জামাআতে আহারকারী র জন্য এক লোকমায় দুটি করে খেজুর

জামাআতে আহারকারী র জন্য এক লোকমায় দুটি করে খেজুর

জামাআতে আহারকারী র জন্য এক লোকমায় দুটি করে খেজুর >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৫. অধ্যায়ঃ জামাআতে আহারকারী র জন্য এক লোকমায় দুটি করে খেজুর ইত্যাদি খাওয়া নিষেধ, তবে যদি সঙ্গীরা অনুমতি দেয় [তবে জায়িয]।

৫২২৮. জাবালাহ্‌ ইব্‌নে সুহায়ম [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, ইব্‌নে যুবায়র [রাদি.] আমাদেরকে খাদ্য হিসেবে খেজুর দিতেন। তৎকালীন সময় লোকেরা অনাহারে পতিত হয়েছিল। আমরা তাই খেয়ে থাকতাম। একবার আমরা খাবার খাচ্ছিলাম। তখন ইব্‌নে উমর [রাদি.] আমাদের নিকট দিয়ে যাচ্ছিলেন। তিনি বলিলেন, তোমরা একাধিক খেজুর এক সঙ্গে খেও না। কেননা, রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এক সাথে একাধিক খেজুর খেতে বারণ করিয়াছেন। তবে যদি কেউ তার [সাথী] ভাইয়ের অনুমতি নিয়ে নেয় [তাহলে খেতে পারে]।

শুবাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, আমার ধারণা হয়, অনুমতি নেয়ার কথাটা ইব্‌নে উমর [রাদি.]-এরই কথা।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫১৬০, ইসলামিক সেন্টার- ৫১৭২]

৫২২৯. উবাইদুল্লাহ ইব্‌নু মুয়ায মুহাম্মাদ ইব্‌নু বাশশার শুবাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

উপরোল্লেখিত সূত্রে হাদীসটি বর্ণনা করিয়াছেন। তবে তাঁদের হাদীসে [অনুমতি সম্পর্কে] শুবাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] –এর কথা এবং জাবালাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর এ কথা নেই যে, তখন মানুষ অনাহারে পতিত হয়েছিল।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫১৬১, ৫১৭৩]

৫২৩০. জাবালাহ ইব্‌নে সুহায়ম [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি ইব্‌নু উমর [রাদি.] –কে বলিতে শুনেছি যে, রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] সাথীদের অনুমতি ব্যতীত কোন লোকের এক সাথে দুটি করে খেজুর ভক্ষন করা হইতে বারণ করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫১৬২, ইসলামিক সেন্টার- ৫১৭৪]

By ইমাম মুসলিম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply