নতুন লেখা

হাজীদের জন্য ত্বওয়াফে কুদূম , অতঃপর সাঈ মুস্তাহাব

হাজীদের জন্য ত্বওয়াফে কুদূম , অতঃপর সাঈ মুস্তাহাব

হাজীদের জন্য ত্বওয়াফে কুদূম , অতঃপর সাঈ মুস্তাহাব >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৮. অধ্যায়ঃ হাজীদের জন্য ত্বওয়াফে কুদূম , অতঃপর সাঈ মুস্তাহাব

২৮৮৭

ওয়াবারাহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

আমি ইবনি উমর [রাদি.]-এর নিকট বসা ছিলাম। তখন এক ব্যক্তি তার নিকট এসে জিজ্ঞেস করিল, আল মাওক্বিফ [আরাফাহ্‌]-এ যাবার পূর্বে বায়তুল্লাহ তাওয়াফ করা আমার জন্য সঠিক হইবে কি? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ। সে বলিল, কিন্তু ইবনি আব্বাস [রাদি.] বলেন, তুমি বায়তুল্লাহ তাওয়াফ করো না-যে পর্যন্ত না মাওক্বিফে আসো! ইবনি উমর [রাদি.] বলিলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হজ্জ করিয়াছেন এবং মাওক্বিফে যাবার পূর্বেই বায়তুল্লাহ তাওয়াফ করিয়াছেন। অতএব তুমি যদি সত্যবাদী হও তবে বল, তোমার কাছে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কথা মত আমাল করা উচিত, না ইবনি আব্বাস [রাদি.]-এর কথা মত? [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৮৬৩, ইসলামিক সেন্টার- ২৮৬২]

২৮৮৮

ওয়াবারাহ্‌ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

এক ব্যক্তি ইবনি উমর [রাদি.]-এর কাছে জিজ্ঞেস করিল, আমি কি বায়তুল্লাহ্‌র তাওয়াফ করব অথচ আমি হজ্জের ইহরাম বেঁধেছি? তিনি বলিলেন, কিসে তোমাকে বাধা দিচ্ছে? সে বলিল, আমি অমুকের পুত্রকে দেখেছি, তিনি তা পছন্দ করেন না কিন্তু তার তুলনায় আপনি আমাদের অধিক প্রিয়। আমরা লক্ষ্য করছি যে, এ দুনিয়া তাকে প্রলুব্ধ করেছে। ইবনি উমর [রাদি.] বলিলেন, তোমাদের ও আমাদের মধ্যে এমন কে আছে যাকে দুনিয়া প্রলুব্ধ করেনি? অতঃপর তিনি বলিলেন, আমরা দেখেছি, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হজ্জের ইহরাম বেঁধেছেন এবং বায়তুল্লাহ তাওয়াফ ও সাফা-মারওয়ার মাঝে সাঈ করিয়াছেন। অতএব তুমি সত্যবাদী হলে আল্লাহর হুকুম ও তাহাঁর রসুল [সাঃআঃ]-এর সুন্নাত অমুকের সুন্নাতের তুলনায় অনুসরণের বেলায় অগ্রগণ্য। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৮৬৪, ইসলামিক সেন্টার- ২৮৬৩]

২৮৮৯

আম্‌র ইবনি দীনার [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমরা ইবনি উমর [রাদি.]-এর নিকট এক লোক সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলাম যে, উমরাহ্ করার উদ্দেশে আগমন করেছে, অতঃপর বায়তুল্লাহ তাওয়াফ করেছে কিন্তু সাফা-মারওয়ার মাঝে সাঈ করেনি- সে কি তার স্ত্রীর সাথে মিলতে পারে? ইবনি উমর [রাদি.] বলিলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] মাক্কাহ্ আগমন করে সাতবার বায়তুল্লাহ তাওয়াফ করেন, মাক্বামে ইব্রাহীমের পিছনে দু রাকআত নামাজ আদায় করেন এবং সাফা-মারওয়ার মাঝে সাতবার সাঈ করেন। আর তোমাদের জন্য অবশ্যই রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর মধ্যে উত্তম আদর্শ রয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৮৬৫, ইসলামিক সেন্টার- ২৮৬৪]

২৮৯০

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

এ সূত্রে পূর্বোক্ত হাদীসের অনুরূপ বর্ণিত হয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৮৬৬, ইসলামিক সেন্টার- ২৮৬৫]

About halalbajar.com

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Check Also

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে”

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে” মহান আল্লাহর …

Leave a Reply

%d bloggers like this: