নবীর নাম সমূহ , খাতামুন-নাবীয়্যীন ও নাবী (সাঃ) এর মৃত্যু

নবীর নাম সমূহ , খাতামুন-নাবীয়্যীন ও নাবী (সাঃ) এর মৃত্যু

নবীর নাম সমূহ , খাতামুন-নাবীয়্যীন ও নাবী (সাঃ) এর মৃত্যু >> বুখারী শরীফ এর মুল সুচিপত্র পড়ুন

পর্বঃ ৬১, মর্যাদা ও বৈশিষ্ট্য, অধ্যায়ঃ (১৭-২০)=৪টি

৬১/১৭. অধ্যায়ঃ নাবী (সাঃআঃ) -এর নামসমূহ সম্পর্কে যা কিছু বর্ণিত হয়েছে।
৬১/১৮. অধ্যায়ঃ খাতামুন-নাবীয়্যীন।
৬১/১৯. অধ্যায়ঃ নাবী (সাঃআঃ)-এর মৃত্যু।
৬১/২০. অধ্যায়ঃ নাবী (সাঃআঃ) -এর উপনামসমূহ।

৬১/১৭. অধ্যায়ঃ নাবী (সাঃআঃ) -এর নামসমূহ সম্পর্কে যা কিছু বর্ণিত হয়েছে।

আল্লাহ তাআলার বাণীঃ “মুহাম্মাদ (সাঃআঃ) তোমাদের মধ্যে কোন পুরুষের পিতা নয়; মুহাম্মাদ (সাঃআঃ) আল্লাহর রাসুল ও তাহাঁর সঙ্গে যারা আছেন তারা কুফরের বিষয়ে অত্যন্ত কঠোর” (আল – ফাতহঃ ২৯) আর তাহাঁর বাণীঃ “আমার পর যিনি আসবেন তাহাঁর নাম আহমাদ”। (সফঃ ৬)

৩৫৩২

যুবায়র ইব্ন মুতঈম (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

আল্লাহর রাসুল (সাঃআঃ) বলেন, আমার পাঁচটি (প্রসিদ্ধ) নাম রহিয়াছে, আমি মুহাম্মাদ, আমি আহমাদ, আমি আল-মাহী আমার দ্বারা আল্লাহ কুফর ও শিরককে নিশ্চিহ্ন করে দিবেন। আমি আল-হাশির আমার চারপাশে মানব জাতিকে একত্রিত করা হইবে। আমি আল-আক্বিব (সর্বশেষে আগমনকারী)।

৩৫৩৩

আবু হুরায়রা (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রাসুল (সাঃআঃ) বলেছেন, তোমরা কি আশ্চর্যান্বিত হও না? আমার উপর আরোপিত কুরাইশদের নিন্দা ও অভিশাপকে আল্লাহ তাআলা কি চমৎকারভাবে দূরীভূত করছেন? তারা আমাকে নিন্দিত ভেবে গালি দিচ্ছে, অভিশাপ করছে অথচ আমি মুহাম্মাদ চির প্রশংসিত।

৬১/১৮. অধ্যায়ঃ খাতামুন-নাবীয়্যীন।

৩৫৩৪

জাবির ইব্ন আবদুল্লাহ (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, নাবী (সাঃআঃ) বলেছেন আমার ও অন্যান্য নাবীগণের অবস্থা এমন, যেন কেউ একটি গৃহ নির্মাণ করলো আর একটি ইটের স্থান শূন্য রেখে নির্মাণ কাজ শেষ করে গৃহটিকে সুসজ্জিত করে নিল। জনগণ মুগ্ধ হল এবং তারা বলাবলি করিতে লাগল, যদি একটি ইটের জায়গাটুকু খালি রাখা না হত।

৩৫৩৫

আবু হুরায়রা (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, নাবী (সাঃআঃ) বলেন, আমি এবং আমার পূর্ববর্তী নাবীগণের অবস্থা এমন, এক ব্যক্তি যেন একটি গৃহ নির্মাণ করিল; তাকে সুশোভিত ও সুসজ্জিত করিল, কিন্তু এক পাশে একটি ইটের জায়গা খালি রয়ে গেল। অতঃপর লোকজন এর চারপাশে ঘুরে আশ্চর্য হয়ে বলিতে লাগল ঐ শূন্যস্থানের ইটটি লাগানো হল না কেন? নাবী (সাঃআঃ) বলেন, আমিই সে ইট। আর আমিই সর্বশেষ নাবী।

৬১/১৯. অধ্যায়ঃ নাবী (সাঃআঃ)-এর মৃত্যু।

৩৫৩৬

আয়িশা (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

যখন নাবী (সাঃআঃ) -এর মৃত্যু হয় তখন তাহাঁর বয়স হয়েছিল তেষট্টি বছর। ইবন শিহাব বলেন, সাঈদ ইবনুল মুসায়্যিব এভাবেই আমার কাছে বর্ণনা করেন।

৬১/২০. অধ্যায়ঃ নাবী (সাঃআঃ) -এর উপনামসমূহ।

৩৫৩৭

আনাস (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, নাবী (সাঃআঃ) একদিন বাজারে গিয়েছিলেন। তখন এক ব্যক্তি হে আবুল কাসিম! বলে ডাক দিল। নাবী (সাঃআঃ) সেদিকে ফিরে তাকালেন। তখন তিনি বলিলেন, তোমরা আমার আসল নামে নাম রাখতে পার, কিন্তু আমার উপনামে কারো নাম রেখ না।

৩৫৩৮

জাবির (রাদি.) সূত্রে নাবী (সাঃআঃ) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলিলেন, আমার আসল নামে অন্যের নামকরণ করিতে পার, কিন্তু আমার উপনাম অন্যের জন্য রেখোনা।

৩৫৩৯

আবু হুরায়রা (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আবুল কাসিম (নাবী) (সাঃআঃ) বলেছেন, আমার নামে নামকরণ করিতে পার, কিন্তু আমার উপনামে তোমাদের নাম রেখ না।

By ইমাম বুখারী

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply