নতুন লেখা

ঈমামদেরকে সংক্ষেপে পূর্ণাঙ্গ নামাজ আদায় করানোর নির্দেশ

ঈমামদেরকে সংক্ষেপে পূর্ণাঙ্গ নামাজ আদায় করানোর নির্দেশ

ঈমামদেরকে সংক্ষেপে পূর্ণাঙ্গ নামাজ আদায় করানোর নির্দেশ >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৩৭. অধ্যায়ঃ ঈমামদেরকে সংক্ষেপে পূর্ণাঙ্গ নামাজ আদায় করানোর নির্দেশ

৯৩১

আবু মাসউদ আনসারী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, এক ব্যক্তি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] -এর কাছে এসে বলিল, অমুক লোকের কারণে আমি ফাজরের সলাতে দেরীতে উপস্থিত হই। কারণ সে খুব লম্বা কিরাআত পাঠ করে। [রাবী বলেন] আমি সেদিনকার মতো আর কোন দিনের ওয়াজে নবী [সাঃআঃ] -কে এতোটা গোস্‌সা হইতে দেখিনি। তিনি বলিলেন, হে জনগণ! তোমাদের মধ্যে এমন কিছু লোক রয়েছে যারা মানুষকে ভাগিয়ে দেয়। তোমাদের যে কেউ ঈমামতি করে সে যেন নামাজ সংক্ষেপ করে। কেননা তার পিছনে বৃদ্ধ, দুর্বল এবং বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত লোকও রয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯২৬, ই.সে . ৯৩৮]

৯৩২

ইসমাঈল [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর সূত্রে হইতে বর্ণীতঃ

উপরের সানাদে হুশায়ম-এর হাদীসের অনুরূপ বর্ণিত হয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯২৭, ইসলামিক সেন্টার- ৯৩৯]

৯৩৩

আবু হুরায়রা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেনঃ তোমাদের কেউ যখন লোকেদের ঈমামতি করে সে যেন নামাজ হালকা এবং সংক্ষেপ কর। কেননা তাদের মধ্যে বালক, বৃদ্ধ, দুর্বল এবং রুগ্ন ব্যক্তিরাও রয়েছে। সে যখন একাকি নামাজ আদায় করিবে, তখন যত ইচ্ছা দীর্ঘ সুরা পড়তে পারে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯২৮, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪০]

৯৩৪

হাম্মাম ইবনি মুনাব্বিহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আবু হুরায়রা্হ্ [রাদি.] মুহাম্মাদুর রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] -এর কয়েকটি হাদীস বর্ণনা করিলেন। এগুলোর মধ্যে একটি হাদীস এই- রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ তোমাদের কোন ব্যক্তি লোকেদের সলাতে ঈমামতি করিতে দাঁড়ালে সে যেন নামাজ সংক্ষেপ করে। কেননা তাদের মধ্যে যেমন বৃদ্ধরা রয়েছে তেমন দুর্বলরাও রয়েছে। যখন সে একাকি নামাজ আদায় করে তখন নিজ ইচ্ছামত তার নামাজ দীর্ঘ করিতে পারে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯২৯, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪১]

৯৩৫

আবু হুরায়রা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তোমাদের কেউ যখন লোকেদের নিয়ে নামাজ আদায় করে সে যেন তা সংক্ষিপ্ত করে। কেননা এসব লোকের মধ্যে দুর্বল, রুগ্ন এবং বিভিন্ন প্রয়োজনে ব্যস্ত লোকও থাকতে পারে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩০, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪২]

৯৩৬

আবু হুরায়রা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এ সূত্রে উপরের হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করিয়াছেন। তবে এ বর্ণনায় রুগ্নের পরিবর্তে বৃদ্ধের উল্লেখ রয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩১, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪৩]

৯৩৭

উসমান ইবনি আবুল আস সাকাফী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, নবী [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তুমি তোমাদের গোত্রের লোকেদের সলাতে ঈমামতি কর। রাবী বলেন, আমি বললাম, হে আল্লাহর রসূল! আমি আমার অন্তরে কিছু একটা অনুভব করি। তিনি আমাকে বলিলেন, নিকটে আসো। তিনি আমাকে তাহাঁর সামনে বসালেন। অতঃপর আমার বুকের মাঝখানে তাহাঁর হাত রাখলেন। তিনি পুনরায় বলিলেন, ঘুরে বসো। তিনি আমার পিঁছে কাঁধ বরাবর হাত রাখলেন। অতঃপর তিনি বলিলেন,তুমি তোমার গোত্রের লোকেদের ঈমামতি কর। যে ব্যক্তি কোন সম্প্রদায়ের ঈমামতি করে সে যেন নামাজ সংক্ষিপ্ত করে। কেননা তাদের মধ্যে বৃদ্ধ, অসুস্থ, দূর্বল এবং বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত লোক রয়েছে। তোমাদের কেউ যখন একাকী নামাজ আদায় করিবে, সে তখন নিজ ইচ্ছামত নামাজ আদায় করিতে পারে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩২, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪৪]

৯৩৮

উসমান ইবনি আবুল আস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমার প্রতি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর সর্বশেষ নির্দেশ ছিলঃ তুমি যখন কোন সম্প্রদায়ের ঈমামতি করিবে তখন তাদের নামাজ সংক্ষিপ্ত করিবে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩৩, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪৫]

৯৩৯

আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, নবী [সাঃআঃ] সংক্ষিপ্ত অথচ পূর্ণাঙ্গ নামাজ আদায় করিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩৪, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪৬]

৯৪০

আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, লোকেদের মধ্যে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর নামাজ ছিল সবচেয়ে সংক্ষিপ্ত এবং পূর্ণাঙ্গ। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩৫, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪৭]

৯৪১

আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর পেছনে যত সংক্ষিপ্ত এবং পূর্ণাঙ্গ নামাজ আদায় করেছি-এরূপ সংক্ষিপ্ত এবং পূর্ণাঙ্গ নামাজ আর কখনো কোন ইমামের পিছনে আদায় করিনি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩৬, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪৮]

৯৪২

আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নামাজ রত অবস্থায় মায়ের সাথে আসা শিশুর কান্না শুনতে পেলে হালকা বা ছোটখাট সূরাহ্ দিয়ে নামাজ শেষ করে দিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩৭, ইসলামিক সেন্টার- ৯৪৯]

৯৪৩

আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, আমি নামাজ শুরু করে তা দীর্ঘ করার ইচ্ছা করি। এমতাবস্থায় আমি শিশুর কান্না শুনতে পাই। আমি তখন তার মায়ের অস্থিরতার কথা চিন্তা করে নামাজ সংক্ষিপ্ত করে দেই। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৯৩৮, ইসলামিক সেন্টার- ৯৫০]

About halalbajar.com

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Check Also

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে”

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে” মহান আল্লাহর …

Leave a Reply

%d bloggers like this: