জমি বর্গা / ভাড়া দেয়ার অধ্যায় । মুআত্তা ইমাম মালিক

জমি বর্গা / ভাড়া দেয়ার অধ্যায় । মুআত্তা ইমাম মালিক

জমি বর্গা / ভাড়া দেয়ার অধ্যায় । মুআত্তা ইমাম মালিক, এই অধ্যায়ে হাদীস =৫ টি ( ১৪০৬-১৪১০ পর্যন্ত ) >> মুয়াত্তা ইমাম মালিক এর মুল সুচিপত্র দেখুন

অধ্যায় – ৩৪ জমি (কেয়ারা) ভাড়া দেয়ার অধ্যায়

পরিচ্ছেদঃ ১ -জমি [কেয়ারা] ভাড়া দেয়া

১৩৮৮ রাফি ইব্নু খাদীজ [রাদি.] হইতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ্ সাঃআঃ শস্যক্ষেত্র ভাড়া দিতে নিষেধ করিয়াছেন। হানযালা বলেন, আমি রাফির নিকট জিজ্ঞেস করলাম, যদি স্বর্ণ বা চাঁদির পরিবর্তে নেয়া হয়? তিনি বলিলেন, “কোন ক্ষতি নেই।“

[সহীহ, বুখারি ২২৮৬]জমি বর্গা – এই হাদীসটির তাহকিকঃ সহীহ হাদীস

১৩৮৯ বর্ণণাকারী হইতে বর্ণিতঃ

যুহরী [রাহিমাহুল্লাহ] সাঈদ ইব্নু মুসায়্যাব [রাহিমাহুল্লাহ]-কে জিজ্ঞেস করলেন, স্বর্ণ ও চাঁদির পরিবর্তে জমি ভাড়া লওয়া বৈধ কি? তিনি বলিলেন, “হ্যাঁ, বৈধ, এতে কোন ক্ষতি নেই।“ [হাদীসটি ঈমাম মালিক এককভাবে বর্ণনা করিয়াছেন]

জমি বর্গা – এই হাদীসটির তাহকিকঃ নির্ণীত নয়

১৩৯০ বর্ণণাকারী হইতে বর্ণিতঃ

যুহরী [রাহিমাহুল্লাহ] সালিম ইব্নু আবদুল্লাহ্ ইব্নু উমার [রাদি.]-কে শস্যক্ষেত্র ভাড়া দেয়ার ব্যাপারে প্রশ্ন করলে তিনি বলিলেন, স্বর্ণ ও চাঁদির বিনিময়ে হলে কোন ক্ষতি নেই। যুহরী [রাহিমাহুল্লাহ] বলিলেন, রাফি ইব্নু খাদীজ [রাদি.] হইতে বর্ণিত হাদীস কি আপনার জানা আছে? উত্তরে সালিম [রাহিমাহুল্লাহ] বলিলেন, তিনি অর্থাৎ রাফি অনেক অস্পষ্ট কথা বলেছেন, যদি আমার নিকট শস্যক্ষেত্র হত তবে আমি ভাড়া দিতাম। [হাদীসটি ঈমাম মালিক এককভাবে বর্ণনা করিয়াছেন]

এই হাদীসটির তাহকিকঃ নির্ণীত নয়

১৩৯১ মালিক [রাহিমাহুল্লাহ] হইতে বর্ণিতঃ

তাঁর নিকট রেওয়ায়ত পৌঁছেছে যে, আবদুর রহমান ইব্নু আউফ [রাদি.] ভাড়ায় একটি জমি নিয়েছিলেন, যা আমৃত্যু তাঁর নিকট ছিল। তাঁর পুত্র বলিলেন, আমরা এই জমি আমাদের নিজস্ব মনে করতাম, কেননা উহা অনেক দিন আমাদের নিকট ছিল। যখন আবদুর রহমান ইব্নু আউফ [রাদি.]-এর অন্তিমকাল উপস্থিত হল, তিনি বলিলেন, এটা ভাড়ার জমি, ভাড়া যা বাকী ছিল তা সোনা চাঁদিতে আদায় করিতে বলিলেন। [হাদীসটি ঈমাম মালিক এককভাবে বর্ণনা করিয়াছেন]

এই হাদীসটির তাহকিকঃ নির্ণীত নয়

১৩৯২ হিশাম ইব্নু উরওয়া [রাহিমাহুল্লাহ] তার পিতা হইতে বর্ণিতঃ

তাঁর পিতা যুবায়র নিজের জমি সোনা-চাঁদির বিনিময়ে ভাড়া দিতেন। [হাদীসটি ঈমাম মালিক এককভাবে বর্ণনা করিয়াছেন]

মালিক [রাহিমাহুল্লাহ]-এর নিকট প্রশ্ন করা হয়েছিল, যদি কোন ব্যক্তি স্বীয় জমি এই শর্তে ভাড়া দেয় যে, উৎপাদিত ফসলের এই পরিমাণ [যেমন একশত সা] নিব এমতাবস্থায় মাসআলা কি? তিনি বলিলেন, “ইহা মাকরূহ।“

জমি বর্গা – এই হাদীসটির তাহকিকঃ নির্ণীত নয়

By মুয়াত্তা মালিক

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply