পাওয়ার আকাঙ্খা ছাড়াই যদি পাওয়া যায় তবে তা গ্রহণ করা জায়িয

পাওয়ার আকাঙ্খা ছাড়াই যদি পাওয়া যায় তবে তা গ্রহণ করা জায়িয

পাওয়ার আকাঙ্খা ছাড়াই যদি পাওয়া যায় তবে তা গ্রহণ করা জায়িয  >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৩৭. অধ্যায়: চাওয়া অথবা পাওয়ার আকাঙ্খা ছাড়াই যদি পাওয়া যায় তবে তা গ্রহণ করা জায়িয

২২৯৫

সালিম ইবনি আবদুল্লাহ ইবনি উমর [রাদি.] থেকে তাহাঁর পিতার সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি উমর ইবনি খাত্তাব [রাদি.] কে বলিতে শুনেছি : রসূলুলাহ [সাঃআঃ] আমাকে কিছু উপঢৌকন দিতেন এবং আমি বলতাম, এটা আমাকে না দিয়ে যে আমার চেয়ে বেশী অভাবী তাকে দিন। এমনকি একবার তিনি আমাকে কিছু মাল দিলেন। আমি বললাম, আমার তুলনায় যার প্রয়োজন বেশী এটা তাকে দিন। তখন রসূলুলাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ এটা গ্রহণ কর এবং এছাড়া ঐ সব মালও গ্রহণ কর, যা কোন প্রকার লালসা ও প্রার্থনা ব্যতীতই তোমার কাছে এসে যায়। আর যা এভাবে আসে তা পাওয়ার ইচ্ছাও রেখো না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২২৭৩, ইসলামিক সেন্টার- ২২৭৪]

২২৯৬

আবদুল্লাহ ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুলাহ [সাঃআঃ] উমর ইবনিল খাত্ত্বাব [রাদি.]-কে কখনো কখনো কিছু মাল দান করিতেন। উমর [রাদি.] তাঁকে বলিতেন, হে আল্লাহর রসূল! আমার এ মালের প্রয়োজন নেই। আমার চেয়ে যার প্রয়োজন ও অভাব বেশী তাকে দিন। অতঃপর রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাকে বললেনঃ“এ মাল লও এবং নিজের কাছে রেখে দাও অথবা সাদকাহ করে দাও। তোমার কামনা ও প্রার্থনা ছাড়াই যে মাল তোমার কাছে এসে যায় তা রেখে দাও। আর যা এভাবে না আসে তার জন্য অন্তরে আশা পোষন করো না। বর্ণনাকারী সালিম [রাদি.] বলেন, এ কারণে ইবনি উমর [রাদি.] কারে কাছে কিছু চাইতেন না এবং কেউ যদি [না চাওয়া সত্ত্বেও] তাকে কিছু দিতেন তাহলে তিনি এটা ফেরতও দিতেন না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২২৭৪, ইসলামিক সেন্টার- ২২৭৫]

২২৯৭

উমর ইবনিল খাত্ত্বাব [রাদি.] এর সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

উপরের হাদীসের অনুরূপ হাদীস বর্ণিত হয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২২৭৫, ইসলামিক সেন্টার- ২২৭৬]

২২৯৮

ইবনি সাইদী আল মালিকী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, উমর [রাদি.] আমাকে যাকাত আদায়ের জন্য কর্মচারী হিসেবে নিয়োগ করিলেন। অতঃপর আমি যখন এ কাজ সমাধা করলাম এবং আদায়কৃত সম্পদ তাহাঁর কাছে দিলাম-তিনি আমাকে কিছু পারিশ্রমিক দেয়ার নির্দেশ দিলেন। আমি বললাম, আমি এ কাজ শুধু আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য করেছি। সুতরাং আমার পারিশ্রমিক শুধু আল্লাহর কাছেই পাওয়ার আশা করি। তিনি [উমর] বলিলেন, আমি যা দিচ্ছি, নিয়ে নাও। আমিও একবার রসূলুলাহ [সাঃআঃ] এর সময় এ কাজ করেছি। তিনি আমাকে পারিশ্রমিক হিসেবে কিছূ দিয়ে দিলেন তখন আমিও তাঁকে তোমার মত একই কথা বলেছিলাম। রসূলুলাহ [সাঃআঃ] আমাকে বলেছিলেন : “যদি তোমার আবেদন ছাড়াই কেউ কোন কিছু দান করে তুমি তা গ্রহণ করিবে এবং অপরকেও দান করিবে।” [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২২৭৬, ই.সে ২২৭৭]

২২৯৯

ইবনি আস্ সাদী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, উমর ইবনিল খাত্ত্বাব [রাদি.] যাকাত আদায় করার জন্যে কর্মচারী হিসেবে নিয়োগ করিলেন …….. অবশিষ্ট অংশ লায়স বর্ণিত হাদীসের অনুরূপ। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২২৭৭, ই.সে ২২৭৮]

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply