নাপাক অবস্থায় ঘুমানো জায়িয; তবে খাদ্যগ্রহণ

নাপাক অবস্থায় ঘুমানো জায়িয; তবে খাদ্যগ্রহণ

নাপাক অবস্থায় ঘুমানো জায়িয; তবে খাদ্যগ্রহণ >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৬. অধ্যায়ঃ নাপাক অবস্থায় ঘুমানো জায়িয; তবে খাদ্যগ্রহণ, শয়নকালে অথবা স্ত্রীর সাথে মেলামেশা করিতে চাইলে তার জন্যে ওযূ করা এবং লজ্জাস্থান ধুয়ে নেয়া মুস্তাহাব

৫৮৬

আয়েশাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসুলূল্লাহ্ [সাঃআঃ] নাপাকী অবস্থায় যখন ঘুমাতে ইচ্ছা করিতেন তখন ঘুমাবার আগে নামাজের জন্য যেমন ওযূ করিতে হয় তেমন ওযূ করিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯০, ইসলামিক সেন্টার- ৬০৬]

৫৮৭

আয়েশাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসুলূল্লাহ্ [সাঃআঃ] যখন নাপাক থাকতেন তখন কিছু খেতে অথবা ঘুমানো ইচ্ছা করলে ওযূ করে নিতেন যেমন, নামাজের ওযূ করিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯১, ইসলামিক সেন্টার- ৬০৭]

৫৮৮

মুহাম্মাদ ইবনি আল মুসান্না, ইবনি বাশশার ও উবাইদুল্লাহ্ ইবনি মুআয [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর সূত্রে হইতে বর্ণীতঃ

উক্ত সানাদে হাদীসটি বর্ণনা করিয়াছেন।

ইবনি আল মুসান্না তাহাঁর হাদীসে বলেছেন: আমাকে হাকাম বর্ণনা করে বলেন যে, আমি ইবরাহীমকে এ হাদীস বলিতে শুনেছি। [ ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯২, ইসলামিক সেন্টার- ৬০৮]

৫৮৯

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

একদিন উমর [রাদি.] জিজ্ঞেস করিলেন, ইয়া রসুলুল্লাহ্ [সাঃআঃ]! আমাদের কেউ নাপাক অবস্থায় কি ঘুমাতে পারবে? তিনি বললেনঃহ্যাঁ, যখন সে ওযূ করে নিবে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯৩, ইসলামিক সেন্টার- ৬০৮]

৫৯০

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

উমর [রাদি.] একবার নবী [সাঃআঃ] এর কাছে ফাতাওয়া জিজ্ঞেস করিলেন যে, আমাদের কেউ কি নাপাক অবস্থায় ঘুমাতে পারবে? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ, সে যেন ওযূ করে তারপর ঘুমায়। এরপর যখন ইচ্ছা গোসল করে নেয়। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯৪, ইসলামিক সেন্টার- ৬১০]

৫৯১

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

উমর ইবনিল খাত্তাব [রাদি.] একবার রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] কে বলিলেন, তিনি যদি রাতে [স্ত্রী সহবাসকালে] নাপাক হন [তাহলে কি করবেন]। অতঃপর রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] তাঁকে বলিলেন, তুমি [তখন] ওযূ করিবে এবং তোমার লজ্জাস্থান ধুয়ে ফেলবে তারপর ঘুমাবে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯৫, ইসলামিক সেন্টার- ৬১১]

৫৯২

আবদুল্লাহ্ ইবনি আবু কায়স [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসুলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এর বিতর সম্বন্ধে আয়েশাহ [রাদি.]-কে প্রশ্ন করলাম। তিনি [তৎবিষয়ে] হাদীস বর্ণনা করিলেন। আমি জিজ্ঞেস করলাম, তিনি নাপাকির সময় কী করিতেন, তিনি কি ঘুমাবার আগে গোসল করিতেন, না গোসল করার আগে ঘুমাতেন? তিনি {আয়েশাহ [রাদি.]} বলিলেন, সবই করিতেন। কখনো গোসল করে ঘুমাতেন আর কখনো ওযূ করে ঘুমিয়ে পড়তেন। আমি বললাম, সমস্ত প্রশংসা সে আল্লাহর যিনি সব কাজেই অবকাশ রেখেছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯৬, ইসলামিক সেন্টার- ৬১২]

৫৯৩

যুহায়র ইবনি হারব ও হারূন সাঈদ আল আইলী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] মুআবিয়াহ্ ইবনি সালিহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর সূত্রে হইতে বর্ণীতঃ

উক্ত সানাদে এ হাদীসটি বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯৭, ইসলামিক সেন্টার- ৬১৩]

৫৯৪

আবু সাঈদ আল খুদরী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলেছেন: তোমাদের কেউ যখন তার স্ত্রীর সাথে মিলিত হইবে তারপর আবার মিলিত হবার ইচ্ছা করিবে সে যেন ওযূ করে নেয়।

আবু বাকর তার হাদীসে উভয় মিলনের মধ্যে ওযূ করিবে বাক্যটি বাড়িয়েছেন এবং এর স্থলে [আরবী] বলেছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯৮, ইসলামিক সেন্টার- ৬১৪]

৫৯৫

আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] তাহাঁর সকল স্ত্রীর কাছে একই গোসলে যেতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৯৯, ইসলামিক সেন্টার- ৬১৫]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply