নতুন লেখা

অহমিকার বশে [ গিরার নীচে ] বস্ত্র ঝুলিয়ে রাখা নিষিদ্ধ

অহমিকার বশে [ গিরার নীচে ] বস্ত্র ঝুলিয়ে রাখা নিষিদ্ধ

অহমিকার বশে [ গিরার নীচে ] বস্ত্র ঝুলিয়ে রাখা নিষিদ্ধ >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৯. অধ্যায়ঃ অহমিকার বশে [ গিরার নীচে ] বস্ত্র ঝুলিয়ে রাখা নিষিদ্ধ এবং যতটুকু ঝুলিয়ে রাখা বৈধ ও মুস্তাহাব তার আলোচনা

৫৩৪৬

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে লোক দম্ভ করে তার বস্ত্র [পায়ের গিরার নীচে] ঝুলিয়ে রাখে, আল্লাহ তার প্রতি [রহ্‌মাতের দৃষ্টিতে] লক্ষ্য করবেন না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৭৮, ইসলামিক সেন্টার- ৫২৯২]

৫৩৪৭

ইবনি উমর [রাদি.] এর সানাদ হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] থেকে মালিক [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] – এর হাদীসের অবিকল বর্ণনা করিয়াছেন। কিন্তু তাঁরা কিয়ামাত দিবসে উক্তিটি অতিরিক্ত উল্লেখ করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৭৯, ইসলামিক সেন্টার- ৫২৯৩]

৫৩৪৮

আবদুল্লাহ ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি অহমিকাবশতঃ তাহাঁর কাপড়গুলো [টাখনুর নীচে] ঝুলিয়ে দেবে, কিয়ামাতের দিনে আল্লাহ তার প্রতি [রহ্‌মাতের নযরে] দৃষ্টি দিবেন না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮০, ইসলামিক সেন্টার- ৫২৯৪]

৫৩৪৯

ইবনি উমর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] সানাদ হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] থেকে উল্লেখিত রাবীদের হাদীসের অবিকল বর্ণনা করিয়াছেন। [ ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮১, ইসলামিক সেন্টার- ৫২৯৫]

৫৩৫০

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে লোক দম্ভভরে তার বস্ত্র [টাখনুর নীচে] ঝুলিয়ে রাখবে, কিয়ামাতের দিনে আল্লাহ তার দিকে [রহমাতের] দৃষ্টি দিবেন না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮২, ইসলামিক সেন্টার- ৫২৯৬]

৫৩৫১

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে বলিতে শুনেছি। রাবী উপরোক্ত হাদীসের হুবহু বর্ণনা করেন। তবে তিনি … এর পরিবর্তে … বলেছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮৩, ইসলামিক সেন্টার- ৫২৯৭]

৫৩৫২

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি এক লোককে তার লুঙ্গি [টাখ্‌নুর নীচে] ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে বলিলেন, তুমি কোন্‌ কওমের লোক? সে তার বংশ পরিচয় দিল। বোঝা গেল সে বানী লায়স সম্প্রদায়ের লোক। তাকে তিনি চিনতে পারলেন। তিনি বলিলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] কে আমার এ দুটি কানে বলিতে শুনেছি, যে লোক তার লুঙ্গি ঝুলিয়ে চলাফেরা করে আর এর মাধ্যমে শুধু অহঙ্কার প্রকাশ করিতে চায় তাহলে কিয়ামাতের দিনে আল্লাহ তার প্রতি [রহ্‌মাতের] দৃষ্টি দিবেন না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮৪, ইসলামিক সেন্টার- ৫২৯৮]

৫৩৫৩

ইবনি উমর [রাদি.] এর সানাদ হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] হইতে হুবহু রিওয়ায়াত করেন। তবে আবু ইউনুস মুসলিম আবিল হাসান থেকে হাদীস বর্ণনা করেছে তাদের সকলের বর্ণনায় আছে- … . বাক্যটি , তারা … শব্দটি বলেননি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮৫, ইসলামিক সেন্টার- ৫২৯৯]

৫৩৫৪

মুহাম্মাদ ইবনি আব্বাদ ইবনি জাফার [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি উমর [রাদি.] এর কাছে এ কথা জানার জন্য নাফি ইবনি আবদুল হারিস [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর মুক্তকৃত দাস মুসলিম ইবনি ইয়াসারকে নির্দেশ প্রদান করলাম যে, আপনি কি নবী [সাঃআঃ] থেকে সে লোক সম্পর্কে কিছু শুনেছেন, যে লোক দম্ভভরে তার লুঙ্গি ঝুলিয়ে চলে? তখন আমি তাদের উভয়ের মাঝেই উপস্থিত ছিলাম। তিনি [ইবনি উমর [রাদি.]] বলিলেন, আমি তাঁকে {নবী [সাঃআঃ] কে} বলিতে শুনেছি যে, কিয়ামাতের দিনে আল্লাহ তার দিকে [রহ্‌মাতের] দৃষ্টিপাত করবেন না। [ ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮৬, ইসলামিক সেন্টার- ৫৩০০]

৫৩৫৫

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এর নিকট দিয়ে যাচ্ছিলাম। আমার লুঙ্গিটি একটু ঝুলানো অবস্থায় ছিল। তিনি বলিলেন, হে আবদুল্লাহ! তোমার ইয়ারটি [লুঙ্গি বা পায়াজামা] উপরে উঠও। সে সময় আমি তা উপরে উঠালে তিনি আবার বললেনঃ আরো উপরে। আমি আরো উপরে তুললাম। তখন থেকেই সব সময় আমি এর ব্যাপারে সজাগ থাকি। উপবিষ্ট লোকদের একজন বলিল, কত উপরে [তুলেছিলেন]? তিনি বলিলেন [নিস্‌ফ সাক] {১} অর্ধ গোছা পর্যন্ত। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮৭, ইসলামিক সেন্টার- ৫৩০১]

{১} পায়ের গিরার প্রায় ছয় আঙ্গুল উপরি অংশকে নিস্‌ফ সাক বলে।

৫৩৫৬

মুহাম্মাদ ইবনি যিয়াদ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি আবু হুরায়রা্‌ [রাদি.] কে বলিতে শুনেছি- [তিনি বাহরাইনের গভর্নর ছিলেন], একবার তিনি লক্ষ্য করিলেন, এক লোক লুঙ্গি ঝুলিয়ে চলছে আর পা মাটিতে মেরে বলছেঃ গভর্নর এসেছেন, গভর্নর এসেছেন। … রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহ সে ব্যক্তির প্রতি রহ্‌মাতের দৃষ্টিতে দেখবেন না, যে তার লুঙ্গি ঝুলিয়ে চলে অহংকার বশে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮৮, ইসলামিক সেন্টার- ৫৩০২]

৫৩৫৭

মুহাম্মাদ ইবনি বাশশার ও ইবনিল মূসান্না [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] শুবাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

মুহাম্মাদ ইবনি বাশশার ও ইবনিল মূসান্না [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] শুবাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] থেকে উল্লিখিত সুত্রে হাদীসটি রিওয়ায়াত করেন। তবে ইবনি জাফর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর হাদীসে আছে মারওয়ান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] আবু হুরায়রা [রাদি.] কে তার স্থলাভিষিক্ত করেন। আর ইবনিল মূসান্না [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] এর হাদীসে আছে, “আবু হুরায়রা [রাদি.] মদিনার গভর্নর ছিলেন । [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫২৮৯ ই.সে ৫৩০৩]

About halalbajar.com

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Check Also

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে”

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে” মহান আল্লাহর …

Leave a Reply

%d bloggers like this: