চতুষ্পদ প্রাণী ইত্যাদিকে অভিশাপ করা থেকে বিরত থাকা

চতুষ্পদ প্রাণী ইত্যাদিকে অভিশাপ করা থেকে বিরত থাকা

চতুষ্পদ প্রাণী ইত্যাদিকে অভিশাপ করা থেকে বিরত থাকা >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৪. অধ্যায়ঃ চতুষ্পদ প্রাণী ইত্যাদিকে অভিশাপ করা থেকে বিরত থাকা

৬৪৯৮. ইমরান ইবনি হুসায়ন [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, একদা রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কোন এক সফরে ছিলেন। সে সময় এক আনসার মহিলা একটি উষ্ট্রীর পিঠে আরোহী ছিলেন। তিনি [তার আচরণে] বিরক্ত হয়ে তার উপর অভিসম্পাত করিলেন। তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তা শুনে বলিলেন, এর উপরে যা আছে তা নিয়ে নাও এবং একে ছেড়ে দাও। কেননা সে তো অভিশপ্ত হয়ে পড়েছে।

ইমরান [রাদি.] বলেন, আমি যেন সে উষ্ট্রীকে এখনও দেখিতে পাচ্ছি, যে মানুষের মাঝে হেঁটে বেড়াচ্ছে; অথচ কেউ তার প্রতি ভ্রুক্ষেপ করছে না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৬৮, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪১৮]

৬৪৯৯

কুতাইবাহ ইবনু সাঈদ, আবু রাবী’ ও ইবনু আবূ উমার (রাযিঃ) ….. ইসমাঈলের সনদে আইয়্যুব থেকে তার হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করেছেন।

তবে হাম্মাদ কর্তৃক বর্ণিত হাদীসে ইমরান বলেছেন- فَكَأَنِّي أَنْظُرُ إِلَيْهَا نَاقَةً وَرْقَاءَ (আমি যেন সে মেটে রং-এর উষ্ট্রিটি এখনো দেখতে পাচ্ছি)। আর সাকাকী (রহঃ) বর্ণিত হাদীসে রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন,خُذُوا مَا عَلَيْهَا وَأَعْرُوهَا فَإِنَّهَا مَلْعُونَةٌ এর উপর যা কিছু আছে তা নামিয়ে ফেলো এবং তাকে মুক্ত করে দাও। কেননা সে তো অভিশপ্ত’। (ইসলামিক ফাউন্ডেশন ৬৩৬৯, ইসলামিক সেন্টার ৬৪১৯)

৬৫০০

আবু বারযাহ্‌ আল আসলামী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, একবার একটি বালিকা একটি উট্‌নীর উপর আরোহিত ছিল। সেটির উপরে তার গোত্রের কিছু মালামালও ছিল। হঠাৎ সে নবী [সাঃআঃ]-কে দেখিতে পেল। আর পাহাড়ের কারণে তাদের পথটি ছিল সংকীর্ণ। ফলে উটের রশি টেনে বালিকাটি বলিল- [আর-বি] [উট চালনার শব্দ] হে আল্লাহ্‌! এর উপর অভিসম্পাত বর্ষণ করুন। রাবী বলেন, তখন নবী [সাঃআঃ] বললেনঃ যে উট্‌নীর উপর অভিসম্পাত করা হয়েছে, সেটি যেন আমাদের সাথে না থাকে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৭০, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪২০]

৬৫০১

সুলাইমান আত্ তাইমী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

এ সানাদে অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। আর তিনি মুতামির [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] কর্তৃক বর্ণিত হাদীসে এটুকু বাড়িয়ে বলেছেন, “আল্লাহ্‌র কসম! আমাদের সাথে যেন সে উট্নীটি না থাকে, যার উপর আল্লাহ্‌র পক্ষ থেকে অভিশাপ বর্ষণ করা হয়েছে, কিংবা তিনি এরূপ কিছু বলেছেন।” [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৭১, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪২১]

৬৫০২

আবু হুরায়রাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ একজন সিদ্দীকের পক্ষে অভিসম্পাতকারী হওয়া সমীচীন নয়। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৭২, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪২২]

৬৫০৩

আলা ইবনি আবদুর রহমান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] সূত্রে হইতে বর্ণীতঃ

অত্র সানাদে অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৭২, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪২৩]

৬৫০৪

যায়দ ইবনি আসলাম [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

আবদুল মালিক ইবনি মারওয়ান উম্মু দারদাহ্ [রাদি.]-এর নিকট তার নিজের পক্ষ থেকে সৌন্দর্য বর্ধক কিছু গৃহ সামগ্রী পাঠালেন। এক রাতে আবদুল মালিক নিদ্রা থেকে জেগে তার খাদিমকে ডাকলেন। সে তার নিকট আসতে দেরি করলে তিনি তাকে অভিসম্পাত করিলেন। রাত্রি শেষে উম্মু দারদাহ্ [রাদি.] তাঁকে বলিলেন, আমি শুনলাম যখন আপনি রাতে আপনার খাদিমকে ডেকেছিলেন তখন তাকে লানাত করিয়াছেন। অতঃপর তিনি বলিলেন, আমি আবু দারদাহ্ [রাদি.]-কে বলিতে শুনেছি যে, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ অভিসম্পাতকারীরা কিয়ামাত দিবসে সুপারিশকারী কিংবা সাক্ষ্যদাতা হইতে পারবে না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৭৩, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪২৪]

৬৫০৫

যায়দ ইবনি আসলাম [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

অত্র সানাদে হাফস্ ইবনি মাইসারাহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর হাদীসের অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৭৪, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪২৫]

৬৫০৬

আবু দারদাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছি যে, অভিসম্পাতকারীরা কিয়ামাত দিবসে সাক্ষী ও সুপারিশকারী হইতে পারবে না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৭৫, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪২৬]

৬৫০৭

আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহকে বলা হলো, হে আল্লাহর রসূল [সাঃআঃ]! আপনি মুশরিকদের উপর বদ্‌দুআ করুন। তিনি বলিলেন, আমি তো অভিসম্পাতকারীরূপে প্রেরিত হইনি; বরং প্রেরিত হয়েছি রহ্‌মাত স্বরূপ। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৩৭৬, ইসলামিক সেন্টার- ৬৪২৭]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply