নতুন লেখা

নাবীয , যবের শরাব পান করা নিষেধ। কদুর খোল, মাটির পাত্র ও আলকাতরা

নাবীয , যবের শরাব পান করা নিষেধ। কদুর খোল, মাটির পাত্র ও আলকাতরা

নাবীয , যবের শরাব পান করা নিষেধ। কদুর খোল, মাটির পাত্র ও আলকাতরা >> সুনানে নাসাই শরিফের মুল সুচিপত্র দেখুন

পর্বঃ ৫২, বিভিন্ন প্রকার পানীয়, হাদীস (৫৬১১-৫৬৫৮)

  1. পরিচ্ছেদঃ যবের তৈরি শরাব পান করা নিষেধ
  2. পরিচ্ছেদঃ যে পাত্রে নাবী [সাঃআঃ]- এর নাবীয১ তৈরি করা হত
  3. পরিচ্ছেদঃ যে সকল পাত্রে নাবীয তৈরি নিষেধ এবং যে সব পাত্রে নিষেধ নয়। মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি করা নিষেধ
  4. পরিচ্ছেদঃ সবুজ কলসি
  5. পরিচ্ছেদঃ কদুর পাত্রে নাবীয তৈরি করা নিষেধ
  6. পরিচ্ছেদঃ কদুর খোল এবং আলকাতরা মাখানো কলসির নাবীয নিষেধ
  7. পরিচ্ছেদঃ কদুর খোল, মাটির পাত্র এবং কাঠের পাত্রে নাবীয তৈরি করা নিষেধ
  8. পরিচ্ছেদঃ কদুর খোল, মাটির পাত্র ও আলকাতরা মাখা কলসে নাবীয নিষেধ হওয়া
  9. পরিচ্ছেদঃ কদুর খোল, কাঠের পাত্র আলকাতরা মাখা পাত্র এবং মাটির পাত্রে তৈরি নাবীয থেকে নিষেধাজ্ঞা
  10. পরিচ্ছেদঃ আলকাতরা মাখা পাত্র
  11. পরিচ্ছেদঃ উপরোল্লিখিত পাত্রসমূহের নিষেধাজ্ঞা চূড়ান্ত হারাম পর্যায়ের, কেবল শিষ্টাচারমূলক নয়, এ কথার দলীল
  12. পরিচ্ছেদঃ পাত্রসমূহের ব্যাখা
  13. পরিচ্ছেদঃ যে সকল পাত্রে নাবীযের অনুমতি রয়েছে
  14. পরিচ্ছেদঃ মাটির পাত্রের অনুমতি প্রসঙ্গে
  15. পরিচ্ছেদঃ যে যে পাত্রে অনুমতি দেয়া হইয়াছে
  16. পরিচ্ছেদঃ মদের প্রকৃত অবস্থা

পরিচ্ছেদঃ যবের তৈরি শরাব পান করা নিষেধ

৫৬১১. আলী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, নাবী [সাঃআঃ] সোনার বালা ও রেশমী কাপড় পরিধান করিতে, আর রেশমী লাল জীনপোশে সওয়ার হইতে এবং যবের তৈরি শরাব পান করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬১২. সাসা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

সাসা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] আলী ইবনি আবু তালিব [রাঃআঃ] কে বললেনঃ হে আমীরুল মুমিনীন! আপনি আমাদেরকে ঐ সকল বস্তু হইতে নিষেধ করুন, যা থেকে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আপনাকে নিষেধ করিয়াছেন। তিনি বললেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আমাকে দুব্বা এবং হানতাম থেকে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে পাত্রে নাবী [সাঃআঃ]- এর নাবীয১ তৈরি করা হত

________________________________________

{১} নাবীয হলো – খেজুর বা আঙ্গূর থেকে তৈরি মদ।

৫৬১৩. জাবির [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

নাবী [সাঃআঃ]- এর জন্য পাথরের পাত্রে নাবীয তৈরি করা হতো।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে সকল পাত্রে নাবীয তৈরি নিষেধ এবং যে সব পাত্রে নিষেধ নয়। মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি করা নিষেধ

৫৬১৪. তাউস [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, এক ব্যক্তি ইবনি উমার [রাঃআঃ]-কে বললোঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কি মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন? তিনি বললেনঃ হ্যাঁ। তাউস [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, আল্লাহর শপথ! আমি তাহাঁর নিকট থেকে এটা শুনিয়াছি।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬১৫. তাউস [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, এক ব্যাক্তি ইবনি উমার [রাঃআঃ]-এর নিকট এসে বললোঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কি মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন? তিনি বললেনঃ হ্যাঁ। ইব্‌রাহীম তাহাঁর হাদীসে উল্লেখ করেছেনঃ আর কদুর খোলেও।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬১৬. ইবনি আব্বাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মাটির মটকায় তৈরি নাবীয পান করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬১৭. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হান্‌তাম ব্যবহার করিতে নিষেধ করিয়াছেন। আমি বললামঃ হান্‌তাম কি? তিনি বললেনঃ হান্‌তাম হলো মাটির তৈরি পাত্র।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬১৮. আবদুল আযীয ইবনি আসীদ তাহী বসরী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

ইবনি যুবায়র [রাঃআঃ]- এর নিকট মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে তিনি বললেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আমাদেরকে তা থেকে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬১৯. সাঈদ ইবনি জুবায়র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমরা ইবনি উমার [রাঃআঃ] কে মাটির পাত্রে নাবীয প্রস্তুত করা সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলে, তিনি বললেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তা হারাম করিয়াছেন। পরে আমি ইবনি আব্বাস [রাঃআঃ] এর নিকট এসে বললামঃ আজ আমি এমন কথা শুনলাম, যাতে আমি বিস্মিত হইয়াছি। তিনি বললেনঃ তা কি? আমি বললামঃ আমি ইবনি উমার [রাঃআঃ] কে মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলে তিনি বললেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তা হারাম করিয়াছেন। তিনি বললেনঃ ইবনি উমার [রাঃআঃ] সত্যই বলেছেন। আমি বললামঃ জার কি বস্তু ? তিনি বললেনঃ মাটির পাত্র।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬২০. সাঈদ ইবনি জুবায়র [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি ইবনি উমার [রাঃআঃ]-এর নিকট ছিলাম। তখন তাঁকে মাটির পাত্রের নাবীয সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে, তিনি বললেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তা হারাম করিয়াছেন। এটা যখন শুনলাম, বিষয়টা আমার কাছে কঠিন মনে হল। তাই আমি ইবনি আব্বাস [রাঃআঃ]-এর নিকট গিয়ে তাঁকে বললামঃ ইবনি উমার [রাঃআঃ]-কে একটি কথা জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি যে উত্তর দিলেন, তা আমার কাছে কঠিন মনে হচ্ছে। তিনি বললেনঃ সেটা কি? আমি বললামঃ তাঁকে মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে এই বলেছেন। তিনি বললেনঃ তিনি ঠিকই বলেছেন। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তা হারাম করিয়াছেন। আমি বললামঃ জার কী বস্তু ? তিনি বললেনঃ মাটির নির্মিত পাত্র।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ লিগাইরিহি

পরিচ্ছেদঃ সবুজ কলসি

৫৬২১. শায়বানী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

আমি ইবনি আবু আওফা [রাঃআঃ] কে বলিতে শুনিয়াছি যে, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন। আমি জিজ্ঞেস করলামঃ সাদা পাত্রে? তিনি বললেনঃ আমি জানি না।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬২২. আবু ইসহাক শাইবানী হইতে বর্ণিতঃ

আমি ইবনি আবু আওফা [রাঃআঃ] কে বলিতে শুনিয়াছি যে, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] সবুজ ও সাদা মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬২৩. আবু রাজা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি হাসান [রাঃআঃ] কে মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলামঃ তা কি হারাম? তিনি বললেনঃ তা হারাম। আমার নিকট এমন ব্যাক্তি যিনি কখনও মিথ্যা বলেন নি, বর্ণনা করিয়াছেন যে, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মাটির পাত্র, কাষ্ঠ পাত্র এবং কদুর খোলে নাবীয তৈরি করিতে নিষধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ লিগাইরিহি

পরিচ্ছেদঃ কদুর পাত্রে নাবীয তৈরি করা নিষেধ

৫৬২৪. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোল ব্যবহার নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬২৫. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোল ব্যবহার নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ কদুর খোল এবং আলকাতরা মাখানো কলসির নাবীয নিষেধ

৫৬২৬. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] দুব্বা এবং আলকাতরা মাখানো কলসির ব্যবহার [অর্থাৎ তাতে নাবীয তৈরি করিতে] থেকে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬২৭. আলী [রাঃআঃ] নাবী [সাঃআঃ] থেকে হইতে বর্ণিতঃ

তিনি কদুর খোল এবং আলকাতরা মাখানো কলসি ব্যবহার নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬২৮. আব্দুর রহমান ইবনি ইয়ামুর [রাঃআঃ] নাবী [সাঃআঃ] থেকে হইতে বর্ণিতঃ

তিনি কদুর খোল এবং আলকাতরা মাখানো কলসি ব্যবহার নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬২৯. আনাস ইবনি মালিক [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোল এবং আলকাতরা মাখানো কলসে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৩০. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] দুব্বা ও আলকাতরা মাখানো কলসে নার্বীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৩১. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আলকাতরা মাখানো কলস ও কদুর খোল থেকে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ কদুর খোল, মাটির পাত্র এবং কাঠের পাত্রে নাবীয তৈরি করা নিষেধ

৫৬৩২. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোল, মাটির পাত্র এবং কাষ্ঠ নির্মিত পাত্রে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৩৩. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মাটির পাত্র, কদুর খোল এবং কাঠের পাত্রে তৈরি নাবীয পান করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ কদুর খোল, মাটির পাত্র ও আলকাতরা মাখা কলসে নাবীয নিষেধ হওয়া

৫৬৩৪. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোল, মাটির পাত্র এবং আলকাতরা মাখা কলসে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৩৫. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মাটির পাত্র, কদুর খোল এবং আলকাতরা মাখা পাত্রের ব্যবহার নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৩৬. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]- কে দুব্বা, হান্তাম এবং আলকাতরা মাখা পাত্রে পান করিতে নিষেধ করিতে শুনিয়াছি। যয়তুন তেল এবং সিরকা এ থেকে পৃথক।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

পরিচ্ছেদঃ কদুর খোল, কাঠের পাত্র আলকাতরা মাখা পাত্র এবং মাটির পাত্রে তৈরি নাবীয থেকে নিষেধাজ্ঞা

৫৬৩৭. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোল, সবুজ কলস, কাঠের পাত্র, আলকাতরা মাখা পাত্র থেকে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৩৮. ছুমামা ইবনি কুশায়রী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

আমি আয়েশা [রাঃআঃ]-এর সাথে সাক্ষাত করে তাহাঁর নিকট নাবীয সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করলাম। তিনি বললেনঃ আবদুল কায়স গোত্রের লোক রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]- এর নিকট উপস্থিত হইয়া তাঁকে নাবীয তৈরির পাত্র সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করেছিল। নাবী [সাঃআঃ] তাহাদেরকে কদুর খোল, কাঠের তৈরি পাত্র ও সবুজ কলসে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৩৯. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোলে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৪০. আয়েশা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কাঠের পাত্র, আলকাতরা মাখা পাত্র, কদুর খোল এবং সবুজ কলসে তৈরি নাবীয পান করিতে নিষেধ করিয়াছেন। ইবনি উলাইয়ার হাদীসে আছে। ইসহাক বলেছেনঃ হুনায়দা আয়েশা [রাঃআঃ]-থেকে মুআয [রাঃআঃ]-এর হাদিসের ন্যায় বর্ণনা করেন। তিনি পাত্রের নাম উল্লেখ করিয়াছেন। আমি হুনায়দাকে জিজ্ঞাসা করলামঃ আপনি কি আয়েশা [রাঃআঃ]- কে কলসিগুলোর নাম বলিতে শুনেছেন? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৪১. শারীক ইবনি আবানের কন্যা হুনায়দা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

আমি খুরায়বা নামক স্থানে আয়েশা [রাঃআঃ]-এর সাথে মিলিত হলাম। আমি তাহাঁর নিকট শরাবের তলানী সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করলাম। তিনি আমাকে তা থেকে নিষেধ করিলেন। তিনি বললেনঃ নাবীয সন্ধ্যায় ভেজাবে এবং ভোরে পান করিবে। আর যদি তা কোন মশকে থাকে, তবে তার মুখ বন্ধ করে দেবে। আর তিনি আমাকে কদুর খোল, কাষ্ঠের পাত্র, আলকাতরা মাকা পাত্র অ সবুজ কলস ব্যবহার করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আলকাতরা মাখা পাত্র

৫৬৪২. আনাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মুযাফফাত [আলকাতরা মাখা পাত্র] পাত্র থেকে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ উপরোল্লিখিত পাত্রসমূহের নিষেধাজ্ঞা চূড়ান্ত হারাম পর্যায়ের, কেবল শিষ্টাচারমূলক নয়, এ কথার দলীল

৫৬৪৩. ইবনি উমার এবং ইবনি আব্বাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তাঁরা উভয়ে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] সম্পর্কে সাক্ষ্য দান করেন যে, তিনি কদুর খোল, সবুজ কলস, আলকাতরা মাখা পাত্র এবং কাঠের পাত্র থেকে নিষেধ করিয়াছেন। এরপর রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এই আয়াত পাঠ করেনঃ অর্থাৎ রাসূল [সাঃআঃ] তোমাদেরকে যা দান করেন তা গ্রহণ করো আর যা হইতে তিনি তোমাদের নিষেধ করেন, তা থেকে তোমরা বিরত থাক। [সুরা হাশরঃ ৭]

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৪৪. আসমা বিনত ইয়াযীদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

তাহাঁর চাচাতো ভাই আনাস [রাঃআঃ]-এর নিকট শ্রবণ করিয়াছেন, তিনি বলেছেনঃ আল্লাহ তাআলা কি বলেন নি যে, “রাসূল [সাঃআঃ] তোমাদেরকে যা দেন, তা তোমরা গ্রহণ কর; আর তিনি তোমাদেরকে যা থেকে নিষেধ করেন, তা থেকে তোমরা বিরত থাক।” আমি বললামঃ হ্যাঁ। তিনি আবার বললেনঃ আল্লাহ তাআলা কি বলেন নি যে, “যখন আল্লাহ এবং তাহাঁর রাসূল কোন বিষয়ে আদেশ করেন, তখন মুসলমান পুরুষ অথবা নারীর সে বিষয়ে কোন এখতিয়ার থাকে না।” আমি বললামঃ হ্যাঁ। তিনি বললেনঃ আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, নাবী [সাঃআঃ] নিষেধ করিয়াছেন কাঠের পাত্র, আলকাতরা মাখা পাত্র, কদুর খোল এবং সবুজ কলস থেকে।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ পাত্রসমূহের ব্যাখা

৫৬৪৫. যাযান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

আমি আবদুল্লাহ ইবনি উমার [রাঃআঃ]-কে বললামঃ আপনি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর নিকট পাত্র সম্বন্ধে যা শ্রবণ করিয়াছেন, তা আমার নিকট বর্ণনা করুন। তিনি বললেনঃ রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিষেধ করিয়াছেন হানতাম [সবুজ কলসি] থেকে যাকে তোমরা জাররা বলে থাক। আর তিনি দুব্বা [কদুর খোল] হইতে নিষেধ করিয়াছেন, যাকে তোমরা কার বলে থাক। আর তিনি নাকীর হইতে নিষেধ করিয়াছেন; যা খেজুর গাছ হইতে নির্মিত পাত্র। আর তিনি মুযাফফাত হইতে নিষেধ করিয়াছেন, আর তা হলো আলকাতরা মাখা পাত্র।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে সকল পাত্রে নাবীযের অনুমতি রয়েছে

৫৬৪৬. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আবদুল কায়সের প্রতিনিধি দল আসলে তাহাদেরকে দুব্বা, হান্তাম, নাকীর এবং মুযাফফাত হইতে নিষেধ করেন। তিনি বলেনঃ তোমরা নিজেদের মশকে নাবীয তৈরি করিবে এবং তার মুখ বেধে রাখবে আর তা মিষ্টি করে পান করিবে। উপস্থিত লোকের একজন বললোঃ ইয়া রসূলুল্লাহ! আমাকে এতটুকুতে অনুমতি দান করুন। তিনি হাতে ইঙ্গিত করে বললেনঃ তাহলে তুমি এতখানি করিবে [অর্থাৎ সীমালঙ্ঘন করিবে]।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৪৭. আবুস-যুবায়ের হইতে বর্ণিতঃ

আমি জাবির [রাঃআঃ] কে বলিতে শুনিয়াছি, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোল, মাটির কলসি এবং কাঠের পাত্র হইতে নিষেধ করিয়াছেন। নাবী [সাঃআঃ] যখন তাহাঁর নিকট নাবীয তৈরি করার জন্য কোন পাত্র পেতেন না তখন তাহাঁর জন্য পাথরের পাত্রে নাবীয বানানো হতো।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৪৮. জাবির [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর জন্য মশকে নাবীয বানানো হতো; যদি মশক না হতো তবে পাথরের পাত্রে। তিনি কদুর খোল, কাঠের পাত্র ও আলকাতরা মাখা পাত্রে পান করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৪৯. জাবির [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কদুর খোল, কাঠের পাত্র ও আলকাতরা মাখা পাত্র হইতে নিষেধ করিয়াছেন।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ মাটির পাত্রের অনুমতি প্রসঙ্গে

৫৬৫০. আবদুল্লাহ [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ঐ মাটির পাত্রে নাবীয তৈরি করার অনুমতি দিয়েছেন, যাতে আলকাতরার প্রলেপ দেয়া হয়নি।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে যে পাত্রে অনুমতি দেয়া হইয়াছে

৫৬৫১. বুরায়দা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আমি তোমাদেরকে কুরবানীর গোশত জমা রাখতে নিষেধ করেছিলাম, এখন তোমরা তা খাও এবং জমা করে রাখতে পার। আর যদি কেউ কবর যিয়ারত করিতে মনস্থ করে, সে করিতে পারে। কেননা, কবর যিয়ারত আখিরাতের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। আর যে কোন পাত্রে তোমরা পানীয় দ্রব্য গ্রহণ করিতে পার, কিন্তু মাদকদ্রব্য হইতে দূরে থাকিবে।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৫২. বুরায়দা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আমি তোমাদেরকে কবর যিয়ারত করিতে নিষেধ করেছিলাম; কিন্তু এখন তোমরা কবর যিয়ারত করিতে পার। আর আমি তোমাদেরকে তিন দিনের অধিক কুরবানীর গোশত রাখতে নিষেধ করেছিলাম; এখন তোমাদের যতদিন ইচ্ছা গোশত রাখতে পার। আমি তোমাদেরকে মশক ব্যতীত অন্য পাত্রে নাবীয তৈরি করিতে নিষেধ করেছিলাম, এখন তোমরা সকল পাত্রেই নাবীয তৈরি করে পান করিতে পার, কিন্তু মাদকদ্রব্য পান করিবে না।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৫৩. বুরায়দা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আমি তোমাদেরকে তিনটি বস্তু হইতে নিষেধ করেছিলাম। একটি হল, কবর যিয়ারত, এখন তোমরা কবর যিয়ারত করিতে পার। কেননা এতে তোমাদের জন্য উপকার রয়েছে। আর তোমাদেরকে তিন দিনের অধিক কুরবানীর গোশত হইতে নিষেধ করেছিলাম; এখন যতদিন ইচ্ছা তা খেতে পার। আমি কিছু পাত্র হইতে তোমাদেরকে নিষেধ করেছিলাম, এখন তোমরা যে কোন পাত্রে পান করিতে পার, কিন্তু মাদকদ্রব্য পান করিবে না।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৫৪. বুরায়দা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আমি তোমাদেরকে কোন কোন পাত্র হইতে নিষেধ করেছিলাম, এখন তোমরা যে কোন পাত্রে নাবীয তৈরি কর, কিন্তু প্রত্যেক মাদকদ্রব্য হইতে দূরে থাকিবে।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৫৫. বুরায়দা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

একদা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] যখন সফরে বের হন, তখন একদল লোককে হৈ-হল্লা করিতে শুনে তিনি জিজ্ঞাসা করেনঃ এটা কিসের আওয়াজ? তারা বললোঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! তাহাদের এক প্রকার পানীয় আছে, তারা তা পান করছে। তিনি তাহাদেরকে ডেকে বললেনঃ তোমরা কোন পাত্রে নাবীয তৈরি করে থাক। তারা বললোঃ কাঠের পাত্র, কদুর খোল ছাড়া আমাদের নিকট অন্য কোন পাত্র নেই। তিনি বললেনঃ তোমরা শুধু এমন পাত্রে নাবীয তৈরি করিবে যাহার মুখ বন্ধ করিতে পারবে। এরপর যতদিন আল্লাহর ইচ্ছা ছিল, ততদিন তিনি সেই সফরে ছিলেন। পরে তিনি তাহাদের নিকট প্রত্যাবর্তনকালে দেখলেন, তারা এক মহামারীতে আক্রান্ত হইয়া হলদে হইয়া গেছে। তিনি বললেনঃ কী হলো, তোমাদেরকে এমন অবস্থায় দেখছি কেন? তারা বললোঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আবহাওয়ার দরুন আমাদের এখানে মহামারী লেগে থাকে। আর আপনি তো আমাদের জন্য মুখ বন্ধ করা যায় এমন পাত্র ছাড়া সব পাত্রের নাবীয হারাম করিয়াছেন। তিনি বললেনঃ তোমরা পান কর। তবে জেনে রাখ, সব ধরনের মাদকদ্রব্য হারাম।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৫৬. জাবির [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] যখন পাত্র সম্বন্ধে নিষেধ করিলেন, তখন আনসার লোক অভিযোগ করলো যে, ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমাদের এখানে তো অন্য কোন প্রকার পাত্র নেই। তিনি বললেনঃ তবে কোন অসুবিধা নেই।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ মদের প্রকৃত অবস্থা

৫৬৫৭. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, মিরাজের রাত্রে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]- এর নিকট দুধ এবং শরাব উপস্থিত করা হলে, তিনি দুধকেই গ্রহণ করিলেন। জিবরাঈল [আঃ] তাঁকে বললেনঃ আল্লাহর শোকর যে, তিনি আপনাকে ফিতরাতে বা স্বভাব ধর্মের প্রতি হিদায়াত দান করিয়াছেন। যদি আপনি মদের পাত্র গ্রহণ করিতেন, তবে আপনার উম্মত পথভ্রষ্ট হতো।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৫৬৫৮. নাবী [সাঃআঃ]-এর এক সাহাবী নাবী [সাঃআঃ] থেকে হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমার উম্মতের কিছু লোক মদ পান করিবে, কিন্তু তারা এর অন্য নাম দেবে।

মদ নাবীজ ও বিভিন্ন প্রকার পানীয় ও তার বিধান হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

About halalbajar.com

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Check Also

কসম ও মানত

পর্বঃ ৩৫, কসম ও মান্নাত, হাদীস (৩৭৬১ – ৩৮৫৬) কসম করা ও যে সব নামের …

Leave a Reply

%d bloggers like this: