পশুর মুখে আঘাত করা এবং দাগ লাগানো নিষিদ্ধ

পশুর মুখে আঘাত করা এবং দাগ লাগানো নিষিদ্ধ

পশুর মুখে আঘাত করা এবং দাগ লাগানো নিষিদ্ধ >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৯. অধ্যায়ঃ পশুর মুখে আঘাত করা এবং দাগ লাগানো নিষিদ্ধ

৫৪৪৩

আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] [প্রাণীর] মুখে আঘাত করিতে এবং মুখে সেক লাগাতে বারণ করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৩৬৮, ইসলামিক সেন্টার- ৫৩৮৭]

৫৪৪৪

জাবির ইবনি আবদুল্লাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বারণ করিয়াছেন, … [উপরোক্ত হাদীসের হুবহু বর্ণনা করিয়াছেন]। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৩৬৯, ইসলামিক সেন্টার- ৫৩৮৮]

৫৪৪৫

জাবির [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর সামনে দিয়ে একটি গাধা যাচ্ছিল, যার মুখে দাগ দেয়া হয়েছিল। তিনি বলিলেন, যে ব্যক্তি একে দাগ লাগিয়েছে, আল্লাহ তাকে অভিসম্পাত করুন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৩৭০, ইসলামিক সেন্টার- ৫৩৮৯]

৫৪৪৬

ইবনি আব্বাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মুখে দাগ বিশিষ্ট একটি গাধা দেখে তাতে বিরক্তিবোধ প্রকাশ করেছিলেন। তিনি [ইবনি আব্বাস] বলেন, আল্লাহ্‌র শপথ! আমি তার মুখের কিনারায় দাগ লাগাব। এরপর তিনি তাহাঁর একটি গাধার উপর আদেশ জারি করিলেন। অতঃপর তার দু পাছায় দাগ দিয়ে দেয়া হলো। ফলে তিনিই হলেন পাছায় দাগ লাগানোর প্রথম ব্যক্তি [ও প্রবর্তক]। {১} [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৩৭১, ইসলামিক সেন্টার- ৫৩৯০]

{১} নিতম্ব প্রান্তে সর্বপ্রথম দাগ লাগিয়ে ছিলেন আব্বাস [রাদি.]। তবে সম্ভবতঃ এ পদ্ধতির ব্যাপক প্রচলন ঘটেছিল ইবনি আব্বাস [রাদি.] এর আমলের মাধ্যমে। এজন্য তাঁকে প্রথম ব্যক্তি বলা হয়েছে।

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply