ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী বিদ্রোহীদের সাথে যুদ্ধ

ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী বিদ্রোহীদের সাথে যুদ্ধ

ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী বিদ্রোহীদের সাথে যুদ্ধ >> বুলুগুল মারাম এর মুল সুচিপত্র দেখুন

অধ্যায় – ৩ঃ ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী বিদ্রোহীদের সাথে যুদ্ধ

পরিচ্ছেদ ৩০. মুসলমানদের উপর অস্ত্র উত্তোলন করার ব্যাপারে সতর্কীকরণ
পরিচ্ছেদ ৩১. ইসলামী রাষ্ট্রের আনুগত্য ত্যাগ করা এবং দল থেকে পৃথক হয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সতর্কীকরণ
পরিচ্ছেদ ৩২. একটি বিদ্রোহী দল কর্তৃক সাহাবী আম্মার [রাদি.] কে হত্যা করা প্রসঙ্গে
পরিচ্ছেদ ৩৩. বিদ্রোহীদের সাথে লড়াই করার সময় যা করা নিষেধ
পরিচ্ছেদ ৩৪. সংঘবদ্ধ থাকাবস্থায় এই উম্মতকে বিচ্ছিন্নকারীর হুকুম

পরিচ্ছেদ ৩০. মুসলমানদের উপর অস্ত্র উত্তোলন করার ব্যাপারে সতর্কীকরণ

১১৯২. ইবনি উমার হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আমাদের উপরে [কোন মুসলিমের উপরে] অস্ত্র উত্তোলন করিবে সে আমদের দলভুক্ত নয়। {১২৯৯}

{১২৯৯} বোখারী ৭০৭০, মুসলিম ৯৮, নাসাঈ ৪১০০, ইবনি মাজাহ ২৫৭৬, আহম্মদ ৪৫৫৩,৪৬৩৫,৫১২৭,৬২৪১। ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ৩১. ইসলামী রাষ্ট্রের আনুগত্য ত্যাগ করা এবং দল থেকে পৃথক হয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সতর্কীকরণ

১১৯৩. আবু হুরাইরা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নাবী [সাঃআঃ] বলেনঃ যে ব্যক্তি [ইসলামী রাস্ত্র নায়কের] আনুগত্য ত্যাগ করিবে, মুমিন্দের দল থেকে সরে গিয়ে মারা যাবে, সে জাহিলী অবস্থায় মরবে। [অর্থাৎ ইসলাম বর্জিত অবস্থায় তার মৃত্যু হইবে]। }১৩০০}

{১৩০০} মুসলিম ১৮৪৮, নাসাঈ ৪১১৪, ইবনি মাজাহ ৩৯৪৮, আহম্মদ ৭৮৮৪,৮০০০,৯৯৬০। ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ৩২. একটি বিদ্রোহী দল কর্তৃক সাহাবী আম্মার [রাদি.] কে হত্যা করা প্রসঙ্গে

১১৯৪. উম্মু সালামাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ সাহাবী আম্মার [রাদি.]-কে একটি বিদ্রোহী দল হত্যা করিবে। {১৩০১}

{১৩০১} মুসলিম ২৯১৬, আহম্মদ ২৫৯৪৩,২৬০২৩। ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

পরিচ্ছেদ ৩৩. বিদ্রোহীদের সাথে লড়াই করার সময় যা করা নিষেধ

১১৯৫. ইবনি উমার [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ইবনি মাসউদ [রাদি.] কে বলেছিলেন – হে উম্মু আব্দের পুত্র! তুমি কি জান এ উম্মতের বিদ্রোহীদের জন্য মহান আল্লাহ্‌ কি ফয়সালা দিয়েছেন? তিনি ইবনি মাসউদ বলেনঃ আল্লাহ্‌ ও তার রাসূলই ভালো জানেন। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ বিদ্রোহী জখমীদের ব্যান্ডেজ [সেবা] করা যাবে না, কয়েদীদের হত্যা করা যাবে না, পলায়নকারীদের অনুসন্ধান করা যাবে না, তাহাদের গানিমাতের মাল বন্টিত হইবে না। {১০৩২}

{১৩০২} বাযাযার ১৮৪৯, হাকিম ২৫৫। ঈমাম হাইসামী তাহাঁর মাজমাউয যাওয়ায়িদ ৬/২৪৬ গ্রন্থে বলেন, এর সনদে কাউসার বিন হাকীম বিদ্যমান, আর সে হচ্ছে দুর্বল পরিত্যাজ্য। ইবনি হযম তাহাঁর আল মাহাল্লা ১১/১০২ গ্রন্থে উক্ত বর্ণনাকারী সম্পর্কে বলেন, নিঃসন্দেহে তাহাঁর হাদিস পরিত্যাজ্য। ইবনি উসাইমীনও শরহে বুলুগুল মারাম ৫/২৯৯ গ্রন্থে হাদিসটিকে মাতরূক বলেছেন। ইবনি হিব্বান তাহাঁর আল মাজরুহীন ২/২৩৩ গ্রন্থে বলেন, প্রসিদ্ধ হাদিস বিশারদ্গণ তাকে মুনকার বর্ণনাকারীদের অন্তর্ভুক্ত করিয়াছেন। প্রসিদ্ধ হাদিস বিশারদগণ থেকে তিনি মুনকার হাদিস বর্ণনা করিয়াছেন। তিনি বিশুদ্ধ বর্ণনাকারী থেকে হাদিস বর্ণনা করলেও সেগুলো শক্তিশালী নয়। ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী হাদিসের তাহকিকঃ অন্যান্য

১১৯৬. আলী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

এটি সহিহ সনদে মাওকূফ হিসেবে বর্ণিত হয়েছে। মুসান্নাফ ইবনি আবু শায়বাহ, হাকিম।

{১} তাওযিহুল আহকাম ৬/১৮৪.//ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী হাদিসের তাহকিকঃ খুবই দুর্বল

পরিচ্ছেদ ৩৪. সংঘবদ্ধ থাকাবস্থায় এই উম্মতকে বিচ্ছিন্নকারীর হুকুম

১১৯৭. আরফাজাহ ইবনি শুরাইহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেনঃ আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছি, তিনি বলেছিলেনঃ তোমাদের সংঘবদ্ধ থাকা অবস্থায় যদি কেউ আসে আর সে তোমাদেরকে বিচ্ছিন্ন করার জন্য ইচ্ছা [চেষ্টা] করে তবে তোমরা তাকে হত্যা কর। {১৩০৩}

{১৩০৩} মুসলিম ১৮৫২, নাসাঈ ৪০২০, ৪০২১, ৪০২২, আবু দাঊদ ৪৭৬২, আহম্মদ ১৭৮৩১, ১৮৫২, ১৯৭৬৬ /ন্যায়ের সীমালঙ্ঘনকারী হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply