বিপদাপদের সময় যা বলিতে হইবে

বিপদাপদের সময় যা বলিতে হইবে

বিপদাপদের সময় যা বলিতে হইবে  >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২. অধ্যায়ঃ বিপদাপদের সময় যা বলিতে হইবে

২০১১

উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে বলিতে শুনেছিঃ কোন মুসলিমের ওপর মুসীবাত আসলে যদি সে বলেঃ আল্লাহ যা হুকুম করিয়াছেন-

إِنَّا لِلَّهِ وَإِنَّا إِلَيْهِ رَاجِعُونَ

“ইন্না-লিল্লা-হি ওয়া ইন্না-ইলায়হি র-জিউন”

[অর্থাৎ- আমরা আল্লাহরই জন্যে এবং তাহাঁরই কাছে ফিরে যাব]

বলে এবং এ দুআ পাঠ করে-

إِنَّا لِلَّهِ وَإِنَّا إِلَيْهِ رَاجِعُونَ

আল্ল-হুম্মা জুর্‌নী ফী মুসীবাতী ও আখলিফ লী খয়রাম্‌ মিনহা- ইল্লা- আখলাফাল্ল-হু লাহূ খয়রাম্‌ মিনহা-

[অর্থাৎ- হে আল্লাহ! আমাকে আমার মুসীবাতে সাওয়াব দান কর এবং এর বিনিময়ে এর চেয়ে উত্তম বস্তু দান কর, তবে মহান আল্লাহ তাকে এর চেয়ে উত্তম বস্তু দান করে থাকেন]।

উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] বলেন, এরপর যখন আবু সালামাহ্‌ ইনতিকাল করেন, আমি মনে মনে ভাবলাম, কোন্‌ মুসলিম আবু সালামাহ্‌ থেকে উত্তম? তিনি সর্বপ্রথম ব্যক্তি, যিনি হিজরাত করে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর নিকট পৌছে গেছেন। এতদসত্বেও আমি এ দুআগুলো পাঠ করলাম। এরপর মহান আল্লাহ আবু সালামার স্থলে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর মতো স্বামী দান করিয়াছেন।

উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] বলেন, আমার নিকট রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বিয়ের পয়গাম পৌঁছাবার উদ্দেশে হাত্বিব ইবনি আবু বাল্‌তাআহ্‌ কে পাঠালেন। আমি বললাম, আমার একটা কন্যা আছে আর আমার জিদ বেশী। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেন, তার কন্যা সম্পর্কে আমি আল্লাহর কাছে দুআ করব যাতে তিনি তাকে তাহাঁর কন্যার দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তি দেন। আর [তার সম্পর্কে] দুআ করব যেন আল্লাহ তার জিদ দূর করে দেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১৯৯৫, ইসলামিক সেন্টার- ২০০২]

২০১২

নবী [সাঃআঃ] এর স্ত্রী উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে বলিতে শুনেছিঃ কোন বান্দার ওপর মুসীবাত আসলে যদি সে বলে

إِنَّا لِلَّهِ وَإِنَّا إِلَيْهِ رَاجِعُونَ اللَّهُمَّ أْجُرْنِي فِي مُصِيبَتِي وَأَخْلِفْ لِي خَيْرًا مِنْهَا إِلاَّ أَجَرَهُ اللَّهُ فِي مُصِيبَتِهِ وَأَخْلَفَ لَهُ خَيْرًا مِنْهَا 

“ইন্না-লিল্লা-হি ওয়া ইন্না- ইলায়হি র-জিউন, আল্লা-হুম্মা জুরনী ফী মুসীবাতী ওয়া আখলিফ লী খয়রাম্‌ মিনহা-ইল্লা- আজারাহুল্ল-হু ফী মুসীবাতিহী ওয়া আখলা ফা লাহূ খয়রাম্‌ মিনহা-

[অর্থাৎ- আমরা আল্লাহর জন্যে এবং আমরা তাহাঁরই কাছে ফিরে যাব। হে আল্লাহ! আমাকে এ মুসীবাতের বিনিময় দান কর এবং এর চেয়ে উত্তম বস্তু দান কর। তবে আল্লাহ তাকে তার মুসীবাতের বিনিময় দান করবেন এবং তাকে এর চেয়ে উত্তম বস্তু দান করবেন।]।

উম্মু সালামাহ [রাদি.] বলেন, এরপর যখন আবু সালামাহ্‌ ইনতিকাল করিলেন, আমি ঐরূপ দুআ করলাম যেরূপ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আদেশ করিয়াছেন। অতঃপর মহান আল্লাহ আমাকে তাহাঁর চেয়েও উত্তম নিআমাত অর্থাৎ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে স্বামীরূপে দান করিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১৯৯৬, ইসলামিক সেন্টার- ২০০৩]

২০১৩

নবী [সাঃআঃ] এর স্ত্রী উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে বলিতে শুনেছি, ….. পরবর্তী বর্ণনা উসামাহ্‌-এর হাদীস সদৃশ। তবে এ কথাটুকু বাড়িয়েছেনঃ উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] বলেন, এরপর যখন আবু সালামাহ্‌ [রাদি.] ইনতিকাল করিলেন, আমি মনে মনে বললামঃ আবু সালামাহ্‌ [রাদি.]-এর চেয়ে উত্তম মানুষ কে আছেন যিনি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর বিশিষ্ট সহাবী? অতঃপর আল্লাহ তাআলা আমাকে দৃঢ়তা দান করিলেন এবং আমি ঐরূপ দুআ করলাম। উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] বলেন, এরপর আমার বিয়ে হল রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর সাথে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১৯৯৭, ইসলামিক সেন্টার- ২০০৪]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply