জুমার দিনে যে ব্যক্তি খুতবাহ শ্রবণ করে এবং চুপ থাকে তার মর্যাদা

জুমার দিনে যে ব্যক্তি খুতবাহ শ্রবণ করে এবং চুপ থাকে তার মর্যাদা

জুমার দিনে যে ব্যক্তি খুতবাহ শ্রবণ করে এবং চুপ থাকে তার মর্যাদা >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৮. অধ্যায়ঃ জুমার দিনে যে ব্যক্তি খুতবাহ শ্রবণ করে এবং চুপ থাকে তার মর্যাদা

১৮৭২

আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেনঃ যে ব্যক্তি গোসল করে জুমার সলাতে আসল, অতঃপর সাধ্যমত [সুন্নাত] নামাজ আদায় করিল, অতঃপর ইমামের খুত্‌বাহ্‌ শেষ হওয়া পর্যন্ত নীরব থাকল, অতঃপর ইমামের সাথে [জুমার] নামাজ আদায় করিল, এতে তার দু জুমার মধ্যকার দিনসমূহের এবং আরো তিন দিনের পাপ ক্ষমা করে দেয়া হয়। [ই.ফা.১৮৫৭,ইসলামিক সেন্টার-১৮৬৪]

১৮৭৩

আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি উত্তমরূপে ওযূ করার পর জুমার সলাতে এলো, নীরবে মনোযোগ সহকারে খুতবাহ্‌ শুনল, তার পরবর্তী জুমুআহ্‌ পযর্ন্ত এবং আরো অতিরিক্ত তিন দিনের পাপ ক্ষমা করে দেয়া হয়। আর যে ব্যক্তি [অহেতুক] কঙ্কর স্পর্শ করিল সে অনর্থক, বাতিল, ঘৃণিত ও প্রত্যাখ্যানযোগ্য কাজ করিল। [ই.ফা.১৮৫৮, ইসলামিক সেন্টার-১৮৬৫]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply