জিহাদ pdf প্রসংগ ও শাহাদাত প্রসংগ – নাসাই শরীফ

জিহাদ pdf প্রসংগ

জিহাদ pdf প্রসংগ ও শাহাদাত প্রসংগ – নাসাই শরীফ >> সুনানে নাসাই শরিফের মুল সুচিপত্র দেখুন

পর্বঃ ২৫ঃ জিহাদ, হাদীস (৩০৮৫ – ৩১৯৫)

পরিচ্ছেদঃ জিহাদ ওয়াজিব হওয়া
পরিচ্ছেদঃ জিহাদ বর্জনে কঠোর সতর্ক বাণী
পরিচ্ছেদঃ যুদ্ধে শরীক না হওয়ার অনুমতি
পরিচ্ছেদঃ যারা ঘরে বসে থাকে [সঙ্গত কারণ না থাকা সত্ত্বেও জিহাদ থেকে বিরত থাকে] তাহাদের উপর জিহাদে অংশগ্রহণকারীদের ফযীলত
পরিচ্ছেদঃ যাহার পিতামাতা জীবিত তার জন্য জিহাদে না যাওয়ার অনুমতি
পরিচ্ছেদঃ যাহার মাতা জীবিত তার জন্য জিহাদে শরীক না হওয়ার অনুমতি
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর পথে জান-মাল দিয়ে জিহাদকারীর ফযীলত
পরিচ্ছেদঃ যে পায়ে হেঁটে [পদব্রজে] আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করে- তার ফযীলত
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় যাহার দু পা ধূলো-ধূসরিত হয় তার সওয়াব
পরিচ্ছেদঃ যে চোখ আল্লাহর রাস্তায় বিনিদ্র থাকে তার সওয়াব
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় এক সকাল বের হওয়ার ফযীলত
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় এক বিকাল বের হওয়ার ফযীলত
পরিচ্ছেদঃ যোদ্ধারা আল্লাহ তাআলার প্রতিনিধি
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় জিহাদকারীর জন্য আল্লাহ যে বিষয়ের দায়িত্ব গ্রহণ করিয়াছেন
পরিচ্ছেদঃ গনীমতের মাল হইতে বঞ্চিত যোদ্ধাদের সওয়াব
পরিচ্ছেদঃ মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় জিহাদকারীর উপমা
পরিচ্ছেদঃ মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় জিহাদের সমতুল্য যা
পরিচ্ছেদঃ মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় জিহাদকারীর মর্যাদা
পরিচ্ছেদঃ যে মুসলমান হইয়াছে, হিজরত করেছে এবং জিহাদ করেছে- তার সওয়াব [ফযীলত]
পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় জোড়া-জোড়া দান করে—- তার ফজিলত
পরিচ্ছেদঃ যে আল্লাহর কলিমাকে সমুন্নত করার জন্য লড়াই করে
পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি বীর উপাধি অর্জনের জন্য যুদ্ধ করে
পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর পথে যুদ্ধ করে এবং সে [উটের] রশি ব্যতীত আর কিছুর নিয়্যত না করে
পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি সওয়াব ও সুনামের জন্য যুদ্ধ করে
পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি উটের দুধ দোহন করার দুই টানের মধ্যবর্তী অবকাশের সময় পর্যন্ত আল্লাহর রাস্তায় যুদ্ধ করে।
পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় তীর নিক্ষেপ করে তার সওয়াব
পরিচ্ছেদঃ মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় যারা আহত হয়
পরিচ্ছেদঃ শত্রু যাকে আঘাত করে সে কি বলবে
পরিচ্ছেদঃ যুদ্ধ ক্ষেত্রে ভুলবশতঃ নিজের তলোয়ারের আঘাতে শহীদ হলে
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহ তাআলার রাস্তায় শহীদ হওয়ার আকাঙ্খা করা
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হওয়ার সওয়াব
পরিচ্ছেদঃ ঋণগ্রস্ত ব্যক্তির যুদ্ধে যোগদান
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় যা কামনা করা হইবে
পরিচ্ছেদঃ জান্নাতীগণ যা কামনা করবেন
পরিচ্ছেদঃ শহীদ কী যাতনা অনুভব করে
পরিচ্ছেদঃ শাহাদাত প্রসংগ
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় হত্যাকারী ও নিহত ব্যক্তির জান্নাতে একত্রিত হওয়া
পরিচ্ছেদঃ [হত্যাকারী ও নিহত ব্যক্তির জান্নাতে একত্রিত হওয়া] এর ব্যাখ্যা
পরিচ্ছেদঃ রাষ্ট্রের সীমান্ত পাহারা দেয়ার ফযীলত
পরিচ্ছেদঃ সমুদ্রে [নৌ বাহিনীর] জিহাদের ফযীলত
পরিচ্ছেদঃ হিন্দুস্থানে অভিযান
পরিচ্ছেদঃ তুরস্ক ও হাবশার যুদ্ধ
পরিচ্ছেদঃ দুর্বল উসিলা দিয়ে সাহায্য গ্রহণ
পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি যোদ্ধাকে যুদ্ধের সরঞ্জাম প্রদান করে
পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় ব্যয় করার ফযীলত
পরিচ্ছেদঃ মুজাহিদদের স্ত্রীদের মর্যাদা
পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি মুজাহিদের পরিবারের সাথে খিয়ানত করে

পরিচ্ছেদঃ জিহাদ ওয়াজিব হওয়া

৩০৮৫. ইব্ন আব্বাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, যখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে মক্কা হইতে বহিষ্কার করা হলো, তখন আবু বকর [রাঃআঃ] বলিলেনঃ তারা তাহাদের নাবীকে বের করে দিল, ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলায়হি রাজিউন – তারা নিশ্চয় ধ্বংস হইবে, তখন নাযিল হলোঃ [আরবি]– যুদ্ধের অনুমতি দেয়া হলো তাহাদের- যারা আক্রান্ত হয়েছে, কারণ তাহাদের প্রতি অত্যাচার করা হয়েছে, আল্লাহ্ নিশ্চয়ই তাহাদের সাহায্য করিতে সম্যক সক্ষম [২২ঃ৩৯]। তখন আমি বুঝলাম, শীঘ্রই জিহাদ আরম্ভ হইবে। ইব্ন আব্বাস [রাঃআঃ] বলেন, জিহাদের ব্যাপারে এটিই প্রথম আয়াত।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৮৬. ইব্ন আব্বাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আব্দুর রহমান ইব্ন আউফ [রাঃআঃ] তার কয়েকজন বন্ধুসহ মক্কায় রাসূলুল্লাহু [সাঃআঃ]-এর খিদমতে উপস্থিত হয়ে আরয করিলেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমরা মুশরিক অবস্থায় সম্মানিত ছিলাম এখন যখন আমরা ঈমান এনেছি অসম্মানিত হয়ে পড়লাম। তিনি বললেনঃ আমাকে ক্ষমা করার আদেশ করা হয়েছে, অতএব তোমরা যুদ্ধ করিবে না। এরপর যখন আল্লাহ্ তাআলা আমাদের মদীনায় নিয়ে গেলেন, তখন আমাদেরকে জিহাদের নির্দেশ দিলেন। কিন্তু তারা জিহাদ থেকে বিরত থাকলেন। তখন আল্লাহ্ তাআলা আয়াত নাযিল করিলেন [আরবি] — আপনি কি তাহাদের প্রতি লক্ষ্য করেননি, যাদেরকে বলা হইয়াছিল, তোমরা তোমাদের হস্ত সংবরণ কর, এবং নামাজ কায়েম কর [৪ঃ৭৭]।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৮৭. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] ইরশাদ করেনঃ শব্দ কম কিন্তু অধিক অর্থবোধক বাক্যাবলীসহ আমি প্রেরিত হয়েছি। আর আমাকে ঐশী প্রভাব দ্বারা সাহায্য করা হয়েছে। আর এক সময় আমি ঘুমন্ত ছিলাম, তখন পার্থিব ধনাগারের চাবি আমাকে প্রদান করা হলো। আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] বলেন, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] পৃথিবী থেকে চলে গেছেন, আর তোমরা সে সম্পদ আহরণ করে ভোগ করছো।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৮৮. আবু সালামা [রঃ] কর্তৃক আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] থেকে বর্ণিত হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে অনুরূপ বলিতে শুনিয়াছি।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৮৯. সাঈদ ইবনি মুসায়্যিব এবং আবু সালামা ইবনি আব্দুর রহমান [রঃ] থেকে বর্ণিত হইতে বর্ণিতঃ

আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] বলেছেন, আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ আমি শব্দ কম কিন্তু অধিক অর্থবোধক বাক্যাবলীসহ প্রেরিত হয়েছি। আর আমাকে ওহীর জ্ঞান দ্বারা দ্বার সাহায্য করা হয়েছে, আর আমি নিদ্রাবস্থায় ছিলাম, এমন সময় আমার হাতে পৃথিবীর ধনাগারের চাবি দান করা হয়েছে। আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] বলেন, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] চলে গেছেন, আর তোমরা সে সম্পদ আহরণ করে ভোগ করছো।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৯০. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেন, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্ [আল্লাহ্ ব্যতীত প্রকৃত কোন ইলাহ নেই] এ [তাওহীদ বাক্য] যতক্ষণ না বলবে, ততক্ষণ পর্যন্ত লোকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিতে আমাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তাই যে লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্ বলবে আমার পক্ষ থেকে সে তার সম্পদ ও প্রাণের নিরাপত্তা লাভ করিবে, তবে ইসলামের হক ব্যতীত আর এর হিসাব আল্লাহর নিকট।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ মুতওয়াতির

৩০৯১. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

যখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর ওফাত হলো এবং আবু বকর [রাঃআঃ]-কে খলীফা নিযুক্ত করা হলো, তখন আরবের কিছু লোক কাফির হয়ে গেল। উমার [রাঃআঃ] তাঁকে বললেনঃ হে আবু বকর! আপনি কিরূপে এমন লোকদের সাথে যুদ্ধ করবেন অথচ রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] ইরশাদ করিয়াছেনঃ যতক্ষণ লোকেরা লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্ না বলবে, ততক্ষণ তাহাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিতে আদিষ্ট হয়েছি। তারপর যে ব্যক্তি লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্ বলবে, সে আমার পক্ষ হইতে তার জান-মালের নিরাপত্তা লাভ করিবে। তবে ইসলামী বিধানে কারো জান-মাল হালাল হলে-তা স্বতন্ত্র ব্যাপার। আর আল্লাহর কাছেই এর হিসাব। আবু বকর [রাঃআঃ] বললেনঃ আল্লাহর শপথ! আমি সে ব্যক্তির সাথে যুদ্ধ করব, যে ব্যক্তি নামাজ এবং যাকাতের মধ্যে পার্থক্য করিবে। কেননা, যাকাত মালের হক। আল্লাহর শপথ! যদি তারা আমাকে একটি বকরীর বাচ্চা দিতেও অসম্মত হয়, যা তারা রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে দিত; তাহলে তাহাদের এ অসম্মতির জন্য আমি তাহাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করব। আল্লাহর শপথ! এ আর কিছু না, বরং আমি বুঝলাম যে, আল্লাহ্ তাআলা আবু বকরের অন্তর যুদ্ধের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন। আমি অনুধাবন করলাম যে, তাহাঁর ফয়সালাই সঠিক।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৯২. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

যখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর ওফাত হলো, তাহাঁর পর খলীফা হলেন আবু বকর [রাঃআঃ]। আরবের কেউ কেউ কাফির হয়ে গেল। তখন উমার [রাঃআঃ] বললেনঃ হে আবু বকর! আপনি কিরূপে এ সকল লোকের সাথে যুদ্ধ করবেন, অথচ রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, লোকেরা যতক্ষণ লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ না বলবে, ততক্ষণ পর্যন্ত তাহাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিতে আমাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে? আর যখন তারা লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্ বললো, তখন তারা আমার পক্ষ হইতে তাহাদের জান-মালের নিরাপত্তা লাভ করলো। তবে ইসলামের হক ব্যতীত, আর এর মীমাংসা আল্লাহর কাছে? আবু বকর [রাঃআঃ] বলিলেনঃ যে ব্যক্তি নামাজ এবং যাকাতের মধ্যে পার্থক্য করিবে, আমি তার সাথে নিশ্চয়ই যুদ্ধ করব। কেননা, যাকাত মালের হক। আল্লাহর শপথ! তারা যে বকরীর বাচ্চা রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সময় যাকাত হিসেবে আদায় করতো, যদি তা আমাকে না দেয়, তবে তা না দেওয়ার অপরাধে আমি তাহাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করব। উমার [রাঃআঃ] বলেনঃ আল্লাহর শপথ! এ আর কিছু নয়, বরং আমি অনুধাবন করলাম যে, আল্লাহ্ তাআলা আবু বকরের অন্তর যুদ্ধের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন। আমি বুঝতে পারলাম, এটাই সত্য। এ বর্ণনায় শব্দ, ভাষা আহমদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৯৩. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

যখন আবু বকর [রাঃআঃ] যাকাত দিতে অস্বীকৃতি জ্ঞাপনকারীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করিলেন, তখন উমার [রাঃআঃ] বলিলেনঃ হে আবু বকর! আপনি লোকের সাথে কিরূপে যুদ্ধে লিপ্ত হইবেন, অথচ রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যতক্ষণ লোকেরা লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্ না বলবে, ততক্ষণ আমি তাহাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিতে আদিষ্ট হয়েছি। যখন তারা তা বলবে, তখন তারা আমার পক্ষ হইতে তাহাদের জান-মালের নিরাপত্তা লাভ করিবে। তবে ইসলামের হক ব্যতীত। আবু বকর [রাঃআঃ] বলিলেনঃ যে ব্যক্তি নামাজ এবং যাকাতের মধ্যে পার্থক্য করিবে, আমি নিশ্চয়ই তার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করব। আল্লাহর শপথ! তারা যে বকরীর বাচ্চা রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে দিত, তা আমাকে দিতে অস্বীকার করলে তাহাদের এই না দেওয়ার কারণে আমি তাহাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করব। উমার [রাঃআঃ] বলেনঃ এ আর কিছু নয়, বরং আমি বুঝলাম যে, আল্লাহ্ তাআলা আবু বকরের অন্তর যুদ্ধের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন, এটাই সঠিক।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৯৪. আনাস ইব্ন মালিক [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর ওফাত হলে আরবের কতিপয় লোক মুরতাদ হয়ে গেল। উমার [রাঃআঃ] বলিলেনঃ হে আবু বকর! আপনি কিরূপে আরবের লোকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবেন? আবু বকর [রাঃআঃ] বলিলেনঃ রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহ্ ব্যতীত কোন ইলাহ নেই এবং আমি আল্লাহর রাসূল এ কথার সাক্ষ্য দেওয়া পর্যন্ত এবং নামাজ কায়েম করা ও যাকাত আদায় করা পর্যন্ত আমি লোকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিতে আদিষ্ট হয়েছি। আল্লাহর শপথ! তারা রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কাছে যা প্রদান করতো, তা থেকে একটি বকরীর বাচ্চা দান করিতে যদি অস্বীকার করে, তবে আমি তাহাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করব। উমার [রাঃআঃ] বলেনঃ তখন আমি আবু বকরের অভিমত উপলব্ধি করলাম, আল্লাহ্ তাআলা তাহাঁর অন্তর উন্মুক্ত করিয়াছেন। আমি বুঝতে পারলাম, তাহাঁর অভিমতই সঠিক।

আবু আবদুর রহমান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, হাদীস বর্ণনাকারী ইমরান আল-কাত্তান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর এ বর্ণনায় ভুল আছে, তিনি রাবী হিসেবে শক্তিশালী নন। এর আগে বর্ণিত যুহরী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] উবায়দুল্লাহ ইব্ন আবদুল্লাহ ইব্ন উতবা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] থেকে, তিনি আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] থেকে বর্ণিত হাদীসটি বিশুদ্ধ। যাতে রহিয়াছে [আরবি]-এর স্থলে [আরবি]।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান সহীহ

৩০৯৫. সাঈদ ইবনি মুসায়্যিব [রাঃআঃ] বর্ননা করেন হইতে বর্ণিতঃ

আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] তাকে সংবাদ দিয়েছেন যে, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ লোকেরা যতক্ষণ লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্ না বলবে, ততক্ষণ আমি তাহাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিতে আদিষ্ট হয়েছি। যে ব্যক্তি তা বললো, সে আমার পক্ষ হইতে তার জান-মালের নিরাপত্তা লাভ করলো। তবে ইসলামের হক ব্যতীত। তার হিসাব আল্লাহর কাছে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩০৯৬. আনাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তোমরা জিহাদ কর মুশরিকদের বিরুদ্ধে তোমাদের মাল, তোমাদের হাত এবং তোমাদের জিহ্বা দ্বারা।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ জিহাদ বর্জনে কঠোর সতর্ক বাণী

৩০৯৭. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যাক্তি জিহাদ না করে মারা গেল বা তার মনে যুদ্ধের বাসনা জাগলো না, তার মৃত্যু হলো নিফাকের একটি অংশ [জিহাদ বিমুখ হওয়া]-এর উপর।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যুদ্ধে শরীক না হওয়ার অনুমতি

৩০৯৮. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ সে সত্তার শপথ! যাঁহার হাতে আমার প্রাণ, যদি মুমিনদের মধ্য হইতে এমন কিছু সংখ্যক লোক না থাকতো- যাদের মন চায় না আমার সঙ্গে যুদ্ধে শরীক হওয়া থেকে বিরত থাকুক, অথচ আমি তাহাদেরকে সওয়ারী দেওয়ার মত কিছু পাই না; তাহলে আমি এমন কোন যুদ্ধ হইতে বিরত থাকতাম না, যা আল্লাহর রাস্তায় সংঘটিত হয়। যাঁহার হাতে আমার প্রাণ, তাহাঁর শপথ! আমার ইচ্ছা হয়, আমি আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হই, আবার আমাকে জীবিত করা হয়; আবার শহীদ হই, আবার আমাকে জীবিত করা হয়, আবার শহীদ হই, আবার আমাকে জীবিত করা হয়, আবার শহীদ হই, আবার আমাকে জীবিত করা হয়, আবার শহীদ হই।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যারা ঘরে বসে থাকে [সঙ্গত কারণ না থাকা সত্ত্বেও জিহাদ থেকে বিরত থাকে] তাহাদের উপর জিহাদে অংশগ্রহণকারীদের ফযীলত

৩০৯৯. সাহল ইব্নু সাদ [রঃ] বলেন হইতে বর্ণিতঃ

আমি মারওয়ান ইবনি হাকাম [রঃ] কে দেখলাম তিনি বসে আছেন। আমিও তার নিকট গিয়ে বসে পড়লাম। তিনি বর্ণনা করিলেন যে, যায়দ ইবনি সাবিত [রাঃআঃ] বর্ণনা করিয়াছেন যে, যখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর উপর নাযিল হলোঃ

لَا يَسْتَوِي الْقَاعِدُونَ مِنَ الْمُؤْمِنِينَ

“মুমিনদের মধ্যে যারা ঘরে বসে থাকে, তারা এবং যারা আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করে, তারা সমান নয়” [৪ঃ৯৫]।

ইতোমধ্যে ইবনি উম্মু মাক্‌তুম [রাঃআঃ] আগমন করিলেন। তিনি তা লিখে নেওয়ার উদ্দেশ্যে আমাকে পড়ে শুনালেন। তিনি বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌। যদি আমার জিহাদ করার শক্তি থাকতো, তাহলে আমিও জিহাদ করতাম। তখন আল্লাহ তাআলা নাযিল করলেনঃ “অসুস্থগণ ব্যতীত”। আর তখন তাহাঁর উরু আমার উরুর উপর ছিল, তা আমার উপর ভারী লাগছিল। মনে হলো আমার উরু ভেঙ্গে যাবে। এরপর তাহাঁর এ অবস্থা থেকে অবমুক্ত হলো।

আবদুর রহমান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, এ আবদুর রহমান ইবনি ইসহাকের ব্যাপারে আপত্তি নেই, আবদুর রহমান ইবনি ইসহাক হইতে আলী ইবনি মুসহির ও আবু মুআবিয়া হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। আর আবদুল ওয়াহিদ ইবনি যিয়াদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] যে নুমান ইবনি সাদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণনা করেন, তিনি নির্ভরযোগ্য নন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১০০. সাহল ইব্নু সাদ [রঃ] বলেন হইতে বর্ণিতঃ

আমি মারওয়ান [রঃ] কে মসজিদে উপবিষ্ট দেখলাম, আমি অগ্রসর হইয়া তার পাশে বসে পড়লাম। তিনি আমাদের কাছে বর্ণনা করিলেন যে, যায়দ ইবনি সাবিত [রাঃআঃ] তাহাঁর কাছে বর্ণনা করিয়াছেন যে, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাকে লিখে নেওয়ার জন্য পড়ে শুনাচ্ছিলেনঃ [আর-বি.]। তিনি বলিলেন, তারপর তাহাঁর নিকট ইবনি উম্মু মাকতুম [রাঃআঃ] আগমন করিলেন, তখনও তিনি আমাকে লেখাচ্ছিলেন। তিনি [ইবনি উম্মু মাকতুম] বলিলেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! যদি আমার জিহাদ করার ক্ষমতা থাকতো, তাহলে আমিও জিহাদ করতাম। তিনি ছিলেন একজন অন্ধ ব্যক্তি। তখন আল্লাহ তাআলা তাহাঁর রাসুল–এর উপর [ওয়াহী] অবতীর্ণ করিলেন, তখন তাহাঁর উরু ছিল আমার উরুর উপর, এমনকি আমার উরু ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম হলো। এরপর তাহাঁর উপর হইতে ওহীর প্রভাব কেটে গেল। আল্লাহ তাআলা নাযিল করলেনঃ [আরবি] “অপারগ ব্যক্তি ব্যতীত”।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১০১. বারা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এরপর তিনি এমন একটি বাক্য বলিলেন, [রাবী বলেন] যাহার অর্থ আমার নিকট হাড় [কলম] এবং তখতী আনয়ন কর। এরপর তিনি লিখলেন,

ا يَسْتَوِي الْقَاعِدُونَ مِنَ الْمُؤْمِنِينَ

অর্থাৎ “মুমিন, যারা বসে থাকে, তারা সমান নয়……। আর তখন আমর ইবনি উম্মু মাকতুম [রাঃআঃ] তাহাঁর পেছনে ছিলেন। তিনি বললেনঃ আমার জন্য কি অব্যাহতি রয়েছে? তখন অবতীর্ণ হলো, “অপারগ ব্যক্তি ব্যতীত”।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১০২. বারা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

যখন

لَا يَسْتَوِي الْقَاعِدُونَ مِنَ الْمُؤْمِنِينَ

এ আয়াত নাযিল হলো, তখন ইবনি উম্মু মাকতুম আগমন করিলেন। তিনি ছিলেন অন্ধ। তিনি বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! আমার উপর কিভাবে [এই আয়াত] প্রযোজ্য হইবে অথচ আমি অন্ধ? বর্ণনাকারী বলেনঃ অল্পক্ষণ পরেই অবতীর্ণ হলো غَيْرُ أُولِي الضَّرَرِ

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যাহার পিতামাতা জীবিত তার জন্য জিহাদে না যাওয়ার অনুমতি

৩১০৩. আবদুল্লাহ্‌ ইবনি আমর [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এক ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর খিদমতে এসে জিহাদে যাওয়ার অনুমতি প্রার্থনা করলে তিনি জিজ্ঞাসা করলেনঃ তোমার পিতামাতা জীবিত আছে কি? সে ব্যক্তি বললেনঃ হ্যাঁ। তিনি বললেনঃ তুমি তাঁদের জন্য [সেবায় সব সময় রত থাকার] জিহাদ কর।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যাহার মাতা জীবিত তার জন্য জিহাদে শরীক না হওয়ার অনুমতি

৩১০৪. মুআবিয়া ইবনি জাহিমা সালামী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

আমার পিতা জাহিমা [রাঃআঃ] রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর খিদমতে এসে জিজ্ঞাসা করিলেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! আমি যুদ্ধে যাওয়ার ইচ্ছা করেছি। এখন আপনার নিকট পরামর্শ জিজ্ঞাসা করিতে এসেছি। তিনি বললেনঃ তোমার মা আছেন কি? সে বললোঃ হ্যাঁ। তিনি বললেনঃ তাহাঁর খিদমতে লেগে থাক। কেননা, জান্নাত তাহাঁর দুপায়ের নিচে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান সহীহ

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর পথে জান-মাল দিয়ে জিহাদকারীর ফযীলত

৩১০৫. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এক ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর খিদমতে এসে বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! কোন্‌ ব্যক্তি উত্তম? তিনি বললেনঃ যে নিজের জান ও মাল দিয়ে আল্লাহর পথে জিহাদ করে। সে ব্যক্তি বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! তারপর কোন্‌ ব্যক্তি? তিনি বললেনঃ সে মুমিন ব্যক্তি, যে পর্বতের উপত্যকাসমূহের কোন উপত্যকায় বসবাস করে এবং আল্লাহকে ভয় করে এবং নিজের অনিষ্ট থেকে লোকদের রক্ষা করে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে পায়ে হেঁটে [পদব্রজে] আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করে- তার ফযীলত

৩১০৬. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তাবুক যুদ্ধের সময় রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] লোকদের উদ্দেশ্যে খুতবা দিচ্ছিলেন, তখন তিনি তাহাঁর সওয়ারীতে হেলান দিয়ে বসে ছিলেন। তিনি বললেনঃ আমি কি তোমাদেরকে উত্তম ও অধম ব্যক্তির সংবাদ দেব না? লোকের মধ্যে সে ব্যক্তি উত্তম, যে ব্যক্তি আমৃত্যু আল্লাহর রাস্তায় কাজ করে, ঘোড়ার পিঠে আরোহণ করে অথবা তার উটের পৃষ্ঠে থেকে অথবা পদব্রজে। আর নিকৃষ্ট পাপাচারী ব্যক্তি, যে আল্লাহর কিতাব তিলাওয়াত করে, কিন্তু পাপের কাজে কোন পরোয়া করে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

৩১০৭. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

যে কোন ব্যক্তি আল্লাহর ভয়ে ক্রন্দন করিবে, তাকে জাহান্নামের আগুন ভক্ষণ করিবে না; যতক্ষণ না দুধ স্তনে পুনঃপ্রবেশ করিবে। আর কখনও আল্লাহর রাস্তায় জিহাদের ধূলা এবং জাহান্নামের ধোঁয়া একজন মুমিনের নাকের ছিদ্রে একত্রিত হইবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১০৮. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

যে ব্যক্তি আল্লাহর ভয়ে ক্রন্দন করেছে, সে ব্যক্তি জাহান্নামে প্রবেশ করিবে না, যে পর্যন্ত না দুধ স্তনে পুনঃপ্রবেশ করিবে। আর আল্লাহর রাস্তায় ধূলা এবং জাহান্নামের আগুনের ধোঁয়া একত্রিত হইবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১০৯. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

জাহান্নামে একত্রিত হইবে না সে মুসলমান যে কোন কাফিরকে হত্যা করেছে, এরপর সঠিক ও সরল পথে দৃঢ় রয়েছে। আর কোন মুমিনের পেটে আল্লাহর রাস্তার ধূলা এবং জাহান্নামের [আগুনের] শিখা একত্রিত হইবে না। আর [আল্লাহর] বান্দার অন্তরে ঈমান ও হিংসা একত্রিত হইবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

৩১১০. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কোন ব্যক্তির পেটে কখনো আল্লাহর রাস্তার ধূলা এবং জাহান্নামের [আগুনের] ধোঁয়া একত্রিত হইবে না। আর কখনো কোন বান্দার অন্তরে ঈমান ও কৃপণতা একত্রিত হইবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১১১. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] ইরশাদ করেছেনঃ কোন বান্দার চেহারায় আল্লাহর রাস্তার ধূলা এবং জাহান্নামের ধোঁয়া একত্রিত হইবে না। আর কোন বান্দার অন্তরে ঈমান ও কৃপণতা একত্রিত হইবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১১২. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহর রাস্তার ধূলা এবং জাহান্নামের ধোঁয়া কোন মুসলমানের উদরে একত্রিত হইবে না। আর কৃপণতা ও ঈমান কোন বান্দার উদরে [অন্তরে] একত্রিত হইবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১১৩. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তার ধূলা এবং জাহান্নামের ধোঁয়া কোন মুসলমানের নাকের ছিদ্রে একত্রিত হইবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১১৪. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কোন মুসলানের নাকের ছিদ্রে আল্লাহর রাস্তার ধূলা এবং জাহান্নামের ধোঁয়া একত্রিত হইবে না। আর কোন মুসলমানের অন্তরে [আল্লাহর প্রতি] ঈমান ও কৃপণতা একত্রিত হইবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১১৫. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আল্লাহ তাআলা কোন মুসলমানের উদরে আল্লাহর রাস্তার ধূলা ও জাহান্নামের ধোঁয়া একত্রিত করবেন না এবং আল্লাহ তাআলা কোন মুসলমানের অন্তরে আল্লাহর প্রতি ঈমান ও কৃপণতাকে একত্রিত করবেন না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় যাহার দু পা ধূলো-ধূসরিত হয় তার সওয়াব

৩১১৬. ইয়াযীদ ইবনি আবু মারইয়াম [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

আবায়া ইবনি রাফি [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] আমার সঙ্গে সাক্ষাত করিলেন, তখন আমি জুমুআর নামাজ আদায়ের জন্য যাচ্ছিলাম। তিনি বললেনঃ সুসংবাদ গ্রহণ করুন। আপনার এই পদক্ষেপ হচ্ছে আল্লাহর পথে। আমি আবু আবস [রাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছি যে, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তির দুই পা আল্লাহর পথে ধূলি-ধূসরিত হয়, সে জাহান্নামের জন্য হারাম হইয়া যায়।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে চোখ আল্লাহর রাস্তায় বিনিদ্র থাকে তার সওয়াব

৩১১৭. আবু রায়হানা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ যে চোখ আল্লাহর রাস্তায় বিনিদ্র থাকে, তার জন্য জাহান্নামের আগুন হারাম করা হইয়াছে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় এক সকাল বের হওয়ার ফযীলত

৩১১৮. সাহল ইবনি সাদ [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহর রাস্তায় এক সকালে এবং এক বিকালে বের হওয়া পৃথিবী এবং তার মধ্যকার সকল কিছু অপেক্ষা উত্তম।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় এক বিকাল বের হওয়ার ফযীলত

৩১১৯. আবু আইউব আনসারী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহর রাস্তায় এক সকাল অথবা এক বিকাল বের হওয়া সেসব কিছু থেকে উত্তম, যাহার উপর সূর্য উদিত হয় অথবা অস্ত যায়।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১২০. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তিন ব্যক্তি এমন যে, যাদের প্রত্যেককে সাহায্য করা মহান মহীয়ান আল্লাহর উপর অর্পিত [তিনি দায়িত্বরূপে গ্রহণ করিয়াছেন]। আল্লাহর রাস্তায় মুজাহিদ, যে বিবাহকারী চারিত্রিক পবিত্রতা [হারাম থেকে আত্মরক্ষার] উদ্দেশ্য বিবাহ করে, যে মুকাতাব [বিশেষ পরিমাণ অর্থ প্রদানের মাধ্যমে মুক্তি লাভের চুক্তিবদ্ধ] গোলাম কিতাবাতের [মুক্তি চুক্তির] অর্থ আদায়ের ইচ্ছা রাখে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যোদ্ধারা আল্লাহ তাআলার প্রতিনিধি

৩১২১. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহর প্রতিনিধি তিন [শ্রেণির] লোকঃ যোদ্ধা, হাজী এবং উমরা আদায়কারী।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় জিহাদকারীর জন্য আল্লাহ যে বিষয়ের দায়িত্ব গ্রহণ করিয়াছেন

৩১২২. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করেছে- তাকে আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ এবং তাহাঁর কালিমা-ই তাওহীদের বিশ্বাস ব্যতীত আর কিছু বের করেনি, মহান মহীয়ান আল্লাহ তাকে জান্নাতে প্রবেশ করানোর অথবা তার যে বাসস্থান হইতে সে বের হইয়াছিল- সওয়াব ও গনীমতের সম্পদসহ সেখানে ফিরিয়ে আনার দায়িত্ব গ্রহণ করিয়াছেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১২৩. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় বের হইয়াছে, তাকে আল্লাহর প্রতি ঈমান এবং তাহাঁর রাস্তায় জিহাদের উদ্দেশ্য ব্যতীত অন্য কিছুই বের করেনি মহান মহীয়ান আল্লাহ তাআলা এমন ব্যক্তির দায়িত্ব গ্রহণ করিয়াছেন, আমি তাকে প্রবেশ করাব জান্নাতে এ দুয়ের একটি দিয়ে, তাকে শাহাদাৎ নসীব করে অথবা তার মৃত্যু দ্বারা; অথবা তাকে গনীমতের সম্পদ ও সওয়াবসহ ফিরিয়ে আনব তার সে বাসস্থানে, যেখান হইতে সে বের হইয়াছিল।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১২৪. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ যে আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করে, আর কে আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করে তা আল্লাহ ভাল জানেন, তার উদাহরণ হলো সে রোজাদারের ন্যায়, যে রাত জেগে ইবাদাত করে। আল্লাহর রাস্তায় মুজাহিদের জন্য আল্লাহ তাআলা দায়িত্ব গ্রহণ করিয়াছেন যে, আল্লাহ হয়তো তাকে মৃত্যু দান করে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন অথবা তাকে পুণ্য অথবা গনীমতের প্রাপ্ত সম্পদসহ নিরাপদে ফিরিয়ে আনবেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ গনীমতের মাল হইতে বঞ্চিত যোদ্ধাদের সওয়াব

৩১২৫. আবদুল্লাহ ইবনি আমর [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ যে বাহিনী আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করে, আর তারা গনীমত প্রাপ্ত হয়, তারা তাহাদের সওয়াবের দুই-তৃতীয়াংশ [দুনিয়াতেই] নিয়ে নিল, আর তাহাদের এক-তৃতীয়াংশ সওয়াব অবশিষ্ট রইল। আর যে বাহিনী গনীমত না পায়, তাহাদের বিনিময় পরিপূর্ণই [আখিরাতের জন্য] থাকে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১২৬. ইবনি উমার [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

যা তিনি তাহাঁর মহান মহীয়ান রব থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি [আল্লাহ তাআলা] বলেনঃ আমার যে বান্দা আমার সন্তুষ্টি লাভের জন্য আল্লাহর রাস্তায় জিহাদে বের হইয়াছে; আমার জিম্মায় রইলো- আমি তাকে ফিরিয়ে আনবো, যদি আমি তাকে ফিরিয়ে আনি, [তা হলে আমি তাকে ফিরিয়ে আনব] তার সওয়াব ও গনীমতের সম্পদসহ। আর যদি আমি তাকে তুলে নেই [মৃত্যু দেই], তাহলে আমি তাকে ক্ষমা করে দেব এবং তার প্রতি রহমত করব।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় জিহাদকারীর উপমা

৩১২৭. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ আল্লাহর রাস্তায় জিহাদকারীর উপমা- আর কে আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করে, তা আল্লাহই ভাল জানেন- ঐ সিয়াম পালনকারীর ন্যায়, যে রাত জেগে ইবাদাত করে, আল্লাহকে ভয় করে, রুকু করে এবং সিজদা করে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় জিহাদের সমতুল্য যা

৩১২৮. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এক ব্যক্তি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কাছে এসে বললঃ আমাকে এমন আমলের সন্ধান দিন- যা জিহাদের সমতুল্য হয়। তিনি বললেনঃ আমি তো এমন আমল পাচ্ছি না, [আচ্ছা] যখন মুজাহিদ জিহাদে বের হয়, তখন তুমি কি কোন মসজিদে প্রবেশ করে এমন ইবাদাত আরম্ভ করিতে সক্ষম, যাতে একটুও বিরতি দেবে না? আর [লাগাতার] সাওম পালন করিবে, যাতে কোন বিরতি দিবে না? লোকটি বললঃ এরূপ করিতে কে সক্ষম হইবে?

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১২৯. আবু যর [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি নাবী [সাঃআঃ]-কে জিজ্ঞাসা করলেনঃ কোন আমল সর্বোত্তম? তিনি বললেনঃ আল্লাহর প্রতি ঈমান আনা এবং মহান মহীয়ান আল্লাহর পথে জিহাদ করা।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৩০. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এক ব্যক্তি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে প্রশ্ন করলোঃ কোন আমল সর্বোত্তম? তিনি বললেনঃ আল্লাহর উপর ঈমান আনা। সে বললঃ তারপর কোনটি? তিনি বললেনঃ আল্লাহর পথে জিহাদ করা। সে বলিল, তারপর কোনটি? তিনি বললেনঃ মাবরূর হজ্জ বা মাকবূল হজ্জ।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় জিহাদকারীর মর্যাদা

৩১৩১. আবু সাইদ খুদরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ হে আবু সাইদ! যে ব্যক্তি আল্লাহকে রব হিসেবে, ইসলামকে দ্বীন হিসেবে এবং মুহাম্মাদ [সাঃআঃ]-কে নাবী হিসেবে সন্তুষ্ট চিত্তে মেনে নেয়, তার জন্য জান্নাত অবধারিত হইয়া যায়। বর্ণনাকারী বলেন, এতে আবু সাইদ [রাঃআঃ] আশ্চর্যবোধ করিলেন। তিনি বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! এ [কথা]টি আমাকে আবার বলুন। তিনি তা করিলেন। তারপর রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেন, অন্য একটি [আমল] আছে, তা দ্বারা জান্নাতে বান্দার মর্যাদা একশত গুণ বৃদ্ধি করা হয়, এর প্রতি দুটি মর্যাদা স্তরের দূরত্ব এমন- যেমন আকাশ ও পৃথিবীর মধ্যকার দূরত্ব। তিনি বললেনঃ তা কি, ইয়া রাসূলাল্লাহ? তিনি বললেনঃ আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করা, আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করা।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৩২. আবুদ দারদা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ যে ব্যক্তি নামাজ কায়েম করে, যাকাত প্রদান করে এবং আল্লাহর সঙ্গে কাউকে শরীক না করে মৃত্যুবরণ করে, [আল্লাহর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী] সে ব্যক্তিকে ক্ষমা করা মহান মহীয়ান আল্লাহর জন্য অবধারিত। সে হিজরত করুক অথবা তার নিজ আবাসে মৃত্যুবরণ করুক। আমি বললামঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমি কি লোকদের এ সুসংবাদ পৌঁছিয়ে দেব না, যাতে তারা আনন্দিত হয়? তিনি বললেনঃ জান্নাতে একশত মর্যাদা-স্তর আছে, প্রতি দুটি স্তরের দূরত্ব যমীন ও আসমানের দূরত্বের সমান, আল্লাহ তাআলা তা আল্লাহর রাস্তায় মুজাহিদের জন্য নির্দিষ্ট করে রেখেছেন। যদি মুমিনদের উপর কষ্টদায়ক না হতো, আর আমি তাহাদের আরোহণের জন্য সওয়ারী ব্যবস্থা করিতে অপারগ না হতাম, আর আমার সাহচর্য থেকে বঞ্চিত থাকার কারণে তাহাদের মনোকষ্ট না হতো, তবে আমি কোন যোদ্ধাদল হইতেই পিছিয়ে থাকতাম না। আমার ইচ্ছা হয়- আমি [একবার] শহীদ হইয়া যাই, আবার জীবিত হই, আবার শহীদ হই।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে মুসলমান হইয়াছে, হিজরত করেছে এবং জিহাদ করেছে- তার সওয়াব [ফযীলত]

৩১৩৩. আমর ইবনি মালিক জানাবী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

ফাযালা ইবনি উবায়দ [রাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ আমি সে ব্যক্তির যামিন হলাম, যে আমার প্রতি ঈমান আনলো এবং ইসলাম গ্রহণ করলো এবং হিজরত করলো- এমন একটি ঘরের- যা জান্নাতের আঙিনায় [বহির্ভাগে] হইবে, আর একটি ঘরের- যা জান্নাতের মধ্যভাগে। আর আমি যামিন হলাম ঐ ব্যক্তির জন্য, যে আমার প্রতি ঈমান আনয়ন করেছে এবং ইসলাম গ্রহণ করেছে এবং জিহাদ করেছে আল্লাহর রাস্তায় এমন ঘরের- যা জান্নাতের বহির্ভাগে এবং একটি ঘরের- যা জান্নাতের মধ্যভাগে হইবে এবং একটি ঘরের- যা জান্নাতের কক্ষসমূহের উপরিভাগে হইবে। সে যেখানে কল্যাণের সন্ধান পায়, সেখান থেকে কল্যাণ সন্ধান করিবে এবং মন্দ থেকে রক্ষার জন্য যেখানে ইচ্ছা পলায়ন করিবে। সে যেখানে ইচ্ছা মৃত্যুবরণ করুক, [জান্নাত তার জন্য অবধারিত]।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৩৪. সাবরাতা ইবনি আবু ফাকিহ [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ শয়তান আদম-সন্তানের রাস্তাসমূহে বসে থাকে। সে ইসলামের পথে বসে [বাধা সৃষ্টি করিতে গিয়ে] বলেঃ তুমি ইসলাম গ্রহণ করিবে, আর তোমার ধর্ম ও তোমার বাপ দাদার ধর্ম এবং তোমার পিতার পূর্বপুরুষদের ধর্ম পরিত্যাগ করিবে? কিন্তু আদম সন্তান তার কথা অমান্য করে ইসলাম গ্রহণ করে। তারপর শয়তান তার হিজরতের রাস্তায় বসে বলেঃ তুমি হিজরত করিবে, তোমার ভূমি ও আকাশ পরিত্যাগ করিবে? মুহাজির তো একটি লম্বা রশিতে আবদ্ধ ঘোড়ার ন্যায় [নিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপনে বাধ্য]। কিন্তু সে ব্যক্তি তার কথা অমান্য করে হিজরত করে। এরপর শয়তান তার জিহাদের রাস্তায় বসে এবং বলেঃ তুমি কি জিহাদ করিবে? এতো নিজেকে এবং নিজের ধন সম্পদকে ধ্বংস করা। তুমি যুদ্ধ করে নিহত হইবে, তোমার স্ত্রী অন্যের বিবাহে যাবে, তোমার সম্পদ ভাগ হইবে। সে ব্যক্তি তাকে অমান্য করে জিহাদে গমন করে। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ যে এরূপ করিবে, তাকে জান্নাতে প্রবেশ করানো মহান মহীয়ান আল্লাহর [ওয়াদা অনুযায়ী জান্নাত তার] জন্য অবধারিত। আর যে ব্যক্তি শহীদ হয়, তাকে জান্নাতে প্রবেশ করানো আল্লাহর উপর অবধারিত। যদি সে ডুবে যায়, তাকে জান্নাতে প্রবেশ করানো আল্লাহর উপর অবধারিত। আর যদি তার সওয়ারী তাকে ফেলে দিয়ে তার গর্দান ভেঙ্গে দেয় বা মেরে ফেলে, তখনও তাকে জান্নাতে প্রবেশ করানো আল্লাহর উপর অবধারিত।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় জোড়া-জোড়া দান করে—- তার ফজিলত

৩১৩৫. ইবনি শিহাব [রঃ] হইতে বর্ণিতঃ

হুমায়দ ইব্ন আবদুর রহমান তাঁকে সংবাদ দিয়েছেন যে, আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] বর্ণনা করিতেন, রাসুলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় জোড়া জোড়া দান করিবে, জান্নাতে তাকে ডাকা হইবে, হে আবদুল্লাহ [আল্লাহর বান্দা]! এ [দরজাটি] অতি উত্তম! যে ব্যক্তি নামাজ আদায়কারীদের অন্তর্ভুক্ত হইবে, তাকে সালাতের দরজা দিয়ে হইবে। আর যে ব্যক্তি মুজাহিদদের অন্তর্ভূক্ত হইবে, তাকে জিহাদের দরজা দিয়ে ডাকা হইবে। আর যে সাদাকা দানকারীদের অন্তর্ভূক্ত হইবে, তাকে সাদাকার দরজা দিয়ে ডাকা হইবে। আর যে সাওম পালনকারী হইবে, তাকে রাইয়্যান [সাওমের দরজা] দিয়ে ডাকা হইবে। আবু বকর [রাঃআঃ] বলিলেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্ ! যে ব্যক্তিকে একযোগে এ সকল দরজা [র কোন একটি] দিয়ে ডাকা হইবে তার তো কোন সংকট নেই। তবে কোন ব্যক্তিকে কি এই সব দরজা দিয়ে ডাকা হইবে? তিনি বলিলেনঃ হ্যাঁ। আর আমি আশা করি, তুমি তাহাদের মধ্যে হইবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে আল্লাহর কলিমাকে সমুন্নত করার জন্য লড়াই করে

৩১৩৬. আবু মূসা আশআরী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

একজন বেদুঈন রাসূলূল্লাহ্ [সাঃআঃ]-এর কাছে এসে বলিল, এক ব্যক্তি যুদ্ধ করে প্রসিদ্ধি লাভের জন্য, আর এক ব্যক্তি যুদ্ধ করে গনীমতের মাল লাভের জন্য, অন্যজন যুদ্ধ করে বাহাদূরী প্রকাশের জন্য; তাহলে এদের মধ্যে আল্লাহর রাস্তায় কে? তিনি বলিলেনঃ যে ব্যক্তি মহান মহীয়ান আল্লাহর কলিমা {১} সমুন্নত করার জন্য লড়াই করে, শুধু তাই আল্লাহর রাস্তায়।

{১} কালিমাতুল্লাহ্ অর্থ তাওহীদ, দ্বীন ও ইসলামের দিকে দাওয়াত দেওয়া।জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি বীর উপাধি অর্জনের জন্য যুদ্ধ করে

৩১৩৭. সুলায়মান ইবন্ ইয়াসার [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

লোক আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] থেকে পৃথক হওয়ার পর সিরিয়ার [নাতিল নামক] এক ব্যক্তি তাঁকে বলিল, হে শায়খ! আপনি রাসূলূল্লাহ্ [সাল্লালাহু আলাইহিস্ সাল্লাম] থেকে শুনেছেন, এমন একটি হাদীস আমার কাছে বর্ণনা করুন। তিনি বলিলেনঃ হ্যাঁ, আমি রাসূলূল্লাহ্ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছিঃ লোকের মধ্যে কিয়ামতের দিন প্রথম [দিকে] যাদের বিচার করা হইবে, তারা হইবে তিন শ্রেণির লোক। প্রথমতঃ সে ব্যক্তি যে শহীদ হইয়াছে তাকে আনা হইবে, আল্লাহ তাআলা তাকে তাহাঁর নিআমতসমুহ স্মরণ করাবেন; সে তা স্বীকার করিবে। তাকে বলবেন, এসব নিআমত ভোগ করে তুমি কী আমল করেছ? সে ব্যক্তি বলবেঃ আমি তোমার সন্তুষ্টির জন্য লড়াই করে শহীদ হইয়াছি। তিনি [আল্লাহ] বলবেনঃ তুমি মিথ্যা বলছো। বরং তুমি যুদ্ধ করেছিলে এই জন্য, যেন বলা হয় অমুক ব্যক্তি বাহাদুর; তা বলা হইয়াছে। তার সম্পর্কে আদেশ করা হইবে, ফলে তাকে তার মুখের উপর [অধঃমুখে] হেঁচড়িয়ে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হইবে। আর এক ব্যক্তি ইল্‌ম শিক্ষা করেছে এবং লোকদেরকে শিক্ষা দান করেছে এবং কুরআন পাঠ করেছে। তাকে আনা হইবে, তাকে তাহাঁর নিআমতসমুহ স্মরণ করাবেন, সে তা স্বীকার করিবে। তাকে বলা হবেঃ এর জন্য তুমি কী আমল করেছ? সে বলবেঃ আমি ইল্‌ম শিক্ষা করেছি, অন্যকেও শিক্ষা দিয়েছি, আর তোমার সন্তুষ্টির জন্য কুরআন পাঠ করেছি। তিনি [আল্লাহ তাআলা] বলবেনঃ তুমি মিথ্যা বলছো। বরং তুমি ইল্‌ম শিক্ষা করেছিলে এজন্য যেন তোমাকে আলিম বলা হয়। আর কুরআন পাঠ করেছিলে, যেন তোমাকে কারী বলা হয়; তা বলা হইয়াছে। এরপর তার সম্বন্ধে আদেশ করা হইবে, আর তাকে মুখের উপর হেঁচড়িয়ে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হইবে। আর এক ব্যক্তি আল্লাহ যাকে প্রশস্ততা [সম্পদ] দান করেছিলেন এবং সর্বপ্রকার মাল দান করেছিলেন, তাকে আনা হইবে। তাকে তাহাঁর নিআমত সম্বন্ধে অবহিত করা হইবে, সে তা স্বীকার করিবে। তাকে বলা হবেঃ এর জন্য তুমি কী আমল করেছ? সে বলবেঃ আমি তোমার পছন্দনীয় কোনো রাস্তাই ছাড়িনি, তোমার সন্তুষ্টির জন্য যাতে ব্যয় করিনি। তিনি [আল্লাহ তাআলা] বলবেনঃ তুমি মিথ্যা বলছো। বরং তুমি এজন্যই ব্যয় করেছ, যাতে দাতা বলা হয়। তা বলা হইয়াছে। এরপর তার সম্পর্কে আদেশ করা হইবে, তাকে তার মুখ নিচের দিকে করে হেঁচড়িয়ে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হইবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর পথে যুদ্ধ করে এবং সে [উটের] রশি ব্যতীত আর কিছুর নিয়্যত না করে

৩১৩৮. ইয়াহইয়া ইবনি ওয়ালীদ ইবনি উবাদা ইবন্‌ সামিত [রাঃআঃ] তাহাঁর দাদা থেকে বর্ণনা করেন হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলূল্লাহ্‌ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় যুদ্ধ করলো এবং [উটের] রশি [সামান্য গনীমত] ব্যতীত আর কিছুর নিয়্যত করিল না; সে যা নিয়্যত করলো, তাই তার প্রাপ্য হইবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

৩১৩৯. ইয়াহ‌ইয়া ইবনি ওয়ালীদ ইবনি উবাদা ইবন্‌ সামিত [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলূল্লাহ্‌ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় যুদ্ধ করলো এবং [উটের] রশি ছাড়া তার আর কিছুর নিয়্যত করিল না; সে যা নিয়্যত করলো, তাই তার প্রাপ্য হইবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি সওয়াব ও সুনামের জন্য যুদ্ধ করে

৩১৪০. আবু উমামা বাহিলী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এক ব্যক্তি রাসুলূল্লাহ্‌ [সাঃআঃ]-এর কাছে এসে বললেনঃ ঐ ব্যক্তি সম্বন্ধে আপনি কি বলেন, যে ব্যক্তি সওয়াব এবং সুনামের জন্য জিহাদ করে, তার জন্য কি রয়েছে? রাসুলূল্লাহ্‌ [সাঃআঃ] বললেনঃ তার জন্য কিছুই নেই। সে ব্যক্তি তা তিনবার পুনরাবৃত্তি করিলেন। রাসুলূল্লাহ্‌ [সাঃআঃ] তাকে [একটি কথাই] বললেনঃ তার জন্য কিছুই নেই। তারপর তিনি [সাঃআঃ] বললেনঃ আল্লাহ তাআলা তাহাঁর জন্য কৃত খাঁটি [একনিষ্ঠ] আমল ব্যতীত, যা দ্বারা আল্লাহর সন্তুষ্টি ছাড়া আর কিছুই উদ্দেশ্য না হয়, আর কিছুই কবুল করেন না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান সহীহ

পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি উটের দুধ দোহন করার দুই টানের মধ্যবর্তী অবকাশের সময় পর্যন্ত আল্লাহর রাস্তায় যুদ্ধ করে।

৩১৪১. মালিক ইবন্‌ ইউখামির [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, মুআয ইবনি জাবাল [রাঃআঃ] তাহাদের কাছে হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন হইতে বর্ণিতঃ

তিনি রাসুলূল্লাহ্‌ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছেন, যে মুসলমান ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় উটনীর দুধ দোহনের দুইবারের মধ্যবর্তী [স্বল্প] সময় পর্যন্ত [অর্থাৎ স্বল্প সময়ের জন্য] জিহাদ করে, তার জন্য জান্নাত ওয়াজিব হইয়া যায়। যে ব্যক্তি আল্লাহ তাআলার নিকট নিজেই শাহাদাত কামনা করে কায়মনোবাক্যে, তারপর মৃত্যুবরণ করে অথবা শহীদ হয়, তার জন্য রয়েছে শহীদের সওয়াব। আর যে ব্যক্তি আল্লাহর পথে যেকোন রূপ আহত হয় অথবা সামান্য রক্তাক্ত হয় তা [সে ক্ষত] কিয়ামতের দিন প্রচুর রক্তাক্তরূপে উত্থিত হইবে। তার বর্ণ হইবে যাফরানের ন্যায় এবং সূঘ্রাণ হইবে মিশকের ন্যায় এবং যে আল্লাহর রাস্তায় আহত হইবে তার উপর শহীদের মোহর থাকিবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় তীর নিক্ষেপ করে তার সওয়াব

৩১৪২. শুরাহ্‌বীল ইবন্‌ সিমত [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] থেকে বর্ণিত হইতে বর্ণিতঃ

তিনি আমর ইবন্‌ আবাসা [রাঃআঃ]-কে বললেনঃ হে আমর! আমাদের কাছে একটি হাদীস বর্ণনা করুন, যা আপনি রাসুলূল্লাহ্‌ [সাঃআঃ] থেকে শ্রবণ করিয়াছেন। তিনি বললেনঃ আমি রাসুলূল্লাহ্‌ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর পথে [জিহাদ করিতে করিতে] বৃদ্ধ হইবে, কিয়ামতের দিন তা তার জন্য একটি নূর হইবে। আর যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় একটি তীর নিক্ষেপ করিবে, তা শত্রু পর্যন্ত পৌঁছুক বা না পৌঁছুক তার জন্য একটি গোলাম আযাদ করার ন্যায় [সওয়াব লিখিত] হইবে। আর যে ব্যক্তি একজন মুমিন গোলাম আযাদ করিবে, তা তার জন্য জাহান্নাম হইতে পরিত্রাণের কারণ হইবে, এক এক অঙ্গের পরিবর্তে এক একটি অঙ্গ।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৪৩. আবু নুজাইহ্‌ সালামী {১} হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছি, যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় [কাফিরদের দিকে] একটি তীর পৌঁছে দিল, এটি তার জন্য জান্নাতে একটি মর্যাদা স্তর [লাভের কারণ] হইবে। [অতএব] আমি সেদিন ষোলোটি তীর [শত্রু শিবিরে] পৌঁছে দেই। তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে আরও বলিতে শুনেছিঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় একটি তীর ছুঁড়বে, তা হইবে একটি গোলাম আযাদ করার সমতুল্য।

{১} আবু নুজাইহ্‌ সালামী [রাঃআঃ]-এর নাম আমর ইবনি আবাসা।জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৪৪. শুরাহবীল ইবনি সিম্‌ত [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] থেকে বর্ণিত হইতে বর্ণিতঃ

তিনি কাব ইবনি মুররাহ্‌ [রাঃআঃ]-কে বললেনঃ হে কাব! রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে আমাদের নিকট হাদীস বর্ণনা করুন এবং সাবধানতা অবলম্বন করুন। তিনি বলিলেন, আমি তাঁকে বলিতে শুনেছিঃ যে ব্যক্তি মুসলিম অবস্থায় আল্লাহর রাস্তায় বৃদ্ধ হইয়াছে, কিয়ামতের দিন তা তার জন্য নূর হইবে। তাঁকে আবার বলা হলোঃ রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে আমাদের নিকট হাদীস বর্ণনা করুন এবং সাবধানতা অবলম্বন করুন। তিনি বলিলেন, আমি তাঁকে বলিতে শুনেছিঃ তোমরা তীর নিক্ষেপ করিবে। যে ব্যক্তি শত্রুর প্রতি একটি তীর পৌঁছাবে, আল্লাহ তাআলা এর বিনিময়ে তার একটি মর্যাদা স্তর বর্ধিত করবেন। ইবনি নাহ্‌হাম [রাঃআঃ] বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! মর্যাদা কি? তিনি বললেনঃ তা তোমার মায়ের ঘরের চৌকাঠ নয়। ইহা এমন দুটি স্তর যে, যাহার মধ্যে পার্থক্য হইবে এক শত বছরের।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৪৫. শুরাহবীল ইবনি সিম্‌ত [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] থেকে বর্ণিত হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি বললামঃ হে আমর ইবনি আবাসা! আমাদের নিকট এমন হাদীস বর্ণনা করুন, যা আপনি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে শ্রবণ করিয়াছেন, যাতে ভুল ভ্রান্তি ও ঘাটতি না হয়। তিনি বলিলেন, আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় একটি তীর নিক্ষেপ করিবে শত্রুর প্রতি, এতে সে ভুল করলো কিংবা সঠিকভাবে পৌঁছালো, এটি তার জন্য একটি ক্রীতদাস আযাদ করার সমতুল্য হইবে। আর যে ব্যক্তি একজন মুসলমান ক্রীতদাস আযাদ করিবে, তার প্রত্যেকটি অঙ্গ এর প্রত্যেক অঙ্গের পরিবর্তে জাহান্নামের আগুন হইতে পরিত্রাণ পাবে। আর যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় বার্ধক্যে উপনীত হইবে, কিয়ামতের দিনে তা হইবে তার জন্য নূর।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৪৬. উক্‌বা ইবনি আমির [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ মহান মহীয়ান আল্লাহ তাআলা একটি তীরের উসিলায় তিন ব্যক্তিকে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন। এর প্রস্তুতকারক, যে তা প্রস্তুতকালে উত্তম নিয়্যত রাখবে। যে তা নিক্ষেপ করিবে এবং যে তা কাউকে তুলে দেবে [নিক্ষেপ করিতে দেবে]।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় যারা আহত হয়

৩১৪৭. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় যখম হইবে, আর আল্লাহ্ই ভাল জানেন, কে তাহাঁর রাস্তায় যখম হইয়াছে; সে কিয়ামতের দিন এমন অবস্থায় আসবে যে, তার ক্ষত রক্ত ঝরাতে থাকিবে, এর বর্ণ হইবে রক্তের, আর গন্ধ হইবে কস্তুরীর।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৪৮. আবদুল্লাহ ইব্ন ছাবালা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলূল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তাহাদেরকে [শহীদদেরকে] তাহাদের রক্তসহ চাদরাবৃত কর। কেননা কেউ আল্লাহর রাস্তায় যখম হলে, সে কিয়ামতের দিন এমন অবস্থায় উপস্থিত হইবে যে, তার ক্ষত হইতে রক্ত নির্গত হইতে থাকিবে। যাহার বর্ণ হইবে রক্তের, কিন্তু সুগন্ধী হইবে কস্তুরীর।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ শত্রু যাকে আঘাত করে সে কি বলবে

৩১৪৯. জাবির ইব্ন আবদুল্লাহ [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

উহুদ যুদ্ধের দিন যখন কিছু লোক পালিয়ে গেল তখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] একদিকে বারজন আনসারের মধ্যে [বেষ্টিত] ছিলেন, তাহাদের মধ্যে তালহা ইব্ন উবায়দুল্লাহ্ [রাঃআঃ]-ও ছিলেন। মুশরিকরা তাহাদেরকে নাগালে পেয়ে গেল। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] তা দেখে বললেনঃ এ দলের জন্য কে আছে? তাল্হা [রাঃআঃ] বললেনঃ আমি। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ তুমি যথাবস্থায় থাক। {১} তখনই একজন আনসারী ব্যক্তি বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্! আমি। তিনি বললেনঃ হ্যাঁ তুমি। এ ব্যক্তি যুদ্ধ করিতে করিতে শহীদ হলেন। আবার [তিনি লক্ষ্য করিলেন, এবং দেখিতে পেলেন যে, মুশরিকরা আক্রমণ করছে] তিনি বললেনঃ এ দলের জন্য কে আছে? এবারও তাল্হা [রাঃআঃ] বললেনঃ আমি। তিনি বললেনঃ তুমি পূর্বের মতই থাক। তখন এক আনসারী ব্যক্তি বললেনঃ আমি [আছি]। তিনি বললেনঃ হ্যাঁ তুমি। এ ব্যক্তিও যুদ্ধ করিতে করিতে শহীদ হলেন। এরপর তিনি এভাবে বলছিলেন এবং আনসারীদের এক একজন তাহাদের দিকে বের হইয়া পূর্ববর্তী ব্যক্তির ন্যায় যুদ্ধ করিতে করিতে শহীদ হলেন। অবশেষে রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] এবং তালহা ইব্ন উবায়দুল্লাহ্ [রাঃআঃ] অবশিষ্ট থাকলেন। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ এ দলের জন্য কে আছে? তালহা[রাঃআঃ] বললেনঃ আমি [আছি]। তালহা [রাঃআঃ] এগারজনের যুদ্ধ একাই করিলেন। পরিশেষে তাহাঁর হাত আহত হলো এবং হাতের আঙ্গুল কর্তিত হলো। এতে তিনি উহ্ শব্দের ন্যায় শব্দ উচ্চারণ করিলেন। তখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ যদি তুমি বলিতে বিসমিল্লাহ্, তা হলে তোমাকে ফেরেশতাগণ উপরে উঠিয়ে নিতেন, আর লোকেরা তা দেখিতে পেত। এরপর আল্লাহ্ তাআলা মুশরিকদের ফিরিয়ে দিলেন।

{১} তুমি আগে যেমন ছিলে এখনও সেরূপ থাক। এর অর্থ তুমি এখনও বীরের ন্যায় থাক, ওদের সাথে তুমি এখন যুদ্ধ করো না, পরে দেখা যাবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ অন্যান্য

পরিচ্ছেদঃ যুদ্ধ ক্ষেত্রে ভুলবশতঃ নিজের তলোয়ারের আঘাতে শহীদ হলে

৩১৫০. সালামা ইব্ন আকওয়া [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

বলেন, খায়বর যুদ্ধে আমার ভাই রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সাথে [নেতৃত্বে] ভীষণ যুদ্ধ করেন। তাহাঁর তরবারি তাহাঁর উপর আপতিত হলে তিনি শহীদ হন। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সাহাবীগণ [রাঃআঃ] এ সম্পর্কে মন্তব্য করিতে লাগলেন এবং তার [শাহাদাত] সম্পর্কে সন্দেহ পোষণ করিতে লাগলেন। তাঁরা বলিলেন, তিনি এমন এক ব্যক্তি, যাহার মৃত্যু হইয়াছে তার নিজের অস্ত্রে।

সালামা [রাঃআঃ] বলেন, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] খায়বর হইতে প্রত্যাবর্তন করার সময় আমি বললামঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্! আপনার সামনে কবিতা [বিশেষ ধরণের ছন্দ] আবৃত্তি করার অনুমতি আমাকে দিবেন কি? রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাকে অনুমতি দিলেন। তখন উমার ইব্ন খাত্তাব [রাঃআঃ] বলিলেন, তুমি কি বলবে বুঝে শুনে বলবে। আমি বললামঃ

[আর-বি.]

অর্থাৎঃ আল্লাহর কসম! আল্লাহ্ যদি আমাদের হিদায়াত না করিতেন, তাহলে না আমরা হিদায়াত পেতাম, আমরা সাদাকা করতাম না, আর আমরা নামাজ আদায় করতাম না। [এ পর্যন্ত বলিতেই] রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ “তুমি সত্যই বলেছ”।

[আরবি]

অর্থঃ আপনি আমাদের উপর শান্তি অবতীর্ণ করুন, আর যুদ্ধক্ষেত্রে আমাদের অটল রাখুন। মুশরিকরা আমাদের উপর অত্যাচার করেছে।

আমার কবিতা পাঠ শেষ হলে রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ এটা কে বলেছে? আমি বললামঃ আমার ভাই। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ আল্লাহ তাকে রহম করুন। আমি বললামঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! লোক তার উপর জানাযাহার নামায পড়তে ভয় পায়। তারা বলেঃ এ ব্যক্তি নিজের অস্ত্রে মারা গেছে। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেন, সে [পুণ্যের পথে] অবিরাম প্রচেষ্টা চালিয়ে [আল্লাহর শত্রুদের মুকাবিলায়] জিহাদ করিতে করিতে শহীদ হইয়াছে।

ইবনি শিহাব [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, তারপর আমি সালামা ইবনি আকওয়ার এক ছেলেকে জিজ্ঞাসা করলে, তিনি তার পিতা হইতে অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিলেন। উপরন্তু তিনি বলিলেন, যখন আমি বললাম, লোক তার উপর নামায পড়তে দ্বিধাবোধ করছে, তখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ তারা সঠিক বলছে। সে মুজাহিদের ন্যায় যুদ্ধ করেছে, তার জন্য দুইগুণ সওয়াব রয়েছে। [এ সময়] তিনি তাহাঁর দুটি আঙ্গুল দিয়ে ইশারা করিলেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহ তাআলার রাস্তায় শহীদ হওয়ার আকাঙ্খা করা

৩১৫১. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যদি আমার উম্মতের জন্য কষ্টসাধ্য না হতো, তাহলে আমি কোন যুদ্ধে গমন হইতে অনুপস্থিত থাকতাম না। তারা কোন বাহন পায় না, আর আমিও তাহাদের জন্য বাহনের ব্যবস্থা করিতে পারি না। আর যদি আমার সঙ্গে যাওয়া হইতে অনুপস্থিত থাকা তাহাদের জন্য কষ্টকর না হতো, তবে আমার বাসনা হয় যে, আমি আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হই, পুনরায় জীবিত হই, পুনরায় শহীদ হই, পুনরায় জীবিত হই, পুনরায় শহীদ হই। [তিনি] তিনবার [এরূপ বলিলেন]।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৫২. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছিঃ সে সত্তার কসম! যাঁহার হাতে আমার প্রাণ, যদি মুমিনদের মধ্যে এমন লোক না হতো, যারা আমার সঙ্গে যুদ্ধে গমন হইতে অনুপস্থিত থাকতে চায় না, আর আমি তাহাদের জন্য সওয়ারীর ব্যবস্থাও করিতে পারি না, তাহলে আল্লাহর রাস্তায় যুদ্ধ করা হইতে আমি অনুপস্থিত থাকতাম না। সে সত্তার কসম! যাহার হাতে আমার প্রাণ, আমার ইচ্ছা হয়- আমি আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হইয়া যাই, আবার জীবিত হই, আবার শহীদ হই, আবার জীবিত হই, আবার শহীদ হই।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৫৩. ইবনি আবু আমীরাতা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ মুসলমানদের মধ্যে এমন কেউ নেই, যাকে আল্লাহ মৃত্যুদান করিয়াছেন, আর সে পুনরায় তোমাদের নিকট প্রত্যাবর্তন করিবে এবং তা ভালবাসে, তবে শহীদ ব্যক্তি তার জন্য পৃথিবী এবং পৃথিবীস্থ সব কিছুই দেয়া হইবে। ইবনি আবু আমীরা [রাঃআঃ] বলেন, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ শহরবাসী এবং গ্রামবাসী [অর্থাৎ পৃথিবী ও তন্মধ্যস্থিত যা আছে সব কিছু] আমার জন্য হোক, তা হইতে আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হওয়া আমার নিকট অধিক প্রিয়।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হওয়ার সওয়াব

৩১৫৪. আমর [রাঃআঃ] বলেন হইতে বর্ণিতঃ

আমি জাবির [রাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছি, উহুদ যুদ্ধের দিন এক ব্যক্তি নাবী [সাঃআঃ]-কে বলিলঃ আমি যদি আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হইয়া যাই, তাহলে আমি কোথায় থামব? তা আমাকে বলুন। তিনি বললেনঃ জান্নাতে। তারপর সে ব্যক্তি তার হাতের খেজুর ফেলে দিয়ে যুদ্ধে যোগদান করলো এবং শহীদ হইয়া গেল।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ ঋণগ্রস্ত ব্যক্তির যুদ্ধে যোগদান

৩১৫৫. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] মিম্বরে উপবেশন করে খুতবা দিচ্ছিলেন, এমন সময় এক ব্যক্তি এসে বললেনঃ আমি যদি ধৈর্যশীল হইয়া সওয়াবের নিয়তে সম্মুখ সমরে অবতীর্ণ হই, পিছপা না হইয়া যুদ্ধ করি, তাহলে কি আল্লাহ তাআলা আমার সব পাপ মার্জনা করবেন? তিনি বললেনঃ হ্যাঁ। তারপর কিছুক্ষণ তিনি নিশ্চুপ থাকলেন, পরে বললেনঃ এ ক্ষেত্রে প্রশ্নকারী লোকটি কোথায়? লোকটি বললেনঃ এই যে, আমি এখানে। তিনি বললেনঃ তুমি কি বলেছিলে? সে বললঃ আমি যদি আল্লাহর রাস্তায় ধৈর্যসহকারে সাওয়াবের নিয়্যতে সম্মুখে অগ্রসর হইয়া যুদ্ধ করি, পিছু না হটি- তাহলে কি আমার পাপসমূহ আল্লাহ ক্ষমা করবেন? তিনি বললেনঃ হ্যাঁ, ঋণ ব্যতীত। এইমাত্র জিবরাঈল [আঃ] আমাকে আমার কানে কানে তা বলে গেলেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান সহীহ

৩১৫৬. আবদুল্লাহ্‌ ইবনি আবু কাতাদা তাহাঁর পিতা থেকে হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, এক ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর নিকট উপস্থিত হইয়া বলিলঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! আমাকে অবহিত করুন, আমি যদি ধৈর্যের সাথে সওয়াবের নিয়্যতে সামনে অগ্রসর হইয়া, পিছু না হটে আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হইয়া যাই, তাহলে কি আল্লাহ আমার সব পাপ ক্ষমা করে দিবেন? রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ হ্যাঁ। যখন সে ব্যক্তি প্রস্থান করলো, তখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাকে ডাকলেন অথবা ডাকতে বলিলেন। তাকে ডাকা হলো, তখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ তুমি কি রূপে বললে? লোকটি তার বক্তব্য তাহাঁর নিকট পুনরায় ব্যক্ত করলো। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ হ্যাঁ, তবে ঋণ ব্যতীত; জিবরাঈল [আঃ] আমাকে এরূপ বলিলেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৫৭. আবু কাতাদা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] লোকদের মধ্যে দাঁড়িয়ে তাহাদের বললেনঃ আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ এবং আল্লাহর প্রতি ঈমান সর্বোত্তম আমল। এক ব্যক্তি দাঁড়িয়ে বললোঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! আমাকে অবহিত করুন, আমি যদি আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হই, তাহলে কি আল্লাহ তাআলা আমার সব পাপ মার্জনা করবেন? রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ হ্যাঁ। যদি তুমি ধৈর্যসহকারে সওয়াবের আশায় সামনে অগ্রসর হইয়া পিছু না হটে যুদ্ধ কর, তবে ঋণ ব্যতীত। জিবরাঈল [আঃ] আমাকে এরূপ বলিলেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৫৮. আবদুল্লাহ ইবনি আবু কাতাদা তাহাঁর পিতা কাতাদা [রাঃআঃ] হইতে হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] মিম্বরের উপর থাকাবস্থায় এক ব্যক্তি এসে বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! আমি যদি আমার এ তলোয়ার দিয়ে ধৈর্যসহকারে সওয়াবের নিয়্যতে সামনে অগ্রসর হইয়া পিছু না হটে আল্লাহর রাস্তায় যুদ্ধ করিতে করিতে শহীদ হইয়া যাই; তাহলে কি আমার পাপসমূহ আল্লাহ ক্ষমা করে দিবেন? তিনি বললেনঃ হ্যাঁ। লোকটি চলে যেতে লাগলে তাকে ডেকে বললেনঃ ইনি হলেন জিব্‌রীল, তিনি [এসে] বলেছেন- তোমার উপর ঋণ থাকলে তা ব্যতীত।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় যা কামনা করা হইবে

৩১৫৯. কাসীর ইবনি মুররা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

উবাদা ইবনি সামিত [রাঃআঃ] তাহাদের নিকট বর্ণনা করিয়াছেন যে, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ পৃথিবীতে এমন কোন লোক নেই, মৃত্যুবরণ করার পর তার জন্য আল্লাহর নিকট উত্তম অবস্থা হওয়া সত্ত্বেও, তার জন্য পৃথিবীস্থ সব কিছু তাকে দেয়া হইবে এ অবস্থা সত্ত্বেও সে তোমাদের নিকট প্রত্যাবর্তনের আকাঙ্খা করিবে- শহীদ ব্যতীত। কেননা, সে প্রত্যাবর্তন করে পুনরায় শহীদ হইতে পছন্দ করিবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান সহীহ

পরিচ্ছেদঃ জান্নাতীগণ যা কামনা করবেন

৩১৬০. আনাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ জান্নাতীদের মধ্যে হইতে এক ব্যক্তিকে আনা হইবে। মহান মহীয়ান আল্লাহ তাআলা তাঁকে বলবেনঃ হে আদম সন্তান! তোমার বাসস্থান কেমন পেলে? সে বলবেঃ হে আমার প্রতিপালক! সর্বোত্তম স্থান। তিনি বললেবনঃ আরও কিছু চাও এবং আকাঙ্খা কর। তখন সে ব্যক্তি বলবেঃ হে আল্লাহ! আমি চাই, আপনি আমাকে পুনরায় পৃথিবীতে পাঠিয়ে দিন। আমি আপনার রাস্তায় দশবার শহীদ হই। কেননা সে শাহাদাতের মর্যাদা দেখিতে পেয়েছে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ শহীদ কী যাতনা অনুভব করে

৩১৬১. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃবলেছেনঃ শহীদ ব্যক্তি নিহত হওয়ার কষ্ট তোমাদের কেউ পিপীলিকার কামড়ের [অথবা চিমটি কাটার] কষ্টের চাইতে বেশি অনুভব করিবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান সহীহ

পরিচ্ছেদঃ শাহাদাত প্রসংগ

৩১৬২. সাহল ইবনি আবু উমামা ইবনি সাহ্‌ল ইবনি হানীফ [রাঃআঃ] তাহাঁর পিতার মাধ্যমে তাহাঁর দাদা হইতে হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি মহান মহীয়ান আল্লাহ তাআলার কাছে সর্বান্তকরণে শাহাদাত কামনা করিবে, সে তার বিছানায় মৃত্যুবরণ করলেও আল্লাহ তাআলা তাকে শহীদের মর্যাদা দান করবেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৬৩. উক্‌বা ইবনি আমির [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি পাঁচ প্রকারের যে কোন এক প্রকারে মৃত্যুবরণ করিবে- সে শহীদ ঃ আল্লাহর রাস্তায় নিহত ব্যক্তি শহীদ, আল্লাহর রাস্তায় যে ব্যক্তি [নদী ইত্যাদিতে] ডুবে মরে- সে শহীদ, যে আল্লাহর রাস্তায় পেটের পীড়ায় মরে- সে শহীদ, যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় প্লেগ বা তাউন রোগে মারা যায়- সে শহীদ, আর যে স্ত্রীলোক সন্তান প্রসবের সময় আল্লাহর রাস্তায় মৃত্যুবরণ করে- সেও শহীদ।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৬৪. ইরবায ইবনি সারিয়া [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ শহীদগণ এবং যারা বিছানায় [স্বাভাবিক] মৃত্যুবরণ করেছে, তারা আমাদের রবের নিকট বাদানুবাদ করিবে- তাউন [প্লেগ] রোগে মারা গেছে তার সম্বন্ধে। শহীদগণ বলবেনঃ আমাদের এ ভাইয়েরা নিহত হইয়াছেন, যেভাবে আমরা নিহত হইয়াছি। আর বিছানায় মৃত্যুবরণকারিগণ বলবেনঃ আমাদের এ ভাইয়েরা তাহাদের বিছানায় মৃত্যুবরণ করেছে, যেমন আমরা মৃত্যুবরণ করেছি [শহীদ হয়নি]। তখন আমাদের রব বলবেনঃ তাহাদের যখমের প্রতি লক্ষ্য কর, যদি তাহাদের যখম শহীদদের ক্ষতের সদৃশ হয়, তাহলে তারা তাহাদের মধ্যে হইবে এবং তাহাদের সাথে থাকিবে, তখন দেখা যাবে তাহাদের ক্ষত শহীদদের ক্ষতের সদৃশ।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় হত্যাকারী ও নিহত ব্যক্তির জান্নাতে একত্রিত হওয়া

৩১৬৫. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ মহান মহীয়ান আল্লাহ্ তাআলা দুই ব্যক্তি সম্বন্ধে আশ্চর্যবোধ করবেন, তাহাদের একজন অন্যজনকে হত্যা করিবে। অন্য সময় তিনি বলেছেনঃ আল্লাহ্ তাআলা সন্তুষ্টি প্রকাশ করবেন ঐ দুই ব্যক্তি সম্বন্ধে, যাদের একজন তার সাথীকে হত্যা করিবে, এরপর তারা উভয়ে জান্নাতে প্রবেশ করিবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ [হত্যাকারী ও নিহত ব্যক্তির জান্নাতে একত্রিত হওয়া] এর ব্যাখ্যা

৩১৬৬. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহ্ তাআলা দুই ব্যক্তির প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশ করবেন, তাহাদের একে অন্যকে হত্যা করে- আর উভয়ে জান্নাতে প্রবেশ করে। একজন [তো আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করে] শহীদ হয়, এরপর আল্লাহ্ তাআলা হত্যাকারীকে ক্ষমা করে দেন, তারপর সেও জিহাদ করে এবং শহীদ হয়।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ রাষ্ট্রের সীমান্ত পাহারা দেয়ার ফযীলত

৩১৬৭. সালমানুল খায়র [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় একদিন ও এক রাত সীমান্ত পাহারায় কাটায়, তার জন্য এক মাস রোজা রাখার ও [রাত জেগে] ইবাদাতের সওয়াব রয়েছে। আর যে ব্যক্তি পাহারার কাজে নিয়োজিত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করে, তার জন্যও অনুরূপ সওয়াব বরাদ্দ হইবে। আর তাকে [জান্নাত হইতে] রিযিক বরাদ্দ দেয়া হইবে, আর সে সমস্ত ফিতনা [বিপদ ও সমস্যা] হইতে রক্ষিত থাকিবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৬৮. সালমান [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছিঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় একদিন এবং এক রাত সীমান্ত পাহারায় রত থাকে তার জন্য এক মাস সাওম পালন করার ও [রাত জেগে] ইবাদতের সওয়াব রয়েছে। সে ইন্তিকাল করলেও তার সে আমল জারি থাকিবে, যা সে করত আর সে সকল ফিতনা হইতে রক্ষিত থাকিবে, আর তাকে তার রিযিক বরাদ্দ করা হইবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৬৯. যাহরা ইবনি মাবাদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

উসমান [রাঃআঃ]-এর মাওলানা [আযাদকৃত গোলাম] আবু সালিহ্ আমার কাছে বর্ণনা করিয়াছেন, তিনি বলেন, আমি উসমান ইবনি আফফান [রাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছি; তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছিঃ আল্লাহর রাস্তায় একদিনের সীমান্ত পাহারায় রত থাকা অন্যান্য স্থানের হাজার দিন হইতে উত্তম।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

৩১৭০. বর্ণনাকারী হইতে বর্ণিতঃ

এই হাদিসের অনুবাদ পাওয়া যায়নি

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ নির্ণীত নয়

পরিচ্ছেদঃ সমুদ্রে [নৌ বাহিনীর] জিহাদের ফযীলত

৩১৭১. আনাস ইবনি মালিক [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] যখন কুবায় গমন করিতেন, তখন তিনি উম্মু হারাম বিনতে মিলহান [রাঃআঃ]-এর নিকট যেতেন। তিনি তাঁকে আহার করাতেন। আর উম্মু হারাম বিনতে মিলহান ছিলেন উবাদা ইবনি সামিতের স্ত্রী। একবার তিনি তাহাঁর বাড়িতে গেলে উম্মু হারাম তাঁকে আহার করালেন এবং বসে তাহাঁর মাথা বানিয়ে দিতে লাগলেন। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] নিদ্রামগ্ন হলেন। এরপর তিনি হাসতে হাসতে জাগ্রত হলেন। উম্মু হারাম বলেন, আমি তাঁকে বললামঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আপনার হাসার কারণ কী? তিনি বলিলেনঃ আমার উম্মতের কিছু সংখ্যক লোককে আমাকে দেখান হলো, যারা আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করার জন্য অথৈ সাগরে [নৌযানে] আরোহণ করিবে, তারা সিংহাসনে উপবিষ্ট বাদশাহ। রাবী ইসহাক [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, অথবা তিনি বলেছেনঃ তারা সিংহাসনে উপবিষ্ট বাদশাহদের ন্যায়। আমি বললামঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আল্লাহর নিকট দুআ করুন, তিনি যেন আমাকেও তাহাদের অন্তর্ভুক্ত করেন। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] তার জন্য দুআ করে আবার নিদ্রা গেলেন।

হারিস [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, নিদ্রা যাওয়ার পর তিনি আবার হাসতে হাসতে জাগলেন, আমি তাকে জিজ্ঞাসা করলামঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আপনার হাসার কারণ কী? তিনি বলিলেনঃ আমার উম্মতের কিছু লোককে আমাকে দেখান হলো, তারা আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করেছেঃ যেমন সিংহাসনের উপর বাদশাহ অথবা সিংহাসনে আসীন বাদশাহর মত, যেভাবে প্রথমবার বলেছিলেন। আমি বললামঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আল্লাহর নিকট দুআ করুন, তিনি যেন আমাকে এদের মধ্যে শামিল করেন। তিনি বলিলেনঃ না, তুমি প্রথম দলে থাকিবে। উম্মু হারাম মুআবিয়া [রাঃআঃ]-এর শাসনকালে [ইরাকের শাসনকর্তা রূপে] [ইস্তাম্বুল অভিযানে] সাগরে [নৌযানে] আরোহণ করেছিলেন, এরপর সমুদ্র হইতে ফিরে আসার পর তিনি তার সওয়ারীর উপর হইতে পড়ে গিয়ে শহীদ হন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৭২. উম্মু হারাম বিনতে মিলহান [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] আমাদের নিকট এসে খাওয়া দাওয়ার পর শয়ন [কায়লুলা] করিলেন, এরপর হাসতে হাসতে জাগ্রত হলেন। আমি বললামঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ্! আমার মাতাপিতা আপনার উপর কুরবান হোক, আপনার হাসার কারণ কী? তিনি বলিলেনঃ আমি আমার উম্মতের একদল লোককে দেখলাম, সাগরের বুকে আরোহণ [নৌ অভিযান] করছে, তারা সিংহাসনের উপর বাদশাহদের ন্যায়। আমি বললামঃ আল্লাহর নিকট দুআ করুন, তিনি যেন আমাকে এদের অন্তর্ভুক্ত করেন। তিনি বলিলেনঃ তুমি তাহাদের মধ্যে থাকিবে। এরপর তিনি নিদ্রা গেলেন এবং হাসতে হাসতে জাগ্রত হলেন। আমি তাঁকে প্রশ্ন করলাম এবং তিনি আগের মত বলিলেন। আমি বললামঃ আল্লাহর নিকট দুআ করুন, তিনি যেন আমাকে তাহাদের মধ্যে শামিল করেন। তিনি বলিলেনঃ তুমি প্রথম দলভুক্ত থাকিবে। উবাদা ইবনি সামিত [রাঃআঃ] তাকে বিবাহ করিলেন। এরপর তিনি সাগরে আরোহণ করে নৌ অভিযান করিলেন। তাহাঁর সাথে ইনি [তাহাঁর স্ত্রী] ও সাগরে [নৌযানে] আরোহণ করিলেন। যখন সমুদ্র হইতে ফিরে এলে তাহাঁর জন্য একটি খচ্চর আনা হলো, তিনি তাতে আরোহণ করিলেন; খচ্চর তাঁকে আছড়ে ফেলে দিলে তাহাঁর ঘাড় ভেঙ্গে যায়, ফলে তিনি মারা যান।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ হিন্দুস্থানে অভিযান

৩১৭৩. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] আমাদেরকে হিন্দুস্থানের জিহাদের [ভারত অভিযানের] ওয়াদা দিয়েছিলেন। যদি আমি তা [ঐ যুদ্ধের সুযোগ] পাই, তা হলে আমি তাতে আমার জান-মাল ব্যয় করব। আর যদি আমি তাতে নিহত হই, তাহলে আমি শহীদের মধ্যে উত্তম সাব্যস্ত হব। আর যদি আমি ফিরে আসি, তা হলে আমি হবো আযাদ বা জাহান্নাম হইতে মুক্ত আবু হুরাইরা।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

৩১৭৪. আবু হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] আমাদেরকে হিন্দুস্থানের জিহাদের ওয়াদা দিয়েছেন। আমি তা পেলে তাতে আমার জান মাল উৎসর্গ করব। আর যদি আমি নিহত হই, তবে মর্যাদাবান শহীদ বলে গণ্য হব, আর যদি ফিরে আসি, তা হলে আমি হব আযাদ বা জাহান্নাম হইতে মুক্ত আবু হুরাইরা।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

৩১৭৫. রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর গোলাম ছাওবান [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আমার উম্মতের দুটি দল, আল্লাহ্ তাআলা তাহাদেরকে জাহান্নাম হইতে পরিত্রাণ দান করবেন। একদল যারা হিন্দুস্থানের জিহাদ করিবে, আর একদল যারা ঈসা ইবনি মারিয়াম [আঃ]-এর সঙ্গে থাকিবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ তুরস্ক ও হাবশার যুদ্ধ

৩১৭৬. রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর একজন সাহাবী হইতে বর্ণিতঃ

যখন রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] পরিখা খননের আদেশ করিলেন, তখন একটি কঠিন বড় প্রস্তরখণ্ড দেখা গেল, যা খনন কার্যে ব্যাঘাত সৃষ্টি করলো। এরপর রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বেলচা [কোদাল জাতীয় যন্ত্র বিশেষ] নিয়ে অগ্রসর হলেন এবং তাহাঁর চাদর পরিখার পাশে রাখলেন, তিনি বলিলেনঃ [আরবি]

অর্থঃ সত্য ও ন্যায়ের দিক দিয়ে আপনার রবের বাণী সম্পূর্ণ এবং তাহাঁর বাক্য [সিদ্ধান্ত] সমূহ পরিবর্তন করার কেউ নেই, তিনি সর্বশ্রোতা, সর্বজ্ঞ। [৬ঃ১১৫]।

তাতে ঐ প্রস্তর খণ্ডের এক-তৃতীয়াংশ [ভেঙে] পড়ে গেল। আর সালমান ফারসী [রাঃআঃ] সেখানে দণ্ডায়মান ছিলেন। তিনি দেখলেন, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর বেলচা মারার সঙ্গে সঙ্গে একটি বিদ্যুৎ চমকিত হলো। এরপর তিনি দ্বিতীয়বার আঘাত করিলেন এবং বলিলেনঃ [আরবি]

তাতে আর এক-তৃতীয়াংশ [ভেঙে] পড়ে গেল এবং একটি বিদ্যুৎ চমকে উঠলো। সালমান ফারসী [রাঃআঃ] তাও দেখিতে পেলেন। তারপর তিনি তৃতীয়বার তাতে আঘাত করিলেন এবং বলিলেনঃ [আরবি]

এতে অবশিষ্ট তৃতীয়াংশ [ভেঙে] পড়ে গেল। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] [পরিখা থেকে] বের হয়ে আসলেন, এবং তাহাঁর চাদরখানা নিয়ে বসে পড়লেন। সালমান ফারসী [রাঃআঃ] বলিলেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আপনি যখন আঘাত করছিলেন, আমি লক্ষ্য করছিলাম, দেখলাম আপনি যখনই তাতে আঘাত করছিলেন, তা হইতে বিদ্যুৎ চমকিত হচ্ছিল। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেনঃ হে সালমান! আমিও তা দেখেছি। সালমান [রাঃআঃ] বলিলেনঃ হ্যাঁ, ইয়া রাসূলাল্লাহ্! ঐ সত্তার শপথ! যিনি আপনাকে সত্য সহকারে প্রেরণ করিয়াছেন। তিনি বলিলেনঃ আমি যখন প্রথমবার আঘাত করেছিলাম, তখন [পারস্যের] কিসরার শহরসমূহ এবং এর আশপাশের স্থানসমূহ এবং আরো বহু শহর আমার সামনে প্রকাশিত হলো। আমি তা আমার দুচোখে দর্শন করেছি। উপস্থিত সাহাবীবৃন্দ আরয করিলেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আল্লাহ্ তাআলার নিকট দুআ করুন, তিনি যেন আমাদের এ সকল শহরের বিজয় দান করেন এবং তাহাদের আবাসকে আমাদের গনীমত করে দেন, আর আমাদের হাতে তাহাদের দেশ বিধ্বস্ত করে দেন। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর জন্য দুআ করিলেন। তিনি বলিলেনঃ এরপর আমি দ্বিতীয়বার আঘাত করলাম। তাতে [রোম] সম্রাট কায়সারের শহরসমূহ এবং এর আশপাশের স্থানসমূহ দেখানো হলো। আমি তা আমার দুচোখে দর্শন করলাম। তারা বলিলেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আল্লাহ্ তাআলার নিকট দুআ করুন, তিনি যেন আমাদের এ সকল শহরের বিজয় দান করেন আর তাহাদের বাড়ি ঘর আমরা গনীমতরূপে প্রাপ্ত হই এবং তাহাদের বাড়ি ঘর আমাদের হাতে বিধ্বস্ত হয়। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর জন্য দুআ করিলেন। তিনি বলিলেনঃ এরপর আমি তৃতীয়বার আঘাত করলাম, আমাকে হাবৃশার [আবিসিনিয়া-ইথিওপিয়া-ইরিত্রিয়া] শহরসমূহ এবং এর আশে পাশের জনপদসমূহ দেখান হলো। আমি তা আমার দুচোখে দেখলাম। এ সময় রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলিলেনঃ তোমরা হাবশীদের সাথে যুদ্ধ করো না, যতক্ষণ তারা তোমাদের সাথে যুদ্ধ থেকে বিরত থাকে। আর তোমরা তুর্কীদের সাথেও যুদ্ধ করো না, যতক্ষণ তারা তোমাদের সাথে যুদ্ধ থেকে বিরত থাকে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

৩১৭৭. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কিয়ামত সংঘটিত হইবে না, যে পর্যন্ত না মুসলমানরা তুর্কীদের সাথে যুদ্ধ করিবে, যাদের চেহারা হইবে মোটা ভারী ঢালের ন্যায়, তারা পশমের পোশাক পরিধান করিবে এবং পশমের [পশমযুক্ত চামড়ার] জুতা পরিধান করে চলাচল করিবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ দুর্বল উসিলা দিয়ে সাহায্য গ্রহণ

৩১৭৮. মুসআব ইবনি সাদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] তাহাঁর পিতার মাধ্যমে বর্ণনা করেন হইতে বর্ণিতঃ

নাবী [সাঃআঃ]-এর উম্মতের মধ্যে যারা তাহাঁর চেয়ে নিম্নশ্রেণীর, তাঁদের উপর তাহাঁর মর্যাদা রয়েছে। আল্লাহর নাবী [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহ্ তাআলা এ উম্মতকে সাহায্য করেন তার দুর্বলদের দ্বারা, তাহাদের দুআ, নামাজ এবং ইখলাসের কারণে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৭৯. আবুদদারদা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনিয়াছিঃ আমার জন্য দুর্বলদের অন্বেষণ কর, কেননা তোমরা রিযিক পাচ্ছ এবং সাহায্য পাচ্ছ তোমাদের দুর্বলদের উসিলায়।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি যোদ্ধাকে যুদ্ধের সরঞ্জাম প্রদান করে

৩১৮০. যায়িদ ইবনি খালিদ [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] থেকে বর্ণিত, তিনি বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তার কোন যোদ্ধাকে যুদ্ধের উপকরণ দান করিবে, সে যেন নিজেই যুদ্ধ করলো। আর যে ব্যক্তি কোন যোদ্ধার পরিবারে তার কল্যাণ কামনার সাথে স্থলাবর্তী হলো, সেও যেন যুদ্ধে যোগদান করলো।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৮১. যায়দ ইবনি খালিদ জুহানী [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি কোন যোদ্ধাকে যুদ্ধের সরঞ্জাম দান করলো, সে যেন যুদ্ধ করলো, আর যে ব্যক্তি কোন যোদ্ধার পরিবারে মঙ্গলের জন্য তার স্থলাবর্তী হলো সেও যেন যুদ্ধ করলো।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৮২. আহনাফ ইব্ন কায়স [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

বলেন, আমরা হজ্জের উদ্দেশ্যে বের হয়ে মদীনায় উপনীত হলাম। আমরা আমাদের মনযিলে পৌঁছে আমাদের হাওদা নামাচ্ছিলাম, এমন সময় আমাদের নিকট এক আগন্তুকের আগমন হলো। সে বললঃ লোক মসজিদে একত্রিত হয়েছে। তারা সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে। আমরা সেখানে গিয়ে দেখলাম, মসজিদের মধ্যস্থলে কয়েকজন লোকের চতুর্দিকে অন্য লোক একত্রিত হয়ে আছে। তাহাদের মধ্যে আলী, যুবায়র, তালহা এবং সাদ ইব্ন আবু ওয়াক্কাস [রাঃআঃ] রহিয়াছেন। আমরা এ অবস্থায় ছিলাম, এমন সময় উসমান [রাঃআঃ] আগমন করিলেন। তাহাঁর পরনে ছিল হলুদ বর্ণের একখানা চাদর, তা দ্বারা তিনি তাহাঁর মাথা ঢেকে রেখেছেন। তিনি বলিলেনঃ এখানে কি তালহা [রাঃআঃ] আছেন? এখানে কি যুবায়র [রাঃআঃ] আছেন? এখানে কি সাদ [রাঃআঃ] আছেন? সকলে বললেনঃ হ্যাঁ। তিনি বললেনঃ আমি ঐ আল্লাহর কসম দিয়ে তোমাদেরকে জিজ্ঞাসা করছি, যিনি ব্যতীত কোন ইলাহ নাই। তোমরা কি অবগত আছ যে, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ অমুক গোত্রের [উট বাঁধার] বা খেজুর শুকাবার স্থানটি যে খরিদ করিবে, আল্লাহ্ তাআলা তাকে ক্ষমা করবেন? এরপর আমি তা বিশ হাজার অথবা পঁচিশ হাজার [দিরহাম]-এর বিনিময়ে খরিদ করেছি। আমি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর খিদমতে এসে তাঁকে তার সংবাদ দিলে তিনি বললেনঃ তা আমাদের মসজিদে দিয়ে দাও, আর এর সওয়াব তোমারই থাকিবে। তাঁরা বললেনঃ আল্লাহ সাক্ষী! হ্যাঁ। তিনি [আবার] বললেনঃ যে আল্লাহ্ ব্যতীত কোন ইলাহ নেই, সেই আল্লাহর কসম দিয়ে তোমাদেরকে জিজ্ঞাসা করছি, তোমরা কি অবগত আছ যে, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি রুমা কূপটি খরিদ করিবে, আল্লাহ্ তাআলা তাকে ক্ষমা করবেন? আমি তা এত এত বিনিময় দিয়ে খরিদ করে রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর নিকট এসে বললাম, আমি এত এত দিয়ে তা খরিদ করেছি। তিনি বললেনঃ তুমি তা মুসলমানদের পানি-পানের স্থান করে দাও, তার সওয়াব হইবে তোমার। তাঁরা বলিলেনঃ আল্লাহুম্মা, [আল্লাহ সাক্ষী!] হ্যাঁ। তিনি [আবার] বললেনঃ তোমাদের যে আল্লাহ্ ব্যতীত কোন ইলাহ নেই তাহাঁর কসম দিয়ে বলছি, তোমরা কি অবগত আছ যে, রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] উপস্থিত লোকদের চেহারার দিকে লক্ষ্য করে বললেনঃ এ জায়শে- উসরাতকে [তাবুকের সেনাবাহিনীকে] যে ব্যক্তি যুদ্ধের সামান দিয়ে সজ্জিত করিবে, তাকে আল্লাহ্ ক্ষমা করবেন? আমি তাহাদেরকে এমনভাবে সজ্জিত করলাম যে, কেউ উটের একটি রশিও কম পায়নি। তাঁরা বললেনঃ আল্লাহর কসম, হ্যাঁ। তখন তিনি বললেনঃ হে আল্লাহ্! তুমি সাক্ষী থাক; হে আল্লাহ্! তুমি সাক্ষী থাক; হে আল্লাহ্! তুমি সাক্ষী থাক।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ জইফ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় ব্যয় করার ফযীলত

৩১৮৩. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

নাবী [সাঃআঃ] থেকে বর্ণিত। তিনি বলেছেনঃ যে ব্যক্তি তার সম্পদ হইতে দুপ্রকার মাল [জোড়ায় জোড়ায়] মহান মহীয়ান আল্লাহর রাস্তায় ব্যয় করিবে, তাকে জান্নাত থেকে ডাকা হবেঃ হে আল্লাহর বান্দা! এ তোমার জন্য উত্তম। যে ব্যক্তি নামাজ আদায়কারী হইবে, তাকে সালাতের দরজা দিয়ে ডাকা হইবে, আর যে ব্যক্তি মুজাহিদদের মধ্যে শামিল হইবে, তাকে জিহাদের দরজা দিয়ে ডাকা হইবে। আর যে ব্যক্তি সাদাকাদাতা হইবে, তাকে সাদাকার দরজা দিয়ে ডাকা হইবে। আর যে ব্যক্তি সিয়াম পালনকারী হইবে, তাকে “রাইয়্যান” নামক দরজা দিয়ে ডাকা হইবে। আবু বকর [রাঃআঃ] বলেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! যে ব্যক্তিকে এ সকল দরজা দিয়ে ডাকা হইবে, তার তো আর কোন প্রয়োজন [সমস্যা] থাকিবে না। তবে কাউকেও কি এ সকল দরজা হইতে ডাকা হইবে? তিনি বললেনঃ হ্যাঁ, এবং আমি আশা করি আপনি তাহাদের মধ্যে হইবেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৮৪. আবু হুরায়রা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় জোড়া জোড়া দান করিবে, তাকে জান্নাতের দ্বাররক্ষী [ফেরেশতা] জান্নাতের দরজাসমূহ হইতে ডাকবেঃ হে অমুক! এদিকে এসো এবং [জান্নাতে] প্রবেশ কর। আবু বকর [রাঃআঃ] বললেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! ঐ ব্যক্তির তো কোন প্রকার ক্ষতি নেই। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ আমি একান্তভাবে আশা করি, আপনি তাহাদের মধ্যে হইবেন।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৮৫. সাসাআ ইব্ন মুয়াবিয়া [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

আবু যর [রাঃআঃ]-এর সাথে আমার সাক্ষাৎ হলো, আমি বললামঃ আমার নিকট হাদীস বর্ণনা করুন। তিনি বললেনঃ হ্যাঁ। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে মুসলিম বান্দা আল্লাহর রাস্তায় তার সকল মাল হইতে জোড়া-জোড়া দান করিবে, তাকে জান্নাতের দ্বার রক্ষীগণের সকলেই তাহাঁর নিকট যা রহিয়াছে তার দিকে আহবান করবেন। আমি বললামঃ তা কিভাবে? তিনি বলিলেন, যদি [তার মাল] উট হয়, তবে দুটি উট; আর যদি গরু হয়, তবে দুটি গরু

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৮৬. খুযায়ম ইব্ন ফাতিক [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় কোন কিছু দান করিবে, তার জন্য সাতশত গুণ সওয়াব লেখা হইবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ আল্লাহর রাস্তায় সাদাকার ফযীলত

৩১৮৭. আবু মাসউদ [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

এক ব্যক্তি নাকে রশি যুক্ত একটি উটনী আল্লাহর রাস্তায় দান করিল। রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ তা কিয়ামতের দিন নাকে রশিযুক্ত সাতশতটি উটনী হইয়া আগমন করিবে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৮৮. মুআয ইব্ন জাবাল [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে বর্ণনা করেনঃ তিনি বলেছেনঃ যুদ্ধ দু প্রকার। যে ব্যক্তি আল্লাহর সন্তুষ্টি কামনা করে ইমামের অনুসরণ করে, উত্তম বস্তু দান করে, সাথীদের সাথে নরম ব্যবহার করে এবং ঝগড়া-ফাসাদ পরিত্যাগ করে; তা হলে তার নিদ্রা, জাগরণ সবই সওয়াব [যোগ্য]। আর যে ব্যক্তি লোক দেখানো যুদ্ধ করে, খ্যাতির জন্য যুদ্ধ করে, ইমামের অবাধ্য হয় এবং পৃথিবীতে ফাসাদ বিস্তার করে, সে সমপরিমাণের [সওয়াব বা প্রতিদানের] সাথে প্রত্যাবর্তন করিবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদীস

পরিচ্ছেদঃ মুজাহিদদের স্ত্রীদের মর্যাদা

৩১৮৯. সুলায়মান ইব্ন বুরায়দা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যারা যুদ্ধে যায়নি, তাহাদের জন্য মুজাহিদদের স্ত্রীগণ এমন হারাম [সম্মানিত] যেমন তাহাদের জন্য তাহাদের মাতাগণ হারাম। আর কোন মুজাহিদের স্ত্রীর ব্যাপারে কোন ব্যক্তি যদি [তার অনুপস্থিতিতে] তার স্থলাবর্তী থেকে খিয়ানত করে, তাহলে কিয়ামতের দিন সে ব্যক্তিকে তার সামনে [অভিযুক্তরূপে] দাঁড় করিয়ে রাখা হইবে এবং সে তার আমল হইতে যা ইচ্ছা কেড়ে নেবে। অতএব তোমরা কী ধারণা কর?

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

পরিচ্ছেদঃ যে ব্যক্তি মুজাহিদের পরিবারের সাথে খিয়ানত করে

৩১৯০. সুলায়মান ইব্ন বুরায়দা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] তাহাঁর পিতার সূত্রে হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যারা যুদ্ধে গমন করে না তাহাদের জন্য মুজাহিদদের স্ত্রীরা এমন হারাম, [এমন সম্মানের অধিকারী] যেমন তাহাদের মাতাগণ তাহাদের জন্য হারাম [সম্মানের অধিকারী]। আর সে যদি তার [অনুপস্থিতিতে তার] পরিবারের স্থলাভিষিক্ত হয়ে খিয়ানত করে, কিয়ামতের দিন তাকে বলা হবেঃ এ ব্যক্তি তোমার পরিবারে তোমার খিয়ানত [বিশ্বাস ভঙ্গ] করেছে। কাজেই তুমি তার নেকী হইতে যত ইচ্ছা গ্রহণ কর। সুতরাং এ ব্যাপারে তোমাদের ধারণা কী? [যে সে কী পরিমাণ নেকী নিয়ে নিবে]।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৯১. ইব্ন বুরায়দা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] তাহাঁর পিতার সুত্রে হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যারা যুদ্ধে যোগদান করেনি, তাহাদের জন্য মুজাহিদদের স্ত্রীরা এমন হারাম [মর্যাদার অধিকারী] যেমন তাহাদের মাতা তাহাদের জন্য হারাম [মর্যাদার অধিকারী]। যদি মুজাহিদের পরিবারে কোন ব্যক্তি স্থলাভিষিক্ত হয়, যে যুদ্ধে গমন না করে রয়ে গেছে, [এবং খিয়ানত করে, তবে] তাকে কিয়ামতের দিন তার জন্য দাঁড় করান হইবে, বলা হবেঃ হে অমুক! এ অমুক ব্যক্তি, তুমি তার নেকী হইতে যা ইচ্ছা গ্রহণ কর। এরপর রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাহাঁর সাহাবীগণের [রাঃআঃ] প্রতি লক্ষ্য করে বললেনঃ তোমাদের কী ধারণা, তোমরা কি মনে কর এ ব্যক্তি তার নেকী হইতে কিছু ছেড়ে দেবে?

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৯২. আনাস [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তোমরা জিহাদ কর তোমাদের হাত [শক্তি] দ্বারা, তোমাদের জিহবা [উক্তি] দ্বারা এবং তোমাদের সম্পদ দ্বারা।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৯৩. আবদুল্লাহ [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি সাপ মারতে আদেশ করিয়াছেন এবং বলেছেনঃ যে ব্যক্তি ওদের প্রতিশোধ নেয়াকে ভয় করে, সে আমাদের [দ্বীনের] অন্তর্ভুক্ত নয়।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৯৪. আবদুল্লাহ ইব্ন আবদুল্লাহ ইব্ন জারর [রাঃআঃ] তাহাঁর পিতার সূত্রে হইতে বর্ণিতঃ

রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাহাঁর পিতা জারর [রাঃআঃ]-কে তার রোগ শয্যায় দেখিতে গেলেন। তার নিকট গিয়ে দেখলেন নারীরা কেঁদে কেঁদে বলছেঃ আমরা মনে করেছিলাম, তুমি আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হয়ে মৃত্যুবরণ করিবে। তখন তিনি [সাঃআঃ] বলিলেন, আল্লাহর রাস্তায় শহীদ না হলে তোমরা কাউকেও শহীদ মনে কর না, এমন হলে তো তোমাদের শহীদের সংখ্যা অতি অল্পই হইবে। আল্লাহর রাস্তায় নিহত হওয়া শাহাদাত, পেটের পীড়ায় মরাও শাহাদাত, আগুনে পুড়ে মরাও শাহাদাত, পানিতে ডুবে মরাও শাহাদাত, কোন কিছুর নিচে চাপা পড়ে মৃত্যুবরণ করা শাহাদাত, নিউমোনিয়া জাতীয় কঠিন পীড়ায় মৃত্যুবরণও শাহাদাত, যে স্ত্রীলোক গর্ভাবস্থায় মৃত্যুবরণ করে সেও শহীদ। এক ব্যক্তি বলিলেনঃ রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] এখানে উপবিষ্ট আর তোমরা ক্ৰন্দন করছো? তিনি বলিলেনঃ তাহাদেরকে কাঁদতে দাও। সে যখন মরে যাবে, তখন যেন তার জন্য কোন ক্ৰন্দনকারিণী ক্ৰন্দন না করে।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

৩১৯৫. জাব্‌র [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর সাথে এক মৃত ব্যক্তির নিকট পৌঁছালেন। তখন মহিলাগণ ক্ৰন্দন করিতে লাগলো। জাবর [রাঃআঃ] বলিলেনঃ রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ] উপস্থিত রহিয়াছেন, এমন সময় তোমরা ক্ৰন্দন করছো? তিনি [সাঃআঃ] বলিলেনঃ যতক্ষণ সে তাহাদের মধ্যে [জীবিত] রহিয়াছে, ততক্ষণ তাহাদেরকে কাঁদতে দাও। মৃত্যু হয়ে গেলে আর কেউ তার জন্য ক্ৰন্দন করিবে না।

জিহাদ PDF হাদিসের তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

By ইমাম নাসাঈ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply