন্থে উক্ত রাবীকে ইযতিরাবের দোষে অভিযুক্ত করিয়াছেন। ইবনি উসাইমীন তাহাঁর হাশিয়া বুলুগুল মারাম ৫ম খণ্ড ২৩০ পৃষ্ঠায় একে দুর্বল বলেছেন। ইবনি হাজার আসকালানী তার আত-তালখীসুল হাবীর ৪/১৩১৪ গ্রন্থে হাজ্জাজ বিন আরত্বআর দিকে ইঙ্গিত করে বলেছেন, এর আরো কয়েকটি সনদ রহিয়াছে। বিন বায তাহাঁর হাশিয়া বুলুগুল মারাম ৬৫০ গ্রন্থে একে হাসান লিগাইরিহী বলেছেন। শাইখ আলবানী সহিহ তিরমিজি ১৪০০ ও সহীহুল জামে ৭৭৪৪ গ্রন্থে একে সহিহ বলেছেন। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ অন্যান্য

পরিচ্ছেদ ০৫. কাফিরকে হত্যার বদলে মুসলিম হত্যা করা প্রসঙ্গ এবং সকল মুমিনের রক্ত সমমর্যাদা সম্পন্ন

১১৬৩. আবু জুহাইফাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ আমি আলী [রাদি.]-কে বললাম, আপনাদের নিকট কি কিছু লিপিবদ্ধ আছে? তিনি বললেনঃ না, শুধুমাত্র আল্লাহর কিতাব রহিয়াছে, আর একজন মুসলিমকে যে জ্ঞান দান করা হয় সেই বুদ্ধি ও বিবেক। এছাড়া কিছু এ সহীফাতে লিপিবদ্ধ রহিয়াছে। তিনি {আবু জুহাইফাহ [রাদি.]} বলেন, আমি বললাম, এ সহীফাটিতে কী আছে? তিনি বলিলেন, ক্ষতিপূরণ ও বন্দী মুক্তির বিধান, আর এ বিধানটিও যে, কোন মুসলিমকে কাফির হত্যার বদলে হত্যা করা যাবে না। {১২৬৬}

{১২৬৬} বুখারীঃ১১১, ১৮৭০, ৩০৪৭, ৩১৭২, ৩১৮০,৬৭৫৫, মুসলিম ১৩৭০ তিরমিজি ১৪১২, ২১২৭, নাসায়ী ৪৭৩৪, ৪৭৩৫, ৪৭৫৫, আৰু দাউদ ২০৩৪, ৪৫৩০, ইবনি মাজাহ ২৬৫৮, আহম্মদ ৬০০-৬১৬, ৭৮৪, ৮০০, দারিমী ২৩৫৬। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১১৬৪. আলী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ মুমিন মুসলিমগণ তাহাদের রক্তের বদলার ব্যাপারে সমান। একজন অতি সাধারণ মুসলিমের [কোন কাফির শক্রকে] আশ্রয় দান সকল মুসলিমের নিকটে সমান গুরুত্বপূর্ণ। মুসলিমের হাত অন্য সকল মুসলমানেরও হাত; [অর্থাৎ তারা একটি সংঘবদ্ধ শক্তি] কোন মুমিনকে কাফির হত্যার বদলে হত্যা করা যাবে না, আর কোন চুক্তিবদ্ধ [অমুসলিমকেও] চুক্তি বহাল থাকা পর্যন্ত হত্যা করা যাবে না। {১২৬৭}

{১২৬৭} বোখারী ১১১, ১৮৭০, ৩০৪৭, ৩১৭২, ৩১৮০,.৬৭৫৫, মুসলিম ১৩৭০ তিরমিজি ১৪১২, ২১ঃ২৭, নাসায়ী ৪৭৩৪, ৪৭৩৫, ৪৭৫৫, আর দাউদ ২০৩৪, ৪৫৩০, ইবনি মাজাহ ২৬৫৮, আহম্মদ ৬০০, ৬১৬, ৭৮৪, ৮০০, দারিমী ২৩৫৬। নাসায়ীর বর্ণনায় আরো রহিয়াছে, যে ব্যক্তি কোন বিদআত বা দ্বীনের মধ্যে নতুন বিষয় আবিষ্কার করিবে বা কোন বিদআতীকে আশ্রয় দিবে তার উপর আল্লাহ, ফেরেশতাকূল ও সকল মানুষের লানত । বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ০৬. ভারী জিনিস দ্বারা হত্যার প্রতিশোধ নেওয়া এবং মহিলার খুনের দায়ে পুরুষকে হত্যা করা

১১৬৫. আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

কোন এক দাসীর মস্তক দুটি পাথরের মধ্যে থেতলানো পাওয়া যায়, তাকে জিজ্ঞেস করা হল, কে তোমাকে এরূপ করেছে? অমুক ব্যক্তি, অমুক ব্যক্তি? যখন জনৈক ইয়াহূদীর নাম বলা হল- তখন সে দাসী মাথার দ্বারা হ্যা সূচক ইশারা করিল। ইয়াহুদীকে ধরে আনা হল । সে অপরাধ স্বীকার করলে নাবী [সাঃআঃ] তার সম্পর্কে নির্দেশ দিলেন। তখন তার মাথা দুটি পাথরের মাঝখানে রেখে পিষে দেয়া হল। {১২৬৮}

{১২৬৮} বোখারী ২৪১৩, ২৭৪৬, ৬৮৭৬, ৬৮৭৭, মুসলিম ১৬৭২, তিরমিজি ১৩৯৪, নাসায়ী ৪৭৪০, ৪৭৪১, আর দাউদ ৪৫২৭,৪৫২৮, ৪৫২৯, ইবন মাজাহ ২৬৬৫, ২৬৬৬; আহম্মদ ১২২৫৬, ১২৩৩০, দারিমী ২৩৫৫ । বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ০৭. গরীব পরিবারের বালকের অপরাধের বিধান

১১৬৬. ইমরান ইবনি হুসাইন [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

গরীব লোকেদের কোন এক ছেলে ধনী লোকেদের কোন এক বালকের কান কেটে ফেলে। তারা নাবী [সাঃআঃ] এর নিকটে বিচার প্রার্থী হয়। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাহাদের জন্য কোন দিয়াত দেয়ার ব্যবস্থা করেননি। [তাহাদের পক্ষে ক্ষতিপূরণ সম্ভব ছিল না বলে]। {১২৬৯}

{১২৬৯} আর দাউদ ৪৫৯০, নাসায়ী ৪৭৫১, নাসায়ী ৪৭৫১, দারিমী ২৩৬৮। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ০৮. ক্ষত সেরে উঠার পূর্বে কিসাস বা প্রতিশোধ নেওয়া নিষেধ

১১৬৭. শুআইব [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি তার দাদা হতে বর্ণনা করিয়াছেন, তিনি বলেনঃ কোন এক লোক অন্য এক লোকের হাঁটুতে শিং দ্বারা আঘাত করে । সে নাবী [সাঃআঃ] এর কাছে এসে বললোঃ আমার বদলা নিয়ে দিন। তিনি বললেনঃ তুমি ক্ষত সেরে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা কর। লোকটি কিন্তু [সেরে যাওয়ার আগেই] আবার এসে বললোঃ আমার জখমের মূল্য বা খেসারত আদায় করে দিন। ফলে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তার খেসারত আদায় করে দেন। তারপর লোকটি এসে বললোঃ হে আল্লাহর রাসূল! আমি তো খোড়া হয়ে গেলাম। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ আমি তোমাকে নিষেধ করেছিলাম তুমি তা মাননি। ফলে আল্লাহ তোমাকে [তাহাঁর রহমাত হতে] দূর করে দিয়েছেন এবং তোমার খোড়াত্ব বাতিল হয়ে গেছে। [দিয়াত আদায়ের যোগ্য রাখেননি]। এরপর থেকে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কোন জখম আরোগ্য না হওয়া পর্যন্ত জখমী লোকের পক্ষে কোন বদলা আদায়ের ফয়সালা দিতে নিষেধ করিয়াছেন। {১২৭০}

{১২৭০} আহম্মদ ২১৭, দারাকুতনী ৩/৮৮ এর সনদে ইরসালের দোষ থাকলেও তা ক্ষতিকর নয়, কেননা অনেকগুলো শাহেদ থাকার কারণে এটি সহিহর পর্যায়ভুক্ত। ঈমাম সনআনী বলেন, এর সমার্থক হাদিস থাকার কারণে এটিকে শক্তিশালী করেছে। ইবনি তুর্কমান বলেন, ৮৬৭, অনেক সনদে বর্ণিত বলে একে অপরকে শক্তিশালী করেছে। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ০৯. “শিবহে আমাদ” [ইচ্ছাকৃত হত্যার অনুরূপ হত্যা] হত্যা প্রসঙ্গ এবং ভ্রুণ হত্যার পণ

১১৬৮. আবু হুরাইরা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

হুযাইল গোত্রের দুজন মহিলা উভয়ে মারামারি করেছিল। তাহাদের একজন অন্যজনের উপর পাথর নিক্ষেপ করে। পাথর গিয়ে তার পেটে লাগে। সে ছিল গর্ভবতী। ফলে তার পেটের বাচ্চাকে সে হত্যা করে। তারপর তারা নাবী [সাঃআঃ] এর নিকট অভিযোগ দায়ের করে। তিনি ফয়সালা দেন যে, এর পেটের সন্তানের বদলে একটি পূর্ণ দাস অথবা দাসী দিতে হইবে। আর নিহত মেয়েটির জন্য হত্যাকারিণীর আসাবাগণের [অভিভাবকদের] উপর দিয়াত [একশত উট] দেয়ার নির্দেশ দেন এবং এ দিয়াতের ওয়ারিসদের মধ্যে নিহত মহিলার সন্তান ও তাহাদের সঙ্গে অন্য যারা অংশীদার রহিয়াছে তাহাদের শামিল করেন। এরূপ ফায়সালার জন্য হামাল বিন নাবিগাহ আল-হুযালী বললঃ হে আল্লাহর রসূল! এমন সন্তানের জন্য আমার উপর জরিমানা কেন হইবে, যে পান করেনি, খাদ্য খায়নি, কথা বলেনি এবং কান্নাকাটিও করেনি। তখন নাবী [সাঃআঃ] ছন্দযুক্ত কথার জন্য তাকে উদ্দেশ্য করে বললেনঃ এ তো [দেখছি] গণকদের ভাই। {১২৭১}

{১২৭১} বোখারী ৫৭৫৮, ৫৭৬০, ৬৭৪০, ৬৯০৪, মুসলিম ১৬৮১, তিরমিজি ১৪১০, ২১ঃ১১, নাসায়ী ৪৮১৭, ৪৮১৯, আর দাউদ ৪৫৭৬, ইবনি মাজাহ ২৬৩৯, আহম্মদ ৭১৭৬, ৭৬৪৬, ২৭২১২, মালেক ১৬০৮, ১৬০৯, দারিমী ২৩৮২/ বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১১৬৯. উমার [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

উমার [রাদি.] জিজ্ঞেস করিলেন, ভ্রুণ সম্পর্কিত রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর ফয়সালায় কে উপস্থিত ছিল? বর্ণনাকারী বলেনঃ অতঃপর হামাল ইবনি নাবিগা দাড়িয়ে বলেনঃ আমি দুটি রমণির মধ্যে ছিলাম তাহাদের একজন অন্যজনকে মেরেছিল। ঘটনাটি সংক্ষেপে বর্ণনা করিলেন। {১২৭২}

{১২৭২} আর দাউদ-৪৫৭২, ইবন মাজাহ ২৬৪১, আহম্মদ ১৬২৮৮, দারিমী ২৩৮১। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ১০. দাঁতের মতোই অন্যান্য অঙ্গের কিসাস সাব্যস্ত হইবে

১১৭০. আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

আনাসের ফুফু রুবাঈ এক বাঁদির সম্মুখ দাত ভেঙ্গে ফেলে। এরপর বাঁদির কাছে রুবাঈয়ের লোকজন ক্ষমা চাইলে বাঁদির লোকেরা অস্বীকার করে। তখন তাহাদের কাছে দিয়াত পেশ করা হল, তখন তা তারা গ্রহণ করিল না। অগত্যা তারা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] সমীপে এসে ঘটনা জানাল। কিন্তু কিসাস ব্যতীত অন্য কিছু গ্রহণ করিতে তারা অস্বীকার করিল। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কিসাসের নির্দেশ দিলেন। তখন আনাস ইবনি নযর [রাদি.] বলিলেন, হে আল্লাহর রসূল! রুবাঈদের সামনের দাঁত ভাঙ্গা হইবে? না, যে সত্তা আপনাকে সত্যসহ পাঠিয়েছেন তার শপথ, তার দাঁত ভাঙ্গা হইবে না। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেন, হে আনাস আল্লাহর কিতাব তো কিসাসের নির্দেশ দেয়। এরপর বাদির লোকেরা রাযী হয়ে যায় এবং রুবাঈকে ক্ষমা করে দেয়। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ আল্লাহর বান্দাদের মাঝে এমন মানুষও আছে যিনি আল্লাহর নামে শপথ করলে আল্লাহ তা পূরণ করেন। {১২৭৩}

{১২৭৩} বোখারী ২৮০৬, ৪০৪৮, ৪৪৯৯, ৪৫০০, ৪৭৮৩, মুসলিম ১৯০৩, নাসায়ী ৪৭৫৫, ৪৭৫৬, আর দাউদ ৪৫৯৫ইবন মাজাহ ২৬৪৯, আহম্মদ ১১৮৯৩, ১২২৯৩, ১২৬০৩। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ১১. লোকেদের মধ্যে পড়ে যে নিহত হয় আর তার হত্যাকারী কে তা জানা যায় না

১১৭১. ইবনি আব্বাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি অজ্ঞাত অবস্থার মধ্যে নিহত হয় অথবা পাথর ছোড়াছড়ি হচ্ছে এমন সময় পাথরের আঘাতে নিহত হয় অথবা কোড়া বা লাঠির আঘাতে নিহত হয়, তবে অনিচ্ছাকৃভাবে ভুলক্রমে হত্যা করার অনুরূপ দিয়াত বা আর্থিক ক্ষতিপূরণ লাগবে। আর যাকে ইচ্ছাকৃতভাবে হত্যা করা হয় সে ক্ষেত্রে কিসাস [জানের বদলে জান] নেয়ার হাক্বদার হইবে। আর যে কিসাস কায়িম করার ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি করিবে [সুপারিশ বা অন্য উপায় দ্বারা] তার উপরে আল্লাহর লানত বর্ষিত হইবে। {১২৭৪}

{১২৭৪} আবু দাউদ ৪৫৪০, ৪৫৯১ নাসায়ী ৪৭৮৯, ৪৭৯০। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ১২. আটককারী এবং হত্যাকারীর শাস্তি

১১৭২. ইবনি উমার [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নাবী [সাঃআঃ] বলেনঃ যখন কোন লোক কোন লোককে ধরে রাখে ও অন্য লোক তাকে হত্যা করে তখন হত্যাকারীকে হত্যা করা হইবে আর যে ধরে রাখে তাকে [যাবৎজীবন] কারাদন্ড দিতে হইবে। {১২৭৫}

{১২৭৫} দারাকুতনী হাদিসটিকে মাওসূল ও মুরসাল উভয়ভাবেই বর্ণনা করিয়াছেন। হাদিসটিকে বাইহাকী তাহাঁর আল কুবরা [৮/৫০] গ্রন্থে হাদিসটিকে গাইর মাহফ্য বললেও, ইবনিল কাত্তান তার আল ওয়াহম ওয়াল ঈহাম [৫/৪১৫] গ্রন্থে একে সহিহ বলেছেন, ইবনি কাসীর তার ইরশাদুল ফাকীহ [২/২৫৬] গ্রন্থে এর সনদকে মুসলিমের শর্তে উল্লেখ করিয়াছেন। ঈমাম শওকানী তার আস সাইলুল জাররার [৪/৪১১] গ্রন্থে এর সকল রাবীকে বিশ্বস্ত বলেছেন। শাইখ আলবানী তাহাঁর তাখরীজ মিশকাতুল মাসাবীহ [৩৪১৫] গ্রন্থে এর সনদকে সহিহ বলেছেন। সুতরাং ঈমাম বাইহাকীর কথাটি গ্রহণযোগ্য নয়। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ অন্যান্য

পরিচ্ছেদ ১৩. চুক্তিবদ্ধ কাফিরকে হত্যার অপরাধে মুসলমানকে হত্যা করার বিধান

১১৭৩. আব্দুর রহমান ইবনি বাইলামানী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নাবী [সাঃআঃ] একজন মুসলিমকে হত্যা করেছিলেন- যিম্মী কাফিরকে হত্যা করার অপরাধে। এবং বলেছিলেন, আমি [অঙ্গিকার] পালনকারীদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি। দারাকুত্বনী ইবনি উমারের উল্লেখপূর্বক একে মাওসুল হিসেবে বর্ণনা করিয়াছেন। মাওসূল সনদটি দুর্বল।” {১২৭৬}

{১২৭৬} ঈমাম সনআনী তাহাঁর সুবুলুস সালাম ৩/৩৭৮ গ্রন্থে বলেন, এ হাদীসে ইবরাহীম বিন মুহাম্মাদ বিন আৰু লায়লা নামক একজন দুর্বল রাবী রহিয়াছে। ইবনি উসাইমীন তার শরহে বুলুগুল মারাম ৫/২৫৫ গ্রছে বলেন, এর সনদ ও মতন উভয়ই দুর্বল। ঈমাম তুহাবী তার শরহে মাআনী আল আসার ৩/১৯৫ গ্রন্থে হাদিসটিকে মুনকাতি বলেছেন। ইবনি হাজার আসকালানী তাহাঁর ফাতহুল বারী ১২/২৭৩ গ্রন্থে বলেন, এতে আম্মার বিন মিত্বর এর সনদে গোপন রহিয়াছেন। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ দুর্বল হাদিস

পরিচ্ছেদ ১৪. একজনকে হত্যার বদলে সকলকে হত্যা করার প্রসঙ্গে

১১৭৪. ইবনি উমার [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

একটি বালককে গোপনে হত্যা করা হয়। তখন উমার [রাদি.] বলিলেন, যদি গোটা সান্আবাসী এতে অংশ নিত তাহলে আমি তাহাদেরকে হত্যা করতাম।” {১২৭৭}

{১২৭৭} বোখারী ৬৮৯৬, তিরমিজি ১৩৯২, নাসায়ী ৪৮৪৭, ৪৮৪৮, আর দাউদ ৪৫৫৮, ইবনি মাজাহ ২৬৫২, আহম্মদ ২০০০, ২৬১৬, মালেক ১৬১৫। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ১৫. নিহতের অভিভাবকদের কিসাস এবং দিয়াত-এ দুটোর কোন একটির সুযোগ দেওয়া

১১৭৫. আবু শুরাইহ খুযাঈ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আমার এ ঘোষণার পর কোন খুনের বদলে আর্থিক ক্ষতিপূরণ [দিয়াত] গ্রহণ করিবে, নয় সে প্রাণদন্ডের [কিসাসের] দাবী করিবে। {১২৭৮}

{১২৭৮} আর দাউদ ৪৫০৪, তিরমিজি ১৪০৪, আহমদ ১৫৯৩৮, ১৫৯৪২। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১১৭৬.

হুরাইরা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

বৃখারী ও মুসলিমে বিদ্যমান আছে। {১২৭৯}

{১২৭৯} বোখারী ১১২, ২৪৩৪, ৬৪০১, মুসলিম ১৩৫৫, আবু দাউদ ২০১৭, ৩৬৪৯, ইবনি মাজাহ ২৬২৪, আহম্মদ ৭২০১, দারিমী ২৬০০। আবু হুরাইরা [রাদি.] থেকে লম্বা হাদীসে রয়েছে, [আরবী] আর যার কাউকে হত্যা করা হয় সে দু প্রকার দণ্ডের যে কোন একটি দেয়ার অধিকার লাভ করিবে। হয়ত রক্তপণ নেয়া হইবে, নতুবা কিসাস নেয়া হইবে। বুলুগুল মারাম বাংলা অনুবাদ হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply