ত্বলাকপ্রাপ্তা স্ত্রী হালাল হইবে না ত্বলাকদাতার জন্য ..

ত্বলাকপ্রাপ্তা স্ত্রী হালাল হইবে না ত্বলাকদাতার জন্য

ত্বলাকপ্রাপ্তা স্ত্রী হালাল হইবে না ত্বলাকদাতার জন্য >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১৭. অধ্যায়ঃ ত্বলাকপ্রাপ্তা স্ত্রী হালাল হইবে না ত্বলাকদাতার জন্য, যতক্ষণ না সে তাকে ছাড়া অন্য স্বামীকে বিবাহ করে এবং সে তার সাথে যৌন সঙ্গম করে এবং অতঃপর তাকে ত্বলাক্ব দেয় এবং তার ইদ্দাত শেষ হয়

৩৪১৮

আয়িশাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রিফাআহ্-এর স্ত্রী নবী [সাঃআঃ] এর কাছে এসে বলিল, আমি রিফাআর নিকট ছিলাম। সে আমাকে ত্বলাক্ব দিয়েছে পূর্ণ ত্বলাক্ব। অতঃপর আমি আবদুর রহমান ইবনি যুবায়রকে বিবাহ করি। তার কাছে রয়েছে কাপড়ের ঝালরের মত। এতে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মুচকি হাসি হাসলেন এবং বলিলেন, তুমি কি রিফাআর নিকট ফিরে যেতে চাও? না, [তা হয় না] যে পর্যন্ত না তুমি তার স্বাদ গ্রহন করিবে এবং সে তোমার স্বাদ গ্রহন করিবে।

আয়িশা [রাদি.] বলেন, তখন আবু বকর [রাদি.] ছিলেন তার কাছে এবং খালিদ ইবনি সাঈদ [রাদি.] ছিলেন দরজায়। তিনি [প্রবেশের] অনুমতির অপেক্ষা করছিলেন। তিনি ডাক দিয়ে বলিলেন, হে আবু বকর! আপনি কি শুনেন না এ মহিলা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে উচ্চৈঃস্বরে কী কথা বলছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৯১, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৯০]

৩৪১৯

উরওয়াহ্ ইবনি যুবাযর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ]-এর সহধর্মিণী আয়িশা [রাদি.] তাঁকে সংবাদ দিয়েছেন যে, রিফাআহ্ আল কুয়াযী [রাদি.] তার স্ত্রীকে ত্বলাক্ব দেয় এবং সে তাকে পুরাপুরি ত্বলাক্ব দিয়ে দেয়। অতঃপর সে স্ত্রী লোকটি আবদুর রহমান ইবনি যুবায়র [রাদি.]-কে বিবাহ করে। এরপর সে নবী [সাঃআঃ]-এর কাছে এসে বলিল, হে আল্লাহ্‌র রসূল! সে ছিল রিফাআর অধীনে। সে তাকে পুরোপুরি তিন দিন ত্বলাক্ব দেয়। অতঃপর সে আবদুর রহমান ইবনি যুবায়র [রাদি.]-কে বিবাহ করে। আল্লাহ্‌র কসম, তার সাথে তো রয়েছে কাপড়ের ঝালরের মতো। এ বলে, মহিলা তার উড়নার আঁচল ধরে দেখাল। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হেসে দিলেন। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেন, তুমি সম্ভবত রিফাআর নিকট ফিরে যেতে চাও? না তা হয় না, যতক্ষণ না সে তোমার স্বাদ করে এবং তুমি তার স্বাদ কর। আবু বাক্র [রাদি.] তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর কাছে বসা ছিলেন। আর খালিদ ইবনি সাঈদ ইবনি আস [রাদি.] ছিলেন হুজরার দরজায় বসা। তাকে [ঘরে প্রবেশ করার] অনুমতি দেয়া হয়নি। রাবী বলেন, তখন খালিদ [রাদি.] আবু বাক্র [রাদি.]-কে ডেকে বলিলেন, আপনি কেন মহিলাকে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কাছে তার এ সব কথা প্রকাশ করা থেকে বারণ করিলেন না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৯২, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৯১]

৩৪২০

আয়িশাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রিফাআহ্ আল কুরাযী তার স্ত্রী ত্বলাক্ব দেয়। এরপর সে আবদুর রহমান ইবনি যুবায়রকে বিয়ে করে। অতঃপর সে নবী [সাঃআঃ] এর কাছে এসে বলিল, হে আল্লাহ্‌র রসূল! রিফাআহ্ তাকে পুরোপুরি তিন ত্বলাক্ব দিয়ে দেয়। এরপর ইউনুস বর্ণিত হাদীসের অনুরূপ। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৯৩, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৯২]

৩৪২১

আয়িশাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে এক মহিলা সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হয় যাকে একজন বিবাহ করে, অতঃপর সে তাকে ত্বলাক্ব দেয়। এরপর সে মহিলা আরেকজনকে বিয়ে করে। কিন্তু সে তার সাথে সঙ্গমের আগেই ত্বলাক্ব দেয়। এমতাবস্থায় উক্ত মহিলা প্রথম স্বামীর জন্য হালাল হইবে কি? তিনি বললেনঃ না, যে পর্যন্ত না সে ঐ স্ত্রীর স্বাদ গ্রহন করে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৯৪, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৯৩]

৩৪২২

হিশাম [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

আবু বকর ইবনি আবু শায়বাহ্ ও আবু কুরায়ব [রহিমাহুমাল্লাহ] ….. আবু মুআবিয়াহ্ সহ সকলেই হিশাম [রাদি.] থেকে উক্ত সানাদে হাদীস বর্ণনা করেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৯৫, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৯৪]

৩৪২৩

আয়িশাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, এক ব্যক্তি তার স্ত্রীকে তিন ত্বলাক্ব দেয়। অতঃপর অন্য একজন তাকে বিয়ে করে। এরপর সে তাকে সঙ্গমের আগেই ত্বলাক্ব দিয়ে দেয়। পরে প্রথম স্বামী তাকে বিয়ে করিতে চায়- এ সম্পর্কে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে জিজ্ঞেস করা হলে, তিনি বললেনঃ না, তা হইবে না যে পর্যন্ত না তারা একে অন্যের স্বাদ গ্রহন করিবে, যেভাবে প্রথম স্বামী তার স্বাদ গ্রহন করেছিল। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৯৬, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৯৫]

৩৪২৪

উবায়দুল্লাহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

মুহাম্মাদ ইবনি আবদুল্লাহ ইবনি নুমায়র ও মুহাম্মাদ ইবনিল মুসান্না [রহিমাহুমাল্লাহ] ….. ইয়াহ্ইয়া অর্থাৎ ইবনি সাঈদ সহ সকলেই উবায়দুল্লাহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] থেকে উক্ত সানাদে অনুরূপ বর্ণনা করেন। উবায়দুল্লাহ্ সুত্রে ইয়াহ্ইয়া হাদীসে বলেন যে, কাসিম আয়িশা [রাদি.] থেকে বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩৩৯৭, ইসলামিক সেন্টার- ৩৩৯৬]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply