জুমার দিনে নামাজ প্রস্তুতির ফাযীলাত

জুমার দিনে নামাজ প্রস্তুতির ফাযীলাত

জুমার দিনে নামাজ প্রস্তুতির ফাযীলাত >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৭. অধ্যায়ঃ জুমার দিনে নামাজ প্রস্তুতির ফাযীলাত

১৮৬৯

আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন: জুমার দিন এলে মাসজিদে যতগুলো দরজা আছে তার প্রতিটিতে মালাকগণ [ফেরেশতারা] নিযুক্ত হন এবং তারা আগমনকারীদের নাম ক্রমানুসারে নথিবদ্ধ করেন। ঈমাম যখন [মিম্বারে] বসেন তখন তারা নথিপত্র গুটিয়ে নিয়ে আলোচনা শোনায় চলে আসেন। মাসজিদে সর্বপ্রথম আগমনকারী মুসল্লী উট কুরবানীকারীর সমতুল্য, তৎপরে আগমনকারী গরু কুরবানীকারীর সমতুল্য, তৎপরে আগমনকারী মেষ কুরবানীকারীর সমতুল্য, অতঃপর আগমনকারী মুরগী কুরবানীকারীর সমতুল্য, তৎপরে আগমনকারী ডিম দানকারীর সমতুল্য নেকী পাবে। [ই.ফা.১৮৫৪, ইসলামিক সেন্টার-১৮৬১]

১৮৭০

আবু হুরায়রাহ্ [রাদি.] নবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণীতঃ

অনুরূপ বর্ণনা করিয়াছেন। [ই.ফা.১৮৫৫,ইসলামিক সেন্টার-১৮৬২]

১৮৭১

আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ মাসজিদের দরজাগুলোর প্রতিটিতে একজন করে মালায়িকাহ্‌ নিয়োজিত থাকেন। তিনি আগমনকারীদের নাম [তাদের আগমনের] ক্রমানুসারে লিপিবদ্ধ করেন। মাসজিদে সর্বপ্রথম আগমনকারী উট কুরবানীকারীর সমতুল্য ….. এভাবে পর্যায়ক্রমে তুলনা করা হয়েছে, এমনকি একটি ডিমের মতো ক্ষুদ্র বস্তু দানের তুলনা দিয়েছেন। ঈমাম যখন [খুতবাহ্‌ দেয়ার উদ্দেশ্যে মিম্বারে] বলেন তখন নথিপত্র গুটিয়ে ফেলা হয় এবং মালাকগণ [ফেরেশতামণ্ডলী] খুত্‌বার আলোচনা শুনতে হাজির হন। [ই.ফা.১৮৫৬, ইসলামিক সেন্টার- ১৮৬৩]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply