ছেলেদের প্রতি নবী সাঃ আঃ–এর দয়া, বিনয়, আন্তরিকতা…

ছেলেদের প্রতি নবী সাঃ আঃ–এর দয়া, বিনয়, আন্তরিকতা

ছেলেদের প্রতি নবী সাঃ আঃ–এর দয়া, বিনয়, আন্তরিকতা

১৫. অধ্যায়ঃ ছেলেদের প্রতি নবী সাঃ আঃ–এর দয়া, বিনয়, আন্তরিকতা এবং তাহাঁর মর্যাদা

৫৯১৯.আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ রাত্রে আমার একটি সন্তান ভূমিষ্ঠ হয়, আমি তার নাম আমার পিতা ইব্রাহীম [আঃ]-এর নামে রাখি। এরপর তিনি উম্মু সায়ফ নামক একজন মহিলাকে ঐ সন্তানটি দিলেন। তিনি একজন কর্মকারের সহধর্মিণী। কর্মকারের নাম আবু সায়ফ। নবী [সাঃআঃ] একদিন আবু সায়ফ-এর নিকট যাচ্ছিলেন আর আমিও তাহাঁর সঙ্গে যাচ্ছিলাম। যখন আমরা আবু সায়ফের গৃহে উপস্থিত হই তখন সে তার হাপর বা ফুঁকনীতে ফুঁক দিচ্ছিল, সারা গৃহ ধুঁয়ায় ভরপুর ছিল। আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর আগে দৌঁড়ে গিয়ে আবু সায়ফকে বললাম, তুমি একটু থামো। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] আসছেন। সে থামল। এরপর নবী [সাঃআঃ] ছেলেকে ডাকলেন এবং তাকে জড়িয়ে ধরে আদর করিলেন এবং যা আল্লাহ্‌র ইচ্ছা রয়েছে তা বলিলেন।

আনাস [রাদি.] বলেন, আমি এ ছেলেকে দেখলাম, সে রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সামনে বড় বড় শ্বাস ফেলছিল। তা দেখে রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]–এর দুনয়ন অশ্রু ভিজে গেল। আর তিনি বললেনঃ চোখ কাঁদছে, মন কাতর হচ্ছে, মুখে আমরা তাই বলব রব্বুল আলামীন যা পছন্দ করেন। হে ইব্রাহীম! আল্লাহ্‌র শপথ! আমরা তোমার জন্য খুবই ব্যথিত।

[ই.ফা.৫৮১৮, ইসলামিক সেন্টার-৫৮৫৩]

৫৯২০. আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর চাইতে শিশুদের প্রতি বেশী দয়াশীল আর কাউকে আমি দেখিনি। তিনি বলেন, [রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]–এর ছেলে] ইব্রাহীম [রাদি.] মাদীনার গ্রামাঞ্চলে দুধ পান করিতেন। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাঁকে দেখার জন্য সেখানে যেতেন আর আমরাও তাহাঁর সাথে যেতাম। তিনি দাইয়ের গৃহে ঢুকতেন, আর সেখানে ধুঁয়ায় আচ্ছন্ন থাকত। কেননা, তার দুধপিতা কর্মকার [কামার] ছিল। তিনি ছেলেকে কোলে তুলে চুমু খেতেন। পরে তিনি প্রত্যাবর্তন করিতেন।

আম্‌র ইবনি সাঈদ [রাদি.] বলেন, যখন ইব্রাহীম [রাদি.] মৃত্যুবরণ করেন তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ ইব্রাহীম আমার পুত্র, দুধ পান করা অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছে। তার জন্য দুধপিতা ও দুধমাতা রয়েছে, যারা জান্নাতে তাকে দুধ পান করার সময়-সীমা পর্যন্ত দুধ পান করাবে।

[ই.ফা.৫৮১৯, ইসলামিক সেন্টার-৫৮৫৪]

৫৯২১. আয়িশাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কাছে গেঁয়ো আরবীয় লোক আসলো। তারা প্রশ্ন করিল, আপনারা কি আপনাদের বাচ্চাদের চুমু দেন? উপস্থিত সবাই বলিলেন, হ্যাঁ! তখন তারা বলিলেন, কিন্তু আল্লাহ্‌র শপথ! আমরা তো তাদের চুমু দেই না। তারপর রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেন, আমি কি করবো, আল্লাহ্ যদি তোমাদের হইতে দয়া দূর করে নিয়ে থাকেন।

ইবনি নুমায়রের বর্ণনাতে আছে, তোমার অন্তর হইতে……।

[ই.ফা.৫৮২০, ইসলামিক সেন্টার-৫৮৫৫]

৫৯২২.আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আকরা ইবনি হাবিস [রাদি.] রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে দেখলেন যে, তিনি [ঈমাম] হাসান [রাদি.]-কে চুমু দিচ্ছেন। তখন আকরা ইবনি হাবিস [রাদি.] বলেন, হে আল্লাহ্‌র রসূল! আমার দশটি সন্তান রয়েছে। আমি তাদের কাউকে চুমু দেইনি। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ যারা দয়া করে না [আল্লাহ্ কর্তৃক] তাদের প্রতি দয়া করা হইবে না।

[ই.ফা.৫৮২১, ইসলামিক সেন্টার-৫৮৫৬]

৫৯২৩. আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.]-এর সানাদে নবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণীতঃ

অবিকল হাদীস রিওয়ায়াত করিয়াছেন।

[ই.ফা.৫৮২২, ইসলামিক সেন্টার-৫৮৫৭]

৫৯২৪. জারীর ইবনি আবদুল্লাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে লোক মানুষের প্রতি দয়া প্রদর্শন করে না [কিয়ামতের দিন] আল্লাহও তার প্রতি দয়া প্রদর্শন করবেন না।

[ই.ফা.৫৮২৩, ইসলামিক সেন্টার-৫৮৫৮]

৫৯২৫. জারীর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

আমাশের হাদীসের হুবহু রিওয়ায়াত করিয়াছেন।

[ই.ফা.৫৮২৪, ইসলামিক সেন্টার-৫৮৫৯]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply