নামাজের পর জিকর

নামাজের পর জিকির

নামাজের পর জিকির >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৩. অধ্যায়ঃ নামাজের পর জিকর

১২০৩

আবদুল্লাহ ইবনি আব্বাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমরা তাকবীর [আল্ল-হ আকবার] পাঠ দ্বারা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর নামাজ শেষ হওয়া জানতে পারতাম। অর্থাৎ – নামাজ শেষ হলেই রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] উচ্চৈঃস্বরে আল্ল-হ আকবর বলিতেন। তখন আমরা বুঝতে পারতাম। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১১৯২, ইসলামিক সেন্টার- ১২০৩]

১২০৪

আবদুল্লাহ ইবনি আব্বাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমরা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর নামাজ শেষ হওয়া তাকবীর পাঠ ছাড়া আর কিছু দ্বারা জানতে পারতাম না। আমর ইবনি দীনার বলেছেনঃ আমি পরবর্তী সময়ে [আবদুল্লাহ ইবনি আব্বাস-এর নিকট থেকে হাদীসটির বর্ণনাকারী] আবু মাবাদ-এর হাদীসটির প্রসঙ্গ উল্লেখ করলে তিনি অস্বীকৃতি জানিয়ে বললেনঃ আমি তোমার কাছে এ হাদীস বর্ণনা করিনি। অথচ ইতোপূর্বে তিনি আমার নিকট হাদীসটি বর্ণনা করেছিলেন। {১} [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১১৯৩, ইসলামিক সেন্টার- ১২০৪]

{১} ঈমাম নাবাবী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, উর্ধস্তন রাবীর হাদীস বর্ণনায় বিষয়টি সন্দেহ পতিত হওয়া বা ভুলে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে নিম্নস্তর রাবী সিকাহ বা নির্ভরযোগ্য হলে হাদীস সহীহ হিসেবেই পরিগণিত হইবে – এটা জমহুর উলামাগনের অভিমত। [শারহে মুসলিম- ১ম ২১৭ পৃষ্ঠা]

১২০৫

আবদুল্লাহ ইবনি আব্বাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, নবী [সাঃআঃ] এর যুগে ফরয নামাজ শেষে লোকেরা উচ্চৈঃস্বরে তাকবীর বা অন্য কোন জিকর পাঠ করত। {১৩}

আবু মাবাদ বলেন, আবদূল্লাহ ইবনি আব্বাস আরো বলেছেনঃ ঐ উচ্চৈঃস্বরে শুনেই আমি নামাজ শেষ হওয়ার কথা বুঝতে পারতাম। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ১১৯৪, ইসলামিক সেন্টার- ১২০৫]

{১৩} ঈমাম নাবাবী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, কোন কোন সালাফ বা ইবনি হায্‌ম জাহিরী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] -এর মতে সালাম শেষে উচ্চৈঃস্বরে মাসনূন জিকর পাঠ মুস্তাহাব। আর ইবনি বাত্ত্বল-এর মতে, অনুসরণীয় ঈমামগনের নিকট জিকরসমূহ ও তাকবীর নীরবে পঠনীয়। ঈমাম শাফিঈ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর বক্তব্য হলোঃ উচৈস্বরে জিকর পাঠ সর্বদা ছিল না; তাই ঈমাম সাহেব জিকরসমূহ শিক্ষাদানের জন্য কিছুদিন সালাম ফিরানোর পর জোরে জোরে শোনাতে পারেন। [শারহে মুসলিম- ১ম ২১৭ পৃষ্ঠা]

উল্লেখ্য যে, প্রচলিত সমবেত মুনাজাতটা পদ্ধতিগত ও এক্ষেত্রে মাসনূন জিকর নয় এমন ভিন্ন দুআ পঠিত হওয়া এসব মিলিয়ে এটা পরিত্যাজ্য বিদআত।

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply